ঢাকা, সোমবার, ২৮ মে, ২০১৮ ১:৫৪:০৯

Ekushey Television Ltd.

কোটা সংস্কার আন্দোলন : হুমকিদাতাদের বিচার দাবি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৫:২৮ পিএম, ১৬ মে ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ০৪:৪৩ পিএম, ১৯ মে ২০১৮ শনিবার

কোটা সংস্কার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। হুমকিদাতাদের বিচার দাবি করেছে কোটা আন্দোলনকারীদের প্লাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

আজ বুধবার  দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রাজু ভাস্কর্যের সামনে  সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কোটা আন্দোলনের নেতারা এ অভিযোগ ও বিচার দাবি করেন। 

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক বলেন, ‘গতকাল দিবাগত রাত ২টার দিকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি ইমতিয়াজ বুলবুল বাপ্পীর নেতৃত্বে ছাত্রলীগের চারুকলা অনুষদের সাধারণ সম্পাদক ফাহিম ইসলাম লিমন এবং মুহসীন হলের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সানী আমার ১১৯ নম্বর কক্ষে এসে আমাকে হুমকি দিয়ে গেছে। এসময় আমার সঙ্গে আমার সহকর্মী রাশেদ ছিল। তারা আমাদেরকে শিবির আখ্যায়িত করে বিভিন্ন হুমকি দেয়। নূর আরও বলেন, ‘এর আগে যে ন্যাক্কারজনক হামলা আমাদের ওপর করা হয়েছে সেই হামলা পৃথিবীর ইতিহাসে কোনও ছাত্র নেতৃত্বের ওপর করা হয়নি।  আমাদের এখনও বিভিন্নভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। তাই আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। সরকারের কাছে আমরা আমাদের নিরাপত্তা দাবি করছি। এসব সন্ত্রাসীরা যেকোনও সময় আমাদের হত্যা করতে পারে। সেজন্য সরকারের কাছে আমরা পুলিশ প্রোটেকশনের দাবি জানাই।’

সংবাদ সম্মেলনে আহ্বায়ক হাসান আল মামুন বলেন, ‘গতকাল রাতে যারা আমার সহকর্মীকে হুমকি দিয়েছে তারা সবাই কোটাধারী। তারা বিভিন্ন সময় এই আন্দোলনকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করেছে। তাই আমরা সরকারের কাছে অনুরোধ জানাবো তাদেরকে দ্রুত বিচারের আওতায় আনার জন্য।

যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ বলেন, ‘গতকাল ছাত্রলীগের নেতারা আমাদের হুমকি দেওয়ার পরে আমরা সে  কথা মুহসীন হলের প্রভোস্টকে জানাই। পরে তিনি সারারাত আমাদের সঙ্গে রুমে অবস্থান করেছেন। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।’

মুহসীন হলের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সানী  বলেন, ‘আমাদের নামে যে অভিযোগ করা হয়েছে সেটা সম্পূর্ণ মিথ্যা। বাপ্পী ভাইয়ের সঙ্গে একটা ঝামেলা হয়েছিল। আমি হলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সেখানে গিয়েছি। নূর আমাদের সঙ্গে অনেক বাজে ব্যবহার করেছে। আমরা তার অনেক সিনিয়র। এটা একটা ইস্যু বানানোর জন্য তারা এ অভিযোগ করেছে।’

সংবাদ সম্মেলনের আগে কোটা আন্দোলনকারীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিলটি কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে শুরু হয়ে ডাকসু, কলাভবন হয়ে রোকেয়া হলের সামনে গিয়ে টিএসসিতে গিয়ে শেষ হবে। এরপর সংবাদ সম্মেলন শেষ হলে তারা শাহাবাগ থানায় জিডি করতে যান।

 টিআর/ এআর

 



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি