ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২১:৪৬:১৫

পূর্ব-জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের কাছে হস্তান্তরের পক্ষে পশ্চিমারা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৬:৪৫ পিএম, ৭ ডিসেম্বর ২০১৭ বৃহস্পতিবার

পবিত্র ভূমি জেরুজালেমকে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে ভাগ করে দিতে যুক্তি দেখিয়েছেন পশ্চিমা দুনিয়া। জাতিসংঘ থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, পোপ ফ্রান্সিস থেকে অ্যাঙ্গেলা মের্কেল তাদের কেউই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছে না। সবারই একটা চাওয়া, জেরুজালেম সমস্যা যেন জাতিসংঘের গৃহীত নীতিমালা অনুযায়ী সমাধান হয়।

জাতিসংঘের গৃহীত নীতিমালা অনুযায়ী পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের কাছে হস্তান্তরের বিষয়ে মত দিয়েছেন বিশ্ব নেতারা। অন্যদিকে ট্রাম্পের হঠকারী সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেও মুখ খোলেন ওই নেতারা। 

খ্রিস্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা পোপ ফ্রান্সিস এক বিবৃতিতে বলেন, এই পরিস্থিতিতে আমি নীরব থাকতে পারি না। গত কয়েকদিনে যা হচ্ছে, এতে গভীর উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। পবিত্রভূমি জেরুজালেমের মর্যাদার দিকে সবাইকে নজর দিতে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সবাইকে এর প্রতি সম্মান দেখাতে হবে। জাতিসংঘের নীতি অনুযায়ী সবাইকে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান তিনি।

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্টের ঘোষণাকে জাতিসংঘের গৃহীত নীতিমালার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন বলে মনে করছে বিশ্ববাসী।

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেস বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বক্তব্য ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের শান্তি প্রক্রিয়াকে আরও বিপদমুখী করে তুলতে পারে।

এসময় তিনি বলেন, জেরুজালেম বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের সমঝোতার ভিত্তিতে। ট্রাম্পের এ প্রক্রিয়া দুই দেশের মধ্যে আরও উদ্বেগ বাড়াবে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন দুই দেশের মধ্যে পুনরায় শান্তি আলোচনা শুরু করতে আহ্বান জানিয়েছে। সমাধানের জন্য তাদেরকে অবশ্যই একটি পথ বের করতে হবে যাতে জেরুজালেম দুই দেশেরই রাজধানী থাকে। এতে দুই দেশেরই চাওয়া পূর্ণ হবে বলে মন্তব্য করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ মিত্র ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁক্রো বলেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত খুবই দুঃকজনক। যে কোন মূল্যে সংঘাত এঁড়িয়ে চলার আহ্বান জানান তিনি। এদিকে বিশ্বের আরেক শক্তিধর রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী চীনও ট্রাম্পের বিষোদগাঢ় করেছেন। এই সিদ্ধান্ত ওই এলাকায় নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিতে পারে বলেও মন্তব্য করে দেশ দুইটি।

ওয়াশিংটনের আরেক ঘনিষ্ঠ মিত্র ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে বলেন, তার সরকার যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত নন। শান্তি ফিরিয়ে আনতে ওই ঘোষণা অকার্যকর বলেও মত দেন তিনি। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র তেল-আবিব থেকে দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্থর করলেও, ব্রিটেন কখনো সেখানে তাদের দূতাবাস স্থানান্তর করবে না।

এসময় তিনি বলেন, জেরুজালেম ইস্যুতে আমাদের অবস্থান স্পষ্ট।  জেরুজালেমের সমাধান হবে দুই রাষ্ট্রের আলোচনার ভিত্তিতে। শুধু তাই নয়, জেরুজালেমকে দুই দেশের মধ্যে ভাগ করে দেওয়ার পক্ষে জোরালো যুক্তি দেন তিনি। এ ক্ষেত্রে জাতিসংঘের নেওয়া উদ্যোগ বাস্তবায়ন জরুরি, যোগ করেন তিনি। এতে পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের কাছে হস্তান্তরের কথা বলেন তিনি।

এদিকে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেলের মুখপাত্র বলেন, বার্লিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সিদ্ধান্তকে সমর্থন দিবে না।

সূত্র: বিবিসি

 

এমজে/এসএইচ  

 

 

 

 


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি