ঢাকা, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২২:১৭:৫০

Ekushey Television Ltd.

‘বর্ণবাদী’ মন্তব্যে ফের উত্তাল যুক্তরাজ্য

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৩৫ পিএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ মঙ্গলবার

বর্ণবাদী মন্তব্যের জের ধরে ফের উত্তাল যুক্তরাজ্য। এবার বর্ণবাদী মন্তব্যের শিকার রাজ পরিবারের সদস্য হতে যাওয়া মার্কিন অভিনেত্রী মেগান মার্কেল। আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে এ বিতর্কিত মন্তব্যটি করেন খোদ দেশটির এক প্রভাবশালী রাজনীতিবীদ।

গত শুক্রবার দেশটির রিপাবলিকান দলের সাংসদ পল নেহেলেন টুইটারে প্রিন্স হ্যারির হবু স্ত্রী মেগানের একটি ‘বিকৃত’ ছবি পোস্ট করেন। ঐ ছবিতে দেখা যায় প্রিন্স হ্যারির পাশে আছেন মেগান মার্কেল। তবে মার্কেলের চেহারাটির বদলে ঐ ছবিতে ফটোশপ করে বসানো হয়েছে চেড্ডার ম্যান এর ছবি। আর তার সাথে ক্যাপশন জুড়ে দেওয়া হয়েছে, “হানি, এই ছবিটা কী আমাকে ফর্সা করছে?” আর এরপরেই যুক্তরাজ্যসহ পুরো পৃথিবী জুড়ে বিতর্কের ঝড় ওঠে।

বিতর্কের কারণ বুঝতে হলে যেতে হবে গত সপ্তাহের একটি ঘটনায়। গত সপ্তাহে লন্ডনের ন্যাচারাল হিস্টোরি মিউজিয়াম এবং ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন এক প্রতিবেদনে জানায় যে, যুক্তরাজ্যের আদি মানবরা ছিল মূলত কৃষ্ণাঙ্গ। ১৯০৩ সালে যুক্তরাজ্যের সমারসেটে ১০ হাজার বছর আগে জীবিত থাকা চেড্ডার ম্যান নামক এক ব্যক্তির কংকালের ডিএনএ গবেষণা করে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে ঐ প্রতিষ্ঠানগুলো। আর এই চেড্ডার ম্যানের ছবিই মেগান মার্কেলের ছবির সাথে জুড়ে দিয়ে টুইটারে পোস্ট করেন নেহেলেন।

এমন মন্তব্যে কড়া সমালোচনার মুখে পরেন নেহেলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ ব্রিটিশ দৈনিকগুলো ছেয়ে গেছে নেহেলের বিরুদ্ধে লেখা নিন্দার খবরে। দেশটির প্রভাবশালী দৈনিক ডেইলি মিরর নেহেলের ঐ টুইট বার্তাকে ‘বর্ণবাদী’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। ডেইলি সান বলছে, “মেগানকে নিয়ে ট্রল করল নেহেলেন”। আর যুক্তরাষ্ট্রে মেগান মার্কেলের সহ অভিনেত্রী প্যাট্রিক অ্যাডামস গত শনিবার এক টুইটে বলেন, “নেহেলেন একজন অসুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ যার লজ্জা এবং সম্মান বোধ নেই”।
তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে মুখ খোলেননি পল নেহেলেন।

সূত্রঃ এনডিটিভি

//এস এইচ এস//এসি 



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি