ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:০৫:০৯

প্রাচীন স্থাপত্যশৈলীর অনন্য নিদর্শন মুক্তাগাছা জমিদার বাড়ি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৪:২১ পিএম, ২৪ জুন ২০১৭ শনিবার | আপডেট: ০৫:০১ পিএম, ২৭ জুন ২০১৭ মঙ্গলবার

জমিদারদের ঐতিহ্য আর প্রাচীন স্থাপত্যশৈলীর অনন্য নিদর্শন ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা জমিদার বাড়ি। ১৮শ’ দশকে বাড়িটি একবার ভূমিকম্পে ভেঙ্গে পড়লে জমিদার আচার্য চৌধুরীর বংশধরেরা যুক্তরাজ্য ও ভারত থেকে কারিগর এনে ভূমিকম্প সহিষ্ণু করে পুনঃনির্মাণ করেন। ভবিষ্যতে যাদুঘর করার চিন্তা করছে প্রতœতত্ব বিভাগ।
১৭৫৭ খ্রিস্টাব্দে শ্রীকৃষ্ণ আচার্য চৌধুরীর ৪ ছেলে রামরাম, হররাম, বিষ্ণুরাম ও শিবরাম বগুরা থেকে এসে মুক্তাগাছায় বসতি স্থাপন করেন। মুক্তাগাছা উপজেলার বেশিরভাগই ছিল তৎকালীন আলাপসিং পরগণার অন্তর্ভুক্ত। সে সময়ে এই পরগনায় খুব একটা জনবসতি ছিলনা। চারদিকে ছিলো বন আর জলাভূমি।

মুক্তাগাছায় বসবাসের পর এরা প্রায় ২শ’ বছর দাপটের সাথে এখানে জমিদারি করেন। জমিদারি প্রথা ওঠে গেলে তাদের বংশধরেরা ভারতে চলে যান। এরপর থেকেই জমিদার বাড়িটি অবহেলা অযতেœ ধ্বংস হতে থাকে। পরে প্রতœতত্ব বিভাগ দায়িত্ব নিয়ে এর সংস্কার ও সৌন্দর্য্য বর্ধণের কাজ শুরু করে। জমিদার বাড়ি তার পুরনো ঐতিহ্য ফিরে পাওয়ায় খুশি জমিদার বংশের সদস্যরা।

মুক্তাগাছার জমিদারির মোট অংশ ছিলো ১৬টি । ১৬ জন জমিদার এখানে শাসন করতেন। ১’শ একর জায়গার ওপর নির্মিত এই বাড়িটি প্রাচীন স্থাপনাশৈলীর যেন এক অনন্য নিদর্শন।

ভবিষ্যতে এটি যাদুঘর করা হবে বলে জানান প্রতœতত্ব বিভাগ

বিশাল আকারের পুকুর বিষ্ণু সাগর, চাঁন খার মসজিদ, ঘূর্ণায়মান নাট্য মঞ্চ, সাত ঘাটের পুকুরসহ অসংখ্য দর্শনীয় স্পট দেখে মুগ্ধ দর্শনার্থিরা।


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি