ঢাকা, সোমবার, ২৮ মে, ২০১৮ ৩:১৫:১৭

Ekushey Television Ltd.
রমজানে দ্রব্যমূল্য

বেগুনে আগুন, অন্য সবজির দামও উর্দ্ধমুখী

একুশে টিভি অনলাইন প্রতিবেদক

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৫:০০ পিএম, ১৭ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার

রাত পোহালেই রমজান। মুসলমানদের পবিত্র এ রমজানকে উপলক্ষ্য করে এরই মধ্যে বাজারে বেড়েছে শাক-সবজিসহ নিত্যপণ্যের দাম। প্রতিবারের মতো এবারও বাজারে বেড়েছে বেগুণের দাম। যার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে অন্য সবজির দামও। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে বেগুণের দাম বেড়েছে কেজিতে ১৫ থেকে ২০টাকা। আর অন্য সবজিও বেড়েছে কেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা।

রমজানকে ঘিরে বাজারে পণ্যের এমন দাম বাড়ার জন্য ক্রেতারা ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট ও সরকারের মনিটরিং দুর্বলতাকে দায়ী করছেন। খুচরা বিক্রেতারা দুষছেন পাইকারদের। আর পাইকাররা বলছেন পণ্য আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। যতটুকু বেড়েছে এটা বাজারের স্বাভাবিক নিয়ম।

রাজধানীর কারওয়ান বাজার, রামপুরাবাজার ও হাতিরপুল বাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত সপ্তাহেও যে বেগুনের দাম ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা এখন দাম বেড়ে এক লাফে হয়েছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা। অন্যান্য সবজির দামও বেড়েছে কেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত।

কারওয়ান বাজারে সবজি কিনতে আসা বেসরকারি চাকরিজীবি সঞ্জিব দাস বলেন, প্রতিবার রমজান আসলে বাজারে তার প্রভাব পড়ে। রমজান কেন্দ্রীক পণ্যের দাম বেড়ে যায়। এবার তার ব্যতিক্রম হয়নি। রমজানকে ঘিরে বেগুনে যেন আগুন লেগেছে।শুনেছি রমজানে মসলমানদের  ইফতারিতে প্রিয় খাবার বেগুনি। যেটা বেগুন দিয়ে তৈরি হয়। যার জন্য এর দাম বেড়ে যায়।

তবে দাম বাড়ার কারণ সম্পর্কে কারওয়ান বাজার খুচরা ব্যবসায়ী আলতাফ ব্যাপারি বলেন, দাম বাড়ার জন্য আমরা কিছু বলতে পারি না। যেমন কিনি তেমন বিক্রি করি। তবে গত কয়েকদিন আকাশ ভালো না থাকায় রাজধানীতে ট্রাক ঢুকতে পারি নাই। এজন্যও দাম বাড়তে পারে। কেন দাম বাড়ছে সঠিক বলতে পারবেন পাইকাররা।

তবে বেগুণের এ দাম বাজার ভেদে আরো কমবেশি আছে। রাজধানীর খুচরা কারওয়ানবাজারে দেখা যায়, বাজারে প্রতিকেজি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা। যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। তবে এ একই বেগুণ হাতিরপুল ও রামপুরা বাজারে আরো বেশি দামে বিক্রি হতে দেখা যায়। বাজার দুটিতে বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা। বছরের অন্যান্য সময়ে বাজারে গোল বেগুণের চাহিদা ও দাম বেশি থাকলেও রমজান উপলক্ষ্যে চাহিদা বেড়েছে লম্বা বেগুনের। তাই বাজার লম্বা ও গোল বেগুন একই দামে বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে বেগুণের দাম বাড়ার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে পাইকারি বিক্রেতা রহমান আমিন বলেন, বাজার সবসময় স্থিতিশীল থাকবে এটা প্রত্যাশা করা বোকামি। কখনও বাজারে পণ্যের দাম বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। বাজারে বেগুনের চাহিদা বেড়েছে সে কারণেও বাড়তে পারে। কোন জিনিসে চাহিদা বাড়লে দাম তো বাড়বেই। এখানে কারসাজি করার কিছু নেই।

কারওয়ান বাজারে প্রতিকেজি শসা বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। যা এক সপ্তাহ আগেও ছিল মাত্র ৩০ থেকে ৪০ টাকা। বাজারে ধনে পাতার দাম প্রতিকেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা বেড়েছে।  এক সপ্তাহ আগে প্রতিকেজি ধনে পাতা ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা। এখন তা বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা। বাজারে আলু দাম বেড়েছে কেজি ৫ টাকা। গত সপ্তাহে যে আলু  প্রতিকেজি ২০ টাকা ছিল। এখন তা বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ২৭ টাকা কেজি।

এছাড়া বাজারে অন্যান্য সবজিও আগের বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে। বাজারে প্রাই সব ধরণের সবজি ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। বাজার ভেদে আড়াইশ গ্রাম কাঁচামরিচ ১০ থেকে ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। পিয়াজ, আদা, রসূন বিক্রি হচ্ছে আগের বাড়তি দামেই।

/ এআর /



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি