ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৮ ২১:৫৩:৩০

কোনো শক্তি নির্বাচন ঠেকাতে পারবে না: নাসিম   

কোনো শক্তি নির্বাচন ঠেকাতে পারবে না: নাসিম   

চৌদ্দ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, দুনিয়ার কোনো শক্তি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঠেকাতে পারবে না। নির্বাচন কমিশনকে বলব, আপনারা এগিয়ে যান। একটি সুন্দর নির্বাচনের জন্য আপনারা আপনাদের কাজ চালিয়ে যান। শুক্রবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে চৌদ্দ দলের শোক দিবসের আলোচনা সভায় মোহাম্মদ নাসিম এসব কথা বলেন।   
জিয়া পরিবারের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশকে রক্ষা করতে হলে জিয়া পরিবারের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, দেশকে জঙ্গি-সন্ত্রাস-সংঘাতমুক্ত করতে হলে জিয়া পরিবারের দুষ্কর্মের মুখোশ উন্মোচন করা সবারই কর্তব্য। আর এটা জরুরি হয়ে পড়েছে বলে মনে করেন ইনু। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে জাসদ নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এসব কথা বলেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি হচ্ছে সেই দল যারা পচাত্তরের পরে বঙ্গবন্ধু হত্যার অপরাজনীতি বহন করছে। তাই বাংলাদেশ নিয়মতান্ত্রিক পথে রাখতে হলে বঙ্গবন্ধু হত্যার অপরাজনীতির বাহকদেরও শায়েস্তা করতে হবে। তিনি বলেন, বিএনপি নেতৃবৃন্দ আমার সমালোচনার মধ্য দিয়ে কার্যত জিয়া, খালেদা ও তারেকের দুষ্কর্ম আড়াল করার চিন্তা করছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন, জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম স্বপন ও বিভিন্ন অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা। একে//

ওয়ার্কার্স পার্টির ‘সন্ত্রাসবিরোধী দিবস’ আজ

দলীয় সভাপতি ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেননকে হত্যাচেষ্টার ২৬তম বার্ষিকীতে আজ শুক্রবার ‘সন্ত্রাসবিরোধী দিবস’ পালন করবে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি। ১৯৯২ সালের ১৭ আগস্ট ওয়ার্কার্স পার্টির তোপখানা রোডের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে রাশেদ খান মেননকে হত্যার জন্য গুলি করা হলে তিনি গুরুতর আহত হন। প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে সিএমএইচে চিকিৎসা এবং অস্ত্রোপচারের পর তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য লন্ডনে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কিংস কলেজ হাসপাতালে দ্বিতীয় দফায় তার অস্ত্রোপচার হয়। কিন্তু তার পরও শঙ্কামুক্ত না হওয়ায় ব্যাংককে তৃতীয় দফায় অস্ত্রোপচার হয় তার। এরপর ১৯৯৩ সালের ১০ জানুয়ারি দেশে ফিরে আসেন মেনন।দিনটি উপলক্ষে ওয়ার্কার্স পার্টি আজ বিকেল ৪টায় তোপখানা রোডের বিএমএ মিলনায়তনে এনে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন দলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি।এদিকে ওয়ার্কার্স পার্টির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, রাশেদ খান মেননের হত্যাচেষ্টার ২৬ বছরেও তার প্রকৃত তদন্ত ও বিচার হয়নি।দলের পক্ষ থেকে এই হত্যাচেষ্টার পেছনে সেই সময় মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর হাত রয়েছে বলে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দায়ের করা হলেও পুলিশ দায়সারা তদন্ত করে কতিপয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। পরে পার্টির পক্ষ থেকে দাবির পরিপ্রেক্ষিতে অধিকতর তদন্তের পদক্ষেপ নেওয়া হলেও কোনো কাজ হয়নি।এসএ/  

ঈদের আগেই খালেদার মুক্তি দাবি রিজভীর

বিএনপি চেয়রপারসন খালেদা জিয়া ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বলে দাবি করেছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। তিনি জানান, বিএনপি নেত্রীকে সব অধিকার থেকে দূরে সরিয়ে রাখা হয়েছে। এমনকি অসুস্থ দেশনেত্রীকে সুচিকিৎসা না দিয়ে তার জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন রিজভী। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় ঈদের আগেই সব ‘মিথ্যা মামলা’ প্রত্যাহার করে খালেদা জিয়ার মুক্তির জোর দাবি জানান রিজভী। রিজভী বলেন, বাংলাদেশ এখন জুলুমের গ্যাস চেম্বারে পরিণত করা হয়েছে। দেশের সর্বত্র রক্ত ঝরছে। সারাদেশে জনপদের পর জনপদে অসংখ্য মিথ্যা মামলা এবং সেই মামলায় হাজার হাজার বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীকে আসামি করে গ্রেফতার করা হচ্ছে। সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস বিনা চিকিৎসায় মরণাপন্ন অবস্থা। তাই খুব দ্রুত অস্ত্রপচার না হলে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়বেন। কিন্তু বিএসএমএমইউ হাসপাতালের পরিচালক কোনো ক্রমেই শিমুল বিশ্বাসকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করছেন না। নিম্ম আদালত ও উচ্চ আদালতে নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ নির্বিকার। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দলটির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবীর খোকন, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ দফতর সম্পাদক মো. মুনির হোসেন, সহ প্রচার সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন, নির্বাহী সদস্য শামসুজ্জামান সুরুজ প্রমুখ। একে//  

অন্যায়কারীরা ছাত্রলীগ নয়, অনুপ্রবেশকারী: ড. হাছান মাহমুদ  

খারাপ কোন কিছু হলেই সেখানে ছাত্রলীগের নাম জড়িয়ে দিচ্ছে। অথচ পরবর্তীতে দেখা যায় অন্যায়কারী ছাত্রলীগই নয়, তারা অনুপ্রবেশকারী বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সমস্ত সোনালি অর্জনে ছাত্রলীগের নাম জড়িয়ে আছে।   বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগ আয়োজিত সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র যখনই ছিনতাই হয়েছে, গণতন্ত্র যখনই বাক্সবন্ধি হয়েছে সেই ছিনতাইকৃত বাক্সবন্দি গণতন্ত্র ছাত্রলীগের নেতৃত্বে পুনঃপ্রতিষ্ঠীত হয়েছে। বাংলাদেশের সমস্ত অর্জনের সাথে ছাত্রলীগের নাম জড়িয়ে আছে। তাই ছাত্রলীগকে নিয়ে অনেকের মাথা ব্যাথা। সেই কারণে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে অনেকেই অপপ্রচার চালায়।   গণমাধ্যমকে ইঙ্গিত করে হাছান মাহমুদ বলেন, ইদানিং কিছু কিছু গণমাধ্যম ছাত্রলীগকে কলুষিত করার জন্য ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে। তিনি ছাএলীগকে তাদের চিহ্নিত করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার পাশাপাশি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেল গঠন করে সোচ্চার হওয়ারও আহবান জানান। হাছান মাহমুদ আরও বলেন, রাষ্ট্রপ্রধান কিংবা সরকার প্রধানকে হত্যা করার লক্ষে নয়, বাংলাদেশ রাষ্ট্রকে হত্যা করার লক্ষেই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিল। যারা একাত্তরে আমাদের মুক্তিকামি মানুষের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধরেছিল এবং বিদেশি শক্তি যারা এই রাষ্ট্রের অভ্যূদয় চায়নি তাদের সম্মিলিত ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশ রাষ্ট্রকে হত্যা করার লক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করা হয়েছিল। সেই কারনেই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর বিভিন্নভাবে রাষ্ট্রের চরিত্র বদলে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে বারংবার।    এ সময় তিনি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার নিহত পরিবার বর্গের আত্মার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। বরিকুল ইসলাম বাধনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মফিজুর রহমান, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী খান পান্না, সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন, বঙ্গবন্ধু হলের সাবেক সভাপতি দারুস সালাম সাকিল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রমুখ।    আআ/এসি   

পরাজিত শত্রুদের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে হবে: কামরুল  

খাদ্যমন্ত্রী এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘৭১-এর পরাজিত শত্রুরাই প্রতিশোধ নেয়ার জন্য ‘৭৫-এ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করে। তিনি বলেন, ‘৭১-এর পরাজিত শত্রু, ৭৫-এ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর খুনিরা ও ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলাকারীরা একই সূত্রে গাঁথা।’    আজ বুধবার সকাল ১১টায় কেরানীগঞ্জের কালিন্দী এলাকায় জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে এক আলোচনা, মিলাদ-মাহফিল ও দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। কামরুল ইসলাম বলেন, ‘আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচাল করার জন্য ওই পরাজিত শত্রুরাই আবার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। আগামীতে ওই পরাজিত শত্রুরা যেন নির্বাচন কোনভাবেই বানচাল করতে না পারে সে জন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে এবং ঐক্যবদ্ধভাবে ওই পরাজিত শত্রুদেরকে প্রতিহত করতে হবে।’ ঢাকা-২ আসন নির্বাচন পরিচালনা সমন্বয় কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক আলহাজ্ব আবুল হাসান মোস্তানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ইউসুফ আলী চৌধুরী সেলিম, যুগ্ম-আহ্বায়ক আইকে শাহিন প্রমুখ। এসি    

জীবনবাজি রেখে লড়াই করতে হবে: ফখরুল  

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, মানুষের অধিকার আদায়ে আমাদের জীবনবাজি রেখে লড়াই করতে হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনতে হবে। এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে সরকারকে বাধ্য করতে হবে। আজ বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও রোগমুক্তি কামনায় এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল।   তিনি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া সারাটা জীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন। আজ তিনি ফ্যাসিস্ট সরকারের চক্রান্তে কারাগারে রুদ্ধ। তিনি এ দেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের কয়েকজন ব্যক্তির মাঝে একজন। বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘দীর্ঘ নয় বছর খালেদা জিয়া মানুষের কাছে গেছেন, মানুষকে নিয়ে রাজপথে স্বৈরাচারী সরকারের পতন ঘটিয়েছেন। তিনি জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে তিনবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। ১/১১ সময় তিনি যখন কারাগারে যান, তখন সেখান (কারাগার) থেকে সরকারকে বাধ্য করেছিলেন জরুরি অবস্থা তুলে নিতে। আজকে তাদের চেয়েও খারাপ হচ্ছে এই ফ্যাসিস্ট সরকার। তারা মানুষের সমস্ত অধিকার দখল করেছে।’ মির্জা ফখরুল আরো বলেন, ‘সরকার কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনকে নির্মমভাবে দমন করেছে। শিক্ষার্থীদের গ্রেপ্তার করেছে, তাদের তুলে নেওয়া হচ্ছে। মেয়েদেরকেও রেহাই দেওয়া হচ্ছে না।’ অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এসি      

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি