ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭ ৩:২৭:৫৩

পাথরবোঝাই ট্রাকে সেতু ভেঙে খালে : ১২ পথে যোগাযোগ বন্ধ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:৫৯ পিএম, ১২ আগস্ট ২০১৭ শনিবার | আপডেট: ০৫:২৫ পিএম, ১২ আগস্ট ২০১৭ শনিবার

ভান্ডারিয়া এই সেতুর ধারণক্ষমতা ২০ টন। পাথরবোঝাই ৫০ টন ওজনের দুটি ট্রাক পার হওয়ার সময় সেতুটি ভেঙে যায়। ছবি সংগৃহিত

ভান্ডারিয়া এই সেতুর ধারণক্ষমতা ২০ টন। পাথরবোঝাই ৫০ টন ওজনের দুটি ট্রাক পার হওয়ার সময় সেতুটি ভেঙে যায়। ছবি সংগৃহিত

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় একটি সেতু (বেইলি ব্রিজ) ভেঙ্গে ১২টি পথে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। ২০টন ধারন ক্ষমতার মাদারসী এলাকার এই সেতুতে শুক্রবার গভীর রাতে পাথরবোঝাই দুটি ট্রাক একসঙ্গে পার হওয়ার সময় এটি ভেঙে পড়ে। ওই দুটি ট্রাকের ওজন ছিল ৫০ টন।


পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে পাথরবোঝাই দুটি ট্রাক একসঙ্গে সেতুটি পার হচ্ছিল। এ সময় অতিরিক্ত ওজনের কারণে সেতুটি ভেঙে ট্রাকসহ খালে পড়ে যায়। দুর্ঘটনার পর থেকে যান দুটির চালক পলাতক। সেতুটি ভেঙে পড়ায় মঠবাড়িয়া ও বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার সঙ্গে ঢাকা, বরিশাল, খুলনা, পিরোজপুরসহ ১২টি পথে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

ভান্ডারিয়া এই সেতুর ধারণক্ষমতা ২০ টন। পাথরবোঝাই ৫০ টন ওজনের দুটি ট্রাক পার হওয়ার সময় সেতুটি ভেঙে যায়। ছবি :সংগৃহিত

সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) পিরোজপুর কার্যালয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী ফখরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, সর্বোচ্চ ২০ টন ধারণক্ষমতাসম্পন্ন বেইলি সেতুটি দিয়ে মোট ৫০ টনের পাথরবোঝাই দুটি ট্রাক (প্রতি ট্রাকে ২৫ টন) একসঙ্গে পার হওয়ায় সেতুটি ভেঙে যায়।

ভান্ডারিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘ভেঙে পড়া সেতু দিয়ে মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছিল। আমরা মানুষের চলাচল বন্ধ করে খেয়া নৌকায় পারাপারের ব্যবস্থা করেছি। ঘটনার পর থেকে ট্রাকের চালক পলাতক রয়েছেন। বরিশাল থেকে ক্রেন এনে উদ্ধারকাজ শুরু করা হচ্ছে। সেতুটি দ্রুত পুনঃস্থাপন করা হবে।

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার মাদারসী এলাকার এই বেইলি সেতুটির ধারণক্ষমতা ২০ টন। গতকাল শুক্রবার রাতে পাথরবোঝাই মোট ৫০ টন ওজনের দুটি ট্রাক পার হওয়ার সময় সেতুটি ভেঙে যায়। এতে করে ১২টি পথে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি