ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১০:৩২:২৮

যেসব কারণে প্রশ্ন ফাঁস

যেসব কারণে প্রশ্ন ফাঁস

প্রশ্নফাঁস নিয়ে করণীয় নির্ধারণে তিনজন মন্ত্রী এবং ছয়জন সচিবের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়ে ছয়টি কারণ চিহ্নিত হয়েছে বলে বৈঠকে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। আজ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়ে লিখিত পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ করতে হলে এর উৎস এবং পরীক্ষা গ্রহণ পদ্ধতির ত্রুটিসমূহ চিহ্নিত করা প্রয়োজন। প্রশ্নপত্র ফাঁসের কয়েকটি বড় ক্ষেত্র রয়েছে। সেগুলো হলো- প্রথমত : বিজি প্রেসে প্রশ্ন কম্পোজ, এডিট, প্রিন্টিং ও প্যাকেজিং পর্যায়ে প্রায় ২৫০ জনের মতো কর্মী প্রশ্ন দেখতে পারে। তারা প্রশ্ন কপি করতে না পারলেও স্মৃতিতে ধারণ করা অসম্ভব ব্যাপার নয়। ৩-৪ জনের একটি গ্রুপের পক্ষে এভাবে প্রশ্ন ফাঁস করা সম্ভব হতে পারে। দ্বিতীয়ত : নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট/দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মাধ্যমে ট্রেজারি/ নিরাপত্তা হেফাজত হতে প্রশ্ন গ্রহণ করে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছানোর নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, অনেক কেন্দ্রে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা যথাযথভাবে দায়িত্বপালন করছেন না মর্মে অভিযোগ রয়েছে। তৃতীয়ত : অতিরিক্ত কেন্দ্র অনুমোদন দেয়া হয়েছে, যার ব্যবস্থাপনা করার মতো পর্যাপ্ত জনবল নেই; তাছাড়া ভেন্যুগুলো বেশির ভাগ ক্ষেত্রে মূল কেন্দ্র হতে দূরবর্তী স্থানে অবস্থিত। ফলে ৩০ মিনিট সময়ের অধিক পূর্বে কেন্দ্র সচিবরা প্রশ্ন খুলতে বাধ্য হচ্ছেন। চতুর্থত : পরীক্ষার্থী কিংবা পরীক্ষার দায়িত্বপ্রাপ্তদের স্মার্টফোন নিয়ন্ত্রণ করা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। গুটিকয়েক শিক্ষক/ কর্মচারীর কারণে গোটা প্রশ্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত হয়ে পড়ছে। পঞ্চমত : সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁসকারীদের চিহ্নিত করতে এবং তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা আরও বৃদ্ধি করার সুযোগ রয়েছে। এটা পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ১৫ দিন পূর্ব হতে করা সম্ভব হলে ভালো ফল পাওয়া যেতে পারে। গোয়েন্দা সংস্থার লোকবল ও অবকাঠামোগত ও প্রযুক্তিগত স্বল্পতার কারণেও কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় নজরদারি করা সম্ভব হচ্ছে না মর্মে প্রতীয়মান হয়। দুষ্কৃতকারীদের তাৎক্ষণিক গ্রেফতার ও শাস্তি প্রদান করতে না পারায় অন্যরাও অপরাধ করতে ভয় পাচ্ছে না। ষষ্ঠতম : বিটিআরসি কর্তৃক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নিয়ন্ত্রণের তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই। ফলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশ্ন আপলোডকারীদের চিহ্নিত করা যাচ্ছে না এবং সন্দেহজনক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। যৌথসভার বৈঠকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মোজাম্মেল হক খান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার এবং তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরীও অংশ নেন। এছাড়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, বিটিআরসির চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ ছাড়াও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। আরকে/টিকে
ছাত্রলীগের সংঘর্ষের জেরে দুর্ভোগে চবি শিক্ষার্থীরা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের পর হলে তল্লাশি চালিয়ে কয়েকজন নেতাকে গ্রেফতারের ঘটনায় শাটল ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে ছাত্রলীগের একটি পক্ষ। শুধু তাই নয়, কোন শিক্ষক বাসকেও ক্যাম্পাসে আসতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ ওঠেছে। তবে শাটল ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকলেও নির্ধারিত সময়ে ক্লাস ও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছে শিক্ষার্থীরা। ষোলশহর স্টেশনের মাস্টার মো. শাহাবউদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, মঙ্গলবার সকালে বটতলী স্টেশন (পুরাতন চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন) থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গামী কোনো ট্রেন ছেড়ে আসতে পারেনি। শহর থেকে ছেড়ে আসা তিনটি ট্রেনের একটিও এখন পর্যন্ত বিশ্ববিদল্যালয়ের উদ্দেশে ছেড়ে যায়নি। ট্রেনের হুইস পাপ কেটে দেওয়াসহ বাস চালকদের কাছ থেকে চাবি কেড়ে নেওয়ার ঘটনায় ইতোমধ্যে বেশ সমালোচিত আন্দোলনকারীরা। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী চলছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী। জানা গেছে, গত সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ জালাল ও শাহ আমনত হলে অবস্থান নিয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের কর্মীরা সংঘর্ষে জড়ায়। এতে অন্তত ছয় ছাত্রলীগ কর্মী আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। ছাত্রলীগের ওই দুই পক্ষের মধ্যে একটি গ্র্রুপ প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী। অন্য পক্ষটি নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। এদিকে সংঘর্ষের পরই রাতে শাহজালাল ও শাহ আমানত হলে তল্লাশি চালিয়ে বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় কয়েকজনকে আটক করা হয়। প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সহায়তায় চালানো ওই অভিযানে শাহজালাল হলের পেছনে পাহাড় থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় দুটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া দুই হলে বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র পাওয়া গেছে। এমজে/    

প্রাথমিক সমাপনীতে শতভাগ সৃজনশীল প্রশ্ন

এখন থেকে শতভাগ সৃজনশীল প্রশ্নে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ ব্যাপারে ২০১৮ সালের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের কাঠামো ও নম্বর বিভাজন জাতীয় কর্মশালায় চূড়ান্ত করা হয়েছে। সোমবার এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি (নেপ)। এতে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক প্রতি বিষয়ে শতভাগ যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্ন হবে। প্রসঙ্গত, সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়ার ফলে পাবলিক পরীক্ষায় নকলের প্রবণতা কমাছে বলে দাবি করে আসছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। সেই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের চিন্তা করে উত্তর লেখার দক্ষতাও বাড়ছে বলে দাবি শিক্ষামন্ত্রীর। উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে শুরু হওয়া প্রাথমিক সমাপনীতে ২০১২ সালে প্রথমবারের মতো ১০ শতাংশ সৃজনশীল প্রশ্ন সংযোজন করা হয়েছিল। পরে ২০১৩ সালে ২৫ শতাংশ, ২০১৪ সালে ৩৫ শতাংশ, ২০১৫ সালে ৫০ শতাংশ এবং ২০১৬ সালে প্রতি বিষয়ে ৬৫ শতাংশ  সৃজনশীল প্রশ্নে সমাপনী পরীক্ষা নেওয়া হয়। আর ২০১৭ সালে ৮০ শতাংশ সৃজনশীর প্রশ্নে পরীক্ষা দেয়ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়া বাকি প্রশ্ন ছিল ট্রাডিশনাল। একে// এআর

এবার জীববিজ্ঞানের প্রশ্নও ফাঁস

চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের গত সবগুলো পরীক্ষার প্রশ্নপত্রই ফাঁস হয়ে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ সোমবার অনুষ্ঠিত জীববিজ্ঞানের প্রশ্নপত্রও ফাঁস হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষা শেষে প্রশ্নের সঙ্গে মিলিয়ে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া গেছে। রুটিন অনুযায়ী আজ ‘জীববিজ্ঞান ও অর্থনীতি’র পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জীববিজ্ঞানের বহুনির্বাচনি পরীক্ষার উত্তরপত্রসহ প্রশ্নপত্র হোয়াটসঅ্যাপে সোমবার সকাল ৮টা ৫৭ মিনিটে পাওয়া গেছে। এর কিছুক্ষণ পর সকাল সোয়া ৯ টায় বোর্ডের দেওয়া অতিরিক্ত খাতায় লেখা এমসিকিউ’র সমাধান লেখাসহ ফাঁস হয় প্রশ্নপত্র। সকাল ১০টা ৪৬ মিনিটে ‘Biology’ নামের একটি গ্রুপে আসে জীববিজ্ঞানের ‘ক সেট’ সৃজনশীল প্রশ্নপত্র। উল্লেখ্য, গত ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া এবারের এসএসসি ও সমমানের সবকটি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়। এসব ফাঁস হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে পরীক্ষা শেষে হাতে পাওয়া প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া গেছে। নানা রকম ব্যবস্থা নেওয়ার পরও প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে পারছে না শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ ব্যর্থতার কথা স্বীকার করে গত বৃহস্পতিবার শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসাইন বলেন, ‘বিদ্যমান পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো সম্ভব নয়। তাই পরীক্ষা পদ্ধতির পরিবর্তন নিয়ে ভাবছে সরকার।’ প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রমাণও পেয়েছে তদন্ত কমিটি। একে// এআর  

প্রশ্নফাঁস: ৪ শিক্ষকসহ গ্রেফতার ৫

এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ৪ জন শিক্ষক ও ফেসবুকের একটি গ্রুপের একজন অ্যাডমিনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। সোমবার সকালে রাজধানীর উত্তরখান ও গাজীপুর এলাকা থেকে র‌্যাব-৩ এর একটি দল তাদের গ্রেফতার করে। র‌্যাব-এর পক্ষ থেকে এক ক্ষুদে বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে। তবে আটক ব্যক্তিদের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি র‌্যাব। আজ সোমবার বিকেল ৪টায় সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারতি জানানোর কথা রয়েছে। উল্লেখ্য, গত ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া এবারের এসএসসি ও সমমানের সবকটি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়। এসব ফাঁস হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে পরীক্ষা শেষে হাতে পাওয়া প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া গেছে। নানা রকম ব্যবস্থা নেওয়ার পরও প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে পারছে না শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ ব্যর্থতার কথা স্বীকার করে গত বৃহস্পতিবার শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসাইন বলেন, ‘বিদ্যমান পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো সম্ভব নয়। তাই পরীক্ষা পদ্ধতির পরিবর্তন নিয়ে ভাবছে সরকার।’   একে// এআর

শাবিপ্রবিতে অর্ধনগ্ন করে রাতভর র‌্যাগিং!

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) সিনিয়র শিক্ষার্থীদের র‌্যাগিংয়ের এর শিকার হয়েছেন ছয় নবীন শিক্ষার্থী। তাদের রাতভর অর্ধনগ্ন করে শৌচাগারে সেলফি তুলতে বাধ্য করা হয়েছে। এসময় তাদের মারধরসহ শারীরিকভাবে নির্যাতন এবং এসব ঘটনা কাউকে না জানানোর হুমকি দেয় ২০১৬-১৭ সেশনের কয়েকজন শিক্ষার্থী। গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের তপোবন আবাসিক এলাকার একটি মেসে রাতভর এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। পরিচিত হওয়ার নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছয় নবীন শিক্ষার্থীকে  বৃহস্পতিবার রাত ১০টা থেকে শুক্রবার ভোর ৬টা পর্যন্ত আটকে রেখে অর্ধনগ্ন করে র‌্যাগ দেয় একই বিভাগের ২০১৬-১৭ সেশনের ১৯ শিক্ষার্থী এবং পলিটিক্যাল স্টাডিজ বিভাগের ১ শিক্ষার্থী। কয়েকজন ভুক্তভোগী জানান, বিষয়টি নিয়ে তারা প্রচণ্ড মানসিক চাপে রয়েছেন। এ নিয়ে কারও সাথে কথা বলতেও ভয় পাচ্ছেন তারা।   এদিকে শাবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, র‌্যাগিংয়ের বিষয় প্রমাণিত হলে জড়িতদের কঠোর শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে।  তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিংয়ের ওপর প্রশাসন জিরো টলারেন্স আছে। তাই আমরা চাই না কাউকে মানসিক চাপের মুখে রাখা হোক। আর র‌্যাগিংয়ের নামে অশ্লীলতা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক জহির উদ্দিন আহমেদ জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিচিতির নামে কোনো ধরনের মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন মেনে নেওয়া হবে না। অতি শিগগিরই শৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সিভিল অ্যান্ড ইনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মুশতাক আহমেদ জানান, এ বিষয়ে তদন্ত করে র‌্যাগিংয়ের বিষয়টি প্রমাণিত হলে অবশ্যই জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। একে// এআর

বোর্ডের খাতায় প্রশ্নের উত্তর লিখে হোয়াটসঅ্যাপে ফাঁস!

এসএসসি ও সমমানের জীববিজ্ঞান পরীক্ষা শুরুর ঘণ্টা খানেক আগে ফাঁস হয়েছে প্রশ্ন ও উত্তরপত্র। আজ সোমবার হোয়াটসঅ্যাপের একটি গ্রুপে এটি ফাঁস করা হয়। এবার বোর্ড দেওয়া অতিরিক্ত খাতায় (এক্সট্রা খাতা) এমসিকিউ’র সমাধান লেখা রয়েছে। আজ সোমবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে এই উত্তরপত্র হোয়াটসঅ্যাপের একটি গ্রুপে প্রকাশ করা হয়। খাতার ওপর তারিখ দেওয়া রয়েছে ফেব্রুয়ারি ১৯, দিন সোমবার। এমনকি ওই খাতায় পর্যবেক্ষকের স্বাক্ষরও রয়েছে। এর আগে সকাল ৯টার কিছু আগেই জীববিজ্ঞান প্রশ্নের একটি সেটও এই একই অ্যাপে দেখা যায়। যার উত্তর বোর্ডের খাতায় লিখে একই গ্রুপে ছেড়ে দেওয়া হয়। উল্লেখ্য, চলমান এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এর আগে পর্যন্ত দশটি বহু নির্বাচনি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় গত ১ ফেব্রুয়ারি প্রথম দিন বাংলা প্রথম পত্রের বহু নির্বাচনি অভীক্ষার ‘খ’ সেট পরীক্ষার প্রশ্ন ও ফেসবুকে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া যায়। পরীক্ষা শুরুর একঘণ্টা আগে সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে ফাঁস হয় প্রশ্নপত্র। গত ৩ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টা ৩ মিনিটে বাংলা দ্বিতীয় পত্রের বহু নির্বাচনি পরীক্ষার ‘খ’ সেটের উত্তরসহ প্রশ্নপত্র পাওয়া যায় ফেসবুকে। যার সঙ্গে অনুষ্ঠিত হওয়া প্রশ্নপত্রের হুবহু মিল পাওয়া যায়। গত ৫ ফেব্রুয়ারি পরীক্ষা শুরুর অন্তত দুই ঘণ্টা আগে সকাল ৮টা ৪ মিনিটে ইংরেজি প্রথম পত্রের ‘ক’ সেটের প্রশ্ন ফাঁস হয়। একইভাবে ৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার পরীক্ষা শুরুর অন্তত ৪৮ মিনিট আগে সকাল ৯টা ১২ মিনিটে ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রের ‘খ’ সেটের গাঁদা প্রশ্নপত্রটি হোয়াটস অ্যাপের একটি গ্রুপে পাওয়া গেছে। গত ৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে হোয়াটস অ্যাপের একটি গ্রুপে ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষার বহু নির্বাচনি অভীক্ষার ‘খ’ সেটের চাঁপা প্রশ্নপত্রটি পাওয়া যায়। গত ১০ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা ৫৯ মিনিটে হোয়াটস অ্যাপের একটি গ্রুপে গণিতের ‘খ-চাঁপা’ সেটের প্রশ্নপত্রটি পাওয়া যায়। গত ১১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা ৫১ মিনিটে হোয়াটস অ্যাপের একটি গ্রুপে আইসিটির ‘ক’ সেট প্রশ্ন পাওয়া যায় এবং সকাল ৯টা ৩ মিনিটে ‘গ’ সেটের প্রশ্নও ফাঁস হয়। এছাড়া গত ১৩ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হয় বিজ্ঞান বিভাগের ‘পদার্থবিজ্ঞান’, মানবিক বিভাগের ‘বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা’ এবং বাণিজ্য বিভাগের ‘ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং’। এদিন সকাল ৮টা ৫৮ মিনিটে পদার্থবিজ্ঞানের বহু নির্বাচনি অভীক্ষার ‘গ সেট’ এর প্রশ্ন উত্তরপত্রসহ হোয়াটস অ্যাপে পাওয়া গেছে। আর পরীক্ষা শুরুর কিছুক্ষণ পরেই সকাল ১০টা ৫ মিনিটে ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং-এর ‘ঘ’ সেট’র প্রশ্নপত্রও পাওয়া যায় হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপে। ১৫ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত রসায়ন, পৌরনীতি ও নাগরিকতা এবং ব্যবসায় উদ্যোগের মধ্যে শুধু রসায়নের প্রশ্নপত্র পাওয়া যায় পরীক্ষার আগে। সকাল ৯টা ৫ মিনিটে রসায়নের ‘খ’ সেট প্রশ্নপত্রটি হোয়াটস অ্যাপের গ্রুপে পাওয়া যায়। শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বিষয়ের প্রশ্নপত্র পরীক্ষার এক ঘণ্টা আগে ৯ টা ৫ মিনিটে পাওয়া যায় হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপে। একই ভাবে রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে শুরু হয় বাংলা ভাষা ও সাহিত্য, ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য, কৃষি শিক্ষা, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ও সঙ্গীত বিষয়ের পরীক্ষা। এসএ/  

বাতিল হচ্ছে না এসএসসি পরীক্ষা

চলমান এসএসসি পরীক্ষায় একের  পর এক প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনা ঘটছে। তাই এ প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে পরীক্ষা বাতিল করা হবে কি না এ প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। তবে একাধিক প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠলেও পরীক্ষা বাতিল করার সুপারিশ করা হচ্ছে না বলে জানা গেছে। পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগের ভিত্তিতে রোববার বিকেলে পরীক্ষা মূল্যায়ন কমিটি দ্বিতীয় দফায় বৈঠকে বসবে বলে জানা গেছে। বৈঠকে ঠিক কি বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে এ সম্পর্কে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কমিটির একজন সদস্য গণমাধ্যমকে জানান, প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা বেশ কিছু তথ্য-উপাত্ত যাচাই-বাছাই করেছি। ইতোমধ্যে তিন শতাধিক মোবাইল ও ফোন নম্বর আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে দেওয়া হয়েছে। তবে প্রশ্ন ফাঁসের অফিযোগে কোনো পরীক্ষা বাতিল করার সুপারিশ করা হচ্ছে না। তিনি আরোও জানান, পরীক্ষা পদ্ধতি পরিবর্তন ও পরীক্ষা কেন্দ্রে আইন-শৃঙ্খলা জোরদারসহ বেশ কয়েকটি সুপারিশ প্রতিবেদন আকারে শিক্ষামন্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হবে।   এমএইচ/টিকে  

গণ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ভিপি জুয়েল জিএস নজরুল

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃতীয় বারের মত কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভিপি (সহ-সভাপতি) নির্বাচিত হয়েছেন ভাষা-যোগাযোগ ও সংস্কৃতি বিভাগের ছাত্র জুয়েল রানা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রাজনীতি ও প্রশাসন বিভাগের ছাত্র মো. সুজন রানার চেয়ে ৬৭৯ ভোট বেশি পেয়ে জয়ী হন তিনি। সাধারণ সম্পাদক পদে ২৪৯ ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন আইন বিভাগের ছাত্র মো. নজরুল ইসলাম। এছাড়া একই দিনে অনুষ্ঠিত কোষাধ্যক্ষ পদে খাদিজা আকতার সেতু, ক্রীড়া সম্পাদক পদে মাহতাবুর রহমান সবুজ, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মো. রকিবুল হাসান এবং প্রচার ও সমাজসেবা সম্পাদক পদে অর্জুন রাজ বংশী জয়ী হয়েছেন।  শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার অধ্যাপক মো. সিরাজুল ইসলাম। আনন্দঘন পরিবেশে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা থেকে ৪টা পর্যন্ত একযোগে ১০টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়। ছেলে ভোটারদের পাশাপাশি মেয়ে ভোটাররাও সারিবদ্ধভাবে লাইনে দাড়িয়ে ভোট দেন। এ সময় তাদের মধ্যে বিপুল উৎসাহ দেখা যায়। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে একজন প্রিজাইডিং অফিসার ও একজন পোলিং অফিসার দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ডা. লায়লা পারভীন বানু, রেজিস্ট্রার ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকসহ প্রায় ১০ জন পরিদর্শক সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করেন। ভোটগ্রহণ শেষে বিকেল ৫ টা থেকে শুরু হয় রাত ১২টা পর্যন্ত ভোট গণনা চলে। শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বেসরকারিভাবে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন। কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ৬টি পদের জন্য ২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার গত ২৭ জানুয়ারি নির্বাচনের খসড়া তালিকা,৩১ জানুয়ারি চূড়ান্ত ভোটার তালিকা, ৪ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র গ্রহণ ও ৮ ফেব্রুয়ারি চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করেন। বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথম এবং একমাত্র গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে ছাত্র সংসদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম গতিশীল করা, অরাজনৈতিক ছাত্র নেতৃত্ব সৃষ্টি করা এ নির্বাচনের লক্ষ্য।(বিজ্ঞপ্তি) এমএইচ/  

প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা সহায়ক ৩টি প্রকল্পের উদ্বোধন

শনিবার বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গনের মূল মঞ্চে অমর একুশে বইমেলায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের যৌথ আয়োজনে প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা সহায়ক ৩টি উদ্ভাবনী প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়।  অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে এই প্রকল্পগুলো উদ্বোধন করেন শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জাফর ইকবাল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান। শিক্ষার্থীদের সৃজনশীলতা, মেধা-বিকাশ ও সুস্থ-বিনোদনের জন্য তৈরি হওয়া এই প্রকল্পগুলো হল প্রাক প্রাথমিক ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিক্ষার্থীদের জন্য ‘অগমেন্টেড রিয়ালিটি’ ভিত্তিক শিক্ষা পদ্ধতি; ষষ্ঠ, সপ্তম, অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য বিজ্ঞান বিষয়ক মজাদার গেম ‘বিজ্ঞানের রাজ্যে’ এবং অষ্টম, নবম, দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা সহায়ক এনিমেটেড কন্টেন্ট ‘হাতের মুঠোয় বিজ্ঞান’। এটুআই প্রোগ্রামের ইনোভেশন ফান্ডের সহায়তায় তৈরি হওয়া এই প্রত্যেকটি প্রকল্প শিশু-কিশোর ও অবিভাবকদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে বলে আশা করা যাচ্ছে। ‘অগমেন্টেড রিয়ালিটি” প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রাক প্রাথমিক স্কুলের শিশুদের জন্যে শিক্ষাকে আরও আনন্দময় করতে একটি মোবাইল অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে যা গুগোল প্লে-স্টোর এ ‘Bookhela’ নামে পাওয়া যাচ্ছে। প্রাক-প্রাথমিক বইয়ের উপর বা বইয়ের পিডিএফ কপি নামিয়ে বর্ণের উপর অ্যাপটি ধরে স্পর্শ করলে সেখানে রাখা বস্তুটিকে উচ্চারণ সহ বাস্তবিক ভাবে দেখা যাবে এবং বাস্তব বস্তুর মতই ছুঁয়ে চারদিক ঘুরিয়ে দেখা যাবে। যেকোনো শব্দ এবং এর সংশ্লিষ্ট বস্তুর থ্রিডি চিত্র প্রদর্শনের মাধ্যমে শিশুদের মনোযোগ আকৃষ্ট হবে। ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণির বিজ্ঞান বিষয়ক পাঠ্যপুস্তকের কনটেন্টের উপর নির্মিত বাংলাদেশের প্রথম এডুকেশনাল মোবাইল অ্যাপ ভিত্তিক গেম `বিজ্ঞানের রাজ্যে` যা খেলার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞানের জটিল বিষয়গুলাকে সহজেই শিখতে পারবে। গেমটি এন্ড্রয়েড প্লে স্টোর এবং অ্যাপল অ্যাপ স্টোর থেকে পাওয়া যাচ্ছে। অষ্টম-নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিবাবক সকলের জন্য তৈরি হয়েছে ‘হাতের মুঠোয় বিজ্ঞান’ যা ব্যবহার করে শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞানের কঠিন বিষয়গুলোকে অ্যানিমেশন, গ্রাফিক্স ও মিউজিক এর মাধ্যমে সহজে আয়ত্ব করতে পারবে। এর সকল ভিডিও পাওয়া যাচ্ছে ইউটিউবের ‘হাতের মুঠোয় বিজ্ঞান’ চ্যানেল, কিশোর বাতায়ন ‘কানেক্ট’ ও ‘শিক্ষক বাতায়ন’-এ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী, পরিচালক(ইনোভেশন) মোস্তাফিজুর রহমান, ই-লার্নিং স্পেশালিস্ট ফারুক আহমেদ, পলিসি স্পেশালিস্ট আফজাল হোসেন সারওয়ার, এডুকেশন টেকনোলজি এক্সপার্ট মো. রফিকুল ইসলাম, ইনোভেশন স্পেশালিস্ট শাহীদা সুলতানা, সিনিয়র সফটওয়ার ইঞ্জিয়ার শাকিলা রহমান, কনসালটেন্ট তানভীর কাদের, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এসি/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি