ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন, ২০১৮ ২২:০০:৪০

Ekushey Television Ltd.

পুরনো বিমানে ভরসা নেই কিমের

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৭:২৭ পিএম, ১১ জুন ২০১৮ সোমবার

পারিবারিক ঐতিহ্য অনুযায়ী ট্রেনে চলাফেরা করতে বেশি পছন্দ করেন কিম জং উন। কিন্তু সিঙ্গাপুরে যেতে অবশ্যই তাকে বিমানে চড়তে হবে। এদিকে উত্তর কোরিয়া থেকে সিঙ্গাপুরের আকাশসীমার দূরত্ব চার হাজার ৮৩৬ কিলোমিটার। এত বেশি দূরত্বে যাওয়ার জন্য সোভিয়েত আমলের সেই পুরনো বিমান নিতে সাহস পাননি কিম।

এই জন্য ভাড়ায় চালিত এয়ার চায়না ৭৪৭ বিমানে করে সিঙ্গাপুরে যান তিনি। কিমের ব্যক্তিগত বিমানটি ইলসিন-৬২এম জেট মডেলের। দেশটির জাতীয় পাখি গোসহাওয়াকের (বাজপাখি) নামানুসারে বিমানটির নাম চামায়ি-১। এই বিমানে চড়ে ২০১১ সালে প্রথম দুই হাজার ৯৮ কিলোমিটার দূরত্বের দেশ চীনে সফর করেন কিম।

সোভিয়েত আমলের এ বিমানটি ১৯৬০-এর দশকে নির্মাণ করা হয়েছিল। ১৯৬৩ সালে বিমানটি যখন আকাশে উড়েছিল,তখন এটি ছিল বিশ্বের বৃহত্তম বিমান।

সর্বশেষ ১৯৯০-এর মাঝামাঝিতে এই মডেলের কিছু বিমান নির্মিত হয়েছিল। ৫০ মিটার দীর্ঘ এ বিমানটি প্রায় ২০০ যাত্রী বহনে সক্ষম। ইলুসিন-৬২এম বিমানটি ১০ হাজার কিলোমিটার উড়তে সক্ষম। ফলে সিঙ্গাপুরে বিরতিহীন উড়াল দিতে পারবে বিমানটি। কিন্তু পুরাতন মডেলের হওয়ায় এই বিমানের প্রযুক্তিগত সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। একবার ফুয়েল নিয়ে বেশিদূর উড়তে পারে না এটি। মাঝ পথে আবার ফুয়েল হয়। এজন্য নিজের বিমানে ভরসা না পেয়ে ভাড়া বিমানে চড়েন কিম।

অন্যদিকে ট্রাম্পের এয়ার ফোর্স ওয়ান বিমানটি অত্যাধুনিক। ১৯৯০ সাল থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্টদের জন্য বিশেষভাবে নির্মিত বোয়িং ৭৪৭-২০০বি সিরিজের বিমান এটি। একটানা ১২ হাজার ৬শ’ কিলোমিটার উড়তে সক্ষম।

তথ্যসূত্র: বিবিসি।

কেআই/  এসএইচ/

ফটো গ্যালারি



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি