ঢাকা, শনিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৮ ৭:২৫:১১

Ekushey Television Ltd.

ছাত্রলীগে শীর্ষ পদ প্রত্যাশী ৩২৩ জন ডাক পাচ্ছেন গণভবনে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:০১ এএম, ১৭ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শীর্ষ পদ প্রত্যাশী নেতাদের সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যে ৩২৩ প্রার্থী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের আশায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন তাদেরকে আগামী রোববার ও সোমবার গণভবনে ডাকা হতে পারে বলে আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে।
দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বুধবার রাতে গণভবনে এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
জানা গেছে, ছাত্রলীগে পদ প্রত্যাশীদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। নেতা হিসাবে দায়িত্ব তুলে দেওয়ার আগে তাদের রাজনৈতিক রাজনৈতিক দুরদর্শিতা, সাংগঠনিক দক্ষতা, সংগঠনের প্রতি ত্যাগ, যোগ্যতা ও  প্রতিজ্ঞা পরখ করে দেখবেন শেখ হাসিনা।
নীতিনির্ধারনী ওই বৈঠকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা ছাড়াও ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, ছাত্রলীগের নেতা হতে ইচ্ছুক প্রার্থীদের সাক্ষাতকার নেয়া শেষে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গেও আবার বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে কমিটি ঘোষণা করা হবে। ফলে চলতি সপ্তাহেও হচ্ছে না ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা।
এ মাসের ১১ ও ১২ তারিখে ছাত্রলীগের ২৯ তম সম্মেলন হয়। কমিটি ঘোষণা ছাড়াই শেষ হয় সম্মেলন। সম্মেলনে সভাপতি পদে ১১১ ও সাধারণ সম্পাদক পদের জন্যে ২১২ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। চলতি মাসের ১১ও ১২ তারিখ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। তবে নতুন নেতা নির্বাচন করা ছাড়াই শেষ হয় সম্মেলন।
এর আগে তিন দফা ভোটের মাধ্যমে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতা নির্বাচিত হয়। সারাদেশ থেকে আসা কাউন্সিলররা ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। তবে গত দুই বার ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত হলেও তাদের নিয়ে নানা সমালোচনা হয়। সর্বশেষ দুই বারের কমিটিতে সংগঠনটিতে অনুপ্রবেশ ঘটেছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। সংগঠনের বিরুদ্ধে এসব নানা অভিযোগ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক প্রধান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আমলে নিয়েছেন। পরিপ্রক্ষিতে সংগঠনের নেতৃত্ব নির্বাচনে ভোট প্রক্রিয়া বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন শেখ হাসিনা। এবারের সম্মেলনে তিনি জানান যে, ছাত্রলীগে তার পছন্দের নেতৃত্ব আছে। তবে কারা তাঁর পছন্দের প্রকাশ করেননি। শেখ হাসিনা অন্যদের মত জানতে চেয়েছেন। সবাই একবাক্যে জানিয়ে দিয়েছেন যে, প্রধানমন্ত্রীর পছন্দেই তাদের পছন্দ। তাই জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে ছাত্রলীগ কমিটি নিজের মত করে বেছে নেবেন প্রধানমন্ত্রী।
/ এআর /



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি