ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:৪২:০১

জেলেও রাম রহিমের খবরদারি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৫২ পিএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ১০:৪৮ এএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৭ বুধবার

ভারতের কথিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের জেল জীবন নিয়ে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস করেছেন রাহুল নামে এক ব্যক্তি। কিছু দিন আগেই এ যুবক রোহতক জেল থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। তার দাবি, জেলে নাকি রাজার হালে রয়েছেন রাম রহিম। নিয়ম ভেঙে তাকে বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে। তাকে খাতির-যত্ন করার জন্য আলাদা লোক রাখা হয়েছে।

দুই সন্ন্যাসিনীকে ধর্ষণের দায়ে গত অগাস্ট থেকে স্বঘোষিত ধর্মগুরু রাম রহিমের ঠাঁই হয়েছে রোহতক জেলে। ২০ বছরের সাজা হয়েছে তার। জেলে কীভাবে কাটছে তার দিন? জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর রাম রহিমের রোজনামচা খোলসা করলেন রাহুল।

তার দাবি, রাম রহিমকে জেলের কোনও কাজই করতে হয় না। উল্টো সব সময় বিশেষ সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেন তিনি।

রোহতক জেল থেকে মুক্তি পাওয়া এই যুবকের দাবি, রাম রহিম জেলে আসার পর থেকেই বন্দিদের উপর নানা বিধিনিষেধ জারি হয়। রাম রহিম সেলের বাইরে থাকলে বন্দিরা ইচ্ছামতো কোথাও যেতে বা কথা বলতে পারবেন না বলে অলিখিত নির্দেশিকা জারি হয়।

এ যুবকের অভিযোগ, রাম রহিম জেলে কেবল খবরদারি করে বেড়ায়। রাহুলের কথায়, আমরা কেউই কোনো দিন জেলে রাম রহিমকে কাজ করতে দেখিনি। কোনো দিন কাজ করেছে বলে মনেও হয় না।

রাহুলের আরও অভিযোগ, জেলে দেখা করতে আসা আত্মীয়দের সঙ্গে রাম রহিম ঘণ্টার পর ঘণ্টা কথা বলে। গত মাসেই নাকি এক আত্মীয়ের সঙ্গে দুই ঘণ্টা কথা বলেছেন রাম রহিম। সাধারণত জেলে দেখা করতে আসা পরিজনদের সঙ্গে ২০ মিনিট কথা বলতে পারেন বন্দিরা। কিন্তু রাম রহিমের ক্ষেত্রে এ নিয়ম মানা হয় না।

রাহুলের কথায় রোহতক জেলের কর্মীদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। তবে এ বিষয়ে জেল কর্তৃপক্ষের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস, ২৪ ঘণ্টা  

 

ডিডি


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি