ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই, ২০১৮ ১৯:০৩:৪০

Ekushey Television Ltd.

টিটিকাকার পানির নিচে হচ্ছে জাদুঘর

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৩০ এএম, ৮ জুলাই ২০১৮ রবিবার

পানির পরিমাণ এবং আয়তনের দিক দিয়ে দক্ষিণ আমেরিকার সবচেয়ে বড় জলাশয় টিটিকাকা ৷ পেরু ও বলিভিয়ার মধ্যে অবস্থিত এই লেকটি স্থানীয়দের কাছে বেশ পবিত্র। এই লেকের নীচেই চলছে জাদুঘর বানানোর পরিকল্পনা ৷

লেকের নীচে কী রয়েছে?এর উত্তর জানতে অনেকবার ডুবুরি অভিযানে নেমেছেন বিভিন্ন দেশের অনুসন্ধিৎসু প্রত্নপ্রেমীরা৷ লেকের তলদেশে খোঁজ মিলেছে হাজার হাজার অমূল্য প্রত্নসামগ্রী৷ পরিপ্রেক্ষিতে এবার লেকের নিচে জাদুঘর বানাতে চায় বলিভিয়ার সরকার৷

দেশটির সংস্কৃতিমন্ত্রী উইলমা আলানোকা জানিয়েছেন, ‘এটি একই সাথে একটি পর্যটন কমপ্লেক্স এবং প্রত্নতাত্বিক, ভূতাত্বিক এবং জীববিজ্ঞান বিষয়ক গবেষণার কেন্দ্রও হবে৷ বিশ্বে এটি হবে এই ধরনের প্রথম জাদুঘর৷’

এই জাদুঘর তৈরিতে খরচ হবে ৮ দশমিক ৬ মিলিয়ন ইউরো৷ আর এই কাজে সহায়তা করবে বেলজিয়ামের উন্নয়ন সংস্থা এনাবেল৷

আলানোকা জানিয়েছেন, বেলজিয়াম সরকার এবং ইউনেস্কো এই প্রকল্পে ১ দশমিক ৭ ইউরো অর্থ সহায়তা করবে৷

লোকমুখে প্রচলিত আছে, সূর্য দেবতার ছেলে মানকো কাপাক এবং তাঁর স্ত্রী মামা ওকলো টিটিকাকা লেকের পানি থেকে উঠে এসেছিলেন৷ এ কারণে স্থানীয়দের কাছে এর গুরুত্বও অনেক৷

ইনকা মিথোলজির বেশ বড় অংশ জুড়ে আছেন মানকো কাপাক৷ বিশ্বাস আছে, ত্রয়োদশ শতক থেকে ষোড়শ শতক পর্যন্ত যে ইনকা সভ্যতা ছিল, তার রাজধানী বর্তমানে পেরুর শহর কুসকোর প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন এই কাপাক৷

প্রায় ৮৫০০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে টিটিকাকা লেকের অবস্থান৷ সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এর উচ্চ্তা ৩৮০০ মিটার৷ স্প্যানিশ উপনিবেশ হওয়ার আগ পর্যন্ত বেশ কিছু প্রাচীন সভ্যতার জন্ম দিয়েছে এই লেক৷

সাম্প্রতিক নানা অভিযানে হাড়, সিরামিক, ধাতুর তৈরি প্রায় ১০ হাজারের মতো প্রত্নসামগ্রী, রান্নার সরঞ্জাম এবং মানুষ ও প্রাণীর দেহাবশেষ পাওয়া গেছে৷এর বেশিরভাগই তিওয়ানাকু-পূর্ব সভ্যতা (৩০০ খ্রিস্টাব্দ), তিওয়ানাকু সভ্যতা (৩০০-১১০০ খ্রিস্টাব্দ) এবং ইনকা সভ্যতার(১১০০-১৫৭০ খ্রিস্টাব্দ)সময়কালের৷ জাদুঘরটির অবস্থান হবে রাজধানী লা পাজ থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরে৷

সুত্রঃ ডয়েচে ভেলে

কেআই/ এআর



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি