ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭ ৮:৩৪:৩৮

শাকিব-অপুর দূরত্ব কমেছে

সোহাগ আশরাফ

প্রকাশিত : ০৩:৩৭ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৫:২৪ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ বৃহস্পতিবার

সংসার নিয়ে একের পর এক ঝামেলায় জড়াচ্ছেন শাকিব-অপু। বিয়ে, সন্তান, সংসার নিয়ে বেশ কয়েকবার শিরোনামে উঠে আসছেন এই তারকা দম্পতি। তবে সবকিছুকে পেছনে ফেলে সংসার টিকিয়ে রাখতে চাইছেন অপু বিশ্বাস। আর সেজন্য তিনি শাকিবের পছন্দকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন।

শুরুর দিকে গোপন রাখা হয়েছিলো বিয়ের খবর। একই সঙ্গে গোপন থাকে সন্তান জন্ম নেওয়ার খবরটিও। যদিও ওই সময় মিডিয়ায় বিষয়টি নিয়ে গুঞ্জন চলে, তবে তারকা দম্পতিদের কেউই তখন বিষয়টি খোলাসা করেননি।

এরপর সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে প্রকাশ্যে আসে শাকিব-অপুর বিয়ে ও তাদের একমাত্র সন্তান জয়ের সংবাদ। আর এ কাজটি করেন অপু বিশ্বাস নিজেই। মিডিয়ার সামনে প্রকাশ্যে মুখ খোলেন অপু। কেউ কেউ বলেন, অপু এ কাজটি করেছিলেন সমসাময়িক শাকিবের জুটি নবাগত চিত্রনায়িকা বুবলীর জন্য। অপু মনে করেছিলেন পর্দার শাকিব-বুবলী জুটি বাস্তবেও হয়তো প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে যাচ্ছেন। আর সেই আশঙ্কায় অপু সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে মিডিয়ার সামনে হাজির হন। অপুর ওই উপস্থিতি মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়।

কিন্তু সেই সময় বিষয়টিকে ভালোভাবে গ্রহণ করতে পারেননি শাকিব। ঠিক যখন শাকিব দুই বাংলার সিনেমায় অর্থাৎ যৌথ প্রযোজনায় কাজ শুরু করেছেন, আর সেই কাজের সূত্র ধরে দেশের শিল্পী ও পরিচালক সমিতির সঙ্গে ঝামেলা সৃষ্টি হয়, তখনই অপু এভাবে প্রকাশ্যে আসেন।

কিন্তু হঠাৎ করে কেনো অপু প্রকাশ্যে সব কিছু ফাঁস করে দিলেন তা নিয়েও ওঠে অনেক আলোচনা। তখন কেউ কেউ বলেছেন- অপুকে দিয়ে এটা করানো হয়েছে। যাতে শাকিবের ক্যারিয়ের ধ্বংস হয়ে যায়। আর এটি করানোর জন্য শাকিবের প্রতিপক্ষরা বুবলীকে অপুর প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করায়। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে বুবলীর প্রতি অপুর হিংস্রতা প্রকাশও পায়। তবে অপুর বক্তব্য ছিলো- ‘অনেক সহ্য করেছি। আর পরছি না লুকিয়ে থাকতে। কারণ আমার সন্তান তার পরিচয় নিয়ে বেড়ে উঠুক।’

এরপর শাকিবও মিডিয়ার সামনে এসে বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেন। প্রথম দিকে অপুর উপর ক্ষেপে গিয়ে স্ত্রী হিসেবে তাকে অস্বীকার করলেও পরে মেনে নেন। চলচ্চিত্রের অনেকেই তখন পেছন থেকে শাকিবের পাশে দাঁড়ায়। বিশেষ করে প্রয়াত নায়ক রাজ রাজ্জাক শাকিবকে সবকিছু মেনে নিয়ে মিডিয়ার সামনে কথা বলার উৎসাহ দেন। শাকিবও তাই মাথা ঠান্ডা করে অপু, সন্তান জয়কে নিয়ে মিডিয়ার সামনে আসেন। সবাই তখন মনে করেছিলো সব অন্ধকার হয়তো কেটে গেছে। কারণ শাকিব-অপু ঘোষণা দিয়েছিলেন সন্তানের প্রথম জন্মদিনে একটি বড় আয়োজন করা হবে। আর সেই দিন ছেলে জয়কে সঠিক ভাবে সবার সামনে উপস্থাপন করা হবে।

শাকিবের বক্তব্য ছিলো-‘একজন সুপারস্টারের সন্তান কেনো এমন ভাবে মিডিয়ার সামনে আসবে। তাকে অবশ্যই তার বাবার পরিচয়ে সঠিক সময়ে উপস্থাপন করা হতো।’

কিন্তু এরই মধ্যে চলতে থাকে আবারও দাবার গুটি। অপুর ক্যারিয়ার ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে এই সূত্র ধরে অপুকে আবারও শাকিবের প্রতিদ্বন্দ্বি হিসাবে তৈরি করা হয়। দূরত্ব আবারও কয়েক মাইল দূরে চলে যায়। জয়ের জন্মদিনে অপু বিশেষ আয়োজন করলেও তাতে অংশ নেয়নি শাকিব। ঘটনা আবারও মোড় নেয় ভিন্ন দিকে।

শাকিব-বুবলী, শ্রাবন্তী, পাওলি জুটিরা যখন হল দখল করে আছে ঠিক তখন মুক্তি পায় অপু-শাকিব অভিনিত সিনেমা ‘রাজনীতি’। সিনেমার রাজনীতি ধীরে ধীরে বাস্তবে রূপ নেয়। অপু সিদ্ধান্ত নেন নতুন করে আবারও ক্যামেরার সামনে আসবেন তিনি। সেই অনুসারে পূর্বের সিডিউল/চুক্তি করা সিনেমার শুটিং-এ অংশও নেন। শুধু এখানেই শেষ নয়; নতুন করে আরও কিছু সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হন এই নায়িকা। আবারও পাইপ লাইনে চলে আসেন অপু। কিন্তু নতুন এই সিনেমাগুলোতে তার জুটি আর শাকিব খান নয়; অন্যকেউ। বোঝাই যাচ্ছিলো শাকিব বিষয়টিকে ভালোভাবে নিচ্ছেন না। কারণ সে চায় অপু সংসার নিয়ে ছেলেকে নিয়ে আপাদত স্থির থাকুক। অপুর নতুন করে এই ফিরে আসা শাকিবের কাজে প্রভাব ফেলতে পারে এমন আশঙ্কাও অনেকের।

কিন্তু এরই মধ্যে ঘটে যায় আরও এক কাণ্ড। সংবাদ প্রকাশ পায়- ‘ছেলেকে ঘরে তালা মেরে অপু গেলেন বিদেশে’। শাকিব ছেলেকে দেখেতে গিয়ে অপুর বাসায় তালা ঝুলতে দেখে ক্ষেপে যায়। আর এজন্য পুলিশের কাছে গিয়ে অভিযোগও করেন শাকিব।

জানা যায়, অপু অসুস্থ হয়ে একা একা চলে গেছেন কলকাতায়। কারণ হিসাবে তিনি জানান, বাথটবের সঙ্গে পা আটকে উল্টে পড়ে গিয়ে পেটে মারাত্মক আঘাত পান তিনি। বাথটবের কোনা গিয়ে লাগে সিজারের স্থানে। সঙ্গে প্রচণ্ড ব্যথা হতে থাকে পেটে এবং ইউরিনের সঙ্গে রক্তপাত শুরু হয়।

আর এজন্যই তিনি দ্রুত চিকিৎসা নিতে চলে যান কলকাতায়। সন্তানকে সঙ্গে না নেওয়ার কারণ হিসাবে তিনি বলেন, শিলিগুড়িতে খুব ঠাণ্ডা পড়ছে, তাই জয়কে নিয়ে যাওয়া ঠিক হবে না বলে রেখে গেছেন। আর যাতে কোন সমস্যা না হয় তাই নিরাপত্তার কারণে তিনি বাইরে তালা মেরে রাখতে বলেছিলেন।

শাকিবের আগমন উপলক্ষ্যে তিনি বলেন, শাকিব বিদেশে ছিলো শুটিং এর কাজে। সে যে দেশে এসেছে তা আমি জানতাম না। তবে শাকিব যে আমার বাড়িতে যাবে তা যদি আমাকে জানানো হতো তবে কোন সমস্যাই হতো না।

সন্তানের খবর শুনে শাকিবের ছুটে যাওয়া অপু পজেটিভ দৃষ্টিতে নেন।

এসব কিছু নিয়ে চলতে থাকে পাল্টা পাল্টি জবাব। অবশেষে কলকাতা থেকে ফিরে এলেন অপু। জানালেন মনের কথা। পরিস্থিতি যখন জটিলতার দিকে যাচ্ছিল ঠিক তখনই নরম হলেন অপু। জানালেন, স্বামী নারাজ হয় এমন সবকিছু থেকে সর্বদা বিরত থাকবেন তিনি। আজ তার স্বপ্ন শুধুই এক অটুট পরিবার।

ডিভোর্সের গুজব উড়িয়ে দিয়ে বর্তমানে সেই দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে শাকিব-অপুর অধ্যায়। সবাই চাইছে এই তারকা জুটি সংসার ও সন্তান নিয়ে সুখে থাকুক। মিডিয়া কর্মীদেরও অনেকে এ বিষয়ে সরব হয়েছেন। তারা চাচ্ছেন সব ঝামেলা মিটিয়ে বন্ধন অটুট থাকুক শাকিব অপুর। আশা করা যাচ্ছে সব ঝামেলার অবসান হবে। মিটে যাবে সব কোন্দল। কারণ তাদের রয়েছে চাঁদের মত সন্তান জয়।

বিষয়টি অপু এরইমধ্যে উপলব্ধি করতে পেরেছেন। তিনি সম্প্রতি বলেছেন, অভিনয় নয়, সংসারে মন দিবেন। ধর্ম-কর্ম-হজ্জ করবেন। পুরো সংসারি হয়ে উঠবেন। শাকিবও কোনো সন্তানের ভবিষ্যত চিন্তা করেই তারা এই সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন।

এদিকে অপু বিশ্বাসের এমন সিদ্ধান্তে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে সম্প্রতি সাইন করা ‘কাঙ্গাল’ ও ‘কানাগলি’ নামের দুটি সিনেমার ভবিষ্যৎ। এর মধ্যে কাঙ্গাল সিনেমাতে অপু বিশ্বাসের বিপরীতে ডিএ তায়েব ও বাপ্পি চৌধুরীর অভিনয় করার কথা ছিলো।

 

এসএ/


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি