ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ৪:১০:২২

Ekushey Television Ltd.

আট ব্যাংকে নিয়োগ: দুই কেন্দ্রের পরীক্ষা ২০ জানুয়ারি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:১২ পিএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ১১:০০ পিএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার

ছবি: আট ব্যাংকের পরীক্ষায় মিরপুরের শাহ আলী মহিলা কলেজ কেন্দ্রের একটি দৃশ্য।

ছবি: আট ব্যাংকের পরীক্ষায় মিরপুরের শাহ আলী মহিলা কলেজ কেন্দ্রের একটি দৃশ্য।

রাষ্ট্রায়ত্ত আট ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষায় দুটি কেন্দ্রের পাঁচ হাজার ৬শ চাকরিপ্রার্থী আসন সঙ্কটের কারণে পরীক্ষা দিতে পারেননি। পরে তাদের জন্য আগামী ২০ জানুয়ারি পরীক্ষার নতুন তারিখ ঠিক করেছে কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর বিভিন্ন কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত এ আট ব্যাংকে সিনিয়র অফিসার, অফিসার ও ক্যাশ অফিসার পদে এই সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগকে। এ ব্যাংকগুলোতে মোট ১৬৬৩টি শূন্য পদে নিয়োগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

এ বিষয়ে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ও বাংলাদেশ ব্যাংকের মহা ব্যবস্থাপক মো. মোশাররফ হোসেন খান গণমাধ্যমকে জানান, দুটি কেন্দ্রে চাকরিপ্রত্যাশীর পরীক্ষা দিতে পারেননি। কেন্দ্র দুটি হলো- মিরপুর বাংলা কলেজ কেন্দ্রে চার হাজার এবং মিরপুর শাহ আলী মহিলা কলেজ কেন্দ্রে ১৬শ’ জন পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি।

তিনি বলেন, এ পরিস্থিতিতে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটির জরুরি বৈঠকে সিদ্ধান্ত সেয়, আগামী ২০ জানুয়ারি বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৪টায় একই কেন্দ্রে তাদের পরীক্ষা নেওয়া হবে। এ সিদ্ধান্ত অন্য কেন্দ্রের পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব ফেলবে না বলেও জানান তিনি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী আসাদুজ্জামান জানান, এ নিয়োগ পরীক্ষায় তার বোনের সিট পরেছিল মিরপুর শাহ আলী মহিলা কলেজ কেন্দ্রে। বোনকে নিয়ে তিনি নির্ধারিত সময়ের আগেই কেন্দ্রে পৌঁছে গিয়েছিলেন। কিন্তু গণ্ডগোলের মধ্যে ওই কেন্দ্রে আর পরীক্ষাই হয়নি। 

এক বেঞ্চে ৮-১০ জন বসিয়েছে, এতে সবাই ক্ষুব্ধ হয়ে বেরিয়ে আসে। অনেকে ওএমআর শিট নিয়েই ফিরে গেছে। এই কেন্দ্রের কেউই পরীক্ষা দিতে পারেনি। পরীক্ষায় অংশ নিতে না পেরে প্রার্থীরা ওই কলেজের সামনের সড়কে বিক্ষোভ করেন বলে জানান আসাদুজ্জামান।

পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মিরপুর বাংলা কলেজের পরিস্থিতিও ছিল প্রায় একই রকম।

শাহ আলী থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন,“জায়গা না হওয়ায় কেন্দ্রের ভেতরে ঝামেলা হয়েছে বলে আমরা শুনেছি। পরে ক্ষুদ্ধ পরীক্ষার্থীরা রাস্তায় বিক্ষোভ করে, পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এসেছে।

 

কেআই/টিকে


 
 

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি