ঢাকা, শনিবার, ২৩ জুন, ২০১৮ ২৩:২০:০৯

নাটোরে হত্যার দায়ে স্বামীসহ দুজনের মৃত্যুদণ্ড

নাটোরে হত্যার দায়ে স্বামীসহ দুজনের মৃত্যুদণ্ড

নাটোরে গৃহবধূকে হত্যার দায়ে স্বামীসহ দুইজনকে ফাঁসির রায় দিয়েছে আদালত। দায়রা জজ মো. রেজাউল করিম বৃহস্পতিবার দুই বছর আগের এ মামলার এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়া আদালত তাদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। সাজাপ্রাপ্ত মো. শাহমিম (২৬) ও তার বন্ধু রমিজান আলম (২৩) পলাতক রয়েছেন। নাটোরের পিপি সিরাজুল ইসলাম মামলার নথির বরাতে বলেন, সদর উপজেলার মোস্তফি গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে রুপালি (২৩) বিয়ের পর ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর বগুড়া থেকে নিখোঁজ হন। তিন দিন পর নাটোরের সিংড়া উপজেলার দোপুকুরিয়া গ্রামে তার আগুনে ঝলসানো লাশ মেলে। রাজ্জাক সিংড়া থানায় জামাতা শাহমিমসহ অজ্ঞাত চার-পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। উল্লেখ্য, তদন্তকালে গ্রেফতার হয়ে শাহমিম ও রমিজুল দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। তদন্ত শেষে থানার এসআই দেবব্রত দাস ২০১৭ সালের ৩১ মার্চ দুই আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। পরে দুই আসামিই জালিয়াতি করে জামিনে মুক্ত হয়ে আদালতে হাজিরা দিয়ে আসছিলেন। জালিয়াতির ঘটনা ফাঁস হলে তারা আত্মগোপন করেন। আসামিরা গ্রেফতার হওয়ার দিন থেকে রায় কার্যকর হবে বলে তিনি জানান। এসএইচ/
দুই মামলায় খালেদার জামিনের আদেশ ৫ জুলাই

‘ভুয়া’ জন্মদিন পালন ও যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রী বানিয়ে মুক্তিযুদ্ধকে ‘কলংকিত’ করার অভিযোগে করা মানহানির দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আদেশের জন্য আগামী ৫ জুলাই দিন ধার্য করেছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার বকশিবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে `ভুয়া’ জন্মদিন পালন মামলায় ঢাকা মহানগর হাকিম খুরশীদ আলম ও মুক্তিযুদ্ধকে ‘কলঙ্কিত’ করার মামলায় ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবীব এ দিন ধার্য করেন। এদিন দুই মামলার খালেদার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ও জিয়া উদ্দিন জিয়া তার জামিনের আবেদন করেন। আদালত জামিন শুনানি শেষে আদেশের জন্য আগামী ৫ জুলাই দিন ধার্য করেন। মুক্তিযুদ্ধকে কলংকিত করার অভিযোগে দায়ের মামলায় বলা হয় ‘২০০১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বাধীনতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধী জামায়াতের সঙ্গে জোট করে নির্বাচিত হয়ে সরকারের দায়িত্ব গ্রহণ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন। তিনি রাজাকার-আলবদর নেতাকর্মীদের মন্ত্রী-এমপি বানিয়ে তাদের বাড়ি ও গাড়িতে স্বাধীন বাংলাদেশের মানচিত্র ও জাতীয় পতাকা তুলে দেন। ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে একটি মানহানির মামলা করেন জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী। আদালত ঘটনার তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেন। ২৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর তেজগাঁও থানার পুলিশ পরিদর্শক মশিউর রহমান (তদন্ত) অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে প্রতিবেদন দাখিল করেন। মামলার অন্য আসামি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মৃত্যু হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এর আগে ১২ অক্টোবর খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ঢাকা মহানগর হাকিম নুর নবী।   অন্যদিকে ‘ভুয়া’ জন্মদিন পালনের মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, বিএনপির শীর্ষ নেত্রীর একাধিক জন্মদিন নিয়ে ১৯৯৭ সালে দুটি জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর ম্যাট্রিক পরীক্ষার মার্কশিট অনুযায়ী তার জন্ম তারিখ ১৯৪৬ সালের ৫ সেপ্টেম্বর। ১৯৯১ সালে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে একটি দৈনিকে তার জীবনী নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জন্মদিন ১৯৪৫ সালের ১৯ আগস্ট। তার বিয়ের কাবিননামায় জন্মদিন ১৯৪৪ সালের ৪ আগস্ট। সর্বশেষ ২০০১ সালে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট অনুযায়ী তার জন্মদিন ১৯৪৬ সালের ৫ আগস্ট। বিভিন্ন মাধ্যমে তার পাঁচটি জন্মদিন পাওয়া গেলেও কোথাও ১৫ আগস্ট জন্মদিন পাওয়া যায়নি। এ অবস্থায় তিনি পাঁচটি জন্মদিনের একটিও পালন না করে ১৯৯৬ সাল থেকে ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীর দিন জাতীয় শোক দিবসে আনন্দ-উৎসব করে জন্মদিন পালন করে আসছেন। শুধু বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সুনাম ক্ষুণ্নের জন্য তিনি জন্মদিন পালন করেন। ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী জহিরুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে খালেদাকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন। / এআর /

রোববার সুপ্রিম কোর্ট খুলছে

অবকাশ শেষে সুপ্রিম কোর্ট খুলছে আগামী রোববার ২৪ জুন। আর নিয়মিত বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে সুনির্দিষ্ট বিচারিক এখতিয়ার দিয়ে ৫৮টি বেঞ্চ পুনর্গঠন করেছেন প্রধান বিচারপতি। বেঞ্চের তালিকাসহ বিস্তারিত সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। ২৪ জুন থেকে এসব বেঞ্চে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে। গত ৩ জুন থেকে আজ বৃহস্পতিবার ২১ জুন পর্যন্ত সরকার ঘোষিত ছুটি, সাপ্তাহিক ছুটি এবং কোর্টের অবকাশের কারণে সুপ্রিম কোর্টের নিয়মিত বিচার কার্যক্রম বন্ধ ছিল। আগামীকাল শুক্রবার ও পরদিন শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি শেষে রোববার থেকে যথারীতি নিয়মিত বিচার কার্যক্রম শুরু হবে। তবে অবকাশকালীন জরুরি বিষয় শুনানি ও নিষ্পত্তির জন্য আপিল বিভাগে চেম্বার কোর্টে বিচারিক কার্যক্রম চলেছে। এ ছাড়া প্রধান বিচারপতি সুনির্দিষ্ট বিচারিক এখতিয়ার দিয়ে হাইকোর্ট বিভাগে ১১টি অবকাশকালীন বেঞ্চ গঠন করে দেন। অবকাশে এসব বেঞ্চে বিচারিক কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসএইচ/

সুমনের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা [ভিডিও] 

শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীনের একমাত্র ছেলে সুমন জাহিদের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় কমলাপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।  তবে এটি কী পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বা আত্মহত্যা, তার তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।  আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাক্ষী দেয়ায় হত্যাকাণ্ড হতে পারে বলে ধারণা করছে তার পরিবার। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীনের একমাত্র সন্তান সুমন জাহিদের গলা কাটা মরদেহ রাজধানীর খিলগাও এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।  এঘটনায় জিআরপি পুলিশ বাদী হয়ে কমলাপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয় বলে জানিয়েছেন কমলাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।  আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের যাদের বিরুদ্ধে সুমন জাহিদ সাক্ষি দিয়েছেন তাদের সম্পৃক্ততাসহ ঘটনার অধিকতর তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেররিজমের প্রধান। তবে এটি পরিকল্পিত হত্যা কাণ্ড হতে পারে এমন দাবি পরিবারের।   দুপুরে ঢাকা বিশ্বাবিদ্যালয় মসজিদে জানাজা শেষে আজিমপুর কবরস্থানে, মা সেলিনা পারভীনের পাশেই দাফন করা হয় তাকে।   ভিডিও: এসি      

দুর্নীতির দুই মামলায় খালেদার হাজিরা পরোয়ানা প্রত্যাহারের নির্দেশ

বড়পুকুরিয়া ও গ্যাটকো দুর্নীতির অভিযোগে দায়ের করা দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জারি করা হাজিরা পরোয়ানা (পিডব্লিউ) প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার বিশেষ ২ নম্বর আদালতের বিচারক শাহ ইমরান এবং ৩ নম্বর আদালতের দিলজার হোসেন এ আদেশ দেন। খালেদা জিয়ার আইনজীবী হান্নান ভূইয়া গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি উত্তোলন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম এবং রাষ্ট্রের ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা ক্ষতি ও আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় মামলাটি করা হয়। ওই বছর ৫ অক্টোবর ১৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলায় খালেদা জিয়া ছাড়া অপর আসামিরা হলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান (প্রয়াত), সাবেক স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী আবদুল মান্নান ভূঁইয়া (প্রয়াত), সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী (প্রয়াত), সাবেক সমাজকল্যাণমন্ত্রী আলী আহসান মো. মুজাহিদ (প্রয়াত), ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, এম কে আনোয়ার (প্রয়াত), এম শামসুল ইসলাম (প্রয়াত), আলতাফ হোসেন চৌধুরী, ব্যারিস্টার আমিনুল হক, এ কে এম মোশাররফ হোসেন, জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব নজরুল ইসলাম, পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান এস আর ওসমানী, সাবেক পরিচালক মঈনুল আহসান, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম ও খনির কাজ পাওয়া কোম্পানির স্থানীয় এজেন্ট হোসাফ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন। অন্যদিকে গ্যাটকোর নথি থেকে জানা যায়, ২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক গোলাম শাহরিয়ার ১৩ জনের বিরুদ্ধে বাদী হয়ে তেজগাঁও থানায় গ্যাটকো দুর্নীতি মামলা দায়ের করেন। পরে ২০০৮ সালের ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের উপপরিচালক মো. জহিরুল হুদা। মামলার ২৪ আসামির মধ্যে খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান, বিএনপির সাবেক মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়া ও সাবেক মন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী মারা গেছেন। আসামির সংখ্যা এখন ২০ জন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, আসামিরা দরপত্রের শর্ত ভঙ্গ ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোর সঙ্গে চুক্তি সইয়ের ফলে সরকারের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়। গত ৮ ফেব্রুয়ারি দুদকের দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামান। এই মামলায় অন্য আসামি খালেদার বড় ছেলে তারেক রহমানকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পরে খালেদা জিয়া উচ্চ আদালতে জামিন পেলেও আরো মামলায় গ্রেপ্তার থাকায় কারাবন্দি রয়েছেন। /এআর /

ঘরমুখী মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছে পুলিশ : আইজিপি

ঈদে ঘরমুখী মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে এবং তাদের সার্বিক নিরাপত্তায় পুলিশের পক্ষ থেকে সমন্বিত উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারী। আজ বুধবার দুপুরে গাজীপুরের চান্দনা-চৌরাস্তা এলাকায় ঈদ উপলক্ষে স্থাপিত পুলিশের কন্ট্রোল রুম উদ্বোধন করতে এসে আইজিপি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এমন কথা বলেন। জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, জনগণকেও রাস্তাঘাটে অপরিচিত কারও কাছ থেকে কোনো কিছু গ্রহণ না করতে ও না খেতে পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে অজ্ঞান পার্টির বেশ কিছু গ্যাং ধরা পড়েছে উল্লেখ করে আইজি বলেন, ‘প্রায়ই দেখা যায়, যারা অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টির হাতে পড়ছেন, তারা কিন্তু না জেনে হয়তো যাত্রী বেশে তার পাশে বসে আছে, এমন কারও সঙ্গে আলাপ করছেন, আলাপ জুড়ে দিয়েছেন। এক পর্যায়ে হয়তো পকেট থেকে যাত্রীকে চকলেট দিচ্ছেন অথবা রাস্তা থেকে কিনে ডাব খাওয়ালেন, খাওয়ার কিছুক্ষণ পর যাত্রী আর কিছু বলতে পারেন না। এই বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে। অপরিচিত কারও কাছ কিছু গ্রহণ করা কোনো ক্রমেই উচিৎ হবে না। টিআর/ এসএইচ/

খালেদার মানহানির দুই মামলায় হাইকোর্টের আদেশ বহাল  

ভুয়া জন্মদিন পালন ও যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দেওয়ার অভিযোগে ঢাকায় মানহানির দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা আবেদনের ওপর ২৫ জুন শুনানির জন্য পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত। এর ফলে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন আদালত। হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর আজ সোমবার স্থগিতাদেশ না দিয়ে চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী এ আদেশ দেন। ফলে বিচারিক আদালতে খালেদার গ্রেপ্তার দেখানো পূর্বক জামিনের আবেদন দ্রুত নিষ্পত্তিতে হাইকোর্টের আদেশ বহাল থাকলো বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। এর আগে রবিবার হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। খালেদার পক্ষে ছিলেন খন্দকার মাহবুব হোসেন। গত ৩১ মে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ ওই দুই মামলায় খালেদার জামিনসহ আবেদন দ্রুত নিষ্পত্তি করতে নিম্ন আদালতের প্রতি নির্দেশ দেন। গত ২২ মে এ দুই মামলায় জামিন আবেদন করেন খালেদা জিয়া। যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দেওয়া ও ভুয়া জন্মদিন পালনের অভিযোগে মামলা দু’টি করা হয়। দুই মামলায় খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখানোর জন্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে ১৭ মে রাষ্ট্রপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারিক আদালত। এ বিষয়ে শুনানির জন্য আগামী ৫ জুলাই গ্রেফতার সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য রয়েছে। ২০১৭ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) এবিএম মশিউর রহমান যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দেওয়া সংক্রান্ত মামলায় প্রতিবেদন জমা দেন। ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর এবি সিদ্দিকী স্বীকৃত স্বাধীনতাবিরোধীদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা তুলে দিয়ে দেশের মানচিত্র ও জাতীয় পতাকার মানহানি ঘটানোর অভিযোগে ঢাকার সিএমএম আদালতে মামলা করেন। আর ১৫ আগস্ট ভুয়া জন্মদিন পালনের অভিযোগে ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট একই আদালতে আরেকটি মামলা করেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী জহিরুল ইসলাম। এসি       

বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২ শিক্ষার্থীর দণ্ড

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে দুই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২ শিক্ষার্থীসহ মোট ৩৬ জনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। গ্রেফতারের পর র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেন।সাজাপ্রাপ্তদের মধ্যে ২৮ জন ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির (আইইউবি) ও চারজন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী। বাকি চারজন এলাকার মাদক বিক্রেতা।রোববার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত বসুন্ধরা বি ব্লকের ৯ নম্বর রোডের একটি বাড়িতে এই অভিযান চলে। বাড়িটির অধিকাংশ ফ্ল্যাটে নর্থ সাউথ ও আইইউবির শিক্ষার্থীরা ভাড়া থাকে।অভিযানে নেতৃত্বদানকারী র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার আলম বলেন, বাড়িটিতে অভিযান চালিয়ে মোট ৫৪ জনকে আটক করা হয়। এসময় ২২ থেকে ২৩ জনের ব্যাগে তল্লাশি করে গাঁজা পাওয়া যায়। পরে মাদকের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার দায়ে ৩২ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ড দেয়া হয়। বাকিদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে।এসএ/  

বাসচাপায় আহত নুরুলকে দেড় কোটি টাকা দেওয়ার জন্য রুল

হাইকোর্ট আজ রোববার রাজধানীর মহাখালীতে ৬ নম্বর বাসের চাপায় আহত নুরুল আমিন চৌধুরীকে কেন দেড় কোটি ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন। একইসঙ্গে এ ঘটনার দায় ও ক্ষতিপূরণ নিরুপণে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করতে সড়ক ও জনপথ সচিবকেও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। রোববার একটি রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি সহিদুল করিমের যৌথ হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ড. দেওয়ান এমএ ওবাঈদ হোসেন।পরে দেওয়ান এমএ ওবাঈদ হোসেন জানান, ঘটনার পর একটি জাতীয় দৈনিকে এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরপর অ্যামেনেস্টি বেঙ্গলের পক্ষে প্রধান নির্বাহী অধ্যক্ষ ড. রেজিনা বানু হাইকোর্টে এ সংক্রান্ত একটি রিট দায়ের করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে আজ আদালত রুল জারি করেছেন। রুলে জনগণের মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ন করে এমন বেপরোয়া যান চলাচল রোধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের ব্যর্থতা কেন বেআইনি হবে না, বাস চাপায় পা বিচ্ছিন্ন হওয়া নুরুল আমিন চৌধুরীকে দেড় কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হবে না, এ ঘটনায় দায় এবং ক্ষতি নিরুপণে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি কেন গঠন করা হবে না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। এছাড়া ক্ষতি ও দায় নিরুপণে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করে ৩০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে সড়ক ও জনপথ সচিবকে আদালত নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান এই আইনজীবী। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সচিব, সড়ক ও জনপথ মন্ত্রণালয় সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির চেয়ারম্যার, পুলিশের গুলশান জোনের উপ কমিশনার, ট্রাফিক পুলিশের উত্তর বিভাগের উপ-কমিশনার ও বনানী মডেল থানার ওসি, ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মো. মনসুর ও ৬ নম্বর বাসের মালিক (ঢাকা মেট্রো-ব-১১৩০৮৩) মো.নাসিরকে বিবাদী করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, দৈনিকে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়,‘বাসের চাপায় থেঁতলে যাওয়া পা সংক্রমিত হয়ে এখন জীবনশঙ্কায় রয়েছেন নুরুল আমিন (৫৬)। রাজধানীর মহাখালীতে দুই বাসের প্রতিযোগিতার মধ্যে পড়েন তিনি। একটি বাস তার পায়ের ওপর রেখেই পালিয়ে যান চালক। উপস্থিত লোকজন বাস কাত করে তার পা বের করে নিয়ে আসেন। নুরুল আমিনের ডান পায়ের সংক্রমণ মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। পায়ে পোকা ধরেছে। তাকে পঙ্গু হাসপাতাল থেকে অন্য একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এখন সেখানে তিনি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রয়েছেন। তার ডান পা কেটে ফেলতে হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। তবে এখনই সেই অস্ত্রোপচার করা যাচ্ছে না। সংক্রমণ থেকে তার শরীরে আরও নানা জটিলতা দেখা দিয়েছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, নুরুলের ওপর নির্ভরশীল তার দুই ছেলে-মেয়ে ও স্ত্রী। তিনি দুর্ঘটনায় আহত হওয়ার পর থেকে অকূলপাথারে পড়েছে পরিবারটি। এসএইচ/

রাতেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ইমরান এইচ সরকারকে

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দিয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। বুধবার রাত ১১টা নাগাদ তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।এ ব্যাপারে র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফট্যানেন্ট কর্নেল এমরানুল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, আটকের পর ইমরান এইচ সরকারকে র‌্যাব-৩ কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। সেখানে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত ১১টা নাগাদ তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।এর আগে, বুধবার বিকেলে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে ‘মাদকবিরোধী অভিযানের নামে ক্রসফায়ার বন্ধের দাবিতে’ মঞ্চের ঘোষিত কর্মসূচি থেকে তাকে আটক করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল চারটার দিকে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা মাদকবিরোধী অভিযানের নামে নির্বিচারে মানুষ হত্যা বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু একই স্থানে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের মানববন্ধন থাকায় তা পিছিয়ে সাড়ে চারটায় নেওয়া হয়। বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটেরে দিকে অনুষ্ঠানস্থলে আসেন ইমরান এইচ সরকার। এ সময় জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে সাদাপোশাকের আট নয়জনের একটি দল ইমরানকে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। এসএ/  

‘খালেদার আবেদন নিষ্পত্তিতে ম্যাজিস্ট্রেট ভুল পথে’  

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ভুল তথ্য দিয়ে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে মিথ্যা জন্মদিন পালনের অভিযোগে দায়ের করা মানহানির মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা কার্যকর ও জামিন নিষ্পত্তিতে সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট ভুল পথে পরিচালিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে এ সংক্রান্ত আবেদন দ্রুত নিষ্পত্তি করতে বলেছেন আদালত। হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে দুই বিচারপতির স্বাক্ষরের পর প্রকাশিত লিখিত আদেশে এমন মতামত দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে গত ৩১ মে এই আদেশ দেন আদালত। আজ সাত পৃষ্ঠার আদেশ প্রকাশ করা হয়। খালেদার মামলা নিয়ে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আদেশ পর্যালোচনা করে হাইকোর্ট বলেছেন, আমাদের বলতে দ্বিধা নেই যে সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট গ্রেফতারি পরোয়ানা কার্যকরসহ জামিন আবেদন নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে ভুল পথে পরিচালিত হয়েছে। আদালত আরও বলেছেন, খালেদা জিয়া ইতোমধ্যেই অন্য মামলায় কারাগারে রয়েছেন। ফলে গ্রেফতারি পরোয়ানা কার্যকরের জন্য আর অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই। কিন্তু এরপরেও গ্রেফতারি পরোয়ানা কার্যকর সংক্রান্ত প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করে জামিন আবেদন নথিভুক্ত করে আদেশ দিয়ে ম্যাজিস্ট্রেট গুরুতর ভুল করেছেন। ওই লিখিত আদেশে আরও বলা হয়, মামলার তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে এটা প্রতীয়মান হয় যে, গ্রেফতারি পরোয়ানা কার্যকর প্রতিবেদন গ্রহণের নামে সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট অপ্রয়োজনীয়ভাবে তার জামিন আবেদন নিষ্পত্তিতে বিলম্ব করেছেন। যেটা আদালতের প্রক্রিয়ার অপব্যবহারের শামিল। একই সঙ্গে ঢাকার মূখ্য মহানগর হাকিম এবং সংশ্লিষ্ট হাকিমকে হাজিরা পরোয়ানা ইস্যু করতে এবং জামিন চেয়ে খালেদা জিয়ার আবেদন দ্রুততার সঙ্গে নিষ্পত্তি করতে বলেছেন হাইকোর্ট। এর আগে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জন্মদিন পালনের অভিযোগে ঢাকায় দায়ের করা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মামলাটি বিচারিক আদালতকে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন আদালত। গত ৩১ মে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নিষ্পত্তি করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ওই দিন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যার্টনি জেনারেল মাহবুবে আলম, ডেপুর্টি অ্যার্টনি জেনারেল ফরহাদ আহমদ, এ আমিন উদ্দিন, সহকারী অ্যার্টনি জেনারেল মো. নুরুল ইসলাম মাতব্বর, মো. ইউসুফ মাহবুব মোরশেদ ও সাবিনা পারভীন। অন্যদিকে, খালেদার পক্ষে শুনানি করেন, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, এজে মুহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল ও অ্যাডভোকেট মাসুদ রানা। পরে সেই আদেশের বিচারপতিদের স্বাক্ষরের পর আজ বুধবার সাত পৃষ্ঠার আদেশ প্রকাশ পায়। এর পর সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের রাষ্ট্রপক্ষের ডেপুর্টি অ্যার্টনি জেনারেল এ আমিন উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, বেগম খালেদা জিয়া ভিন্ন ভিন্ন দিনে ৫টি জন্মদিন পালন করেন। এ সংক্রান্ত মামলায় বিচারিক আদালতে জামিন আবেদন করেন ওনার (খালেদার) আইনজীবীরা। হাইকোর্ট এ বিষয়ে তার পর্যালোচনায় দিয়েছেন, ভুল এবং বিলম্বের কথা বলা হয়েছে। ভুল হাইকোর্ট ধরতেই পারেন। অন্যদিকে, দেরি হওয়ার পর্যবেক্ষণ নিয়ে আদালত যা বলেছেন তা খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের সময় আবেদন করার কারণে দেরি হয়েছে। তবে এই মামলায় বিচারিক আদালতে খালেদাকে জামিন দিতে পারবেন কি-না তার কোনো নির্দেশনা হাইকোর্ট দেয়নি বলেও জানান তিনি। মিথ্যা তথ্য দিয়ে জন্মদিন পালনের অভিযোগে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী জহিরুল ইসলাম ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২২ এ মামলাটি করেন। এ মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের ১৭ নভেম্বর গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। এরপর গত ২৫ এপ্রিল এ মামলায় খালেদা জিয়া জামিন চেয়ে আবেদন করেন। এসি   

চৌদ্দগ্রামের মামলায় খালেদার জামিন আবেদন  

যানবাহন ভাঙচুর ও বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় কুমিল্লায় চৌদ্দগ্রাম থানায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় জামিন আবেদন করেছেন তার আইনজীবী। আজ মঙ্গলবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ জামিন আবেদন করেন অ্যাডভোকেট মাসুদ রানা।   হাইকোর্টের বিচারপতি শওকত হোসেন ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে এ জামিন আবেদনের শুনানি হবে। আইনজীবী মাসুদ রানা জানান, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ২০ দলীয় জোটের অবরোধ চলাকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রামে বাসে দুষ্কৃতকারীদের পেট্রোল বোমা ছোঁড়া ও গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করে।   প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ২৮ মে কুমিল্লার এক আদালতে খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখানো পূর্বক জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবীরা। সে আবেদন নামঞ্জুর করে ৮ আগস্ট শুনানির পরবর্তী দিন ধার্য করেন আদালত। এরপর আজ ওই মামলায় হাইকোর্টে বিএনপি নেত্রীর জামিন চাওয়া হয়েছে।   উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের সাজা পেয়ে কারাগারে বন্দি রয়েছেন খালেদা জিয়া।      একে//এসি      

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি