ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭ ০:৫২:৪১

৩৩ নারীকে বিয়ে, অতঃপর কারাগারে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:০০ এএম, ৯ অক্টোবর ২০১৭ সোমবার

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার সান্টু সরদার ওরফে কালাম নামের একঅপহরণকারীকেগ্রেফতার করেছে পুলিশগ্রেফতারের পরই বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। এই প্রতারক বিভিন্ন ভাবে প্রতারণার মাধ্যমে কিশোরীসহ অন্তত ৩৩ জন নারীকে বিয়ে করেছে

আগৈলঝাড়া থানা-পুলিশ গত শুক্রবার গভীর রাতে ঢাকার কুড়িল এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। পরে গতকাল রোববার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে সান্টুকে।

যেভাবে গ্রেফতার: গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার ১৫ বছর বয়সি কিশোরী আগৈলঝাড়ায় মামার বাড়ি থেকে একটি মাদ্রাসায় পড়াশোনা করত। নবম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে গত ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় আগৈলঝাড়ার দক্ষিণ বাগধা গ্রামের সান্টুর (৪২) নেতৃত্বে অপহরণকারিরা অপহরণ করে। ছাত্রীকে ঢাকার কুড়িল এলাকার ঝিলের কাছের একটি ঘরে আটকে রাখে সান্টু। এ সময় তাকে প্রায়ই শারীরিক নির্যাতন করা ও ধর্ষণ করা হয়।

এ ঘটনায় ওই রাতে সান্টুসহ পাঁচজনকে আসামি করে থানায় অপহরণ মামলা করা হয়। গত শুক্রবার গভীর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকার কুড়িল এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে আগৈলঝাড়া থানা-পুলিশ। এসময় অপহরণকারী সান্টুকেও গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে গত শনিবার আগৈলঝাড়া থানায় আনা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আগৈলঝাড়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাহিদুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সান্টু স্বীকার করেছেন যে, তিনি কিশোরীসহ প্রায় ৩৩ নারীকে বিয়ে করেছেন। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অপহরণে শিকার ওই ছাত্রীকে আটকে রেখে ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়। ছাত্রীর শরীরে জখমের চিহ্ন রয়েছে। তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়, ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করার জন্য।

ওই ছাত্রীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, মাদ্রাসায় আসা-যাওয়ার পথে সান্টু ওই ছাত্রীকে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করতেন, কু-প্রস্তাব দিতেন। তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সহযোগীদের নিয়ে সান্টু ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে।

 

/আর/এআর


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি