ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ৪:১১:৫৬

শিগগিরই প্রধান বিচারপতি নিয়োগ : আইনমন্ত্রী

শিগগিরই প্রধান বিচারপতি নিয়োগ : আইনমন্ত্রী

প্রধান বিচারপতির পদ বেশিদিন খালি থাকবে না বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি শিগগিরই প্রধান বিচারপতির নিয়োগ দেবেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আপিল বিভাগের বিচারপতিদের শপথ পড়াতে পারবেন বলেও জানান তিনি। বৃহস্পতিবার সকালে বিচারকদের সঙ্গে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন তিনি। আনিসুল হক বলেন, প্রধান বিচারপতিকে নিয়োগ দেওয়ার একমাত্র ক্ষমতা হচ্ছে রাষ্ট্রপতির। রাষ্ট্রপতি যখন নিয়োগ দেবেন, তখনই প্রধান বিচারপতি নিয়োগপ্রাপ্ত হবেন। তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতি নিয়োগপ্রাপ্ত  না হওয়া পর্যন্ত অস্থায়ী প্রধান বিচারপতিই সব রকম কাজ চালিয়ে যাবেন। গত ১০ নভেম্বর তৎকালীন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা পদত্যাগ করেন। তাঁর পরিবর্তে মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞাকে অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি হিসাবে নিয়োগ দেন রাষ্ট্রপতি।   আর  
ঢামেক থেকে তিন মাসের শিশু উধাও!

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে তিন মাসের এক শিশুর নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার মধ্যরাতে হাসপাতালের নতুন ভবনের ৭০১ নম্বর ওয়ার্ড থেকে জিম নামের ওই শিশুটি হারিয়ে যায় বলে পরিবারের অভিযোগ।  শিশুটি ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার জুয়েল হোসেন ও সুমাইয়া আক্তারের মেয়ে। অসুস্থ বাবার সঙ্গে গত ৩১ অক্টোবর হাসপাতালে এসেছিল সে।    জিমের বাবা জুয়েল ডায়াবেটিস ও কিডনি সমস্যা নিয়ে হাসপাতালের ওই ওয়ার্ডের ৪০ নম্বর বেডে ভর্তি হন। তার সেবার জন্য জিমকে নিয়ে তার মাও হাসপাতালে থাকছিলেন। সোমবার রাত ১২ দিকে সুমাইয়া স্বামীর পাশে ৪১ নম্বর বেডে জিমকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। পরে হঠাৎ ঘুম ভেঙে দেখেন শিশুটি নেই। তার চিৎকারে অন্যরা এগিয়ে এসে খোঁজাখুঁজি করলেও সকাল পর্যন্ত শিশুটির খোঁজ পাওয়া যায়নি বলে জানান শিশুটির পরিবার। ঢাকা মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই বাচ্চু মিয়া বলেছেন, শিশুটিকে উদ্ধারের সব ধরনের চেষ্টাই আমরা করছি। তবে কীভাবে শিশুটি নিখোঁজ হল, কেউ তাকে তুলে নিয়ে গেছে কি না- সে বিষয়ে কোনো ধারণা দিতে পারেননি তিনি। সুমাইয়া হাসপাতালে সাংবাদিকদের বলেছেন, তার মেয়েকে দেখে অন্য রোগীর স্বজনসহ অনেকেই প্রশংসা করেছেন, কথা বলেছেন। কিন্তু তাদের কেউ জিমকে চুরি করেছে কি না, সে বিষয়ে তিনি নিশ্চিত নন। একে// এআর  

কম্বলে মিলল ৫৮টি সোনার বার

কম্বলের ভেতর সোনার ৫৮টি বার লুকিয়ে রেখে পাচার করছিলেন বাহরাইন ফেরত মো. আলম (৪৫)। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আলমকে আটক করে ঢাকা কাস্টম কর্তৃপক্ষ। সোমবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে তার ব্যাগ স্ক্যান করে ব্যাগের ভেতরে থাকা একটি কম্বল থেকে ৫৮টি সোনার বার উদ্ধার করে কাস্টম হাউসের প্রিভেনটিভ দল। উদ্ধার হওয়া বারগুলোর মোট ওজন ৬ কেজি ৭০০ গ্রাম। যার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ৩ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। ঢাকা কাস্টম হাউসের সহকারী কমিশনার (এসি) ও প্রিভেনটিভ দলের প্রধান সাইদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, আলম আজ সোমবার সকাল ৯টায় বাহরাইন থেকে গলফ এয়ারের ফ্লাইটে করে ঢাকায় আসেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে সবকিছু অস্বীকার করেছিল। পরে তার ব্যাগ স্ক্যান করে কম্বলের ভেতরে দুটি প্যাকেট থেকে ৫৮টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়। প্রতিটি বারের ওজন ১১৬ গ্রাম। আলমের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লায়। বিমানবন্দর থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বলে জানান সাইদুল ইসলাম।   আর/টিকে

আড়াই মাস পর বাড়ি ফিরলেন নিখোঁজ ব্যবসায়ী অনিরুদ্ধ রায়

আড়াই মাস (৭৯ দিন) নিখোঁজ ব্যবসায়ী ও বেলারুশের অনারারি কনসাল অনিরুদ্ধ রায় বাড়ি ফিরেছেন। শুক্রবার ভোরে তিনি গুলশানের বাসায় ফিরে আসেন। প্রসঙ্গত, অনিরুদ্ধ রায় গত ২৭ আগস্ট গুলশান ১ থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন। ঘটনাস্থলের ভিডিও ফুটেজ থেকে দেখে যায়, তিনি ইউনিয়ন ব্যাংক থেকে বের হওয়ার পর তার গাড়িচালকের সামনে থেকেই তাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ৭৯ দিন পর গতকাল শুক্রবার তিনি বাড়ি ফিরলেন। অনিরুদ্ধ রায়ের স্ত্রী শাশ্বতী রায় বলেন, শুক্রবার ভোরের দিকে তিনি বাসায় ফিরেছেন। তবে শাশ্বতী রায় এর বেশি কিছু গণমাধ্যমকে জানাতে রাজি হননি। গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু বকর সিদ্দিক গণমাধ্যমকে জানান, এ মামলার বাদির সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি আমাদের জানিয়েছেন, অনিরুদ্ধ রায় বাড়ি ফিরেছেন। তার সঙ্গে আমরা কথা বলার চেষ্টা করছি। গত ২৭ আগস্ট বিকালে রাজধানীর গুলশানের ১ নম্বর সেকশনের ইউনিয়ন ব্যাংকের সামনে থেকে একটি মাইক্রোবাসে অনিরুদ্ধ রায়কে তুলে নেওয়া হয়েছিল। ওই সময় তার গাড়িচালক বলেছিলেন, অনিরুদ্ধ রায় নিজের গাড়িতে উঠার সময় দুজন লোক এসে তার সঙ্গে কথা বলেন। এরপর তাকে ধাক্কা দিয়ে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। আরএমএম লেদার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন অনিরুদ্ধ। তিনি বেলারুশের ‘অনারারি কনসাল’ এবং কানাডার নাগরিক ছিলেন। অনিরুদ্ধ রায় রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর হস্তক্ষেপ কামনা করে চিঠি দেন তার স্বজনেরা । পাশাপাশি অনিরুদ্ধ নিখোঁজ হওয়ায় উদ্বেগ জানিয়ে তাকে উদ্ধারের প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছিল হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। / আর / এআর

মালিক পক্ষের আশ্বাসে আন্দোলন প্রত্যাহার গার্মেন্ট শ্রমিকদের

অবশেষে মালিকপক্ষের আশ্বাসে আন্দোলন প্রত্যাহার করে নিয়েছে রাজধানীর ‘ট্রাস্ট ট্রাউজার্স’ পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এর আগে বেতন ভাতাসহ বিভিন্ন দাবিতে মিরপুর ১২ নম্বর সড়কে অবস্থান করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয় আন্দোলনকারীরা। এতে দীর্ঘ ৫ ঘণ্টা পর চৌরঙ্গী মোড় বাস স্ট্যান্ডের পাশের সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। সুত্র মতে,শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে শ্রমিকগণ রাস্তায় নেমে আসে। তাদের রাস্তায় নেমে আসার কারণ জানতে চাইলে শ্রমিকদের একজন বলেন, অন্যদিনের মতো কর্মস্থলে গিয়ে প্রতিষ্ঠানটির মেইন গেটে তালা ঝুলতে দেখে, এরপর শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে আন্দোলন শুরু করে। পল্লবী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রোকসানা আক্তার রুমা বলেন, ঘটনার পর ওই সড়কে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। উল্লেখ্য, পোশাক কারখানাটিতে ১ হাজার ৮০০ শ্রমিক কাজ করে বলে জানা গেছে।

বনানীতে দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত ১

রাজধানীর বনানীতে দুর্বৃত্তরা গুলি চালিয়ে সিদ্দিক হোসাইন (৫৫) নামে এক জনশক্তি রপ্তানিকারককে হত্যা করেছে। নিহত সিদ্দিক জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান ‘এম এস মুন্সী ওভারসীজের’ মালিক বলে জানিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বনানী ৪ নম্বর সড়কে তার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে তাকে গুলি করা করা। এসময় আরও তিনজন আহত হন। বানানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল মতিন গণমাধ্যমকে জানান, বনানীর ৪ নম্বর রোডের ১১৩ নম্বর বাড়ির নিচতলায় ‘এম এস মুন্সী ওভারসীজে’ কয়েকজন দুর্বৃত্ত ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি করে পালিয়ে যায়। দুর্বৃত্তের ছোড়া গুলিতে সিদ্দিকসহ তিনজন আহত হন। আহতদের গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিদ্দিক হোসাইন মারা যান বলে জানান তিনি। গুলিতে আহত অপর তিনজনের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। তিনি বলেন, নিহত সিদ্দিক মুন্সী ওভারসীজের মালিক। হামলার কারণ উদ্ঘাটন করার চেষ্টা চলছে।   আর    

রাজধানীতে যাত্রা শুরু করল উবার মটো

রাজধানী ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে উবার মটো। এর ফলে চার চাকার গাড়ির পাশাপাশি এখন থেকে দুই চাকার মোটর সাইকেলেও রাইড শেয়ারিং সেবা চালু করল বিশ্বের সবথেকে বৃহৎ রাইড শেয়ারিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানটি। মোটর বাইকে রাইড শেয়ারিং এর মাধ্যমে মহানগরী ঢাকার যানজট নিরসনে আরও একধাপ এগিয়ে যাবে বলেই আশা করা হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার উবার মটোর প্রথম রাইড রাইড নিয়ে এ সেবার কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ওয়ানডে জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। রাইড শেষে এ সেবা নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। শহরের যাতায়াত ব্যবস্থায় কী পরিবর্তন আনবে উবার মটো তা দেখায় অপেক্ষায় আছেন বলেও জানান নড়াইল এক্সপ্রেস। উবার, ঢাকার জেনারেল ম্যানেজার অর্পিত মুন্ড্রা বলেন, “ঢাকায় উবার মটো  চালু করতে পেরে এবং এর মাধ্যমে যাত্রী যাতায়াতের একটি সাশ্রয়ী মাধ্যম প্রদান করতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। প্রযুক্তির মাধ্যমে ঢাকার যাতায়াত ব্যবস্থা উন্নত করা ও যানজট নিরসনে অবদান রাখার পাশাপাশি তরুণদের জন্য হাজার হাজার কর্মসংস্থান তৈরি করতে পেরে আমরা গর্বিত”। উবার মটো’র এ সেবার মাধ্যমে মোবাইল এপসের একটি বাটন প্রেসের মাধ্যমে সাশ্রয়ীমূল্যে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে পারেন। উবারের অন্যান্য রাইডের মতো উবার মটো-র ক্ষেত্রেও যাত্রীরা চালক ও গাড়ি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যসহ জিপিএস ট্র্যাকিং, টু-ওয়ে ফিডব্যাক ও ট্রিপ ডিটেইলস শেয়ারিং-এর মতো সেফটি ফিচারগুলির সুবিধা পাবেন। উবার থেকে জানানো হয়, উবার মটো’তে বেস ভাড়া বা সর্বনিম্ন ভাড়া হবে ৩০টাকা। প্রতি কিলোমিটার ১২টাকা এবং ১ টাকা প্রতি মিনিট হিসেবে ওয়েটিং চার্জ প্রযোজ্য হবে। ভাড়া পরিশোধ করা যাবে ক্যাশ, ক্রেডিট/ডেবিট কার্ড অথবা মোবাইল ব্যাংকিং ওয়ালেটের মাধ্যমে। তবে বিশ্লেষকদের মতে, ঢাকায় যেখানে পাঠাও এর মত জনপ্রিয় এবং প্রতিষ্ঠিত রাইড শেয়ারিং সেবা চালু আছে সেখানে উবারকে কঠিন এক প্রতিযোগিতার মুখোমুখি করতে হবে। এর পাশাপাশি মুভ বা স্যাম এর মত প্রতিদ্বন্দ্বী কোম্পানির সাথে টেক্কা দিতে হবে পাঠাও মটো’কে। উল্লেখ্য, প্রায় ১১ মাস পূর্বে ২০১৬ সালে উবার এক্স সার্ভিসের মাধ্যমে ঢাকায় যাত্রা শুরু করে উবার। অতি সম্প্রতি ‘উবার প্রিমিয়ার’ নামে আরেকটি সেবা উবারের কার্যক্রমে যুক্ত হয়।  

রাজধানীকে ধুলামুক্ত করার উদ্যোগ ডিএসসিসির

রাজধানীবাসীকে ধুলামুক্ত নগরী উপহার দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, ঢাকা দক্ষিণের ৫০ কিলোমিটার প্রধান সড়ক প্রতিদিন দুইবার পানি দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করা হবে। এজন্য নগরীতে প্রতিনিয়ত প্রস্তুত থাকবে ৯টি গাড়ি। আজ বৃহস্পতিবার নগর ভবনের সামনে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মেয়র সাঈদ খোকন। অনুষ্ঠানে মেয়র বলেন, ঢাকার রাস্তায় বের হলেই ধুলায় নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয় রাজধানীবাসীর। প্রতিটি সড়ককেই ধুলার অত্যাচার। ধুলার কারণে হাঁপানি, ফুসফুসসহ এলার্জিজনিত নানা অসুখে ভোগেন ঢাকার মানুষ। এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হন বৃদ্ধ ও শিশুরা। এ অবস্থা থেকে নগরবাসীকে পরিত্রান দিতে চাই। এজন্য সিটি করপোরেশন বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।   তিনি বলেন, প্রতিদিন দুই শিফটে নগরীর প্রধান সড়কে পানি ছিটানো হবে। প্রথমবার অফিস সময়ের আগে সকাল ৬টা থেকে ৮টা পর্যন্ত এবং দ্বিতীয়বার বেলা ১টা থেকে ৩টা পর্যন্ত পানি ছিটিয়ে রাজধানীর সড়কগুলো ধুয়ে দেওয়া হবে। পাশাপাশি যেখানে উন্নয়নমূলক কার্যক্রম চলছে সেখানে সৃষ্ট ধুলাবালি থেকে নগরীকে মুক্ত রাখতে ওইসব এলাকাতেও পানি ছিটানো হবে। মেয়র বলেন, আগামী এপ্রিল-মে পর্যন্ত ৯টি গাড়ি নগরীর বিভিন্ন সড়কে পানি ছিটাবে। তবে অলিগলিগুলো আপাতত এই কার্যক্রমের আওতায় আসবে না। সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, প্রতিটি গাড়ি ৭ হাজার লিটার পানি ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন। ১৯৯৬ সালে চীন থেকে আমদানি করা ৪টি পুরাতন গাড়ির সঙ্গে গত বছর ভারত থেকে আনা নতুন ৫টি গাড়ি এ কাজে যুক্ত হচ্ছে।   আর/ডব্লিউএন

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশে বাধা

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসাধারণের প্রবেশে পুলিশি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। বিশৃঙ্খলা এড়াতে পুলিশ এ পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানা যায়। সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশের সব গেইট তালাবদ্ধ করে দিয়েছে পুলিশ । একইসাথে সব গেইটে পুলিশ ও র‌্যাবের কড়া পাহারা বসানো হয়েছে। কেউ উদ্যানে যেতে চাইলে বিশৃঙ্খলা বা নাশকতার আশঙ্কায় তাকে আটকে দেওয়া হচ্ছে। এদিকে অনুমতি না পেয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংসদের বাইরে থাকা দল বিএনপি। ৮ নভেম্বরের পরিবর্তে দলটি ১১ নভেম্বর সমাবেশ করবে বলে সাংবাদিকদের জানান বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ‍রুহুল কবির রিজভী। এদিকে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে ইউনেস্কোর বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য ঘোষণায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগও সমাবেশ করার ঘোষণা দেওয়ায় রাজনীতিতে আবারও উত্তাপ ছড়ায়। দেশের বড় দুটি রাজনৈতিক দলের পরষ্পর বিরোধী কর্মসূচিতে নাশকতা হতে পারে এমন আশঙ্কায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে জনসাধারণের প্রবেশ, পুলিশের এক ঊর্ধতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে ইটিভিকে বলেন। এমজে/

বাধা দেওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র খুন

রাজধানীর মধ্যবাড্ডায় ছুরিকাঘাতে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকে খুন করা হয়েছে। নিহত ছাত্রের নাম আহমেদ এমাদ উদ্দিন নাসিম (২৩)। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ম্যাচ নিয়ে জুয়া খেলায় বাজি ধরতে বাধা দেওয়ার ঘটনায় ওই ছাত্রকে ছুরি মেরে খুন করা হয়েছে বলে দাবি নিহতের স্বজনদের। সোমবার (৬ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মধ্যবাড্ডার পোস্ট অফিস গলিতে পূর্ব পরিচিত কয়েকজন তাকে ছুরি মেরে পালিয়ে যায়। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা নাসিমকে মৃত ঘোষণা করেন। নাসিমের প্রতিবেশী বন্ধু মো. লিমন জানান, সকালে বাসার সামনের গলিতে ২০/২২ বছরের এক যুবক নাসিমকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে তিনি নিজেই নাসিমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তবে ঘাতক যুবকের নাম-পরিচয় জানেন না বলে জানান লিমন। অপরদিকে খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসেন নিহত নাসিমের বাবা সাইফুদ্দিন আহমেদ। তিনি জানান, নাসিম মানারত বিশ্ববিদ্যালয় বিবিএর তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। তিনি আরো জানান, গতকাল বাসার সামনে একটি দোকানে ক্রিকেট খেলার বাজি নিয়ে রমজান নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে নাসিমের ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে নাসিম রমজানকে চড়-থাপ্পড় মারে। এরপর তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এ খবর পেয়ে নাসিমের বাবা (সাইফুদ্দিন আহমেদ) সেখানে গেলে রমজানের চাচা আবদুর রশিদ তাকেও চড়-থাপ্পড় মারে। পরে বিষয়টি তখন সমাধান করে ফেলা হয়। আজ সন্ধ্যার এলাকাতেই ওই ঘটনার বিচার হওয়ার কথা ছিল। বাবার অভিযোগ, কালকের ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই তাঁর ছেলে নাসিমকে ছুরিকাঘাতে খুন করা হয়েছে। নাসিমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া জানান, নাসিমের বুকে, পেটে একাধিক ছুরিকাঘাত রয়েছে। লাশটি মর্গে রাখা হয়েছে। খুনের বিষয়টি বাড্ডা থানায় জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি।   এসএ / এআর

বিসিক ভবনে ৫ দিনব্যাপী হেমন্ত মেলা ও কারুশিল্প প্রদর্শনী  শুরু

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)-এর উদ্যোগে মতিঝিলস্থ বিসিক ভবনে আজ রোববার (৫ নভেম্বর) থেকে ৫ দিনব্যাপী হেমন্ত মেলা ও কারুশিল্প প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। বিসিক চেয়ারম্যান জনাব মুশতাক হাসান মুহঃ ইফতিখার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উক্ত মেলা ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিসিকের পরিচালক (নকশা ও বিপণন) মো. রেজাউল করিম। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন প্রধান নকশাবিদ বেগম মনোয়ারা খাতুন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিসিকের  ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও মেলায় অংশগ্রহণকারী কারুশিল্পীগণ উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিসিক চেয়ারম্যান বলেন, কুটির ও হস্তশিল্প খাতের পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধির জন্য মেলায় ক্রেতাদের চাহিদানুযায়ী আকর্ষণীয় নতুন নতুন ও মানসম্পন্ন পণ্যসামগ্রী উৎপাদনের উপর গুরুত্ব দিতে হবে। এক্ষেত্রে বিসিক থেকে কারুশিল্পীদের সম্ভাব্য সকল প্রকার সেবা-সহায়তা প্রদান করা হবে।  তিনি আরও বলেন, ক্রেতা সাধারণের নিকট পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধি পেলে কারুশিল্পরা আত্ম-বিশ্বাসী হয়ে উঠবেন। নতুন ডিজাইন সম্পর্কে প্রশিক্ষণার্থীগণকে অবগত করার জন্য প্রশিক্ষণার্থীদের সঙ্গে নকশা কেন্দ্রকে একটি মতবিনিময় সভার আয়োজন করার জন্য নির্দেশ দেন। উল্লেখ্য যে, বিসিক দেশব্যাপী ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প খাতের উন্নয়নে দীর্ঘদিন যাবৎ উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন ধরনের সেবা-সহায়তা প্রদান করে আসছে। উক্ত খাতের উন্নয়ন ও বিকাশ ঘটিয়ে উৎপাদন ও আয়বৃদ্ধি এবং নতুন নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করাই বিসিকের অন্যতম লক্ষ্য। এ লক্ষ্য অর্জনে বিসিক কর্তৃক অন্যান্য কাজের পাশাপাশি নকশা কেন্দ্রের মাধ্যমে ব্লক, বাটিক প্রিন্টিং, স্ক্রিন প্রিন্টিং, পুতুল তৈরি, মৃৎ শল্পি,প্যাকেজিং, বাঁশ-বেতের কাজ, পাটজাত হস্তশিল্প, চামড়াজাত পণ্য, ধাতব শিল্প,  বুনন শিল্প ও ফ্যাশন ডিজাইন ইত্যাদি ১৩টি ট্রেডে এ পর্যন্ত ২৮ হাজার ৫৩৮ জন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। তাছাড়া এ যাবৎ নকশা উদ্ভাবন ও নমুনাকরণ ৩৩ হাজার ১৮৪টি, মেলা ও প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে ১৭৩টি, শ্রেষ্ঠ ও দক্ষ কারুশিল্পী পুরস্কার প্রদান ২৭৫ জনকে এবং ত্রৈমাসিক মেলার আয়োজন করা হয়েছে ৫৯টি। বিসিকের নকশা কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীদের বিভিন্ন পণ্য সামগ্রীর পরিচিতি ও বাজার সৃষ্টির মাধ্যমে তাদেরকে সহায়তা প্রদানের উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় বিভিন্ন ধরণের পোশাক, নকশীকাঁথা, তাঁতের ও জামদানি শাড়ি, পাটজাত হস্তশিল্প, আধুনিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত মধু, খাদ্যজাত সামগ্রীসহ হস্ত ও কুটির শিল্পজাত পণ্যের বিপুল সমারোহ ঘটেছে। মেলা উপলক্ষে জয়নুল আবেদিন প্রদর্শনকক্ষে কারুশিল্পীদের উৎপাদিত পণ্যসামগ্রী নিয়ে চলছে কারুশিল্প প্রদশর্নী। মেলায়  বিভিন্ন ধরণের হস্ত ও কুটির শিল্পপণ্যের ৫০টি স্টল স্থান পেয়েছে। মেলা চলবে আগামী ০৯ নভেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত মেলা সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। কেআই/ডব্লিউএন

ঢাকায় সিপিএ সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন আজ

কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) ৬৩তম সম্মেলনের উদ্বোধন হচ্ছে আজ বোববার। আজ সকালে প্রধানমন্ত্রী ও সিপিএ’র ভাইস প্যাট্রন শেখ হাসিনা ৬৩তম কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি কনফারেন্স (সিপিসি) ২০১৭’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। সম্মেলনের ‍উদ্বোধন সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হলেও এর বিভিন্ন সেশনগুলো অনুষ্ঠিত হবে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি)। এবারের সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে, কনটিনিউনিং টু এনহ্যান্স দ্য হাই স্ট্যান্ডার্ড অব পারফরমেন্স অব পার্লামেন্টারিয়ানস। এই সম্মেলনের মাধ্যমে সংস্থাটির বর্তমান চেয়ারপারসন ও স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর মেয়াদ শেষ হবে। আগামী ৭ নভেম্বর সিপিএর নতুন চেয়ারপাসন নির্বাচন করা হবে। সংসদ সচিবালয়ের সূত্র থেকে জানা যায় সিপিএ সম্মেলনে কমনওয়েলথভুক্ত ৫২টি দেশের মধ্যে ৪৪টি দেশের প্রতিনিধিরা সম্মেলনে অংশ নিবেন । এসব দেশের জাতীয় ও প্রাদেশিক সংসদের সমন্বয়ে গঠিত ১৮০টি ব্রাঞ্চের মধ্যে ১১০টি ব্রাঞ্চের স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারসহ ৫ শতাধিক পার্লামেন্ট সদস্য অংশ নিচ্ছেন। এরইমধ্যে প্রতিনিধিদের বড় অংশ ঢাকায় পৌঁছেছেন। সম্মেলনে রোহিঙ্গা ইস্যুকে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ। এর অংশ হিসেবে উদ্বোধনের পরপরই বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে ৪টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলেন কেন্দ্রের হল অব ফেমে রোহিঙ্গা সংকট ও সমাধানের উপায় নিয়ে বাংলাদেশের পক্ষে বক্তব্য উত্থাপন করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এইচ এম মাহমুদ আলী। এর মাধ্যমে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর ব্যাপারে আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করা হবে। এছাড়া সিপিএর নির্বাহী কমিটির আটটি সেমিনারে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে যে কেউ বিষয়টি উত্থাপন করতে পারেন বলে একাধিকবার জানিয়েছেন সিপিএ চেয়ারপারসন ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এর আগে গত ১ নভেম্বর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত হোটেল রেডিসনে সিপিএ-এর নির্বাহী কমিটির বৈঠক ও সিপিএ  ব্রাঞ্চের সম্মেলনসহ বেশ কয়েকটি অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগামী ৮ নভেম্বর শেষ হবে এই সম্মেলন। দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত সিপিএ সম্মেলনটি সুন্দরভাবে অনুষ্ঠানের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে এ বছরের মার্চে অনুষ্ঠিত ইন্টার পাল্টামেন্টারিয়ান ইউনিয়নের (আইপিইউ) সম্মেলনের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাচ্ছে আয়োজক প্রতিষ্ঠান দু’টি। সংসদ ভবনসহ ঢাকাকে বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। সংসদ ভবনের দক্ষিণে অবস্থিত সবুজ মাঠে নির্মাণ করা হয়েছে বিশাল মঞ্চ। বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার রঙে আলোকিত করা হয়েছে উঠেছে পুরো সংসদ ভবন। সংসদ ভবন ও তার আশপাশের রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে আলোকসজ্জা করা হয়েছে। ডিজিটাল ব্যানারে ছাপিয়ে গেছে সম্মেলন স্থলের আশপাশের এলাকা। রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধনস্থলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৌঁছানোর পরপরই বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হবে। এরপর পবিত্র ধর্মগ্রন্থগুলো থেকে পাঠের পর পরিবেশিত হবে উদ্বোধনী নৃত্য। এরপর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের  সভাপতি ও সিপিএ চেয়ারপারসন শিরীন শারমিন চৌধুরী স্বাগত বক্তব্য দেবেন। এছাড়া সিপিএ’র প্যাট্রন ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথের পাঠানো বার্তা পড়ে শোনানো হবে। এরপর জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর ৫ মিনিটের একটি ভিডিওচিত্র দেখানোর হবে। এরপর ‘সিম্পোনি অব ডেমোক্র্যাসি’ শিরোনামে পরিবেশিত হবে মঞ্চ‍নৃত্য।  এ সময় আরও একাধিক ভিডিওচিত্র ও নৃত্য পরিবেশন করা হবে। বেলা ১২টায় বক্তব্য দেবেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর তিনি সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। সিপিএ সম্মেলন উপলক্ষে একটি  ডাকটিকিটও এ সময় অবমুক্ত করা হবে। / এম / এআর            

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি