ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০:৩৫:০৪

নতুন গবেষণা

সিগারেটের মতই ক্ষতিকর ই-সিগারেট

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৬:২৫ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৭ রবিবার

ক্ষতিকর নয় অথবা সিগারেটের তুলনায় কম ক্ষতিকর মনে করে ই-সিগারেটে ধূমপান করে থাকেন অনেকেই। অনেকেই শুধু শখ করে অথবা সিগারেটের বিকল্প মনে করেও ই-সিগারেটে ধূমপান করে থাকেন। কিন্তু নতুন এক সমীক্ষা তাদের জন্য দিয়েছে সতর্ক বার্তা। নতুন এ গবেষণা বলছে যে, একটি সাধারণ সিগারেটের মতই ক্ষতিকর এই ই-সিগারেট বা ভ্যাপ বা মট। এমনকি অন্যান্য তামাকজাত পণ্যের মতই ফুসফুসের রোগসহ মারাত্মক রোগের কারণ হতে পারে ই-সিগারেট।

নর্থ ক্যারোলিনা চ্যাপেল হিল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণা অনুযায়ী, ফুসফুসের রোগের জন্য সহায়ক বিপজ্জনক প্রোটিন যেমন সিওপিডি এবং সিসটিক ফিব্রোসিস উৎপাদনে একটি সাধারণ সিগারেটের মতই ভূমিকা রাখে ইলেকট্রনিক সিগারেট বা ই-সিগার। ১৪ জন সাধারণ ধূমপায়ী, ১৫ জন ই-সিগার ধূমপায়ী এবং ১৫ জন অধূমপায়ীদের ওপর গবেষণা চালিয়ে এমন সিদ্ধান্তে আসেন গবেষকেরা। গবেষণায় বলা হয়েছে, সিগারেট ধূমপানের চেয়ে ই-সিগার ধূমপান করা কোন অংশেই কম ক্ষতিকর নয়।

গবেষণায় পাওয়া তথ্য থেকে জানা যায়, ই-সিগারে ধূমপান করলে শরীরে নিউট্রোফিল এক্সট্রাসেলুলার ট্রাপ বা নেট নামক ধরনের প্রোটিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। প্যাথোজেন মোকাবেলায় এই নেট প্রোটিন কাজ করলেও শরীরে এর অতিরিক্ত মাত্রা ফুসফুসের মারাত্মক রোগ সৃষ্টি করে।

ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায়ও ই-সিগারেটের ক্ষতিকর প্রভাবের কথা নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাদের সমীক্ষা অনুযায়ী, ই-সিগারের প্রতিটি টানে হার্ট এটাকের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।

অনেক দিন থেকেই বিদ্যমান সিগারেট বনাম ই-সিগারেট বিতর্কের অবসানে উক্ত গবেষণা কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলেই আশা করছেন গবেষক দল।

সূত্রঃ ডেইলি মেইল

//এস এইচ// এআর

 


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি