ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট, ২০১৮ ১০:৫৩:১১

Ekushey Television Ltd.

৬ লক্ষণেই বুঝে নিন অন্ত:স্বত্ত্বা কি না?

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৩:০০ পিএম, ৪ আগস্ট ২০১৮ শনিবার | আপডেট: ১২:২৩ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০১৮ মঙ্গলবার

অনেকেই অন্ত:স্বত্ত্বা হওয়ার প্রথম কয়েকটা দিন বুঝতেই পারেন না। কিন্তু এই প্রথম কয়েকমাস গর্ভস্থ শিশুর সুস্থতার জন্য খুব সাবধান অবলম্বন করতে হয়। যদি বুঝতে না পারেন তাহলে হয়তো পরবর্তী শিশু ও মা দুজনকেই ঝুঁকিতে পড়তে হবে। তাই আপনি গর্ভবতী কি না তা কয়েকটি লক্ষণের মাধ্যমে বাড়িতে বসেই বুঝে নিন।

গর্ভধারণের প্রাথমিক লক্ষণগুলি

১) পিরিয়ড বা ঋতুস্রাব কি নির্দিষ্ট সময়ে হয়েছে? প্রতিমাসের একটি নির্দিষ্ট সময়ে নারীদের পিরিয়ড হয়ে থাকে। সাধারণত ২৮ দিন পর পর। সেক্ষেত্রে, খেয়াল রাখতে হবে আপনার পিরিয়ড ঠিক সময়ে হচ্ছে কিনা! যদি ২৮ দিন পর পিরিয়ড না হয়, তাহলে হয়তো আপনি গর্ভধারণ করেছেন। অন্যান্য লক্ষণগুলো মিলিয়ে নিতে পারেন তখন।

২) পিরিয়ডের সময় যদি স্বাভাবিক রক্তপাতের তুলনায় খুব সামান্য পরিমাণ রক্তপাত হয়ে বন্ধ হয়ে যায়, এই লক্ষণটিকে অবহেলা করবেন না। এটি হতে পারে গর্ভধারণের লক্ষণ।

৩) সাধারণত সকালে ঘুম থেকে উঠে যদি প্রচন্ড দুর্বল, মাথা ঘোরা ও বিষণ্ন লাগে এবং সেই সঙ্গে প্রায়ই হজমে সমস্যা বা কোষ্ঠকাঠিন্য্ দেখা দেয়। হতে পারে, আপনার গর্ভধারনের অন্যতম লক্ষণ এটি।

৪) যদি হঠাৎ করে সারাক্ষণ নিজেকে ক্লান্ত মনে হয় এবং সময়ে অসময়ে কেবল ঘুমোতে ইচ্ছে করে, যা আপনার স্বাভাবিক দৈনিক রুটিনের বাইরে, তাহলে এই লক্ষণটিকে অবহেলা করবেন না। অন্যান্য লক্ষণগুলোর সঙ্গে এই লক্ষণটি জানিয়ে দেয় আপনি হয়তো গর্ভধারণ করেছেন।

৫) খেয়াল করুন, আপনি কি স্বাভাবিকের চেয়ে অধিকবার বা ঘন ঘন প্রস্রাবের চাপ অনুভব করছেন? গর্ভধারণের অন্যতম লক্ষণ এটি।

৬) গর্ভধারণ করার ফলে আপনার স্তনের আকৃতি কিছুটা বৃদ্ধি পাবে ও নিপল গাঢ় রং ধারণ করবে।

গর্ভবতী কিনা তা নিশ্চিত হবার জন্যে যা করবেন

গর্ভবতী নিশ্চিত হবার জন্য সাধারণত ওষুধের দোকানগুলোতে প্রেগন্যান্সি কাঠি অত্যন্ত কার্যকরী। প্রথম পিরিয়ডের ডেট মিস করার পরদিনই এটি দিয়ে টেস্ট করুন। সাধারণত সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর প্রথম প্রস্রাবে কাঠিটি ডুবিয়ে রেখে পরীক্ষাটি করা সম্ভব। তাছাড়া বিস্তারিত নির্দেশাবলী প্রেগন্যান্সি কাঠির প্যাকেটেই লেখা থাকে। তবে যদি ফলাফল নেগেটিভ হয় আর সেই সঙ্গে আপনার পিরিয়ড বন্ধ থাকে, তাহলে কিছুদিন পর আবারও পরীক্ষা করুন। সবশেষে, আপনি যদি গর্ভধারণ করে থাকেন, তাহলে দেরি না করে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিন সামনের দিনগুলোর জন্যে। আপনার ও আপনার গর্ভের সন্তানের সুরক্ষার জন্যে চিকৎসকের পরামর্শ মেনে চলুন।

সূত্র : জি নিউজ।

কেএনইউ/ এআর



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি