ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭ ৩:০০:৫২

শেষ হলো সীতাকুণ্ড সমিতির দশকপূর্তি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:১৭ পিএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৭ সোমবার

সীতাকুণ্ড সমিতি পদক, কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা, মিলনমেলাসহ নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে পালিত হলো সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রাম-এর একদশকপূর্তি অনুষ্ঠান। এই মিলন মেলার আয়োজনে অংশ নেন হাজারো সীতাকুণ্ডবাসী। রবিবার নগরীর লাভ লেইনস্থ স্মরণিকা কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, `মেধাবী আজকের বাংলাদেশের নতুন প্রজন্ম আধুনিক উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ করবে। তাই আজকে সংবর্ধিত মেধাবী শিক্ষার্থীদের লালন-পালন ও পরিচর্যা করা শিক্ষক, অভিভাবক এবং রাষ্ট্রের নৈতিক দায়িত্ব।`

প্রথম পর্বে ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত এসএসসি/দাখিল ও এইচএসসি/আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া প্রায় ৩শ শিক্ষার্থীকে সংবর্ধিত করা হয়। ফেনী ইউনিভার্সিটির সাবেক উপাচার্য ড. ফসিউল আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সহ-সভাপতি আহমদ ফখরুদ্দিন মুজতাহিদ, ইউআইটিএস এর উপাচার্য ড. মোহাম্মদ সোলায়মান, চট্টগ্রাম বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মোহাম্মদ মাহাবুব হাসান ও কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এএইচএম হারুন, জিপিএ ৫ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের স্পন্সর আলম লায়লা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল চৌধুরী, সংবর্ধনা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আবুল মনসুর ভূইয়া, চট্টগ্রাম ওয়াসার সচিব শামীম সোহেল, সীতাকুণ্ড সমিতির সভাপতি লায়ন মো. গিয়াস উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর একেএম তফজল হকG

পরে প্রধান অতিথি কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদপত্র তুলে দেন। প্রথম পর্ব পরিচালনা করেন সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক আবেদীন আল মামুন।

সন্ধ্যায় দ্বিতীয় পর্বে  এক দশকপূর্তি অনুষ্ঠানের সূচনা হয় কেক কাটার মধ্যদিয়ে। সীতা কুণ্ডের জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদসহ বিশিষ্টজনেরা এতে অংশ নেন।

এতে প্রধান আলোচক ছিলেন, সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আল মামুন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, বিশিস্ট রাজনীতিবিদ একেএম আবু তাহের বিএসসি, মো. দিদারুল কবির ও দিদারুল ইসলাম মাহমুদ চৌধুরী, জেলাপরিষদ সদস্য আ ম ম দিলশাদ, সীতাকু- পৌরসভার মেয়র মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম, এডিশনাল পিপি, এড. ভবতোষ নাথ, চেয়ারম্যান নাজিমউদ্দিন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ সীতাকুণ্ডের  ১৪ গুণীজন ও দুই প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয় সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রাম পদক ২০১৭। পদকে ভূষিত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান হচ্ছে- শিক্ষানুরাগী মাওলানা ওবায়দুল হক ও নিরূপমা মুখার্জী (মরণোত্তর), শিক্ষা- প্রিন্সিপাল নাজির আহমদ ও প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হোসেন (মরণোত্তর), রাজনীতি ও সমাজসেবা- এম.আর সিদ্দিকী ও এবিএম আবুল কাশেম (মরণোত্তর), শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবা- মাস্টার মুছা আহমদ চৌধুরী (মরণোত্তর)। মুক্তিযোদ্ধা - ইঞ্জিনিয়ার ইউসুফ সালাহউদ্দিন, প্রশাসন- এ ওয়াই বি আই সিদ্দিকী ও আহমেদ শামীম আল রাজী, ব্যাংকিং- মো. তাজুল ইসলাম, সমাজসেবা- মোস্তফা কামাল চৌধুরী, সাংবাদিকতায়- সাইফ ইসলাম দিলাল, লেখক ও গবেষক- ড. মনওয়ার হোসেন সাগর (মনওয়ার সাগর) এবং শিক্ষা ও সমাজ সেবায় ফ্যাসিফিক জিন্স ফাউন্ডেশন ও আলহাজ্ব মোস্তফা হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন। পদকপ্রাপ্ত ও তাদের স্বজনরা অতিথিদের কাছ থেকে তা গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে পদকপ্রপ্তদের পক্ষে প্রিন্সিপাল নাজির আহমদের সন্তান, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সহ-সভাপতি আহমদ ফখরুদ্দিন মুজতাহিদ, প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হোসেন এর সন্তান ক্যাপ্টেন তানভীর, এমআর সিদ্দিকীর পক্ষে লায়ন নাজমুল হক, ড. মনওয়ার সাগর, এড. শওকত উল আলম তাদের অনুভূতি প্রকাশ করেন।

একদশকপূর্তি অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ ছিল সদস্য ডিরেক্টরি ও টেলিফোন গাইড ‘সীতাকুণ্ড  সংযোগ’ এর প্রকাশনা। ২৮৮ পৃষ্টার আকর্ষণীয় এই প্রকাশনার মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিরা।

এ উপলক্ষে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবানের আপ্যায়ন করা হয় সমিতির সদস্যসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সীতাকুণ্ড সমিতির সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও সংগীত শিল্পী আকলিমা মুক্তা, সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়ে বর্ণাঢ্য এই আয়োজন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

কেআই/

 


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি