ঢাকা, বুধবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ১৫:০০:৫৫

Ekushey Television Ltd.

কোটা সংস্কার: এবার রাজপথে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০২:৫৫ পিএম, ১০ এপ্রিল ২০১৮ মঙ্গলবার

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে এবার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সড়ক অবরোধ করে আন্দোলনে নেমেছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। রাজধানীর সোবহানবাগে ড্যাফোডিল ইউনিভারসিটির শিক্ষার্থীরা, যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে নর্থ সাউথ (এনএসইউ) ও আমেরিকান ইন্টারন্যাশল ইউনিভারসিটি অব বাংলাদেশের (এআইইউবি) শিক্ষার্থীরা এবং রামপুরা ব্রিজের পূর্ব পাশে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভারসিটির শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন।
মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ১২টার মধ্যে শিক্ষার্থীরা মিছিল করতে কোটা সংস্কারের দাবি সম্বলিত পোস্টার হাতে নিয়ে সড়ক অবরোধ করেন। এতে সংশ্লিষ্ট এলাকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে রাস্তায় তীব্র যাটজটের সৃষ্টি হয়েছে।
ইতোমধ্যে রাজধানীর ডেফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকশ` শিক্ষার্থী কোটা সংস্কারের দাবিতে ক্যাম্পাসের সামনে অবরোধ কর্মসূচি পালন করছেন। এতে ধানমন্ডি-মিরপুর রুটের এক লেনে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কারের দাবিতে ধানমন্ডি-মিরপুর রুটের ক্যাম্পাস অংশ অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে। এতে শত শত শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশা করছেন আন্দোলনকারীরা।
কেউ মাথায় লাল-সবুজের পতাকা বেঁধে, কেউ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি গলায় ঝুলিয়ে নানা স্লোগানে প্রকম্পিত করে তুলছে ধানমন্ডি ২৭ এলাকা। জয় বাংলা স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠেছে ক্যাম্পাস প্রাঙ্গন। তাদের স্লোগানে উঠে এসেছে, ‘বঙ্গবনধুর বাংলায়, কোটা প্রথার স্থান নাই, আমাদের দাবি আমাদের দাবি, মানতে হবে মেনে নাও, কোটা দিয়ে কামলা নয়, মেধা দিয়ে আমলা চাই`।
আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাজধানীর প্রায় সবকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কারের আন্দোলনে অংশ নিচ্ছেন। ইতোমধ্যে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ফেসবুক পেজগুলোতে আন্দোলনের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কোন কোন জায়গায় তারা অবস্থান নিবে সে বিষয়ে গ্রুপগুলোতে জানানো হয়েছে।
ইস্টওয়েস্ট ইউনিভারসিটির রেজিস্টার মুশহিকুল ইসলাম জানান, শিক্ষার্থীরা সোমবার কোটা সংস্কারের দাবিতে কিছুক্ষণ ক্যাম্পাসের গেটের সামনে অবস্থা করছিল। আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রামপুরা ব্রিজের ওপর তারা অবস্থান করছে।
ড্যাফোডিল ইউনিভারসিটির গণসংযোগ কর্মকর্তা হাবিব বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা সাড়ে ১১টার দিকে ধানমন্ডি ক্যাম্পাসে জড়ো হয়। এর কিছুক্ষণ পর তারা মিরপুর রাস্তায় অবস্থান নেয়।’
শেরে বাংলা নগর থানার ওসি গোপাল গণেশ বিশ্বাস বলেন, ‘ড্যাফোডিলের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমেছিল। আমরা তাদের ক্যাম্পাসের ভেতরে ঢুকিয়ে দিয়েছি। তারা ভেতেরেই আন্দোলন করছেন।’
এ বিষয়ে বাড্ডা থানার ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন,  ‘শিক্ষার্থীরা সড়কের এক পাশ বন্ধ করে রেখেছেন। আমরা তাদের বুঝিয়ে ক্যাম্পাসে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা করছি।’
ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সপ্তম সেমিস্টারের সিএসই বিভাগের শিক্ষার্থী ফারদিন জানিয়েছেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে যে সিদ্ধান্ত আসবে আমরা সেটা বিবেচনা করবো। এখানে আমরা ৫টা পর্যন্ত রাস্তা অবরোধ করছি। সিদ্ধান্ত আসলে আরও সময় বাড়ানো হবে।’বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, মতিয়া চৌধুরীর বক্তব্য প্রত্যাহার এবং কোটা সংস্কারের দাবিতে তারা বিক্ষোভ করছে। বিকাল ৫টা পর্যন্ত এভাবেই তারা বিক্ষোভ চালিয়ে যাবে।
প্রসঙ্গত, রোববার দুপুর ২টায় ঢাবি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের পদযাত্রা শুরু হয়। পরে রাজু ভাস্কর্য হয়ে নীলক্ষেত ও কাঁটাবন ঘুরে পদযাত্রাটি শাহবাগ মোড়ে আসে। বিকাল ৩টা থেকে সেখানেই অবস্থান নেন। এ সময় শাহবাগের আশপাশের সড়ক দিয়ে গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। অবস্থান ধরে রাখলে রাত পৌনে ৮টার দিকে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। এ সময় কয়েকজনকে আটকও করে পুলিশ। এরপরই পুলিশ আন্দোলনকারীদের ধাওয়া দেয়। এ সময় পুলিশ ও আন্দোলনকারীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে রাতে পুলিশ শিক্ষার্থীদের উপর হামলা চালালে ঢাবি রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সোমবার সেতুমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকরে পর আন্দোলন এক মাস স্থগিত করে একটি অংশ। তবে অন্য একটি অংশ আজও ঢাবিতে আন্দোলন করছেন। আজ তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।
/এআর /



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি