ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৮:২১:৩৬

Ekushey Television Ltd.

যেটা বলেছি তা ভুল ছিল, ইমোশনাল ছিলাম : রুবি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৩৬ পিএম, ৯ আগস্ট ২০১৭ বুধবার | আপডেট: ০৫:৫২ পিএম, ১০ আগস্ট ২০১৭ বৃহস্পতিবার

সালমান শাহর মৃত্যু প্রসঙ্গে গত সোমবার দেওয়া ফেসবুক লাইভ ভিডিও’র দাবি থেকে সরে এসেছেন রুবি। এবার তিনি বলেছেন, সালমানের মৃত্যু হত্যা না আত্মহত্যা এটা আমার বলা উচিত না। আগেরবার যেটা বলেছি তা ভুল ছিল, ইমোশনাল ছিলাম।

বুধবার সকালে তার ফেসবুক পেজে লাইভ ভিডিওতে রুবি এসব কথা বলেন।

রুবি আরও বলেন, ‘সালমানের মৃত্যু হত্যা না আত্মহত্যা এটা আমি বলব না। এটা আমার বলা উচিত না। আগেরবার যেটা বলেছি সেটা রং (ভুল) ছিল। আমি বেশি ইমোশনাল ছিলাম, যার জন্য বলেছি এটা হত্যা।

সামিরা বা তার বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে বেড়িয়ে আসবে এটা হত্যা না আত্মহত্যা। এটা ইনভেস্টিগেশন করলে বের হবে।’

তিনি বলেন, ‘কেমন করে খুন হয়েছে বা অত্মহত্যা করেছে এটা নিয়ে আর কথা বলব না। ওই দিন মাথা ঠিক ছিল না, একটুখানি ভীত ছিলাম এ জন্য বলেছি এটা হত্যা।’

রুবি ফেসবুক পেইজের ওই লাইভে আরও জানান, ‘আমি জানতামই না এটি খুন হবে। আমি তো পোস্টমর্টেম রিপোর্টের উপর বিশ্বাস করে বারবার আত্মহত্যা বলছি। আমার জানা ছিল না যে, বাংলাদেশেও এ রকম হয়, পোস্টমর্টমের কোনো না কোনো ভেজাল বা ডাক্তারাও কোন কিছু করতে পারে।’
‘আমি হত্যা বা আত্মহত্যার সাক্ষী ছিলাম না। আমি যা শুনেছি সামিরার মুখে শুনেছি। সামিরার মুখে শুনে আত্মহত্যা বলেছি’ বলে উল্লেখ করেন রুবি।

তিনি প্রশ্ন তোলেন, ‘সামিরাকে কেন সামনে আনে না। ওর বাবা কেন ওর হয়ে কথা বলে। ওর স্বামী কেন কথা বলে। সামিরা কেন বলেন না, কী কারণ ছিল?’
তিনি আরও বলেন, ‘আমার কিছু হলে ভাববেন না যে বাইরে মানুষ কিছু করেছে। বরং এটা ভাববেন যে আমার কাছের মানুষই করেছে।’

এর আগে সোমবার রুবি বলেন, ‘সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই। সালমান শাহকে খুন করা হইছে, আমার হাজব্যান্ড এটা করাইছে আমার ভাইরে দিয়ে। সামিরার ফ্যামিলি করাইছে আমার হাজব্যান্ডকে দিয়ে। আর সব ছিল চাইনিজ মানুষ।’  

উল্লেখ্য, ১৯৯৩ সালে প্রথম চলচ্চিত্র ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ দিয়ে রাতারাতি তারকাখ্যাতি পান সালমান শাহ। সব মিলিয়ে ২৭টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন, যার বেশিরভাগই হিট। ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনকভাবে মৃত্যুবরণ করেন এ নায়ক। সালমানের মৃত্যু হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে দুই দশক ধরে বিতর্ক চলছে।



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি