ঢাকা, শনিবার, ২২ জুলাই, ২০১৭

ইসরায়েল সীমান্তে হয়রানির শিকার বাংলাদেশের ফুটবলাররা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৩৪ পিএম, ১৭ জুলাই ২০১৭ সোমবার | আপডেট: ০৯:০৭ পিএম, ১৮ জুলাই ২০১৭ মঙ্গলবার

ফিলিস্তিনে খেলতে যাওয়ার আগে সবার আগে যে প্রশ্নটি উঠেছিল তা হচ্ছে নিরাপত্তা। তবে বাংলাদেশ ফুটবল দল ঢাকা ছাড়ার আগেই সব রকমের নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছিল এএফসি। সেই আশ্বাসে বাংলাদেশ দল এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে খেলতে ফিলিস্তিনে গেছে। কিন্তু নিরাপদে ফিলিস্তিনে পৌঁছালেও ইসরায়েল সীমান্তে বেশ ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে বাংলাদেশের ফুটবলারদের।

বিমানে সরাসরি ফিলিস্তিনে যেতে পারেনি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের সদস্যরা। প্রথমে নেপাল ও কাতারে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে তারপর দুবাই যান ফুটবলাররা। পরে দুবাই থেকে বিমানে করে জর্ডান যায় বাংলাদেশ দল। সেখান থেকে ইসরায়েলের সীমান্তের ভেতর দিয়ে বাসে ১২ ঘণ্টার ভ্রমণ শেষে পৌঁছায় ফিলিস্তিনে।

ইসরায়েল সীমান্তে ছিল কড়াকড়ি নিরাপত্তা। যদিও এই ভ্রমণসূচির ব্যাপারে ইসরায়েলকে আগেই জানিয়েছিল এএফসি (এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন)। তারপরও ফুটবলাররা বিড়ম্বনায় পড়েন সেখানে। দলের ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু ইসরায়েল সীমান্তে ভোগান্তিতে বেশ হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, শেষ পর্যন্ত আমরা ফিলিস্তিনে পৌঁছেছি। ইসরায়েল সীমান্তে আমরা প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা ভোগান্তিতে পড়েছিলাম। এটা আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যজনক।

আগামীকাল ১৮ জুলাই (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচটি খেলবে জর্ডানের সঙ্গে। এরপর ২১ জুলাই তাজিকিস্তান ও ২৩ জুলাই ফিলিস্তিনের সঙ্গে খেলবেন বাংলাদেশের যুবারা।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ১৬তম আসর থেকে এএফসি কাপ এশিয়ার বাইরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ডব্লিউএন

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি