ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৮ ২২:১৮:২৫

Ekushey Television Ltd.

মাহাথির-আনোয়ার মধ্যে নেতৃত্বের দর কষাকষি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:৩৬ পিএম, ১৪ মে ২০১৮ সোমবার | আপডেট: ০৯:৪২ পিএম, ১৪ মে ২০১৮ সোমবার

আনোয়ার ইব্রাহিমের সাথে জোট বদ্ধ হয়ে প্রায় ১৫ বছর পর আবারও ক্ষমতায় এসেছেন মাহাথির বিন মোহাম্মদ। কিন্তু সেই মাহাথির আর আনোয়ারের মধ্যেকার দ্বন্দ্ব আবারও মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। মন্ত্রণালয়ের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দুই নেতার মধ্যে দেখা দিয়েছে এবারের মতানৈক্য।

২০০৩ সালে স্বেচ্ছায় মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পদত্যাগের আগে মাহাথির শাসনামলে এক সময় উপ প্রধানমন্ত্রী ছিলেন আনোয়ার ইব্রাহীম। তবে সমকামিতার অভিযোগ ওঠায় মাহাথিরের সময়েই জেলে যেতে হয়েছিল আনোয়ারকে। সেই সময় থেকেই এই দুই নেতার মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়।

তবে চলতি মে মাসের ৯ তারিখে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সেই ইব্রাহিমের সাথে জোটবদ্ধ হয়েই জয় লাভ করে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন মাহাথির। কয়েক দশকেরও বেশি সময় ধরে ক্ষমতায় থাকা বারিসান ন্যাশনালকে নির্বাচনে হারায় মাহাথির-আনোয়ার নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট পাকাতান হারাপান। এরপর মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব বন্টন ইস্যুতে এই দুই নেতার মধ্যে আবারও মত পার্থক্য দেখা যায়।

গত শনিবার মাহাথির অর্থমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীর নাম ঘোষণা করেন। তবে এই সংবাদ সম্মেলনে উপ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পাওয়া আনোয়ার ইব্রাহিমের স্ত্রী ওয়ার আজিজাহ উপস্থিত ছিলেন না। পাকাতান হারাপান দলের একটি সূত্রের মতে, এই তিন মন্ত্রীর নিয়োগের ব্যাপারে মাহাথিরের সঙ্গে তাঁর মতবিরোধ ছিল আনোয়ারের।

ঐ তিন মন্ত্রীর নাম ঘোষণা করলেও এর পরপরই মন্ত্রিসভা নিয়ে কথা বলতে চিকিৎসাধীন আনোয়ারের সঙ্গে হাসপাতালে গিয়ে দুই দফা সাক্ষাৎ করেন মাহাথির।

নির্বাচনের মাধ্যমে মাহাথির ও আনোয়ারের সম্পর্ক আবারও স্বাভাবিক হবে এমনটা কেউ কেউ মনে করলেও অনেকেই মনে করছেন যে, এই দুই নেতার মধ্যেকার ‘স্নায়ুযুদ্ধ’ চলতেই থাকবে। মাহাথির ও আনোয়ার নেতৃত্বাধীন জোট খুব বেশি দিন টিকবে না বলেও ভবিষ্যতবাণী করেছেন মালয়েশিয়ার বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক বোদ্ধা।

সূত্র: বিবিসি

//এস এইচ এস//টিকে  

ফটো গ্যালারি



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি