ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৮ ২:৩৩:৪৫

Ekushey Television Ltd.

‘সরকারি কাজে দেশের তৈরি কম্পিউটার ব্যবহৃত হবে’

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:২২ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৮:২৩ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮ বৃহস্পতিবার

সরকার নিজেদের ব্যবহারের জন্য দেশে উৎপাদিত সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার এবং কম্পিউটার ব্যবহার করবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। আর এ ক্ষেত্রে দেশি ব্র্যান্ড ওয়ালটন প্রাধান্য পাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) গাজীপুরের চন্দ্রায় দেশের প্রথম কম্পিউটার ও ল্যাপটপ কারখানা ওয়ালটন হাইটেক পার্কে উদ্বোধন শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী এসময় আরও বলেন, দেশের সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার খাতকে উৎসাহিত করতে সরকারি কাজে দেশে তৈরি সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার ব্যবহার করা হবে।

মন্ত্রী বলেন, ‘আগামীতে সরকার দেশে উৎপাদিত কম্পিউটার ও ল্যাপটপ সরকারি ব্যবহারের জন্য কিনবে। ওয়ালটন যেহেতু দেশে কম্পিউটার ও ল্যাপটপ উৎপাদন শুরু করেছে তাই সরকারি কম্পিউটার ক্রয়ে ওয়ালটনকে প্রধান্য দেওয়া হবে।’

বাংলাদেশে প্রযুক্তি পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন ল্যাপটপ উৎপাদন শুরু করেছে। এ জন্য প্রতিষ্ঠানটির প্রশংসা করে মন্ত্রী বলেন, ‘ওয়ালটন দেশে কম্পিউটার ও ল্যাপটপ উৎপাদনের মাধ্যমে নতুন মাইল ফলকের সূচনা করেছে। এক সময় আমরা স্বপ্নেও ভাবতে পারতাম না দেশের উৎপাদিত কম্পিউটার দেশের জনগণ ব্যবহার করবে। ওয়ালটন সেটি করে দেখাল।’

অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘বাংলাদেশে কম্পিউটার কারখানা স্থাপন করেছে ওয়ালটন। এটি একটি সাহসী উদ্যোগ। এই উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। সফটওয়্যার খাতের মতো হার্ডওয়্যার খাতেও সরকারি সহযোগিতা প্রদান করা হবে। শুধু সাহসী উদ্যোগ থাকলেই চলবে না, তার সাথে দরকার সরকারের সহযোগিতা। এ দু’টি মিলেই আসবে সফলতা। তিনি বলেন, ওয়ালটনে বিভিন্ন প্রোডাকশন লাইন ঘুরে দেখলাম, এ ধরণের অত্যাধুনিক প্রোডাকশন ও অ্যাসেম্বিলিং লাইন আমরা কখনো কল্পনাও করিনি। ওয়ালটন এরকম অনেক অসম্ভবকে সম্ভব করেছে।

এই কারখানায় রয়েছে ল্যাপটপ ও কম্পিউটার ডিজাইন ডেভেলপ, গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগ, মাননিয়ন্ত্রণ বিভাগ ও টেস্টিং ল্যাব। এতে ব্যবহৃত হয়েছে জাপানি ও জার্মান প্রযুক্তির মেশিনারিজ।

প্রাথমিকভাবে কারখানাটিতে মাসে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ৬০ হাজার ইউনিট ল্যাপটপ, ৩০ হাজার ইউনিট ডেস্কটপ এবং ৩০ হাজার ইউনিট মনিটর। পর্যায়ক্রমে কম্পিউটারের অন্যান্য অ্যাক্সেসরিজসহ পেনড্রাইভ, কিবোর্ড এবং মাউস উৎপাদনে যাবে ওয়ালটন। ওয়ালটনের এই কারখানায় তৈরি হবে ইন্টেলের সর্বশেষ প্রজন্মের প্রসেসরযুক্ত ল্যাপটপ। উৎপাদন হবে ৬ মডেলের ওয়ালটন ডেস্কটপ এবং ২ মডেলের ওয়ালটন মনিটর।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন হাইটেক ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান এসএম শামসুল আলম, ওয়ালটন ডিজিটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান এসএম রেজাউল আলম এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম মঞ্জুরুল আলম, ওয়ালটনের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিমসহ অন্যান্য কর্মকর্তরা।

 

এসএইচএস/টিকে



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি