ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ১৫:২৪:১২

Ekushey Television Ltd.

লিটনকে ওপেনিংয়ে আনার প্রস্তাব সুজনের

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০১:০৭ পিএম, ১২ মার্চ ২০১৮ সোমবার | আপডেট: ০১:২৯ পিএম, ১২ মার্চ ২০১৮ সোমবার

নিদাহাস ট্রফিতে স্বাগতিক শ্রীলংকার বিপক্ষে রবিবাসরীয় জয় পেয়েছে টাইগাররা। এ জয়ের পর একাদশভূক্ত খেলোয়ারদের সাফল্য-ব্যর্থতা নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। এর দরকারও আছে। বিশেষ করে পরে ম্যাচে একাদশ সাঁজানোর জন্য এটি বেশ জরুরি।
শ্রীলংকার বিপক্ষে জয়ে বারবার উঠে আসছে মুশফিকের নাম। সেটি স্বাভাবিক। মুশফিক ৭২ রানের অসাধারণ ইনিংস না খেললে কোনোভাবেই ২১৫ রান করা সম্ভব হতো বাংলাদেশের।
ওই ম্যাচে ভালো ব্যাটিং উপহার দেওয়া আরও একটি নাম বারবার উঠে আসছে। সেটি হচ্ছে লিটন দাস। এদিন জীবনে প্রথম কোনো টি-টোয়েন্টিতে ওপেনিং করেন লিটন। আর তাতেই বাজিমাত। তামিমকে নিয়ে বড় এক পার্টনারশিপ তৈরি করে দলকে জয়ের ভিত তৈরি করে দেন। ক্রীড়ামোদীদের কাছে একটি প্রশ্ন ঘুরেফিরেই আসছে। আর সেটি হচ্ছে পরীক্ষিত ওপেনার সৌম্যকে তিনে নামিয়ে দিয়ে লিটনের ব্যাটিং অর্ডার ওপরে আনার সিদ্ধান্তটি কার ছিল?
ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে তিনে নেমে দলের সর্বোচ্চ রান ছিল লিটন দাসের। ভালো ফর্মে থাকার কারণেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাঁকে নামিয়ে দেওয়া হলো ওপেনিংয়ে। এর পরেরটা তো ইতিহাস। তামিম ইকবালের সঙ্গে লিটনের জুটিতেই জেতার রাস্তাটা খুঁজে পেল বাংলাদেশ। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান জানিয়েছেন, লিটনকে দিয়ে ওপেন করানোর পরিকল্পনাটা নাকি ম্যানেজার খালেদ মাহমুদের।
ভারতের বিপক্ষে হারের পর টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে তিন সিনিয়র খেলোয়াড় মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবালকে নিয়ে যে বৈঠকটি বিসিবি সভাপতি করেছিলেন, সেখানেই উঠে আসে লিটনকে দিয়ে ওপেন করানোর প্রস্তাবটি।
শ্রীলঙ্কার পরিকল্পনায় ব্যাঘাত ঘটাতেই নাকি এই পরিবর্তন, ওদের বলেছিলাম, জয়-পরাজয় ব্যাপার নয়, তবে প্রতিটি খেলোয়াড়কে ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিংয়ে বোঝাতে হবে আমরা জিততে চাই। হঠাৎ খালেদ মাহমুদ (দলের ম্যানেজার) প্রস্তাব দেয় লিটন দাসকে ওপেনিংয়ে পাঠানো হোক। শ্রীলঙ্কা হয়তো পরিকল্পনা করেছিল তামিম-সৌম্যকে নিয়ে। শুরুতে তাদের জন্য কোন বোলার আনবে, সেটাও হয়তো তাদের ঠিক করা ছিল। তাদের এই পরিকল্পনায় ব্যাঘাত ঘটাতেই লিটনকে ওপেনিংয়ে আনা। আর লিটন যেহেতু ছন্দে আছে, যে বোলার আসুক সে মারতে পারবে। তামিম পরে বলল, এটা খারাপ নয়, ভালো আইডিয়া। আমি শুধু বললাম, যা-ই করো লিটন ও সৌম্যর সঙ্গে একটু কথা বলে নিয়ো।
লিটন জানিয়েছেন, ম্যাচের আগেই তিনি ওপেনিংয়ের দায়িত্বের কথা জানতেন। প্রস্তুতিও নিয়েছেন সেভাবেই। তবে ওপেনিং যে তাঁর কাছে নতুন কিছু নয় জানালেন সেটিও, এমন কিছু মনে হয়নি। আমি আগেও ওপেন করেছি। হয়তো খুব একটা সুযোগ পাইনি জাতীয় দলে ওপেনিং করার। আমার দায়িত্ব ছিল ভালো শুরু এনে দেওয়া, সেটাই করার চেষ্টা করেছি।
১৯ বলে ৪৩ করে দলকে উড়ন্ত সূচনা এনে দিয়েও একটু আফসোস হচ্ছে লিটনের, ‘তামিম ভাইয়ের সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল চেষ্টা করব পাওয়ার প্লে ব্যবহার করার। আমি যদি আরও একটু থাকতাম, খেলাটা আরও সহজ হতো। ভুলটা আমিই করেছি।’
/ এআর /

ফটো গ্যালারি



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি