ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭ ১০:১১:০৭

‘আহমদ শরীফ অধ্যাপক চেয়ার’ পদে নিয়োগ পেয়েছেন সনজীদা খাতুন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০২:৩০ পিএম, ১৪ জুন ২০১৭ বুধবার | আপডেট: ০৬:০৬ পিএম, ১৮ জুন ২০১৭ রবিবার

ছবি: ড. সনজীদা খাতুন

ছবি: ড. সনজীদা খাতুন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগে ‘আহমদ শরীফ অধ্যাপক চেয়ার’ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। প্রথমবারের মত ‘আহমদ শরীফ অধ্যাপক চেয়ার’ পদে নিয়োগ পেয়েছেন বাংলা বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক, বিশিষ্ট সংস্কৃতি সেবী ও গবেষক ড. সনজীদা খাতুন। তিনি এক বছর এই পদে অধিষ্ঠিত থাকাকালে বাংলা বিভাগে গবেষণায় নিয়োজিত থাকবেন।   

ড. সনজীদা খাতুনের জন্ম ১৯৩৩ সালে। জাতীয় অধ্যাপক কাজী মোতাহার হোসেন তাঁর পিতা, মাতা সাজেদা খাতুন। তিনি ১৯৫৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে বিএ অনার্স, ১৯৫৫ সালে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৭৮ সালে তিনি ভারতের বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, শান্তি নিকেতন থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন এবং পরবর্তীতে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি উত্তর গবেষণাও সম্পন্ন করেন। অধ্যাপক সন্জীদা খাতুন বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানসূচক ডি. লিট ‘দেশিকোত্তম’ লাভ করেন ২০০৮ সালে।
 
অধ্যাপক সন্জীদা খাতুনের ২৫টিরও বেশি গ্রন্থ রয়েছে। তিনি ১১টি গ্রন্থ সম্পাদনা করেছেন। সন্জীদা খাতুন ছায়ানট সঙ্গীতবিদ্যায়তনের প্রতিষ্ঠাতাদের একজন। তিনি নালন্দা বিদ্যালয় এবং ব্রতচারী’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। ১৯৫৩ সাল থেকে তিনি বাংলাদেশ বেতার ও ১৯৬৪ সাল থেকে বাংলাদেশ টেলিভিশনের নিয়মিত সঙ্গীতশিল্পী। ১৯৬৮ সালে নজরুলগীতির মিক্সড এক্সটেনডেট প্লে-রেকর্ড এবং ১৯৭০ সালে রবীন্দ্রনাথের দু’টি গানের এক্সটেনডেট প্লে-রেকর্ড পাকিস্তান থেকে বের হয়। ঢাকা এবং কলকাতা থেকে তাঁর অসংখ্য গানের সিডি বের হয়েছে।  
 
১৯৮৮ সালে সনজীদা খাতুনকে কলকাতার ‘টেগোর রিসার্চ ইনস্টিটিউট’ কতৃক ‘রবীন্দ্রতত্ত্বাচার্য’ উপাধিতে ভূষিত করা হয়। একই বছর তাঁকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার কতৃক ‘রবীন্দ্রস্মৃতি পুরস্কার প্রদান করা হয়। বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ১৯৯০ সালে তাঁকে একুশে পদক দেওয়া হয়। তিনি ১৯৯৮ সালে বাংলা একাডেমির সা’দত আলী আখন্দ পুরস্কার, ১৯৯৯ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার এবং ২০১০ সালে বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কার অর্জন করেন। ২০০৫ সালে বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির সম্মানজনক ফেলোশিপ লাভ করেন। এছাড়াও, তিনি বেগম জেবুন্নেছা ও কাজী মাহবুব জনকল্যাণ ট্রাস্টের স্বর্ণপদক ও সম্মাননা (১৯৯০), অনন্যা পুরস্কার (২০০০) এবং বিজয় দিবস পদক (২০০৯) লাভ করেন।

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি