ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ৬:৪৬:০২

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আলো ছড়াচ্ছে এম এম হক আইডিয়াল স্কুল

ফারুক আহমেদ চৌধুরী

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৫:০৬ পিএম, ১১ আগস্ট ২০১৭ শুক্রবার | আপডেট: ১০:১৯ পিএম, ১১ আগস্ট ২০১৭ শুক্রবার

চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলছে ব্যক্তি উদ্যোগে পরিচালিত এম এম হক আইডিয়াল স্কুল। বিশিষ্ট শিল্পপতি মোজাম্মেল হক নিজ অর্থায়নে গড়ে তুলেছেন আধুনিক মানসম্মত এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। উত্তরের সীমান্তবর্তী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে আদর্শ ও যুগোপযোগী শিক্ষাদানের লক্ষে ২০১২ সালের ৭ই জানুয়ারি পথচলা শুরু করে স্কুলটি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নয়াগোলা এলাকায় স্কুলটির অবস্থান।

বিদ্যালয়টিতে বর্তমানে প্লে শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত ৯০৪ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। প্লে থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ছেলে মেয়ে উভয় শিক্ষার্থীদের অধ্যয়নের সুযোগ রয়েছে। ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত বালিকা বিদ্যালয় হিসেবে রয়েছে।

এক একর জায়গার ওপর ৬ তলা ফাউন্ডেশনে পূর্বপাশে ৩ তলা ভবন ও পশ্চিমে ১ তলা ভবন সম্পূর্ণ হয়েছে। যার মধ্যে ১৬ টি ক্লাসরুম, শিক্ষক মিলনায়াতন, অধ্যক্ষের কক্ষ, অফিসকক্ষ, কম্পিউটার ল্যাব, সাইন্স ল্যাবের জন্য আলাদা কক্ষ রয়েছে। নির্মাণ ব্যয় হয়েছে প্রায় তিন কোটি টাকা। স্কুলটির অবকাঠামো নির্মাণে ১০ কোটি টাকা ব্যয়ের পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব মোজাম্মেল হক। প্রতিমাসে স্কুলটির পরিচালনা প্রায় ৩ লাখ টাকা।

এ স্কুলটিতে ২৩ জন শিক্ষক শিক্ষিকা, ১ জন অফিস সহকারী, ১ জন কম্পিউটার অপারেটর, ১ জন দপ্তরী, ২ জন আয়া, ১ জন নাইট গার্ড রয়েছেন। রয়েছে নিজস্ব পরিবহন ব্যবস্থা। শিক্ষার্থীদের পরিবহনের জন্য রয়েছে ৬ জন ভ্যানচালক ।

আগামীতে স্কুলটিকে কলেজে রুপান্তরিত করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানালেন প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ মোজাম্মেল হকে।

তিনি বলেন, এ প্রতিষ্ঠানটির নামে যথেষ্ট পরিমান টাকা ব্যাংকে ডিপোজিট করা হবে যাতে আমার অবর্তমানে স্কুলটি অর্থাভাবে না পড়ে। দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সামগ্রী জোগান দিতে আলাদা ফান্ড তৈরি করা হবে। আধুনিক ও যুগোপযোগী শিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের সুযোগ পাবে শিক্ষার্থীরা। বিদ্যালয়টির এমপিওভুক্তি বা সরকারি কোনো সুবিধার জন্য সুপারিশ করা হবেনা। যাতে যুগ যুগ ধরে বিদ্যালয়টি শিক্ষার আলো ছড়াতে পারে সে জন্য আমার সন্তানদের প্রতি নির্দেশনা থাকবে।

কথা হয় নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী নুসরাত আকতার নৌসিতা ও দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী জান্নাতুন ফেরদৌসের সাথে। তারা বলেন, এ স্কুলের প্রতিটি শিক্ষক যথেষ্ট যত্নশীল। এ স্কুলে তুলনামুলক দূর্বল শিক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ক্লাসের ব্যবস্থা রয়েছে। শিক্ষাদানের পাশাপাশি আমাদের বিনোদনেরর জন্য সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করেন শিক্ষকরা। আমাদের এ স্কুলটির প্রতিষ্ঠাতা জনাব মোজাম্মেল হক স্যার এজন শিক্ষা অফিসারের দায়িত্ব পালন করে থাকেন। মনিটরিং করতে প্রতিদিন ক্লাস শুরুর সময় আবার ছুটির কিছুক্ষণ আগে দিনে দু`বার  স্কুলে আসেন।

 

অধ্যক্ষ এ কে এম দেলওয়ার জাহান জানান, ব্যক্তি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এম এম হক আইডিয়াল স্কুল শিক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখছে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ শিক্ষা সহায়ক যে কোনো প্রতিযোগিতার জন্য উপযুক্ত করে গড়ে তোলা হয় শিক্ষার্থীদের। প্রতিটি শিক্ষর্থীকে সৃজনশীল শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে আপ্রান চেষ্টা করছি। শতভাগ শিক্ষার্থীকে সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে চাই। প্রত্যাশা প্রতিটি শিক্ষার্থী হবে আলোকিত মানুষ। হবে প্রতিষ্ঠাতার কাঙ্খিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন। 

ডব্লিউএন

 


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি