ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭ ১১:৫৯:৩৯

একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠায় বিচার বিভাগ নিয়ে বিষোদগার: ফখরুল

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৫:০৭ পিএম, ২৬ আগস্ট ২০১৭ শনিবার | আপডেট: ১০:১৬ পিএম, ২ অক্টোবর ২০১৭ সোমবার

দেশে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রবর্তন করতেই আওয়ামী লীগ নেতারা প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে বিষোদগার করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।


শনিবার এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে আওয়ামী লীগ যে ধরনের কথা-বার্তা বলছে এবং তারা যে কার্যক্রম করছে, আমি মনে করি তা আইনের শাসনের বিরোধী ও আদালত অবমাননার শামিল। এর উদ্দেশ্য হচ্ছে একটাই, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নষ্ট করে দিয়ে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রবর্তন করা। যেটা এদেশের মানুষ কখনোই মেনে নেবে না।


সদ্য কারামুক্ত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলুকে নিয়ে শনিবার প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বিএনপির শীর্ষ এই দুই নেতা এসব কথা বলেন।


এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ আইনের শাসনে বিশ্বাস করে না।


মির্জা ফখরুল আরও বলেন, আওয়ামী লীগ প্রত্যেক নেতা প্রধান বিচারপতিকে লক্ষ্য করে অশালীন ভাষায় কথাবার্তা বলছে। আমি মনে করি যে, সম্পূর্ণ বেআইনি ভাষায় কথা বলছে এবং এটা আদালত অবমাননা করা হচ্ছে।


রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের সংলাপে দেশের রাজনৈতিক সংকটের কোনো সুরাহা হবে না বলেও জানান বিএনপির মহাসচিব।


সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর্যবেক্ষণের পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার বৈধতা হারিয়েছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তাদের পদত্যাগ করা উচিৎ।


রায়ের পর বিএনপি যে স্বপ্ন দেখেছিল সেটি উল্টে গেছে- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ফখরুল বলেন, এই রায়ের মাধ্যমে সরকারের আসল চেহারা পরিষ্কার বেরিয়ে গেছে। এই কারণে তারা এই সমস্ত অমূলক কথা-বার্তা বলছেন।”


নির্বাচন কমিশনের সংলাপ নিয়ে বিএনপি আশাবাদী নয় বলেই ফুটে ওঠে দলটির মহাসচিবের কথায়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব হাবিবউন নবী খান সোহেল, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, মীর সরফত আলী সপু, ঢাকা মহানগরের নেতা কাজী আবুল বাশার, আহসানউল্লাহ হাসান, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মামুন হাসান, এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, গোলাম মাওলা শাহিন, ছাত্রদলের আকরামুল হাসান প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

//এআর


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি