ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২৩:১৪:১০

তারুণ্য ধরে রাখতে…

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৫:২৯ পিএম, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ রবিবার

রূপ লাবণ্য বাড়াতে তারুণ্য ধরে রাখা চাই। নিয়মিত ত্বকের পরিচর্যা ও কয়েকটি সহজ উপায় মেনে চললে তারুণ্য ঠিক রাখা সম্ভব।


সঠিক পরিচর্যার অভাবে অনেকেই বুড়িয়ে যান অল্প বয়সেই। উল্টোদিকে তাকালে দেখা যায়  অপেক্ষাকৃত বয়স্কদের বেশ ফিট ও ছিমছাম দেখা যায়। শুধু চেহারায় তারুণ্য ধরে রাখতে নয়, পুরো শরীরে চাঙ্গাভাব ধরে রাখতে স্বাস্থ্যসচেতন হওয়া জরুরি। ঠিকমতো ঘুমানো, শারীরিক ব্যায়াম করা, পর্যাপ্ত পানি পান করা, সবুজ সবজি গ্রহণ তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে।

তারুণ্য ধরে রাখতে পানির গুরুত্ব রয়েছে। মানবদেহের ৬০ শতাংশই থাকে পানি। ত্বকের সুস্থতা ও তারুণ্যের জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা বেশি। তারুণ্য ধরে রাখতে কিছু টিপস দেওয়া হলো।


*যেসব পানীয় আপনার কাছে সুস্বাদু সেগুলোই রাখুন খাবারের সঙ্গে। এতে অধিক তরল পান করা হবে।
*পর্যাপ্ত ফল ও সবজি খান। ফল ও সবজিতে প্রচুর মিনারেল থাকে।
*তারুণ্য ধরে রাখতে খাদ্যতালিকায় পরিবর্তন আনা জরুরি। যারা মন থেকেই তারুণ্য ধরে রাখতে চান, তাদের খাবার তালিকায় নিচের খাবারগুলো যোগ করুন।
*মাছ, ওমেগা-৩ ফ্যাট আর আমিষের অন্যতম প্রধান উৎস। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা বেশি করে মাছ খান, তারা দীর্ঘ জীবন পান।
*জলপাই তেলে রয়েছে শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পলিফেনল, যা বার্ধক্যজনিত রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে। জলপাই তেল হার্টঅ্যাটাকের ঝুঁকিও কমায়। এ ছাড়া জলপাই তেলে থাকা ভিটামিন ‘এ’ ও ভিটামিন ‘ই’ ত্বকের কুচকে যাওয়া রোধ করে।
*দইয়ে আছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম। ক্যালসিয়াম হাড়ের ক্ষয়রোধ করে। এ ছাড়া দইয়ে থাকা ব্যাকটেরিয়া হজমের জন্য ভালো। ত্বকে দই মাখালে ব্রণের উপদ্রব থেকেও রেহাই পাবেন। নিয়মিত দই মাখলে ত্বক কোমল হয়। চামড়ায় ভাজ পড়ে না, রোদে পোড়া ভাব ও শুষ্ক ভাব দূর হয়। এ ছাড়া দইয়ে আছে ল্যাকটিক এসিড, যা ত্বকের মরা চামড়া দূর করে।

চেহারায় তারুণ্য ধরে রাখতে করণীয়
অতিরিক্ত ঘুম পরিহার করতে হবে। সাধারণভাবে একজন মানুষের উচিত দৈনিক ৮-৯ ঘণ্টা ঘুমানো। তারুণ্য ধরে রাখার কিছু মেকআপ টিপস :
*ফাউন্ডেশন ব্যবহার করলেই নয়। এটি যাতে ত্বকে ভালোভাবে মিশে যায় সেদিকটাও খেয়াল রাখতে হবে। এতে ত্বক শুধু মসৃণই দেখাবে না; নিজেকে সুন্দরও দেখাবে।
*মুখে কালো দাগ থাকলে সেক্ষেত্রে কনসেলার ব্যবহার করতে পারেন। কারণ এটি সহজেই কালো দাগ ঢেকে ফেলে মুখে একটা ন্যাচারাল লুক নিয়ে আসে। এতে সুন্দর দেখার পাশাপাশি বয়সও অনেক কম মনে হয়।
*ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখতে উন্নতমানের পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। এতে ত্বকের তৈলাক্ত ভাব কমে আসে এবং ত্বক অনেক উজ্জ্বল দেখাবে। চাইলে একটি ট্রান্সসুলেন্ট পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। বয়সের ছাপ দূর করতে কিন্তু ভালো কাজ করে এই পাউডার।
*একজন মানুষের পূর্ণ অভিব্যক্তি প্রকাশ পায় তার চোখেই। কাজেই চোখ সাজানো এড়িয়ে গেলে চলবে না। চোখ সাজাতে মাশকারা, আইলাইনারের মতো অনেক জিনিসই ব্যবহার করতে পারেন।
*শুধু মুখ আর চোখ সাজালেই হবে না, নজর দিতে হবে কিন্তু ঠোঁটের দিকেও। তারুণ্য ধরে রাখতে গাঢ় রঙের অথবা উজ্জ্বল কালারের লিপস্টিক ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন। কারণ এসব কালারে বয়স আরও বেশি মনে হয়। এক্ষেত্রে লিপগ্লোজ ব্যবহার করা বেশি ভালো।
*শুধু সাজের বেলায় নয়, জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই ভারসাম্য বজায় রাখা জরুরি। কাজেই মেকআপ করলেই শুধু হবে না, তা যাতে সুন্দরভাবে মুখের সঙ্গে মিশে থাকে তাও খেয়াল রাখা জরুরি। তাতে নিজেকে আরও বেশি তরুণ মনে হবে।
//সূত্র : বোল্ডস্কাই
//এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি