ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭ ২০:১২:১৭

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা নিয়ে বিতর্ক

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:০৮ এএম, ১ অক্টোবর ২০১৭ রবিবার | আপডেট: ০১:১৪ পিএম, ১ অক্টোবর ২০১৭ রবিবার

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। ভারতীয় উপস্থাপিকা শিনা চৌহান বিজয়ীর নাম ঘোষণার সময় ভুল করায় এটি নিয়ে বিভ্রান্তি শুরু হয়। বিচারক ও দর্শকদের মধ্যে এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কেউ কেউ বলছে, ঘোষণায় ফল পাল্টে দেওয়া হয়েছে।

ছয় বিচারকের একজন শম্পা রেজা গণমাধ্যমকে বলেন, চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল তার মনোনীত দুজনের তালিকাতেই ছিলেন না।

ঘোষণায় ফল পাল্টে দেওয়ার কথা জানিয়ে শম্পা রেজা গণমাধ্যমকে বলেন, দেখুন, আমরা তো ভালো চাই। আমরা যে কাজটা করি, মন দিয়ে করি। আমার জাজমেন্টের সঙ্গে যেটা প্রকাশিত জাজমেন্ট সেটার কোনো মিল হয়নি। দুজন ছিলেন আমার তালিকায়। কিন্তু প্রথমজন আমার লিস্টেই ছিলেন না।

তিনি জানান, সব বিচারকরা একমত ছিলেন।

এ বিষয়ে অন্য বিচারক জুয়েল আইচ জানান, মিস বাংলাদেশ ঘোষণা নিয়ে তারও বক্তব্য আছে। তবে তিনি তা প্রকাশের আগে আয়োজকদের একদিনের সময় দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আয়োজকরা আমার কাছ থেকে একদিনের সময় চেয়েছেন। একদিন পর আমি এ বিষয়ে বক্তব্য রাখব।

আগামী নভেম্বরে চীনে অনুষ্ঠেয় ৬৭তম মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধি নির্বাচনে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’র চূড়ান্ত পর্ব হয় শুক্রবার রাতে। রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে গ্র্যান্ড ফিনালে বিজয়ী হিসেবে এভ্রিলের নাম ঘোষিত হয়। সেখানে প্রথম রানার আপ ঘোষিত জেসিকা ইসলাম বিচারকদের রায়ে প্রথম হয়েছিলেন বলে দুইজন বিচারকের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে।

প্রতিযোগিতার এই পর্বে শম্পা রেজা ছাড়াও বিচারকের আসনে ছিলেন বিবি রাসেল, জুয়েল আইচ, চঞ্চল মাহমুদ, রুবাবা দৌলা ও সোনিয়া বশির কবির।

অপরদিকে এনিয়ে দর্শকদের মধ্যেও মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আয়োজকদের সমালোচনা করেছে অসংখ্য দর্শক।

বিচারকদের রায় পাল্টে দেওয়ার বিষয়ে অন্তর শো বিজের চেয়ারম্যান স্বপন চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে কোনো ধরনের বিভ্রান্তির সুযোগ নেই। আয়োজক হিসেবে আমিই তো রায় দিব। আমিই পয়সা দিয়ে বিচারক নিয়োগ করেছি। এমন সব বিচারক নিয়োগ করেছি, যারা সবাই আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন। তাদের প্রভাবিত করার কোনো সুযোগ আমার নেই। বিচারকদের রায়েই জান্নাতুল নাঈম বিজয়ী হয়েছেন। আমরা আন্তর্জাতিক মানের একটি অনুষ্ঠানের যাত্রা শুরু করেছি। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে চেয়েছি। এটি নিয়ে নানা ধরনের বিভ্রান্তি তৈরি করা আসলেই দুঃখজনক।

তিনি আরও বলেন, ‘দেখুন, ছয়জন বিচারকের সাথেই আমার কথা হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজনও যদি বিজয়ীকে ৯ করে দেন, আর অন্যরা ১০ করে দিলেও কিন্তু মোট যোগফলে বিচারের ফল নির্ধারিত হতে পারে। বিচারকদের মধ্যে প্রধান ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মডেল বিবি রাসেল। তার দেওয়া চূড়ান্ত ফলাফলই আমি প্রকাশ করেছি।‘

তিনি দাবি করেন, ভারতীয় উপস্থাপিকা শিনা চৌহান বিজয়ীর নাম ঘোষণার সময় ভুল করেছিলেন। আসলে দুজনের নাম প্রায় একই হয়ে যাওয়াতে সমস্যাটা হয়েছে। লাইভ টেলিকাস্টের কারণে আমরা হুট করেই জানতে পারি, আমাদের হাতে মাত্র কয়েক মিনিট সময় রয়েছে। তখন তাড়াহুড়ো করতে হয়েছে। এমন ভুল অস্কার ও মিস্ ইউনিভার্সের মতো আসরেও হয়। এরপরও আমরা এ ধরনের ভুলের জন্য ক্ষমাপ্রার্থী।’

 

এসএ/এআর


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি