ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭ ০:৫৮:৫৭

শুভশ্রী-মিমির দ্বন্দ্ব চরমে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:২৮ পিএম, ৮ অক্টোবর ২০১৭ রবিবার | আপডেট: ০৮:৫৪ পিএম, ৮ অক্টোবর ২০১৭ রবিবার

মিমি চক্রবর্তী। টালিগঞ্জ সুন্দরীদের একজন। অপরদিকে শুভশ্রী গাঙ্গুলি। টালি ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম সেরা রূপবতি। দুজনই এই সময়ের সেরা অভিনেত্রীদের মধ্যে শীর্ষে অবস্থান করছেন। দর্শক দুজনকে হৃদয়ের মধ্যে রাখলেও কেউ কাউকে সহ্য করতে পারছেন না তারা। প্রায়ই দেখা যায় একে অন্যের প্রতি হিংসাত্মক মন্তব্য ঠুকে দিচ্ছেন এই তারকা সুন্দরীদ্বয়।

মিডিয়া পাড়ায় সমসাময়িক অভিনেতা-অভিনেত্রীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব নতুন কিছু নয়। প্রায়শই এমন ঘটনা দেখা যায়। টালিগঞ্জের দুই বিখ্যাত অভিনেতা প্রসেনজিৎ এবং দেব এর মধ্যে মনোমালিন্য সবারই জানা। নতুন খবর হচ্ছে- টালিগঞ্জের জনপ্রিয় দুই অভিনেত্রীর দ্বন্দ্ব এখন চরমে।

সম্প্রতি গণমাধ্যমে শুভশ্রী নিজের ক্ষোভ ঝেড়েছেন মিমির উপর। তবে ঘটনার শুরুটা করেছিলেন মিমি চক্রবর্তী। কিছুদিন আগে তিনি শুভশ্রীকে ক্লাসলেস অশিক্ষিত বলে আখ্যায়িত করেছিলেন। এরই জবাবে গণমাধ্যমে শুভশ্রী বলেছেন মিমির এমন কথায় রাগের বদলে তাঁর হাসি পেয়েছে।

শুভশ্রী বলেন, মিমির কথা শুনে মনে হয়েছে সে হতাশায় ভুগছে। আমার তাঁর জন্য বরং দুঃখই হচ্ছে। হতাশায় না ভুগলে অন্য মানুষ সম্পর্কে এমন কথা কেউ বলতে পারে না। মিমি কেমন শিক্ষা পেয়েছেন, সেটা তো তাঁর কথা থেকেই বোঝা যাচ্ছে।

শুভশ্রী আরো বলেন, আমি এই বিষয় নিয়ে তাকে কোনো খারাপ কথা বলতে চাইছি না। কারণ এই রকম শিক্ষা আমি পাইনি। হ্যাঁ, খুব বেশি পড়াশোনা আমি করেনি, খুবই সাধারণ পরিবারে আমার জন্ম। বর্ধমান থেকে উঠে এসেছি। কিন্তু আমার পরিবার থেকে মানুষকে শ্রদ্ধা এবং সম্মান করতে শেখানো হয়েছে।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে শুভশ্রীকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, মিমির ওই সব আক্রমণাত্মক কথায় তার প্রতিক্রিয়া কি?

শুভশ্রী খুব ঠাণ্ডা মাথাতেই উত্তর দেন। বলেন, ‘মিমি বলেছে আমি তাঁকে ফলো করি। আমাকে সে লুজার বলেছে। এগুলো যখন শুনবো স্বাভাবিক ভাবেই খারাপ লাগবে। আমারও তাই লেগেছে। তবে একটা কথা সবারই জানা আছে- মিমি যখন টেলিভিশন সিরিয়াল করা শুরু করে, তখন আমার সিনেমা (খোকাবাবু) সুপারহিট। ওকে ফলো করা ছাড়াই কীভাবে আমার সিনেমা সুপারহিট হলো? এর পরে করলাম ‘খোকা ৪২০’, সেটাও সুপারহিট। ওকে আমার কিছুটা ভালোই লাগে। তাই টুইট করি। তার মানে এই না যে, কাজের ক্ষেত্রে তাঁকে আমার ফলো করতে হবে।

তবে কেনো এই দ্বন্দ্ব তা নিয়ে চলছে বেশ গুঞ্জন। কেউ কেউ বলছে টালিউডের জনপ্রিয় নির্মাতা রাজ চক্রবর্তীই এই দ্বন্দ্বের কারণ। তার প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন সেখানকার দুই জনপ্রিয় নায়িকা শুভশ্রী গাঙ্গুলী ও মিমি চক্রবর্তী। তবে ঠিক কার সঙ্গে রাজের প্রেম চলছে, এটা এখনো স্পষ্টতা পায়নি। কারণ রাজের সঙ্গে দুই অভিনেত্রীকেই বিভিন্ন সময় ঘনিষ্ঠভাবে দেখা গেছে।

কিছু দিন আগে পর্যন্ত টালিগঞ্জের রটনা ছিলো যে, রাজ-শুভশ্রী বিয়ে করছেন। রাজ নাকি নিজেই সেই খবর নিশ্চিত করেছিলেন। বিয়ের জন্য সব ধরণের প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছিলো। কিন্তু জল ঘোলা হয়ে যায় কিছু দিন পরেই। শোনা যায়, প্রাক্তন প্রেমিকা মিমির সঙ্গে আবারও মেলামেশা করছেন রাজ। আর পারিবারিক কারণে শুভশ্রীর সঙ্গে বিয়েটাও নাকি বাতিল হয়ে যায়।

এদিকে সম্প্রতি পূজোর ছুটিতে রাজের সঙ্গে মিমি গোয়া ঘুরতে গেছেন, এমন গুঞ্জন ছড়ায়। খবরের শিরোনাম ভরে ওঠে রসালো বাক্যে। কিন্তু এমন খবরে চটে যান মিমি। কারণ তিনি সে সময় কলকাতাতেই ছিলেন। তিনি জানান, কে কার সঙ্গে সম্পর্ক করছে, সেটা নিয়ে আমার মাথাব্যথা নেই। অন্য কোনো নায়িকা কিছু বললেই সেটা ছাপতে হবে? আর বিষয়টা ভীষণই স্পর্শকাতর।

মিমি আরও বলেন, আমি কলকাতায় ছিলাম সেটা অনেকেই জানেন। আর অষ্টমীর রাতে আমার দাদু মারা গেয়েছিল। একজন গোয়ায় গিয়ে বসে থাকবে আর রটিয়ে দেবে আমি সেখানে রয়েছি, এটা হতে পারে না।

এদিকে মিমির এমন স্পষ্ট জবাবে গুঞ্জনের পাল্লাটা চলে যায় শুভশ্রীর ওপর। অর্থাৎ রাজের সঙ্গে তিনিই গোয়া গিয়েছিলেন এবং বিতর্ক এড়াতে ইন্ডাস্ট্রিতে রটিয়েছেন মিমির কথা। ফলে রাজের সঙ্গে প্রেম নিয়েও দ্বন্দ্বে জড়িয়ে যান দুই নায়িকা।

তবে সমালোচকরা মনে করছেন ক্যারিয়ার, প্রেম, সাফল্য সবকিছু মিলিয়ে তাদের এই দ্বন্দ্ব।

এসএ/ডব্লিউএন


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি