ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৮ ৯:০৩:১০

Ekushey Television Ltd.

ডায়াবেটিস রোগের ৭ কারণ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:২৭ এএম, ২৭ এপ্রিল ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ১১:২৭ এএম, ২৭ এপ্রিল ২০১৮ শুক্রবার

শর্করা জাতীয় খাবার গ্রহণ করার পর হজম প্রক্রিয়া শেষে গ্লুকোজ ক্ষুদ্রান্ত্র থেকে রক্তে প্রবেশ করে। অগ্ন্যাশয় থেকে নি:সরিত হরমোন ইনসুলিনের সাহায্যে গ্লুকোজ রক্ত থেকে দেহের প্রতিটি কোষে প্রবেশ করে বিপাকক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করে এবং শক্তি তৈরি হয়। ফলে শরীরের বৃদ্ধি ও ক্ষয়পূরণসহ স্বাভাবিক কাজ চলতে থাকে।

যদি কোনো কারণে অগ্ন্যাশয় থেকে প্রয়োজনীয় ইনসুলিন হরমোন নি:সরণ না হয় তবে রক্তের গ্লুকোজ কোষের মধ্যে প্রবেশ করতে পারে না। ফলে রক্তের গ্লুকোজ লেভেল স্বাভাবিকের চেয়ে বেড়ে যায় এবং একটি পর্যায়ে এই অতিরিক্ত গ্লুকোজ কিডনির মাধ্যমে শরীর থেকে বের হয়ে যায়। এই অবস্থার নামই ডায়াবেটিস। আবার কখনও অগ্ন্যাশয় থেকে ইনসুলিন নি:সরণ স্বাভাবিক থাকলেও তা রক্তের গ্লুকোজকে বহণ করে কোষের মধ্যে প্রবেশ করাতে ব্যর্থ হয়। এক্ষেত্রেও রক্তের গ্লুকোজ স্বাভাবিকের চেয়ে বেড়ে ডায়াবেটিস রোগ তৈরি হয়।

ডায়াবেটিস ৩ ধরনের হয়। যথা- টাইপ-১ ডায়াবেটিস, টাইপ-২ ডায়াবেটিস এবং গর্ভকালীন ডায়াবেটিস। তবে বাংলাদেশে টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা মোট ডায়াবেটিক রোগীর প্রায় ৯৫ শতাংশ।

এখন পর্যন্ত ডায়াবেটিসের সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করতে সক্ষম হননি। তবে বিজ্ঞানীরা বেশ কিছু ‘রিস্ক ফ্যাক্টর’ চিহ্নিত করেছেন। এরমধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হলো-

১. শারীরিক পরিশ্রম না করা

২. অতিরিক্ত ওজন ও মেদস্থূলতা

৩. ফাস্টফুড খাওয়া ও কোমল পানীয় পান করা

৪. ভাজাপোড়া ও তৈলাক্ত খাবার খাওয়া

৫. ধূমপান করা

৬. অতিরিক্ত চর্বিজাতীয় খাবার খাওয়া

৭. অতিরিক্ত মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তা

একে//



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি