ঢাকা, রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২০:০৫:৩৭

সন্দ্বীপে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৪২ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ১১:০৯ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার

সন্দ্বীপের মগধরা ইউনিয়নের ষোলশহর হিন্দুপাড়া এলাকায় সুমিতা মজুমদার (২২) নামের এক যুবতীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী উজ্জল মজুমদারকে স্থানীয়রা পুলিশে দিয়েছে।

উজ্জল মজুমদার মগধরা ৮ নং ওয়ার্ডের ষোলশহর হিন্দু পাড়ার নারায়ণ মজুমদারের ছেলে।

সুমিতার ঠুাকুরদা দিলিপ মজুমদার বলেন, সুমিতা অন্তঃসত্ত্বা ছিল। বিয়ের পর স্বামী–স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হতো, সুমিতাকে নানা অজুহাতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো উজ্জল। সুমিতার স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন মিলে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

নিহতের মা গীতা রানী মজুমদার বলেন, সুমিতাকে যৌতুকের জন্য তার স্বামী সবসময় নির্যাতন করতো। গতকাল আমাদের বাড়ি থেকে শ্বশুর বাড়ি গেলে উজ্জল যৌতুকের টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। এতে দু’জনের মধ্যে ঝগড়া লাগে। ঝগড়ার এক পর্যায়ে তার স্বামী পেটে লাথি মারে। পরে শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করা হয়। এ সময় সুমিতার চিৎকারে প্রতিবেশীরা গিয়ে উজ্জলকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পরে গুরুতর অবস্থায় সুমিতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায় সে। তার গায়ে ও গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করা হবে। লাশ ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে।

সন্দ্বীপ ১০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মোহাব্বত এর কাছে এই হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে জানতে চাইলে,  তিনি বলেন, ‘এই ব্যাপারে আমরা কিছুই বলতে পারব না। ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসতে সময় লাগবে।`

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সন্দ্বীপ থানার অফিসার ইনচার্জ সামসুল আলম আশানুরুপ উত্তর দেননি। প্রশ্নের উত্তর না দিয়েই তিনি ফোন রেখে দেন। বার বার কল করার পরও সাড়া দেননি তিনি।

 কেআই/ডব্লিউএন

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি