ঢাকা, বুধবার, ১৫ আগস্ট, ২০১৮ ০:১৮:৪৪

অবশেষে সিন্ডিকেটমুক্ত হচ্ছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার 

অবশেষে সিন্ডিকেটমুক্ত হচ্ছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার 

সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবেশেষে সিন্ডিকেট মুক্ত হচ্ছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। সব এজেন্সির জন্য শ্রমবাজার উন্মুক্ত করার লক্ষ্যে শিগগিরই আলোচনায় বসবে সে দেশের সরকার। আর এ আলোচনার আহবান জানিয়েছেন আধুনিক মালয়েশিয়ার স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী তুন ডা: মাহাথির মোহাম্মদ। পাশাপাশি দু’দেশের ব্যবসায়ীদের কাজ করতে গঠন করা হচ্ছে পলিসিমুক্ত স্বাধীন কমিটি।     জানা গেছে, সরকারের সঙ্গে জি টু জি চুক্তি এবং জি টু জি প্লাস চুক্তির পরও মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানি নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে বাংলাদেশী শ্রমবাজার। দেশের ১০টি রিক্রুটিং এজেন্সির সিন্ডিকেটের কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। সরকার ৯৫৭টি রিক্রটিং এজেন্সির লাইসেন্স মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে পাঠালেও ওই ১০ রিক্রটিং এজেন্সির সিন্ডিকেট ছাড়া অন্য কেউ শ্রমিক পাঠানোর অনুমতি পায়নি। সিন্ডিকেটের কারণে জি টু জি চুক্তি অনুযায়ী শ্রমিকদের কাছ থেকে কয়েকগুণ অতিরিক্ত অর্থ আদায় করতো রিক্রটিং এজেন্সিগুলো।  মঙ্গলবার (১৪ আগষ্ট) মালয়েশিয়া সময় দুপুর ১২টায় সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রী তুন মাহাথির মোহাম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনায় সভায় তিনি বলেন, পলিসিমুক্ত স্বাধীন কমিটির মাধ্যমে বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে ব্যবস্থা পরিচালনা করা হবে। সার্ভিস নীতিমালা ও বৈদেশিক কর্মীদের একটি স্বাধীন কমিটি গঠন করা হবে। কমিটিতে সরকারি শীর্ষ কর্মকর্তা, সাবেক বিচারক ও সচিবরা সভাপতিত্ব করবেন এবং শ্রম বাজারের তথ্যও বিশ্লেষণ করবে কমিটি।   তিনি আরও বলেন, মালয়েশিয়ায় লক্ষ লক্ষ বিদেশি শ্রমিক আসে এবং অনেকেই অনুমতি পায় না, সে জন্য বিদেশি কর্মীদের পরিচালনার জন্য একটি কমিটি গঠন করা দরকার, যে কমিটির দ্বারা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করা এবং তদারকির দায়িত্ব ওই কমিটির উপরের দেওয়া হবে। চলমান শ্রমবাজার নিয়ন্ত্রণে দশ লাইসেন্সের দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মাহাথির বলেন, দশ লাইসেন্সে তথা আরো যারা সংশ্লিষ্ট রয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন উপ-প্রধানমন্ত্রী ওয়ান আজিজা ইসমাইল ও মানব সম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসেগারা।   কেআই/এসি   
মালয়েশিয়ায় বৈধকরণে প্রতারণার শিকার ২৭০ বাংলাদেশী  

মালয়েশিয়ায় অবৈধ বাংলাদেশী অভিবাসীদের বৈধকরণে রিহায়ারিং প্রকল্পে ২৭০ জন বাংলাদেশি কর্মীর প্রতারিত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ৩০ জুন এই রিহায়ারিং প্রকল্পের কাজ শেষ হয়।   জানা গেছে, ২৭০জন বাংলাদেশি গ্রয়িং গ্লোবাল নামক একটি কোম্পানির মাধ্যমে বৈধ হওয়ার জন্য এজেন্টকে তারা পাসপোর্টসহ ১.৮ মিলিয়ন মালয়েশিয়ান অর্থ প্রদান করে৷     গতকাল রোববার (১২ আগস্ট) প্রতারিত বাংলাদেশীরা এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে এ কথা জানান৷ প্রতারণার শিকার বাংলাদেশি ইমরান হক উজ্জল জানান, ``তারা প্রত্যেকে বৈধ হওয়ার জন্য বাংলাদেশি টাকায় দেড় লক্ষ থেকে এক লক্ষ ষাট হাজার টাকাসহ পাসপোর্ট দিয়েছিল ওই কোম্পানির এজেন্টদের হাতে৷  এই  অর্থ প্রদান করেও বিনিময়ে তারা কিছুই পাইনি ৷ প্রতারিত হয়েছে।" দেশটির স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম দ্যা স্টারে`র খবর থেকে জানা যায়, প্রতারিত হয়ে এখন নিজ দেশে ফিরে যাওয়া ছাড়া তাদের আর কোনো বিকল্প পথ নেই।  প্রতারিত হওয়া আরেকজন বাংলাদেশি বলেন, "আমরা অফিসে গিয়ে বহুবার আমাদের আবেদন পত্রের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চেয়েছি।  কিন্তু তারা বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়েছে৷ আরেক বাংলাদেশি আলমগীর জানান, তারা ইমিগ্রেসনে ফিংগার পিন্ট দেওয়ার জন্য শেষ দিনেও ইমিগ্রেসনের বাহিরে অপেক্ষা করেছে৷ কোন অগ্রগতি ছাড়াই নির্ধারিত সময়সীমা শেষ হয়ে গেছে।এর সাথে সাথে আমাদের আশাও ডুবে গেছে। প্রতারিত হওয়া এ সকল বাংলাদেশিরা দেশটির ক্লাং বেল্লিসহ বিভিন্ন রাজ্যে নির্মাণ সেক্টরে কাজ করে ৷ তারা দাবি করে যে, পুলিশ ও ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি বাংলাদেশ হাইকমিশনেও এ বিষয়ে রিপোর্ট করা হয়েছে ৷ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হওয়া প্রতারণার শিকার বাংলাদেশিরা বলেন,"আমরা ন্যায়বিচার চাই৷ আমরা আশা করি মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষ আমাদের ভিসা পেতে সহায়তা করবে৷ যদি তা না হয়, তাহলে আমরা আমাদের পাসপোর্ট চাই যাতে দেশে ফিরে যেতে পারি ৷" এদিকে, মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তান শ্রি মহিউদ্দিন ইয়াসিন বলেছেন, বৈধ করণ প্রকল্পের আওতায় নির্মাণ, উত্পাদন, বাগান ও কৃষি এবং সেবা খাতে যাদের ভিসা হয়েছে তাদেরকেই কাজ করার অনুমোদন দেওয়া হবে ৷ এমএইচ/এসি      

মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালন  

১৫ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস। বাঙালির জাতীয় জীবনে সবচেয়ে হৃদয় বিদারক ও মর্মস্পর্শী দিন। ইতিহাসের মহানায়ক, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠতম বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালের এই দিনে স্বপরিবারে নৃশংসভাবে নিহত হন স্বাধীনতা বিরোধী খুনী চক্রের হাতে।      জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ‘রক্তাক্ত ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস-১৮ উপলক্ষে মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির উদ্যোগে গতকাল রোববার কুয়ালালামপুরের জালান ইপু দেওয়ান মতিয়ারা কমপ্লেক্সে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহ্ফিলের আয়োজন করা হয়। আওয়ামী লীগ আহ্বায়ক এম.রেজাউল করিম রেজার সভাপতিত্বে ও কমিটির সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী এবং মিনহাজ উদ্দিন মিরানের যৌথ সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. এ.এইচ.এম জিহাদুল করিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন মালয়েশিয়ান রাজনীতিবিদ দাতো ফুয়াদ বিন তালিব ও মোহাম্মদ বিন আহাম্মদ। আগত অতিথিদের হাতে বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী বইটি তুলে দেন আহবায়ক এম.রেজাউল করিম রেজা ও সদস্য সচিব ওহিদুর রহমান। বক্তারা বলেন, শোককে শক্তিতে পরিণত করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। বিএনপি-জামায়াত যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন, আওয়ামী লীগের উন্নয়নকে দাবিয়ে রাখতে পারবে না। কারণ প্রত্যেকটি মানুষের ভেতর বঙ্গবন্ধুর ও স্বাধীনতার চেতনা রয়েছে। এই চেতনায় দেশ এগিয়ে চলেছে। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সদস্য সচিব ওহিদুর রহমান ওহিদ, আওয়ামী লীগ নেতা জসিম উদ্দিন চৌধুরী, হাবিবুর রহমান হাবিব, কবি আলমগীর হোসেন, নূর মোহাম্মদ ভুঁইয়া, প্রকৌশলী রাহাদুজ্জামান, মো. মাসুদ, সোহেল বিন রানা, শ্রমিক লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন, যুবলীগ নেতা ফরহাদ হোসেন, শহীদুল ইসলাম, বাবলা মজুমদার, ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক বদরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি তারেকুল আলম চৌধুরী, সাবেক যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক রাসেল শিকদার, যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক রায়হান কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক মওদুদ মোল্লা, কাজী তৌহিদ নিজাম, আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, জাহাঙ্গীর আলম,শওকত হোসেন তিনু, শাখাওয়াত হোসেন, হুমায়ুন কবির আমির, প্রদীপ কুমার, ইস্রাফিল, হারুন অর রশীদ মিয়াজী, মো. ফারুক, আব্দুল বাতেন প্রমুখ। কেআই/এসি    

সৌদিতে আরও তিন বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

সৌদি আরবে পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে আরও তিন বাংলাদেশি মারা গেছেন। গতকাল শনিবারে তাদের মৃত্যু হয়। মক্কায় বাংলাদেশ হজ কার্যালয়ের কাউন্সিলর মাকসুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। নিহতরা হলেন- সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশার মো. নাজমুল হোসাইন (৪১), চট্টগ্রাম বাঁশখালী সাধনপুরের গোলাম রহমান (৬১) ও শেরপুর জেলার মো. মঈন উদ্দিন (৭৪)। চলতি মৌসুমে সৌদি আরবে হজ করতে গিয়ে এখন পর্যন্ত মক্কায় ২৫, মদিনায় পাঁচ, জেদ্দায় দুজনসহ মোট ৩২ বাংলাদেশি ইন্তেকাল করেছেন। এর মধ্যে ছয়জন নারী ও ২৬ জন পুরুষ। রোববার সকাল পর্যন্ত হজ পালনের জন্য বাংলাদেশ থেকে এক লাখ নয় হাজার ৬৭ জন বাংলাদেশি সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। একে//

কাতারে সমানতা ইন্টারন্যাশনালের সহযোগী প্রতিষ্ঠানের যাত্রা

২০২২ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ কাতারে  প্রচুর পরিমানে বাড়ছে কর্মসংস্থান। এই লক্ষে বাংলাদেশীদের কর্মসংস্থান বাড়াতে কাতারে যাত্রা শুরু করলো সমানতা ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস গ্রুপ বাংলাদেশি এই প্রতিষ্ঠান। বুধবার কাতারের দ্বিতীয় শহর আলখোরে ফিতা ও কেক কেটে প্রতিষ্ঠানের শুভ উদ্ভোধন করেন  ব্যবসায়ী ইব্রাহিম ইসহাক। এতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সমানতা ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস গ্রুপের চেয়ারম্যান এম আইনুল কবির, সমানতা গ্রুপের চিফ এডভাইজার মুরশেদ বিল্লাহ, ডাইরেক্ট বিকাশ কুমার, ইকবাল হোসেন চৌধুরী, কাতারের ব্যবসায়ী আব্দুল মান্নান, ফেরদৌস আহমেদ, কাজী ফুরকান রেজা, মেজর সাইদ সহ কমিউনিটির বিশিষ্টজনেরা। কেআই/ এসএইচ/

কাতারে বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকীর আলোচনা সভা

  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করেছে বঙ্গবন্ধু পরিষদ দোহা মহানগর কাতার। রাজধানী দোহার একটি হল রুমে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি হাসান মাবুদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. আয়ুব আলীর সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ কাতার কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.মুসা। বিশেষ অতিথি ছিলেন- রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আক্তার কামাল, বঙ্গবন্ধু পরিষদ কাতার কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এম হারুন, বাহরাইন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম এ করিম, রাউজান সমিতির সভাপতি মো. মহসিন খান, কাতার যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ কাতার কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম শফি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক আকবার হোসেন বাচ্চু, আব্দুল জলিল, সৈয়দ আরিফ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল একটি স্বাধীন দেশ গড়ার। স্বপ্ন ছিল একটি সার্বভৌম রাষ্ট্রের। স্বপ্ন ছিল এ দেশের খেটে খাওয়া মেহনতী মানুষের অর্থনৈতিক স্বাধীনতার। যার জন্য আমরা পেলাম একটি স্বাধীন দেশ, ঘাতকরা সেই মহান ব্যাক্তিকে বেঁচে থাকতে দেয়নি। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুর পরিবারের নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।’ কেআই/  এসএইচ/

বাংলাদেশ প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য যোগ্য নয়: তসলিমা নাসরিন

বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মতামত দিলেন নারীবাদী লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তিনি সড়ক দুর্ঘটনার সহপাঠীর মৃত্যুর পর রাজধানী ঢাকায় স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের সড়কে আন্দোলন ও অবস্থান ও বিভিন্ন কার্যকলাপের দিকে ইঙ্গিত করে এই মতামত দিয়েছেন। তসলিমা নাসরিন তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য যোগ্য নয়। শিশুদের জন্য দেশটি উত্তম। শিশুরাই দেশ ভালো চালাতে পারে। প্রাপ্ত বয়স্ক যারা আছে, তারা শিশুরও অধম। দেশ এখন শিশুদের লেগো খেলা। প্রাপ্ত বয়স্কদের সত্যিকার প্রাপ্ত বয়স্ক হতে হাজার বছর বাকি।’ যদিও তসলিমা নাসরিনের এ স্ট্যাটাসের জবাবে অনেকেই পক্ষে-বিপক্ষে মত পোষণ করেছেন। কেউ বলছেন- ‘শিশুরা দেখিয়ে দিয়েছে কি করে দেশটাকে চালাতে হয়। গুরু তুমি কাছ থেকে বাচ্চাদের কথা, আচার আচরন, ওদের ব্যবহার কি যে মাধুর্যযুক্ত বলে বোঝানো যাবেনা? কি পুলিশ? কি সাধারণ মানুষ? কি আমলা? আমি আমার এলাকায় ওদের দেখে থ মেরে গেছিলাম?’ অপরদিকে অন্য আরেকজন লিখেছেন- ‘প্রাপ্ত বয়স্ক যারা আছে, তারা শিশুরও অধম!’ মানে শিশুরা অধম? তুমি কথাটি মন্দ বলেছো। যদিও এখানে যোগ্য মানুষের অভাব খুব বেশি। আর বর্তমান প্রজন্ম যেদিন নেতৃত্ব দেবে সেদিন দুর্নীতিও কমে যাবে, মন্দের সংখ্যাও কমে যাবে।’ এসএ/

পায়েল হত্যার প্রতিবাদে কাতারে মানববন্ধন

  নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র ও কাতার সন্দ্বীপ এসোসিয়েশনের সদস্য গোলাম মাওলার ছেলে সাইদুর রহমান পায়েলের হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা করেছে কাতারস্থ সন্দ্বীপ এসোসিয়েশন। শুক্রবার রাজধানী দোহার নিউ জামান রেস্তোরাঁয় এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সংগঠনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম হেলালের সভাপতিত্বে ও জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপদেষ্টা শামসুল আলম। প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা কেফায়েত উল্যাহ, সহ সভাপতি মো. ইউসুফ, এস এম সুমন, সাংবাদিক আকবর হোসেন বাচ্চু সহ আরও অনেকে। প্রতিবাদ সভা শেষে বিশেষ মোনাজাত করা হয় মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা এরফান। এ সময় উপস্থিত জনতা পায়েল হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী যানায়। এছাড়াও শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান তারা।  এমএইচ/ এমজে

বাহরাইন আ’যুবলীগের সভাপতি কাতারে সংবর্ধিত

বাহরাইন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এম এ করিমকে সংবর্ধনা দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কাতার কেন্দ্রীয় কমিটি। মঙ্গলবার দেশটির রাজধানী দোহার শারে আসমাক নিউ জামান রেস্তোরাঁয় সংগঠনের সভাপতি ওলিদ আহমদ সেলিমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপদেষ্টা অধ্যাপক বাবু তপন মহাজন। বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ সভাপতি সাইদুল ইসলাম, আব্দুল জলিল, মো. গোলাম মাওলা, সৈয়দ আরিফ উদ্দিন, মুজিবুর রহমামসহ আরও অনেকেই। সংবর্ধিত অতিথিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান সংগঠনের নেতাকর্মীরা। পরে এক মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। এতে দেশিয় সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী রুকসানা জাহেদ ও অতপর ব্যান্ড, নৈশভোজের মধ্যেদিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। একে//

আমিরাতে অবৈধ প্রবাসীদের সাধারণ ক্ষমার ঘোষণা

অবৈধ প্রবাসীদের বৈধ হওয়ার সুযোগ দিতে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত। ১ আগস্ট থেকে আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত এই সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ কার্যকর থাকবে। এই সময়ের মধ্যে আমিরাতে অবস্থানরত অবৈধ প্রবাসীরা অন্য কোম্পানিতে নতুন করে কাজ নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে কোনো ধরণের জরিমানা ও কারাদণ্ডের বিধান থাকবে না। এমনকি আউটপাস সংগ্রহের পর নিজ দেশেও যেতে পারবেন। সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলের কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। দুবাইয়ের জেনারেল ডাইরেক্টর অব রেসিডেন্সিয়াল ফর অ্যাফেয়ার্সের কর্মকর্তা মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আল মারি অবৈধ প্রবাসীদের সাধারণ ক্ষমার ব্যাপারে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সম্মেলনে তিনি বলেন, যারা অবৈধভাবে অবস্থান করছেন; তাদের জন্য আমিরাত সরকারের উপহার হচ্ছে এই সাধারণ ক্ষমা। সোমবার দেশটির মানবসম্পদ ও এমিরাটাইজেশন মন্ত্রণালয় দেশটিতে অবৈধ প্রবাসীদের ওয়ার্ক পারমিটের ওপর জারি থাকা দেড় বছরের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে। মন্ত্রণালয় বলছে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যারা সাধারণ ক্ষমার জন্য আবেদন করবেন, তাদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। এটা তাদের নতুন কাজ ও নতুন ওয়ার্ক পারমিট পেতে সহায়তা করবে। তথ্যসূত্র: দ্য ইনডিপেন্ট। এসএইচ/

মক্কায় আরও ৩ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

চলতি বছর হজ পালন করতে গিয়ে সৌদি আরবের মক্কায় আরও তিন বাংলাদেশি হজযাত্রী মারা গেছেন। এ তিনজনকে নিয়ে এবার পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে মোট আটজন হজযাত্রী মারা গেলেন। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অধীনে মক্কা থেকে প্রকাশিত হজ বুলেটিন সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। নিহতরা হলেন দিনাজপুর সদরের মো.আখতারুজ্জামান (৬২), বরিশাল বাকেরগঞ্জ ভরপাশা গ্রামের এম এ বারাক হাওলাদার (৬৩) ও কিশোরগঞ্জ হোসাইনপুরের সাহেদল গ্রামের মো. মতিউর রহমান (৫৯)। নিহতদের মধ্যে মো. মতিউর রহমান মারা যান গত শুক্রবার। তার পিলগ্রিম আইডি ১৪৫৩১৪১ ও পাসপোর্ট নম্বর বিকিউ ০৩৮৯৬৫৪। তিনি সেরাপ অ্যাভিয়েশন সার্ভিসেসের (হজ লাইন্সেস নম্বর ১৪৫৩) মাধ্যমে গত ২৬ জুলাই সৌদি এয়ারলাইন্স যোগে সৌদি যান। আর এম এ বারাক হাওলাদার মারা যান গতকাল শনিবার (২৮ জুলাই)। তার পিলগ্রিম নম্বর ০২৮৬০৩৮ ও পাসপোর্ট নম্বর বিএম ০৪৪৪৮২৭। তিনি বিলাস ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরসের (হজ লাইন্সেস নম্বর ০২৮৬) মাধ্যমে গত ২৪ জুলাই বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স যোগে সৌদি আরব যান। এছাড়া মো. আখতারুজ্জামান নামে আরও একজন মারা যান গতকাল শনিবার। তার পিলগ্রিম আইডি নম্বর ০৩৪৭১৭৭ ও ও পাসপোর্ট নম্বর বিকিউ ০৯৩২৩৭৮। তিনি আকাবা ইন্টারন্যাশনালের (হজ লাইসেন্স নম্বর ০৩৪৭) মাধ্যমে গত ২৪ জুলাই সৌদি এয়ারলাইন্সে সৌদি পৌঁছান। একে//

সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ৪২ নারী শ্রমিক

সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন আরও ৪২ জন নারী শ্রমিক। তারা সবাই সৌদি আরবের সফর জেলে (ডিপোর্ট সেন্টার) ছিলেন। শুক্রবার রাত ৯.৩০ মিনিটে সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট এসভি ৮০৪-এ করে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তারা। এ তথ্য নিশ্চিত করে জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) জনশক্তি জরিপ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান আনসারী বলেন, সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে ৪২ জন নারী শ্রমিক এসেছেন। আমরা প্রবাসী কল্যাণ ডেস্ক থেকে যতটুকু সাহায্য করার করেছি। উলেখ্য, মধ্যপ্রাচ্যে সৌদি আরবই বাংলাদেশের প্রবাসের সবচেয়ে বড় বাজার। আবার নানা কারণে নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার আগে সেখান থেকেই সবচেয়ে বেশি নারী ফেরত আসেন। বিমানবন্দরের প্রবাস কল্যাণ ডেস্ক থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ৩ মে ৩৫ জন, ১২ মে ২৭ জন, ১৯ মে ৬৬ জন, ২৩ মে ২১ জন, ২৭ মে ৪০ জন এবং ৩ জুন ২৯ জন,১৮ জুন ১৬ জন এবং ১৯ জুন ২৭ জন এবং ২৬ জুন ২২ জন, ১০ জুলাই ৪২ জন, ২১ জুলাই ৩৪ জন নারী শ্রমিক দেশে ফিরেছেন। তবে এর বাইরেও আরও নারী শ্রমিক দেশে ফিরে এসেছেন বলে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে জানা যায়। / এআর /

২০২২ বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে কাতার

২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজক দেশ কাতার। তাই দেশটিতে দ্রুত গতিতে চলছে খেলার মাঠসহ বিভিন্ন নির্মাণ কাজ।  একের পর এক অত্যাধুনিক পরিকল্পনা নিয়ে কাতার এগিয়ে চলেছে বিশ্বকে একটা সেরা বিশ্বকাপ উপহার দিতে৷ যারা ফিফা`র সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছিলো তাদের সমালোচনার জবাব দেওয়ার জন্য তারা এই চেষ্টা করে যাচ্ছে। স্টেডিয়াম ছাড়াও বিশ্বকাপ উপলক্ষে সেখানে নির্মিত হচ্ছে নতুন নতুন সড়ক, হোটেল, জাদুঘর এমনকি নতুন শহরও। এ জন্য ব্যয় হচ্ছে আনুমানিক ৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। দোহায় প্রথমবারের মতো স্থাপন হচ্ছে মেট্রো সিস্টেম। ৩৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যায়ের যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু হবে ২০১৯ সালের মধ্যেই। ২০২২ বিশ্বকাপ উপলক্ষে ১৫ লাখ দর্শক কাতার সফর করবে বলে আশা করছে আয়োজকরা। তাদের আবাসনের জন্য থাকবে বাসা বাড়ি কেন্দ্রিক হোটেল, এয়ার বিএনবি প্রপার্টিস, তাবু এবং ১২ হাজার ভাসমান জাহাজ। ২০২২ সালের বিশ্বকাপ শুরু হতে এখনো চার বছর বাকি। ভেন্যু নির্মাণ ও সংস্কারসহ বড়সড় অবকাঠামো নির্মাণের কাজেই বেশি মনোযোগ দিয়ে রেখেছে আয়োজক দেশ কাতার। ফুটবল বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে ১২টি স্টেডিয়াম। প্রত্যেকটি স্টেডিয়াম হবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। এরই মধ্যে সম্পূর্ণ প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে খালিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামটি। ইতোমধ্যে সেটি উন্মুক্তও করে দেওয়া হয়েছে এবং আমিরকাপ সমাপনী খেলাও হয়েছে ওই স্টেডিয়ামে। যেখানে আগামী বছর অনুষ্ঠিত হবে ওয়ার্ল্ড অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশীপ। চলতি বছরের মধ্যেই আল ওয়াকারাহ এবং আল বায়েত স্টেডিয়ামের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। যেভাবে দ্রুতগতিতে কাজ চলছে এভাবে চললে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই সব কাজ সম্পন্ন করতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আয়োজকরা।   এমএইচ/এসএইচ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি