ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ৩:১০:১০

বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটার

বিনোদনের মাধ্যমে বিজ্ঞান শিক্ষা

মাহমুদুল হাসান

প্রকাশিত : ০৪:২৮ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ বুধবার | আপডেট: ১০:৪৬ পিএম, ৬ অক্টোবর ২০১৭ শুক্রবার

দেশের একমাত্র প্ল্যানেটেরিয়াম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার। এর অবস্থান রাজধানীর বিজয় সরণী এলাকায়। ‘বিনোদনের মাধ্যমে শিক্ষা’ এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এটি। দেশের সব নাগরিক বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান সম্পর্কে সঠিক ধারণা ও তথ্য দিতে এবং মহাকাশ বিজ্ঞান শিক্ষায় উদ্বুদ্ধ করতে এই প্রতিষ্ঠানের পথচলা। দেশের একমাত্র প্ল্যানেটেরিয়াম এরইমধ্যে দৃষ্টি কেড়েছে বিজ্ঞান মনস্কদের। রোজ এখানে ভিড় করেন শিক্ষার্থী থেকে নানা বয়সী মানুষ। বিনোদনের মাধ্যমে মহাকাশ বিজ্ঞান সম্পর্কে শিক্ষার্থীসহ দর্শনার্থীদের ধারণা দেওয়া হয় এখানে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মহাকাশ বিজ্ঞান নিয়ে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ সৃষ্টি করতে এবং মানুষকে সচেতন করতে দেশের প্রতিটি বিভাগে একটি করে নভোথিয়েটার প্রতিষ্ঠা করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সরকার। এর অংশ হিসেবে রাজশাহীতে নভোথিয়েটার তৈরির কাজ চলছে বলে জানা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটারের অন্যতম আকর্শন হচ্ছে ডিজিটাল প্রযুক্তির ৫টি মহাকাশ বিষয়ক প্রদর্শনী। প্রতিটি প্লানেট শো আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্য নিয়ে তৈরী করা হয়েছে। আপনি প্রতিটি শোতে পাবেন বিজ্ঞানের নতুন নতুন আবিস্কারের তথ্য । পাচঁটি শো হলো-মিশন টু ব্লাক হোল, গুড নাইট গল্ডিলকস, জার্নি টু দ্য স্টার, ডন অফ দ্য স্পেস এজ এবং সিস্ফনি অফ দ্যা স্টারি স্কাই।

প্রতিটি শো’র শুরুতে থাকছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর সহমানের ঐতিহাসিক জীবন ও স্বাধীনতা সংগ্রামে তাঁর গৌরবোজ্জল ভূমিকার উপর নির্মিত ৩০ মিনিটের একটি ডিজিটাল ফিল্ম।

এছাড়া এখানে রয়েছে ৫ডি মুভি থিয়েটার, ক্যাপসুল রাইড সিমুলেটর, গ্রহ ও সৌরজগতের প্রতিরূপ এবং নতুনভাবে সংযুক্ত হয়েছে ৩০টি বিজ্ঞানভিত্তিক ডিজিটাল এক্সিবিটস গ্যালারি। এই প্রদর্শনীতে আছে পদার্থ বিদ্যার সূত্র পর্যবেক্ষণ, টাচ মিতে আলোর প্রতিবিম্বের মাধ্যমে ডায়নোসরের ছবি রয়েছে। নিজের ইচ্ছেমতো প্রাণী তৈরি করে নিজের অনুগত করার খেলা, বিভিন্ন গ্রহে আপনার ওজন কত তা জানা, মনিটরের মাধমে পিয়ানো বাজানো, টর্নেডো সিস্টেম দেখা, ডিজিটাল গেমসহ নানা প্রদর্শনী রয়েছে নভোথিয়েটারে।

নভোথিয়েটারের এসব আকর্ষণ দেখতে রোজ দর্শনার্থীদের ভিড় লক্ষ্য করা যায় এখানে। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিভিন্ন বয়সী মানুষ এখানে আসেন। কেউ আসেন সন্তানকে আধুনিক বিজ্ঞান সম্পর্কে পরিচিত করতে। কেউ এ সম্পর্কে জানতে। বিনোদনের মাধ্যমে কিভাবে মহাকাশ বিজ্ঞান সম্পর্কে জানা যায়, সেটি সম্পর্কে জানতেও অনেকে আসেন এখানে। মঙ্গলবার দুপুরে নভোথিয়েটারে গিয়ে দেখা মেলে একঝাক শিক্ষার্থীর। কেন নভোথিয়েটারে এসছো-এমন প্রশ্নের জবাবে মিরপুর থেকে আসা শিক্ষার্থী সানজিদা জানায়, টাচ মিতে ডায়নাসরের ছবি দেখতে এখানে এসেছি। বন্ধুদের কাছে শুনে আগ্রহ তৈরি হয়। ভাবলাম একবার দেখি আসি। তাই স্কুলছুটির পর চলে আসি। শাহীন কলেজের বিজ্ঞানের এক শিক্ষার্থী জানায়, ডিজিটাল গেম সম্পর্কে পরিচিত হতে এখানে আসা। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর ওপর নির্মিত প্রামাণ্য চিত্র দেখার আগ্রহ থেকেও এখানে আসা হয়েছে। ৮ বছর বয়সী এক শিশুর সঙ্গে এসেছেন তার মা। ডেমরা থেকে আসা ওই নারী জানান, মহাকাশ বিজ্ঞান বিষয়ে ছেলেকে পরিচিত করতে তিনি এখানে এসেছেন।    

এই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির মহাপরিচালক আবুল বাশার মো. জহুরুল ইসলাম একুশে টেলিভিশন (ইটিভি) অনলাইনকে বলেন, আমরা নভোথিয়েটারের প্রতিটি শোতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক জীবন ও স্বাধীনতা সংগ্রামে তাঁর গৌরবোজ্জল ভূমিকা নিয়ে একটি ডিজিটাল ফিল্ম প্রদর্শনের ব্যবস্থা করেছি। পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা যেন আধুনিক বিজ্ঞান সম্পর্কে সঠিক ধারণা পেতে পারে এবং বিজ্ঞান নিয়ে যেন তাদের আগ্রহ বৃদ্ধি পায় সেজন্য বিজ্ঞানের শো গুলোকে বিনোদনের মাধ্যমে উপস্থাপন করেছি।

টিকিট মূল্য

প্লানেট শো’র জন্য ১০০টাকা, ডিজিটাল এক্সিবিটসের জন্য ৫০ টাকা, ৫-ডি মুভি থিয়েটারের জন্য ৫০ টাকা এবং সিমুলেটর রাইডের জন্য টিকিট মূল্য ৫০টাকা।

সময়

সপ্তাহিক ছুটি বুধবার ছাড়া রোজ এটি খোলা থাকে। এছাড়া শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং অন্যদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকে এটি।

/এম/এআর

 

 

 


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি