ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২১:৪৩:২২

৩৮তম বিসিএস

প্রিলিতে উত্তীর্ণ হতে ১০টি বিষয়ের উপর জোর দিন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৭:১২ পিএম, ২ ডিসেম্বর ২০১৭ শনিবার

৩৮তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা দিন খুবই নিকটে। এই পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে বিসিএস প্রত্যাশীরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। তাই পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি নেওয়ার সুবিধার্থে ১০টি বিষয়ের উপর গুরুত্ব দেওয়ার জন্য পরমর্শ দিয়েছেন ৩৬তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এস এম জামাল হোসেন। তার দেওয়া টিপস নিয়ে লিখছেন ইটিভি অনলাইনের রিপোর্টার মো. মাহমুদুল হাসান।

৩৮তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার জন্য যে দিনগুলো বাকি আছে সে দিনগুলো ভালোভাবে কাজে লাগান। যদি ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারেন তাহলে আপনার সফলতা আসবেই। কখনোই আত্মবিশ্বাস হরানো যাবে না। অনেক আগে থেকে যারা প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদেরকে আমি এগিয়ে রাখব। তবে যারা কিছু দিন আগে থেকে প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছেন তাদেরও হতাশ হওয়ার কিছু নেই। পড়তে থাকুন, কাজে আসবে। অন্যদিকে পরীক্ষার্থীদের একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে যে, প্রিলিমিনারিতে উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য ২০০ নম্বরের মধ্যে শতকরা ৫৫ থেকে ৬০ নম্বর পেলেই প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া সম্ভব। এবার আসা যাক প্রিলিমিনারি পরীক্ষার জন্য করণীয় ১০টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

১) প্রিলিমিনারির পরীক্ষার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে প্রিলিমিনারির সিলেবাসটি ভালোভবে আয়ত্ত করা। সিলেবাস অনুযায়ী আপনি যে বিষয়গুলোতে দক্ষ তা সবার আগে শেষ করবেন। যেহেতু আর অল্প সময় রয়েছে সে ক্ষেত্রে পূর্বে যা পড়েছেন তা ভালোভাবে রিভাইস দেওয়াই হচ্ছে বুদ্ধিমানের কাজ।

২) শেষ সময়ে এসে আত্মবিশ্বাস হারানো যাবে না। আত্মবিশ্বাসের সাথে এগিয়ে যান। আপনার সফলাতা আসবেই। এত পরীক্ষার্থী আবেদন করেছে তাদের মধ্যে আমি কীভাবে চান্স পাব- এরকম চিন্তা কখনোই মাথায় আনা যাবে না।

৩) বিসিএস ও পিএসসির অন্যান্য পরীক্ষায় আসা বিগত সালের প্রশ্নগুলো ভালোভাবে আয়ত্তে রাখতে হবে। তাহলে কোন কোন বিষয়গুলোর উপর আপনাকে জোর দিতে হবে তা খুব সহজেই বুঝতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে যে ১০টি বিষয় বিসিএস প্রিলিমিনারির জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে সে বিষয়গুলোর মধ্য থেকে যে কোনো ৪ টি বা ৫ টি বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে পড়তে হবে। আর অন্যান্য বিষয়গুলোতে যদি গড় নম্বর পান তাহলে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা আপনাদের জন্য সহজ হবে।

৪) বাংলা সাহিত্যের জন্য বাংলাদেশের প্রধান প্রধান সাহিত্যকর্ম এবং তাদের জীবনী সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হবে। এ ক্ষেত্রে আপনি প্রথম সারির কবি-সহিত্যিকদের জীবনী, সাহিত্য কর্ম এবং তাদের বিখ্যাত উক্তি ভালোভাবে পড়ে নিলে ভালো করবেন।

৫) ইংরেজি বিষয়ে ভলো করতে হলে শব্দার্থ জানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বাক্যের অর্থ বুঝার মাধ্যমে আপনি সহজেই গ্রামারের সমস্যা সমাধান করতে পারবেন।

৬) ইংরেজি সাহিত্য অংশে ভালো নম্বর পেতে হলে ইংরেজি সাহিত্যের প্রথম সারির কবি-সাহিত্যিকদের নাম, আলোচিত গ্রন্থ, সাহিত্যে তাদের অবদান সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখতে হবে। বিখ্যাত সাহিত্যকর্মের চরিত্রগুলো সম্পর্কে জেনে নিলে ভালো হবে।

৭) গণিত বিষয়ে যদি আপনি ভালো করতে চান, তাহলে আপনাকে নিয়মিত অনুশীলন করতে হবে। যে যত বেশি অনুশীলন করবেন সে তত বেশি গণিতের ক্ষেত্রে এগিয়ে থাকবেন। এছাড়াও বিসিএসের সিলেবাস অনুযায়ী অষ্টম এবং নবম-দশম শ্রেণির গণিতসহ উচ্চতর গণিত বইটি ভালোভাবে শেষ করতে পারলে ভালো করতে পারবেন।

৮) সাধারণ জ্ঞান অংশে বাংলাদেশ বিষয়ে ভালো করতে হলে ১৯৪৭ সাল থেকে শুরু করে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত আলোচিত বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হবে। মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ বই, উপন্যাস, কবিতা এবং যে সব বুদ্ধিজীবী, কবি ও সাহিত্যিক মুক্তিযুদ্ধে অবদান রেখেছেন তাদের সম্পর্কেও বিস্তারিত জানতে হবে।

৯) আন্তর্জাতিক বিষয়াবলরি জন্য বিভিন্ন সংস্থার সদরদপ্তর, আন্তর্জাতিক চুক্তি, জাতিসংঘ, বিভিন্ন সংস্থা, যুদ্ধ ও মানচিত্র সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকলে প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ভালো করা সম্ভব। সাম্প্রতিক বিষয়গুলোর জন্য বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কিত ও বহুল আলোচিত ইস্যুগুলোর বিষয়ে চোখ-কান খোলা রাখুন। সাধারণ জ্ঞান বিষয়ের জন্য নিয়মিত পত্রিকা পড়ার বিকল্প নেই।

১০) এ সময়ে শরীরের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। কোন ভাবেই অসুস্থ হওয়া চলবে না। এ সময়ে পরিমিত খাবার এবং ঘুম অত্যন্ত প্রয়োজন।

সর্বপরি যারা ৩৮তম বিসিএস প্রিলিমিনারির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের সুস্বাস্থ্য কামনা করছি। সবার প্রতিই শুভকামনা।

 

এম/টিকে


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি