ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১১:৩০:১৯

ঘুরে আসুন বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০২:১৫ পিএম, ১৩ জুলাই ২০১৭ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৯:০৫ পিএম, ২৫ জুলাই ২০১৭ মঙ্গলবার

ঢাকা থেকে ঐতিহ্যবাহী ভাওয়াল গড়ের দূরত্ব মাত্র ৪০ কি.মি.। জীববৈচিত্র্য সমৃদ্ধ এই স্থানটি সব সময়ই পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় স্থান। এমন একটি জায়গায় গড়ে তোলা হয়েছে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক। পশু-পাখির অনেকটা কাছাকাছি আসার অনুভূতি পাবেন বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে। গাড়ির ভেতর বসে দেখতে পাবেন নানান রকম পশু-পাখি।

ইচ্ছে করলে আপনি যে কোনো দিন পরিবার কিংবা বন্ধুদের নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন গাজীপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক থেকে।

এটি শুধু বাংলাদেশ নয়, এশিয়ার বৃহত্তম সাফারি পার্ক। উন্নত বিশ্বের আধুনিক সাফারি পার্কের ন্যায় ৩৬৯০ একর জায়গা নিয়ে এটি তৈরি করা হয়েছে। পার্কে ১২২৫ একর জায়গা নিয়ে স্থাপন করা হয়েছে কোর সাফারি, ৫৬৬ একর জায়গা নিয়ে সাফারি কিংডম, ৮২০ একর জায়গা নিয়ে বায়োডাইভার্সিটি, ৭৬৯ একর এলাকা নিয়ে এক্সটেন্সিভ এশিয়ান সাফারি এবং ৩৮ একর এলাকা নিয়ে বঙ্গবন্ধু স্কয়ার। পার্কে বন ও অবমুক্ত প্রাণির নিরাপত্তার জন্য ২৬ কিলোমিটার বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ করা হয়েছে। দেশি-বিদেশি পর্যটক গাড়িতে বসে বিচরণ অবস্থায় বন্যপ্রাণী দেখতে পারবেন। পার্কে অবমুক্ত করা হয়েছে বাঘ, সিংহ, ভালুক চিত্রা হরিণ, মায়া হরিণ, জেব্রা, জিরাফ, ওয়াইল্ডবিষ্ট, ব্লেসবক, উটপাখি, ইমু প্রভৃতি।

এ পার্কে স্থাপন করা হয়েছে আন্তর্জাতিকমানের প্রকৃতিবীক্ষণ কেন্দ্র। এখান থেকে বন ও প্রাণী বৈচিত্র্য সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে। এছাড়া তথ্য ও শিক্ষাকেন্দ্র, নেচার হিস্ট্রি মিউজিয়াম, পার্ক অফিস, বিশ্রামাগার, ডরমেটরি, বন্যপ্রাণী হাসপাতাল, কুমিরপার্ক, লিজার্ড পার্কসহ ঝুলন্ত ব্রিজ, বাঘ পর্যবেক্ষণ রেস্তরাঁ, সিংহ পর্যবেক্ষণ রেস্তরাঁ, কচ্ছপ প্রজনন কেন্দ্র, ইকো রিসোর্ট, ফুডকোর্টসহ আরও অনেক কিছু। পর্যটকদের সুবিধার জন্য রয়েছে বাস ও সাফারি জীপ।

সাফারি বাস ও জীপে পর্যটকরা প্রাকৃতিক পরিবেশে বিচরণরত বাঘ, সিংহ ও ভালুক দেখতে পারবেন। এছাড়াও দেখা যাবে জিরাফ, জেব্রা, ব্লু ওয়াইল্ডবিস্ট, ব্ল্যাক ওয়াইল্ডবিস্ট, ব্লেস বকসহ বিভিন্ন প্রাণি।

পার্কে প্রবেশ ফি  

প্রবেশ ফি বয়স্কদের জন্য ৫০ টাকা, অপ্রাপ্তবয়স্কদের ২০ টাকা, শিক্ষার্থীদের ১০ টাকা, শিক্ষা সফরে আসা শিক্ষার্থী গ্রুপ ৪০ থেকে ১০০ জন ৪০০ টাকা, আর যদি শিক্ষার্থী গ্রুপ ১০০ জনের বেশি হয় তাহলে ৮০০ টাকা এবং বিদেশি পর্যটকদের জন্য পাঁচ ইউএস ডলার।

এই প্রবেশ ফি দিয়ে পার্কে ঢুকলেই আপনি সব দেখতে পাবেন না। পার্কে প্রবেশের পর সবকিছু দেখার জন্য আলাদা টিকেট কাটতে হবে। যেমন গাড়িতে সাফারি পার্ক পরিদর্শন করতে চাইলে অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য লাগবে ৫০ টাকা, বড়দের ১০০ টাকা। এছাড়া ক্রাউন্ড ফিজ্যান্ট এভিয়ারি পরিদর্শন ১০ টাকা, ধনেশ এভিয়ারি ১০ টাকা, প্যারট এভিয়ারি ১০ টাকা।

যেভাবে যাবেন

মহাখালী থেকে ভালুকা, ময়মনসিংহ বা শ্রীপুরের বাসে উঠে গাজীপুরের বাঘের বাজার নামতে হবে। যানজট বিবেচনা সাপেক্ষে ২ ঘণ্টা লাগবে এ বাজারে যেতে। এরপর বাস থেকে নেমে রিকশা বা সিএনজি অটোরিকশায় পার্কে যাওয়া যাবে। মাত্র ২০ মিনিট পরই আপনি পৌঁছে যানে এ পার্কে।

আর/ডব্লিউএন

 

 

এ বিভাগে আপনাদের মতামত ও লেখা পাঠান [email protected]

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি