ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৮ ৭:০৯:৪৪

সাভারে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন  

সাভারে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন  

স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তিই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের ১৯৭৫ সালে হত্যা করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিন।   আজ বুধবার বিকালে আশুলিয়ার বসুন্ধরা এলাকায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির ভক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি আরো বলেন, ১৯৭৫ সালের সেই অপশক্তি আজো বাংলাদেশ ও আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।    তুহিন বলেন, উনিশ শত পঁচাত্তর সালের এই দিনটি ছিলো বাঙ্গালী জাতির নিকট একটি কালো অধ্যায়। বর্তমান দেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঘুরে দাড়িয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি যাতে আবারো মাথাচাড়া দিয়ে ওঠতে না পারে সেদিকে আওয়ামীলীগের সকল নেতৃবৃন্দকে এক হয়ে কাজ করতে হবে বলেও জানান তিনি। এদিকে ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষীকি উপলক্ষ্যে সাভার উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে আক্রান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আলোচনাসভা, মিলাদ, দোয়া ও গণভোজের আয়োজন করা হয়। এর আগে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে সকালে সাভার উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি শোক র‌্যালী বের করা হয়। দুপুরে পৌর আওয়ামী সেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে সাভার থানা বাসষ্ট্যান্ডে দোয়া মাহফিল ও গণভোজের আয়োজন করা হয়। অন্যদিকে সাভার পৌর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বাজার বাসষ্ট্যান্ডের আমিন কমিউনিটি সেন্টারের সামনে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সাভার পৌর ও উপজেলা আওয়ামীলীগ এবং সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে র‌্যালী, আলোচনাসভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এমএইচ/এসি      
সাভারে অপহৃত প্রবাসী উদ্ধার, নারীসহ আটক ৬   

সাভারে এক প্রবাসীকে অপহরনের ঘটনায় এক নারীসহ ৬ অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।    বুধবার দিনব্যাপী সাভারের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় গ্রেফতারকৃতদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী সাভারের লালটেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত মো. জাহিদকে (৩০) অসুস্থ্য অবস্থায় উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো- কক্সবাজার জেলার মহেশ খালী থানার চান্দুর চর এলাকার মো. সেলিমের মো. আবির (২৬), গাজীপুর জেলার কাপাশিয়া থানার জাকিয়া গ্রামের আবদুল রহমানের ছেলে ফয়সাল খান (২৮), শরিয়তপুর জেলার জাজিরা থানার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মো. খোকনের ছেলে স্বপন (২৫), পাবনা জেলার ইশ্বরদী থানার আশনা গ্রামের আব্দুর রহিম তুফানের ছেলে মৃদুল হাসান (২৪), নারায়নগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও থানা এলাকার মনোয়ার হোসেনের স্ত্রী শ্রাবনী ইসলাম রুবা (৩৮), ঢাকার সাভার পৌর এলাকার সিআরপি মহল্লার আব্দুল কালামের ছেলে মো.মারুফ (২৫)। উদ্ধার হওয়া জাহিদ সাভার পৌর এলাকার শাহীবাগ মহল্লার মো. খলিলের ছেলে। এছাড়া অপহরনের ঘটনায় উদ্ধার হওয়া জাহিদ সাভার পৌর এলাকার শাহীবাগ মহল্লার মো. খলিলের ছেলে। পুলিশ জানায়, গত ১৩ আগষ্ট বিকেলে সাভার সিটি সেন্টারের সামনে থেকে কৌশলে চেতনা নাশক ঔষধ দিয়ে প্রবাসী জাহিদকে অচেতন করে নিয়ে যায় অপহরনকারীরা। এঘটনায় অপহৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে ১৪ আগষ্ট সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।  এঘটনায় পুলিশ আধুনিক প্রযুক্তির বব্যহার করে বুধবার দিনব্যাপী সাভারের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহরনের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ৬ জনকে গ্রেফতার করেন সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শ (এসআই) ইবনে ফরহাদ। এসময় তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী একটি বাসা থেকে অসুস্থ্য অবস্থায় জাহিদকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমএইচ/এসি       

এস কে সিনহা নিকৃষ্ট মানুষ: চবি উপাচার্য  

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাকে ‘নিকৃষ্ট জানোয়ার’ বলে সম্বোধন করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।    বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সভাকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সকালে ফুল দিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপাচার্য।    সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের সঙ্গে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা সরাসরি জড়িত উল্লেখ করে ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘তাদের পরিকল্পনা মতো আজ ১৫ আগস্ট নতুন সরকার গঠনের কথা ছিল।’ তিনি আরো বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধী হিসেবে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত মীর কাসেম আলীর ভাই মামুনের সঙ্গে বিদেশের মাটিতে মিটিংও করে তথাকথিত প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা। সে পুরো বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রধান চক্রান্তকারী । আর এসবের জন্যে সে মামুনের কাছ থেকে টাকা পাচ্ছে।’   এস কে সিনহার প্রতি ক্ষোভের কারণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমার ক্ষোভ অন্য জায়গায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে না জানিয়ে ১৭ জন শিক্ষার্থীকে অবৈধভাবে ভর্তি করে ১০টি মেডিকেল কলেজ। আদালত সেই কলেজগুলোকে ১০ কোটি টাকা জরিমানা করে।’   একইভাবে ৫টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ থেকে আমাদের ৫ কোটি টাকা পাবার কথা থাকলেও আমরা পাইনি। তবে এই টাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পেয়েছে। কিন্তু এস কে সিনহা চবির ৩ কোটি টাকা কনকর্ডকে দিয়ে দেয়। যারা তাকে বাড়ি করে দিচ্ছে। তাদের নাকি ক্যান্সার হাসপাতাল আছে।    তার এসব দুর্নীতি ও জালিয়াতির প্রমাণ দুদক পেয়েছে। যদিও আদালতের মাধ্যমে পরে আমরা ২ কোটি টাকা পাই। সেই টাকা দিয়ে বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্যসহ নানা উন্নয়নমূলক কাজ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। ডেপুটি রেজিস্ট্রার (তথ্য ও ফটোগ্রাফি) ফরহাদ হোসেন খাঁনের সঞ্চালনায় শোক দিবসের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে দেন রাখেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। এছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) কে.এম নূর আহমেদ, সিনেট সদস্য অধ্যাপক ড. সুলতান আহমেদ, সিন্ডিকেট সদস্য ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহামেদ, কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক সেকান্দার চৌধুরী, আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক এবিএম আবু নোমান, প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. সালাউদ্দিন আহামেদ, সাধারণ সম্পাদক অলোক পাল প্রমুখ। এমএইচ/এসি    

চবিতে জাতীয় শোক দিবস পালিত 

যথাযোগ্য মর্যাদায়, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় আজ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) পালিত হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস।  দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচী গ্রহন করে। এর মধ্যে ছিল, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, শোক র্যালি, আলোচনা সভা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল মসজিদে বিশেষ মোনাজাত, দোয়া মাহফিল ও অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের স্ব স্ব উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা এবং কালো ব্যাইজ ধারণ করা হয়।                            আজ বুধবার সকাল ৯ টায় প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে কর্মসূচী শুরু হয়। পরে উপাচার্য দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কীর্তির উপর ‘শোকাবহ ১৫ আগস্ট’ শীর্ষক আলাচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবন একটি মহাগ্রন্থ। যিনি বিশ্ব মানচিত্র স্থান করে দিয়েছেন বাংলাদেশ নামক একটি জাতি-রাষ্ট্র, যার জন্ম না হলে বাঙালি জাতি কোনদিনও অর্জন করতে পারতো না একটি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ। তিনিই বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।   তিনি আরো বলেন, জাতির জনকের হত্যার রক্তক্ষরণ বাঙালি জাতিকে যুগ যুগ ধরে বয়ে বেড়াতে হবে। এ বিশ্ব নেতা মানবতার প্রতীক, মানব মুক্তির অগ্রদূত, নিপীড়িত-নির্যাতিত মুক্তিকামী মানুষর আলোকবর্তিকা। তিনি আরো বলেন, পচাত্তরের ১৫ আগস্ট হায়নার দল বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে চেয়েছিল একটি জাতি-রাষ্ট্রকে ধংস করতে। কিন্তু তাদের সেই আশা পূরণ হয়নি। বাঙালি জাতি বঙ্গবন্ধু কন্যা আধুনিক বাংলাদশের রূপকার শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্ব দরবারে আজ মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশ বর্তমান উন্নয়ন-অগ্রগতির সকল সূচকে বিশ্বে এখন উন্নয়ন রোল মডেল হিসেবে পরিগণিত হয়েছে। আলাচনা সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান আয়োজন কমিটির সদস্য সচিব ও প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী। আলাচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার,  কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফসর ড. মো. সেকান্দর চৌধুরী, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. আহমেদ সালাউদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. অলক পালসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ। এমএইচ/এসি    

বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবীতে শ্রমিকদের অবস্থান কর্মসূচি 

ঢাকার অদূরে শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ায় এক কারখানার বকেয়া বেতন, ঈদ বোনাস ও বন্ধ কারখানা খুলে দেওয়ার দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে কারখানার শ্রমিকরা। আজ বুধবার বাঁধন কর্পোরেশন লিমিটেড নামের ওই কারখানার ভিতরে অবস্থান কর্মসূচিসহ সড়ক অবরোধ করেন শ্রমিকরা। এ ঘটনায় কারখানার ভেতরে মালিকপক্ষের এক কর্মকর্তাসহ কারখানার পাঁচ স্টাফকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে শ্রমিকরা। তবে বিজিএমইএ’র সাথে বৈঠকের মাধ্যমে এই সংকট নিরসন হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন কারখানা কতৃপক্ষ। বুধবার সকাল থেকে জামগড়া এলাকার মেসার্স বাঁধন করপোরেশন লিমিটেড নামে কারখানার কয়েক’শ শ্রমিক এই অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তামান্না ইসাবেলা বাঁধন-এর উপদেষ্টা নূর উদ্দিন জানান, বিগত এক বছর ধরে শুধু সাব-কন্ট্রাক্টের কাজ থাকায় প্রায় অর্ধকোটি টাকা ভর্তুকি গুণতে হচ্ছিল মালিককে। গত জুন মাসে প্রায় ১৫ লাখ টাকা বকেয়া বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হলেও সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। ফলে সাব-কন্ট্রাক্টের প্রায় ৮০ হাজার কাজ নির্দিষ্ট সময় শেষ করার জন্য তাদের বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত খরচ করে জেনারেটর চালাতে হয়েছে। কিন্তু জুলাই মাসের ১০ তারিখ শ্রমিকরা বকেয়া জুন মাসের বেতনের দাবিতে কাজ বন্ধ করে দিয়ে কারখানায় কর্মবিরতি পালন করে। ফলে সার্বিক দিক দিয়ে বিপাকে পড়েন কারখানার মালিক। এসময় তিনি শ্রমিকদের ২০ জুলাই বেতন পরিশোধ করা হবে বলে কাজ বন্ধ না রাখতে অনুরোধ করলেও এতে লাভ হয়নি।   পরবর্তীতে উপায়ন্তু না পেয়ে মালিক কারখানাটি বন্ধ করতে বাধ্য হন। তবে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মালিকের নির্দেশে শ্রমিকদের জুন মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য তিনি ও পাঁচ জন স্টাফ কারখানায় আসেন। কিন্তু শ্রমিকরা এক মাসের বেতন না নেওয়ার কথা জানিয়ে জুলাই মাসের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে তাদের কারখানার অফিস কক্ষে আটকে রাখে।    তিনি আরো জানান, বিজিএমইএ’র সাথে আজকের বৈঠকের মাধ্যমে শ্রমিকদের সমস্ত পাওনা বুঝিয়ে দেওয়ার বিষয়টি সুরাহা হবে বলে আশ্বাস দেন। এদিকে কারখানার সামনে অবস্থান নেওয়া শ্রমিকরা জানায়, টাকার অভাবে তাদের বাসা ভাড়া ও দোকানের টাকা বাকী পড়েছে। সামনে ঈদকে কেন্দ্র করে বর্তমানে দেয়ালে তাদের পিঠ ঠেকে যাওয়ার অবস্থা। এখন তারা যখন উপায়ন্তু না পেয়ে আন্দোলনে নেমেছেন তখন কেবল জুন মাসের বকেয়া পরিশোধ করা হবে বলে মালিক লোক পাঠিয়েছে। কিন্তু এত দিন কর্মহীন অবস্থা পার করার পর সামনে ঈদকে কেন্দ্র করে তারা পরিবার নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বলেও জানান শ্রমিকরা।     তাই তাদের বকেয়া তিন মাসের বেতন ও ঈদ বোনাসসহ বন্ধ কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি জানান তারা। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আশুলিয়া শিল্প পুলিশ-১ এর পুলিশ সুপার ছানা শামিনুর রহমান শামীম জানান, যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কারখানার অভ্যন্তরে শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া বিকেলে মালিকপক্ষ ও বিজিএমইএ’র বৈঠকের পর শ্রমিকরা তাদের পাওনা বুঝে পাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। উল্লেখ্য, চলতি বছরের জুন মাসের বকেয়া বেতনের জন্য গত ৩১ জুলাই কারখানার সামনে প্রথম অবস্থান কর্মসূচি পালন করে শ্রমিকরা। এরপর অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানা বন্ধ থাকায় গত ১৪ আগস্ট টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কে বিক্ষোভ করে শ্রমিকরা।    এমএইচ/এসি   

বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দোকানে, নিহত ৩

রাজশাহী নগরীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বাস দোকানের মধ্যে ঢুকে গেলে স্কুলছাত্রীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত চারজন। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। বুধবার দুপুরে নগরীর নওদাপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নগরীর শাহ মখদুম থানার ওসি জিল্লুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। নিহতরা হলেন- নগরীর শাহ মখদুম থানার মোড় এলাকার মোহাম্মদ ইসলামের ছেলে ইসমাইল হোসেন ওরফে পিংকু (২৪), মোহাম্মদ আলীর ছেলে সবুজ ইসলাম (৩২) এবং নওদাপাড়ার ভাড়ালিপাড়া এলাকার রুস্তম আলীর মেয়ে আনিকা খাতুন (১৩)। জানা গেছে, ইসমাইল ও সবুজ ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। আর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেওয়ার পর আনিকা খাতুনের মৃত্যু হয়। ওসি জিল্লুর রহমান জানান, একটি যাত্রীবাহী বাস রাজশাহী থেকে নওগাঁ যাচ্ছিল। পথে নওদাপাড়া এলাকায় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি মোটরসাইকেলকে চাপা দিয়ে রাস্তার পাশের দোকানে ঢুকে যায়। এতে দুজন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এ ঘটনায় আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখানে স্কুলছাত্রী আনিকা মারা যায়। দুর্ঘটনার পর বিক্ষোভ শুরু করে স্থানীয়রা। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছে বলে জানান ওসি। একে//

দেড় মন পেয়ারার দামে ১ কেজি গরুর মাংস

ঝালকাঠি, বরিশাল আর পিরোজপুরের সীমান্তবর্তী এলাকার ২৬ গ্রামের প্রায় ৩১ হাজার একর জমির উপর গড়ে উঠেছে পেয়ারা বাগান। আর এ পেয়ারা চাষের সঙ্গে প্রায় ২০ হাজার পরিবার সরাসরি জড়িত। তাদের এ পেয়ারা বিক্রির জন্য বিখ্যাত ভীমরুলি ভাসমান পেয়ারা বাজার। ঝালকাঠী জেলা শহর থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে ভিমরুলি গ্রামের আঁকাবাঁকা ছোট্ট খালজুড়ে সপ্তাহের প্রতিদিনই সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে বিকিকিনি। হাটটি সারা বছর বসলেও প্রাণ ফিরে পায় পেয়ারা মৌসুমে৷ ভিমরুলি হাট খালের একটি মোহনায় বসে। তিন দিক থেকে তিনটি খাল এসে মিশেছে এখানে। ভিমরুলির আশপাশের সব গ্রামেই অসংখ্য পেয়ারা বাগান। এসব গ্রামে দৃষ্টিপথে ধরা দেবে সবুজের সমারহ। এসব সবুজের বেশিরভাগ হোগলা, সুপারি, আমড়া আর পেয়ারার বন। এসব বাগান থেকে চাষীরা নৌকায় করে সরাসরি এই বাজারে নিয়ে আসেন। এখানে প্রতিদিন পেয়ারা বোঝাই শত শত নৌকা নিয়ে বিক্রেতারা খুঁজে বেড়ায় ক্রেতা। আর ক্রেতাদের বেশিরভাগই হল পাইকার। বড় ইঞ্জিন নৌকা নিয়ে তারা বাজারে আসেন। ছোট ছোট নৌকা থেকে পেয়ারা কিনে তার ঢাকা শহরে বিক্রি করেন। তবে কিছু অসাধু পাইকারদের কারণে ন্যায্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এসব পেয়ারা চাষীরা। তাদের দাবি সরকারের পক্ষ থেকে তদারকি থাকলে পেয়ারা চাষীরা সঠিক দাম পেতেন। ওখানকার পেয়ারা চাষীদের সাথে কথা বলে জানা য়ায়, অনেক কষ্ট স্বীকার করে পেয়ার আবাদ করে যখন হাটে আনে এক মন পেয়ার বিক্রি করতে হচ্ছে ৩০০ টাকায়। যা বর্তমান বাজারে দেড় মন পেয়ার দামে এক কেজি মাংস মিলে। সামনে পবিত্র করবানি ঈদ। বউ ছেলে মেয়ে নিয়ে কিভাবে ঈদ কাটাবেন সেটায় ভাবার বিষয়। চাষীয় আরও জানান, এক বিঘা জমিতে ৭০ হাজার থেকে ৮০ হাজার টাকা খরচ হয়। কিন্তু তেমন দাম না থাকার কারণে পেয়ার চাষে আগ্রহ হারাচ্ছে চাষীরা। এমনভাবে চলতে থাকলে এক সময় পেয়ার চাষ বন্ধ করতে বাধ্য হবে চাষীরা এবিষয়ে সরকারের সহযোগিতা চায় তারা। পেয়ারা চাষী রুহুল আমিন বলেন, পেয়ারা চাষ করেই সংসার চলে। চাষ থেকে কিছু লাভ না করতে পারলে সংসার চলে না। তিনি বলেন, এক বিঘা জমিতে পেয়ারা চাষে প্রায় ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা খরচ হয়। কিন্তু বাজারে এসে পেয়ার তেমন দাম পাই না। তখন খুবই কষ্ট লাগে। ভিমরুলী বাজারের পেয়ারা ব্যবসায়ী রইস মিয়া ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, এখানে যে দামে একমন পেয়ারা কেনাবেঁচা হয় একই দাম দিয়ে ঢাকায় এক কেজি পেয়ারা কিনতে হয়। সব মুনাফা নিয়ে নিচ্ছেন মধ্যস্তত্বভোগীরা। টিআর/

বিজিবি-বিজিপি পর্যায়ে যৌথ টহল আগামীকাল

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ হোয়াইক্যং বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশর (বিজিবি) সঙ্গে মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) একটি যৌথ টহল অনুষ্ঠিত হবে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় এ টহল অনুষ্ঠিত হবে। বুধবার বিজিপির তরফ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ওই টহলে বিজিবির পক্ষে সুবেদার মো. আব্দুল জলিল এবং বিজিপির পক্ষে নম্বর (২) বিজিপির লে. নাইং লিন নেতৃত্ব দেবেন। উল্লেখ্য, বিজিপির সঙ্গে বিজিবির গত মার্চ মাসে চারটি, জুন মাসে চারটি, জুলাই পাঁচটি এবং আগস্ট মাসে চারটিসহ মোট ১৭ টি যৌথ টহল সম্পন্ন হয়েছে। একে//

রাজবাড়ীতে মহাসড়কের বেহাল দশা(ভিডিও)

ঢাকা-খুলনা ও রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া মহাসড়কের রাজবাড়ী অংশের বেহাল দশা এখনো কাটেনি। মেরামত কাজ চলছে ধীর গতিতে। ধুলাবালিতে যাত্রী ও স্থানীয়দের ভোগান্তি উঠেছে চরমে। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের রাজবাড়ী অংশে প্রায় ২০ কিলোমিটার জুড়েই এই চিত্র। মেরামত কাজের কারণে ধুলা-বালিতে যাত্রীদের পাশাপাশি আশপাশের মানুষের দুর্ভোগ এখন চরমে। চার ধাপে এ কাজ শুরু হয়েছে গোয়ালন্দ মোড় থেকে পাংশার শিয়ালডাঙ্গী পর্যন্ত। এছাড়া জেলা সদরের বাগমারা থেকে জৌকুড়া পর্যন্ত সড়কের কাজও চলছে। এ অবস্থায় ঈদে ঘরমুখো মানুষের দুর্ভোগ বাড়বে বলে মনে করেন যানবাহন চালক ও যাত্রীরা। ভোগান্তি কমাতে ঈদের আগেই ক্ষতিগ্রস্ত অংশ সাময়িক মেরামতের কথা জানায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। প্রকল্পের কাজ নির্ধারিত দেড় বছরের মধ্যেই শেষ হবে বলে আশা করছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

ক্সবাজারে বঙ্গবন্ধুর দুর্লভ ছবির প্রদর্শনী(ভিডিও)

বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে চলছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দুর্লভ ছবির প্রদর্শনী। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রী পাভেল রহমানের তোলা বঙ্গবন্ধুর অর্ধশতাধিক ছবি নিয়ে প্রথমবারের মত ভিন্নধর্মী আয়োজন করেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন। বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের বুকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি ছবি যেনো অটল হিমাদ্রি। সাগর তীরের বালুকাবেলায় প্রজন্ম যেন নতুনভাবে পরিচিত হচ্ছে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালীর সাথে। লাবণী পয়েন্টে প্রদশর্নী দেখতে ভিড় জমিয়েছে শিক্ষার্থীসহ অসংখ্য মানুষ। দুর্লভ ছবিগুলো দেখে জাতির পিতার অনেক অজানা কথা জানতে পারছেন তারা। প্রদর্শনীতে অনন্য এসব ছবির পেছনের গল্প তুলে ধরেন ছবি স্রষ্টা পাভেল রহমান। জেলা প্রশাসক জানান, বঙ্গবন্ধুকে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত সবার কাছে পৌঁছে দিতেই এ আয়োজন। মঙ্গলবার শুরু হওয়া প্রদর্শনী শেষ হবে বৃহস্পতিবার। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে প্রদর্শনী।

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি