ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭ ১১:২৭:১১

কারা অধিদফতরে ২২৮ নিয়োগ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:২৯ পিএম, ১২ অক্টোবর ২০১৭ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ১০:২৩ পিএম, ১২ অক্টোবর ২০১৭ বৃহস্পতিবার

বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের অধীন কারা অধিদফতর জনবল নেবে। বিভিন্ন পদে মোট ২২৮ জনকে নিয়োগ দেবে প্রতিষ্ঠানটি। এ লক্ষ্যে আবেদন চেয়ে সম্প্রতি বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে কারা অধিদপ্তর। আগ্রহীরা যোগ্যতা থাকা সাপেক্ষে আবেদন করতে পারেন এসব পদে। তার আগে বিজ্ঞপ্তিটি দেখে নিন একবার। মিলিয়ে নিন যোগ্যতার মাপকাঠি। আর প্রস্তুতি শুরু করুন এখন থেকেই।


কোন পদে কতজন
কারা অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ফার্মাসিস্ট পদে ৩৬ জন, সাঁটলিপিকার কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে ১ জন, সাঁটমুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে ৩ জন, কারা সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে ৫৬ জন, কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক কাম অফিস সহকারী পদে ২ জন, অফিস সহকারী পদে ৫ জন, ফ্যাক্টরি ওভারসিয়ার পদে ২ জন, টাস্ক টেকার পদে ৬ জন, গাড়িচালক পদে ৩৮ জন, শিক্ষক পদে ৩৪ জন, ক্যাশিয়ার পদে ১ জন, মাস্টার দর্জি পদে ১১ জন, দর্জি পদে ১৯ জন, বুক বাইন্ডার ইন্সট্রাক্টর পদে ১ জন, অফিস সহায়ক পদে ১ জন নিয়োগ দেবে কারা অধিদফতর।  


আবেদনের যোগ্যতা
কারা অধিদফতরে ফার্মাসিস্ট পদে আবেদনের জন্য থাকতে হবে ডিপ্লোমা ইন ফার্মা সনদ। সাঁটলিপিকার কাম কম্পিউটার অপারেটর, সাঁটমুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর, কারা সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক, কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক কাম অফিস সহকারী পদে আবেদনের যোগ্যতা এইচএসসি। থাকতে হবে ওয়ার্ড প্রসেসিংসহ মেইল ও ফ্যাক্স আদান-প্রদানের অভিজ্ঞতা। বাংলা ও ইংরেজি মুদ্রাক্ষর লিখনে পদ তিনটিতে যথাক্রমে প্রতি মিনিটে সর্বনিম্ন ২৫ ও ৩০, ২০ ও ২৮ এবং ২০ ও ২০ শব্দ লিখতে হবে। সাঁটলিপিকার কাম কম্পিউটার অপারেটর ও সাঁটমুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর পদের প্রার্থীদের সাঁটলিপিতে প্রতি মিনিটে বাংলা ও ইংরেজি  লিখতে হবে যথাক্রমে ৫০ ও ৮০ এবং ৪৫ ও ৭০ শব্দ। কারা সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক, কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক কাম অফিস সহকারী পদে প্রার্থীদের থাকতে হবে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ। অফিস সহকারী পদের জন্য কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগে এইচএসসিসহ থাকতে হবে কম্পিউটার চালনায় দক্ষতা। এসএসসি হলেই আবেদন করা যাবে ফ্যাক্টরি ওভারসিস পদে। অগ্রাধিকার পাবে কাপড় বোনা ও রং করা, কাঠমিস্ত্রি, কার্পেট তৈরি, কাপড়সহ বিভিন্ন ট্রেড কোর্স করা প্রার্থীরা। অষ্টম শ্রেণি পাস হলেই আবেদন করা যাবে গাড়িচালক পদে। অগ্রাধিকার পাবেন হালকা ও ভারী যানবাহন চালানোর ড্রাইভিং লাইসেন্সধারী ও অভিজ্ঞ প্রার্থীরা।


এইচএসসি পাস হলেই আবেদন করা যাবে শিক্ষক, ক্যাশিয়ার, মাস্টার দর্জি ও দর্জি পদে। শিক্ষক ও ক্যাশিয়ার পদের জন্য কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ থাকতে হবে। শিক্ষক পদের জন্য সার্টিফিকেট ইন এডুকেশন কোর্সে উত্তীর্ণরাও আবেদন করতে পারবেন। মাস্টার দর্জি ও দর্জি পদের জন্য থাকতে হবে সংশ্লিষ্ট কাজে দুই বছরের অভিজ্ঞতা। বুক বাইন্ডার ইন্সট্রাক্টর ও অফিস সহায়ক পদে আবেদনের যোগ্যতা এসএসসি। ব্ল্যাকস্মিথ ও বুক বাইন্ডার ইন্সট্রাক্টর পদে সংশ্লিষ্ট কাজে তিন বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।


বয়সসীমা
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ১ অক্টোবর তারিখে সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৩০ বছর। তবে মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রতিবন্ধীদের জন্য বয়সসীমা ৩২ বছর।


আবেদনের নিয়ম
কারা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে (www.prison.gov.bd) পাওয়া যাবে নির্ধারিত আবেদন ফরম। নির্দেশনা অনুসারে পূরণ করে ৩০ অক্টোববের মধ্যে পাঠাতে হবে কারা মহাপরিদর্শক, কারা অধিদপ্তর, ৩০/৩ উমেশ দত্ত রোড, বকশীবাজার, ঢাকা—১২১১ ঠিকানায়। বিজ্ঞপ্তির ক্রমিক ১ থেকে ১৫ নম্বর পদের জন্য ১০০ টাকা এবং ১৬ নম্বর পদের জন্য ৫০ টাকা ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে জমা করতে হবে। কারা মহাপরিদর্শক, বাংলাদেশ বরাবর টাকা জমা দিতে হবে সোনালী ব্যাংকের যেকোনো শাখায় ১-৭৩৫১-০০০০-২০৩১ কোড নম্বরে। চালানের মূল কপি জমা দিতে হবে আবেদনপত্রের সঙ্গে। খামের ওপর প্রার্থীর পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা, পদের নাম ও নিজ জেলার নাম উলে­খ করে চার টাকা মূল্যের ডাকটিকিটসংবলিত ৯ বাই ৪ ইঞ্চি মাপের ফেরত খামসহ পাঠাতে হবে আবেদনপত্র। কোটায় আবেদন করলে তা খাম ও আবেদনপত্রের ওপর বড় করে লিখতে হবে।


আবেদন করতে যা লাগবে
আবেদনপত্রের সঙ্গে পাসপোর্ট সাইজের চার কপি সত্যায়িত ছবি জমা দিতে হবে। মৌখিক পরীক্ষার সময় লাগবে সব সনদের সত্যায়িত ফটোকপি। মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিদের ইউনিয়ন পরিষদ ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর থেকে প্রত্যয়নপত্র জমা দিতে হবে।


ডেটলাইন
এরইমধ্যে শুরু হয়ে গেছে আবেদন প্রক্রিয়া। আবেদন করা যাবে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত। বিজ্ঞপ্তি ও আবেদন ফরম পাওয়া যাবে http://www.prison.gov.bd/news-events/details/1476 ওয়েব ঠিকানায় ও http://bit.ly/2y8SZW9 ওয়েবলিংকে।


পরীক্ষার  প্রস্তুতি
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ৭০ নম্বরের লিখিত ও ৩০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। ৪৫ শতাংশ নম্বর পেলে পাস ধরা হবে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেই মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়া যাবে। লিখিত পরীক্ষার সঙ্গে নেওয়া হবে ব্যবহারিক পরীক্ষাও। এর আগে যারা এই পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন এমন তিনজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, লিখিত পরীক্ষায় ৭০ নম্বরের মধ্যে বাংলায় ২০, গণিতে ২০, ইংরেজিতে ২০ ও সাধারণ জ্ঞানে থাকবে ১০ নম্বর। পদ ও শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুসারে আলাদা প্রশ্নপত্র হবে। সাধারণত প্রশ্ন আসে পঞ্চম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পাঠ্য বই থেকে। বাংলা ব্যাকরণ অংশে এককথায় প্রকাশ, বাগধারা, ণত্ব-বিধান, ষত্ব-বিধান, সাহিত্য অংশে বিভিন্ন গল্প, কবিতা বা লেখকের নাম ও জীবনী থেকে প্রশ্ন আসতে পারে। গণিতে সুদকষা, ঐকিক নিয়ম, অনুপাত, সমানুপাত, শতকরা, লসাগু-গসাগু, লাভ-ক্ষতি, বীজগণিতীয় সূত্র, ভগ্নাংশ ও লগারিদম থেকে প্রশ্ন আসতে পারে। সাধারণ জ্ঞান থেকে সমসাময়িক বিষয়ের ওপর বেশি প্রশ্ন আসে। প্রার্থী সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কতটা দক্ষ, তা দেখা হবে মৌখিক পরীক্ষায়। পরখ করা হবে বাচনভঙ্গি, ব্যক্তিত্ব ও উপস্থিত বুদ্ধিমত্তা।


বেতন ও সুযোগ-সুবিধা
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী ফার্মাসিস্ট পদে বেতন দেওয়া হবে ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা স্কেলে। সাঁটলিপিকার কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে ১১০০০-২৬৫৯০ টাকা, সাঁটমুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে ১০২০০-২৪৬৮০, কারা সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক, কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক কাম অফিস সহকারী, অফিস সহকারী, ফ্যাক্টরি ওভারসিয়ার, টাস্ক টেকার ও গাড়িচালক পদে বেতন পাওয়া যাবে ৯৩০০-২২৪৯০ টাকা স্কেলে। শিক্ষক ও ক্যাশিয়ার পদের ৯০০০-২১৮০০ টাকা, মাস্টার দর্জি ও দর্জি পদে ৮৮০০-২১৩১০, বুক বাইন্ডার ইন্সট্রাক্টর পদে ৮৫০০-২০৫৭০ ও অফিস সহায়ক পদে বেতন দেওয়া হবে ৮২৫০-২০০১০ টাকা স্কেলে।

//এআর


 
 

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি