ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ৩:১০:৪৩

নিউইয়র্কে ‘হামলাকারী’ বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত!

নিউইয়র্কে ‘হামলাকারী’ বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত!

যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে, সোমবার সকালের ব্যস্ত সময়ে নিউইয়র্কের ম্যানহাটন বাস টার্মিনালের বিস্ফোরণ ঘটেছে। এ ঘটনায় যাকে আটক করা হয়েছে সে একজন বাংলাদেশি বলে ওই সব মিডিয়ায় বলা হয়েছে।   নিউইয়র্ক পুলিশকে উদ্ধৃত করে বিভিন্ন মার্কিন ও ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বিস্ফোরণের ঘটনায় চারজন আহত হয়েছে। তবে এদের কারও জীবনশঙ্কা নেই। শহর কর্তৃপক্ষ বলছে, বিস্ফোরণের ঘটনাটি সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। নিউইয়র্ক পুলিশ একটি টুইট বার্তায় জানায়, আহতদের মধ্য থেকেই একজনকে সন্দেহভাজন হিসেবে নিরাপত্তা হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। আটক সন্দেহভাজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় বেলিভিউ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আর কেউ আহত হয়নি জানিয়ে পুলিশ সবাইকে এলাকাটি এড়িয়ে চলতে বলেছে।
চীনে স্থাপিত হচ্ছে ৬০ কোটি সিসিটিভি ক্যামেরা!

আধুনিক বিশ্বে নিরাপত্তা কিংবা নজরদারির অন্যতম অনুষঙ্গ সিসিটিভি ক্যামেরা। তাই নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে চীন গড়ে তুলছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় `ক্যামেরা নজরদারি নেটওয়ার্ক`। ইতোমধ্যেই প্রায় সতের কোটি ক্যামেরা স্থাপন করেছে চীন। শুধু তা-ই নয় পুরো দেশকেই ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা নিয়েছে দেশটি। পুরো দেশে পরবর্তী তিন বছরে স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে আরও প্রায় ৪০ কোটি সিসিটিভি ক্যামেরা। এগুলো নিয়ন্ত্রণ করবে উচ্চ প্রযুক্তি সম্পন্ন পুলিশ কন্ট্রোল রুম। এখানে শহরের অধিবাসীদের প্রত্যেকের ছবিসহ তথ্য ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করা আছে। কিছু ক্যামেরা মনোভাব বুঝতে পারে অর্থাৎ ফেস রিডিং দক্ষতা আছে। আবার কিছু ক্যামেরা নৃতাত্ত্বিক বৈশিষ্ট্য, বয়স ও লিঙ্গ সম্পর্কে ধারণা করতে সক্ষম। সূত্র: বিবিসি একে//

জেরুজালেমে অবৈধ বসতি স্থাপন বন্ধ করুন : ম্যাক্রোঁ

জেরুজালেমে অবৈধ বসতি স্থাপন বন্ধ করতে ইসরায়েলকে আহ্বান জানিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। রোববার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠকের পরই প্যারিসে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ম্যাক্রোঁ এ কথা জানায়। একইসঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে ম্যাক্রোঁ জানান, ফ্রান্স বিশ্বাস করে, ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে শান্তি স্থাপন হতে পারে কেবল আন্তর্জাতিক আইন মেনে। আর এটা তখনই সম্ভব যখন দুই দেশ সমঝোতার মাধ্যমে জেরুজালেম সমস্যার সমাধানে একমত হবেন। এসময় তিনি বলেন, ইসরায়েরের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিনি নেতানিয়াহুকে আমন্ত্রণ জানিয়েছি বর্তমান অচলাবস্থা নিরসনে তাঁর পদক্ষেপ জানতে।   যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার চার দিন পরই নেতানিয়াহু প্যারিসে পা রাখলেন। ট্রাম্পের সিদ্ধান্তে ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে শুরু করে জাতিসংঘ সর্বত্র সমালোচনার মুখে পড়ে। তাঁর সিদ্ধান্তের পরই মুসলিম বিশ্বে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। এ বিষয়টি নেতানিয়াহুকে জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ম্যাক্রো। এর আগে ট্রাম্পের সিদ্ধান্তকে একগুয়ে দাবি করে ম্যাক্রোঁ বলেন, জেরুজালেম সংকটের সমাধান আন্তর্জাতিক আইন মেনেই করতে হবে। ফ্রান্স আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। এদিকে নেতানিয়াহুকে পশ্চিম তীরে অবৈধ বসতি স্থাপন শিথীল করতে বলেছেন ম্যাক্রোঁ।   তবে ম্যাক্রোঁ যাই বলুক না কেন, নেতানিয়াহু তাঁর সিদ্ধান্তে অনঢ়। নেতানিয়াহু দাবি করেন, ট্রাম্পের জেরুজালেম ঘোষণা ঐতিহাসিক বাস্তবতা। তিনি আরও বলেন, ফিলিস্তিনিদের অবশ্যই জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মেনে নিতে হবে। তিনি আরও বলেন, জেরুজালেম সব সময়ের জন্য ইসরায়েলের রাজধানী।      

কংগ্রেসের সভাপতি নির্বাচিত রাহুল

ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের নতুন সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন রাহুল গান্ধী। দীর্ঘ ১৯ বছর পর সোমবার সর্বসম্মতিভাবে কংগ্রেস সভাপতি পদে নির্বাচিত হলেন তিনি। এর মধ্যে দিয়ে ভারতের এ রাজনৈতিক দল পেল নতুন মুখ। এর আগে ১৯৯৮ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত সোনিয়া গান্ধীই ছিলেন কংগ্রেসের সভাপতি। এবার মায়ের আসনেই বসলেন ৪৭ বছর বয়সী এ রাজনৈতিক। দলের সভাপতি পদের জন্যে মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ছিল সোমবার বিকাল ৩টা পর্যন্ত। বিভিন্ন পদের জন্য মোট ৮৯টি মনোনয়নপত্র জমা পড়ে। কংগ্রেস সভাপতি পদে রাহুল ছাড়া অন্য কোনো প্রার্থী না থাকায়; সর্বসম্মতিভাবে তাকেই নির্বাচন করে হয়েছে। কংগ্রেসের মুখপাত্র মুল্লাপ্পালি রামচন্দ্রন বলেন, গত সোমবার কংগ্রেসের সভাপতি পদের জন্যে মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন রাহুল। আজ তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচিত হলেন। এর মধ্য দিয়ে দলের মধ্যে এক প্রজন্মের পরিবর্তন ঘটল। ১৯৯৮ সাল থেকে দলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন সোনিয়া গান্ধী। টানা ১৯ বছর ধরে সোনিয়া দলটির সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে কংগ্রেসের সহ-সভাপতি হওয়ার পর থেকেই দলটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা ছিলেন রাহুল। আগামী ১৬ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন রাহুল। সূত্র: আনন্দবাজার।     আর

জেরুসালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি দেবেনা ইইউ

জেরুসালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেবেনা ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)। আমেরিকার মতোই ইউরোপও জেরুসালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেবে এমন আশা করেছিল ইসরাইয়েল। কিন্তু ইইউ পররাষ্ট্র নীতিবিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মোগারিনি জানিয়েছেন, তাদের নীতিতে কোন পরিবর্তন হচ্ছে না। এতিকে ইসরাইয়েলের প্রধানমন্ত্রী বিনিয়ামিন নেতানিয়াহু এখন ব্রাসেলস সফরে এসে ইইউ নেতাদের সাথে বৈঠক করছেন। গত ২০ বছরের মধ্যে এই প্রথম কোন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী ব্রাসেলস সফর করছেন। বিনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেন, আমরা আশা করি যুক্তরাষ্ট্রকে অনুসরণ করে ইউরোপও জেরুসালেমকে তার দেশের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেবে। পাশাপাশি ইউরোপের দেশগুলো তাদের সব দূতাবাস জেরুসালেমে নিয়ে যাবে। রাজধানী হিসেবে জেরুসালেমকে স্বীকৃতি দেওয়ায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, জেরুসালেম দুই হাজার বছর ধরে ইহুদি জনগণের রাজধানী ছিল। নেতানিয়াহুর বক্তব্যের পর ইইউ পররাষ্ট্র নীতিবিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মোগারিনি বলেন, এ বিষয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অবস্থানের কোন পরিবর্তন হবে না। ইইউ এ ক্ষেত্রে `আন্তর্জাতিক ঐকমত্যকেই` অনুসরণ করবে। মোগারিনি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, ইসরায়েল-ফিলিস্তিনি সংঘাতের একমাত্র বাস্তবসম্মত সমাধান হচ্ছে দুই-রাষ্ট্র ভিত্তিক সমাধান, এবং দুই রাষ্ট্রেরই রাজধানী হবে জেরুসালেম। পাশাপাশি তিনি ইহুদিদের ওপর সব ধরণেরও আক্রমণেরও নিন্দা জানান। ইসরায়েল বরাবরই জেরুসালেমকে তাদের রাজধানী হিসেবে মনে করে। অন্যদিকে পূর্ব জেরুসালেমকে ফিলিস্তিনিরা তাদের ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রের রাজধানী বলে মনে করে। যেটি ১৯৬৭ সালে ইসরায়েল দখল করে নেয়। তবে জেরুসালেমের ওপর ইসরায়েলের দাবি কখনোই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়নি। ইসরায়েলে সব দূতাবাসগুলোই তেল আবিবে অবস্থিত। জেরুসালেম ‘ইহুদি, খ্রীষ্টান ও ইসলাম’ এই তিন ধর্মেরই পবিত্র স্থান আছে। ট্রাম্প জেরুসালেমকে ইসরায়েলি রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর ফিলিস্তিনিসহ বিভিন্ন দেশ ক্ষোভ ও নিন্দা জানায়। এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ ও সহিংসতায় এ পর্যন্ত চার জন নিহত হয়েছেন।   আর

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে যৌথভাবে কাজ করতে হবে

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে ১৯৫১ সালের রিফিউজি কনভেনশনে সমর্থন দিয়ে তাদের অধিকার নিশ্চিত করতে যৌথভাবে কাজ করতে হবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন বক্তারা। সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে রোহিঙ্গাদের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ফ্যাক্ট মিশন আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা একথা বলেন। সেমিনারে বক্তব্য দেন মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল, সাংবাদিক ভারত ভূষণ, আইনজীবী সারা হোসেন, মানবাধিকার কর্মী রাজেন্দ্র ঘিমিরি প্রমুখ। সুলতানা কামাল বলেন, অধিকাংশ রোহিঙ্গা তাদের ভূমিতে ফিরে যেতে চায়। কিন্তু ফেরার আগে তাদের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। রোহিঙ্গাদের স্বার্থ নিশ্চিত করতে দক্ষিণ এশিয়ায় সুশীল সমাজ ও তাদের সংগঠন, সরকারি-বেরসকারি সংস্থাসমূহকে আরও সোচ্চার হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের সরকার ও জনগণকে সহযোগিতার হাত আরও বাড়াতে হবে। / এআর /

গুজরাট নির্বাচনে পাকিস্তানের হস্তক্ষেপের অভিযোগ মোদির

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে ট্রাম্পের সহযোগির বিচার যখন চলছে, তখন গুজরাট নির্বাচন নিয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি দেশের বিরুদ্ধে বোমা ফাটালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গুজরাট সাধারণ নির্বাচনে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি পাকিস্তান হস্তক্ষেপ করতে চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী । তিনি বলেন, কংগ্রেসের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সাবেক এক ঊর্ধতনকর্তা বৈঠক করেছেন। নরেন্দ্র মোদি আরও বলেন, গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনে কংগ্রেসের জ্যৈষ্ঠ নেতা আহমেদ প্যাটেলকে জয়ী করতে পাক সেনাবাহিনীর সাবেক ওই কর্তা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।  এসময় মোদি আরও বলেন, কংগ্রেস থেকে বহিষ্কৃত নেতা মনি সঙ্কর আয়ার কংগ্রেসের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে ওই কর্মকর্তার সাক্ষাতের বিষয়টি নিশ্চিতে একটি ডিনার পার্টির আয়োজন করে। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ওই কর্মকর্তার নাম সর্দার আরশাদ রফিক। মোদি অভিযোগ করেন,  মনি সঙ্কর আয়ারের বাড়িতে কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে তার কি কথা হয়েছে তা গুজরাটের মানুষ জানতে চায়। এ বৈঠক আমার, গুজরাটের দরিদ্র মানুষ আর সবশ্রেণীর ভারতীয়দের জন্য লজ্জাজনক। তিনি আরও বলেন, এই বৈঠক নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। এসময় তিনি বলেন, কনগ্রেসকে অবশ্যই ওই ঘটনার ব্যাখ্যা করতে হবে। তিনি আরও বলেন, পাক সেনাবাহিনীর ওই কর্তার আহমেদ প্যাটেলকে বিজয়ী করার ঘোষণার বিষয়টি কংগ্রেসকে অবশ্যই স্পষ্ট করতে হবে। উল্লেখ্য, আহমেদ প্যাটেল কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর রাজনীতি বিষয়ক সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করছেন । মোদির এই বক্তব্যের পরই কংগ্রেসে অস্বস্তি শুরু হয়েছে। তবে মোদির বক্তব্যকে দায়িত্ব-কান্ডজ্ঞানহীন বলে আখ্যা দিয়েছে কংগ্রেস। কংগ্রেস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মোদির এই বক্তব্য উস্কানিমূলক। এদিকে কনগ্রেস নেতা আনন্দ শার্মা বলেন, মোদিকে ভুলে গেলে চলবে না, তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী। তাঁর ওই বক্তব্য দায়িত্ব-কাণ্ডজ্ঞানহীন ও উস্কানিমূলক। বিজেপির কাছ থেকে আমাদের দেশপ্রেমের সনদ নিতে হবে না, যোগ করেন তিনি। কংগ্রেস থেকে জানানো হয়েছে, আগামী ১৫ ডিসেম্বর সংসদে প্রকাশ্যে নরেন্দ্র মোদিকে এই বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে হবে। এদিকে পাকিস্তানের পক্ষ থেকেও এক বিৃবতিতে জানানো হয়েছে, গুজরাট নির্বাচন নিয়ে মোদির বক্তব্য পুরোপুরি মিথ্যে ও বানোয়াট। গুজরাট নির্বাচনে পাকিস্তানকে না জড়াতে হুশিয়ারি দিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আজ সোমবার পাকিস্তান  বিবৃতিতে জানায়, ভারতের নির্বাচন বিতর্কে পাকিস্তানকে জড়ানো ঠিক হবে না। যার যার যোগ্যতা দিয়ে গুজরাট নির্বাচন জেতার পরামর্শ দিয়ে পাকিস্তান বলেছে, ষড়যন্ত্র করে নয় বরং নিজেদের যোগ্যতা দিয়ে নির্বাচন জিতে আসুন।   সূত্র: এনডিটিভি   এমজে / এআর    

প্রতিবাদের ঢেউ মধ্যপ্রাচ্য-আফ্রিকা হয়ে এশিয়ায়

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বীকৃতির প্রতিবাদের ঢেউ মধ্যপ্রাচ্য ছাড়িয়ে এশিয়া ও আফ্রিকায় আঁছড়ে পড়েছে। হাজার হাজার প্রতিবাদী জনতা ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রাজপথে জড়ো হচ্ছেন। কোন কোন দেশে আমেরিকার দূতাবাস ঘেরাও করার চেষ্টা করেছেন বিক্ষুব্ধরা। বিক্ষোভকারীরা ওইসব দেশের মূল রাজপথ ও কেন্দ্রীয় মাঠগুলো দখলে নিয়ে ফিলিস্তিনিদের পক্ষে স্লোগান দিতে দেখা গেছে। ওই সময় তাদেরকে ফিলিস্তিনের পতাকা  উত্তোলন করতে দেখা যায়। একইসঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও  ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর কুশপুত্তলিকা পোড়াতে দেখা গেছে তাদের। ফিলিস্তিনের দাবির সঙ্গে একমত জানিয়ে বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দেন। পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা করার পক্ষে তারা মাঠে নেমে আসেন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের গত বুধবারের ঘোষণা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে। বিশেষ করে মুসলিম বিশ্বের দেশগুলো এ ঘোষণার পর থেকেই ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে। এ ঘোষণার পর থেকে ইতোমধ্যে ফিলিস্তিনে ৪ জন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন শতাধিকেরও বেশি। গত রোববার লেবাননের রাজধানী বৈরুতে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পরে। যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ঘেরাও করতে গেলে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বেঁধে যায়। তাঁরা রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে । ওই সময় মার্কিন দূতাবাসে হামলা চালানোর চেষ্টা করে বিক্ষোভকারীরা।  বৈরুতের এক বিক্ষোভকারী, আদনান আবদুল্লাহ বলেন, ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত ততদিন পর্যন্ত বাস্তবায়ন হবে না, যতদিন পর্যন্ত আমাদের মত মানুষ বেঁচে থাকবে। এদিকে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় কয়েক হাজার মানুষ ফিলিস্তিনিদের পক্ষে রাজপথে  নেমে আসেন। দ্বিতীয় দিনের মত গতকাল রোববার ৫ হাজার বিক্ষোভকারী মার্কিন দূতাবাসের সামনে জড়ো হয়। এসময় তাঁদের ফিলিস্তিনের পতাকা উড়াতে দেখা গেছে। শতশত  ব্যানারে লেখা ছিল, ‘প্রে ফর প্যালেস্টাইন’ ( ফিলিস্তিনিদের জন্য দোয়া)। বিক্ষোভকারীদের এক মহিলা ট্রাম্পকে লক্ষ্য করে বলেন, ট্রাম্প আপনার মস্তিস্ক ও বিবেক ব্যবহার করুন, জেরুজালেম সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করুন। এদিকে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইডুডু ট্রাম্পের ঘোষণার কড়া নিন্দা জানিয়েছেন। ইন্দোনেশিয়ার মার্কিন দূতাবাসকে ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত স্থগিত রাখার পরামর্শ দেন তিনি। এদিকে মালয়েশিয়া, বাংলাদেশ, ভারত,  পাকিস্তান, আফগানিস্তান, ইরান, ইরাক, লিবিয়া, লেবানন, তুরস্ক মিশরসহ বেশ কয়েকটি দেশে বিক্ষোভ ‍করেছে মুসলমানরা। কয়েকদিনের মধ্যে ট্রাম্পের ঘোষণা প্রত্যাহার করা না হলে, প্রতিটি দেশেই মার্কিন দূতাবাস ঘেরাওয়ের হুমকে দিয়েছে তারা। সূত্র: আল-জাজিরা এমজে/ এআর                      

ড্রোন বাহিনী বানাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া

উত্তর কোরিয়াকে মোকাবেলার লক্ষে শক্তিশালী ড্রোন বাহিনী গড়ে তোলছে দক্ষিণ কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা ইওনহ্যাপ সূত্রে জানা গেছে, আগামী বছর এই ড্রোন কমব্যাট ইউনিট চালু করা হবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এই সেনা ইউনিট গঠন করা হবে ‘ড্রোনবট’ দিয়ে। এর মানে হচ্ছে এতে ড্রোন থাকবে, সেই সঙ্গে থাকবে রোবট। ফলে যুদ্ধের রীতিনীতি সম্পূর্ণ বদলে যাবে বলেও মনে করেন তিনি। উত্তর কোরিয়ার ক্রমাগত পরমাণু বোমা এবং আন্ত:মহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার মুখে দক্ষিণ কোরিয়া তার গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করতে এবং প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করতে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করতে যাচ্ছে। কিম জং-আনের নেতৃত্বাধীন পিয়ংইয়াং সরকার সর্বশেষ ২৯ নভেম্বর যে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায় তার পাল্লা যুক্তরাষ্ট্রের ভূখণ্ড পর্যন্ত বিস্তৃত বলে দাবি করা হচ্ছে। দক্ষিণ কোরিয়ার ড্রোন বাহিনীর মূল কাজ হবে দুটি। প্রথমত, ড্রোনগুলো দিয়ে শত্রুপক্ষের ওপর নজরদারি চালানে হবে। দ্বিতীয়ত, ঝাঁক বেধে শক্রর ওপর হামলা চালাতে পারবে এই ড্রোন। গত বুধবার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাজেটে ৭% বরাদ্দ বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছেন। নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে `রূঢ় বাস্তবতার` মুখেই বাজেটে ৪০০০ কোটি ডলার বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় প্রতিরক্ষা বিষয়ক মন্ত্রী সং ইয়ং মু। সূত্র: বিবিসি একে// এআর

সিরিয়া সীমান্ত থেকে ১৩৭ শিশুকে সরিয়ে নেওয়ার আহ্বান ইউনিসেফের

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া সীমান্ত এলাকা থেকে শতাধিক শিশুকে নিরাপদ এলাকায় সরিয়ে নিতে আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ। ওই এলাকায় ১৩৭ শিশু মৃত্যুর প্রহর গুনছে জানিয়ে ইউনিসেফ বলছে, দ্রুত ওই শিশুগুলোকে সরিয়ে নেওয়া না হলে তারা সবাই খুব দ্রুত মারা যেতে পারে। জানা গেছে, দামেস্কর ওই এলকায় ইতোমধ্যে ৫ শিশু ডায়রিয়া, অপুষ্ঠি ও কিডনিজনিত জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। গত রোববার এক বিবৃতিতে ইউনিসেফ জানিয়েছে, ওই এলাকায় আরও ১৩৭ শিশু অপুষ্টি ও কিডনিজনিত জটিলতায় ভোগছে। জরুরি মেডিকেল সেবা দেওয়া না হলে, শিশুগুলো বড় ধরণের দুর্ঘটনায় পড়তে পারে। ৭ মাস থেকে ১৭ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুরা ওই ঝুঁকিতে রয়েছে বলে জানিয়েছে ইউনিসেফ। যুদ্ধবিধ্বস্ত ওই এলাকায় তারা কোনো মেডিকেল সেবা নিতে পারছে না। এছাড়া ওই এলকায় উন্নত কোনো চিকিৎসা নেই বলে জানিয়েছে ইউনিসেফ। এতে তাদের অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইউনিসেফের সিরিয়া বিষয়ক প্রতিনিধি ফ্রান ইকোয়জা। সূত্র: আল-জাজিরা এমজে/ এআর            

ভেনেজুয়েলায় বিরোধী দলকে নির্বাচনের অযোগ্য ঘোষণা

আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভেনেজুয়েলার প্রধান বিরোধী দলকে নির্বাচনের অযোগ্য ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। তিনি বলেন, গত মেয়র নির্বাচনে যে দলগুলো অংশগ্রহণ করেছে, কেবল সে দলগুলোই প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে। এর আগে মেয়র নির্বাচনে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এনে দেশটির প্রধান বিরোধী দল জাস্টিস ফার্স্টসহ পপুলার উইল ও ডেমোক্র্যাটিক অ্যাকশন পার্টি নির্বাচন বয়কট করে। তবে মাদুরো বলেন, ভেনেজুয়েলার সব পদ্ধতি বিশ্বাসযোগ্য। গত রোববার এক বক্তব্যে মাদুরো বলেন, ভেনেজুয়েলার রাজনৈতিক মানচিত্র থেকে বিরোধীদলগুলো মুছে গেছে। যে দল আজ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলো না, নির্বাচন বয়কট করল, তারা আর কোনো ধরণের  নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবে না। গত অক্টোবরে প্রধান তিন বিরোধী দল ৩০০ নগরেরও বেশি শহরে মেয়র নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার ঘোষণা দেন। রোববার মেয়র নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। প্রেসিডেন্ট মাদুরোর দল সোস্যালিস্ট পার্টি নির্বাচনে বড় জয় পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। তবে বিরোধীদলগুলো এ নির্বাচনকে প্রেসিডেন্ট মাদুরোর স্বৈরতন্ত্রের নিদর্শন হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। সূত্র: বিবিসি এমজে/এআর

পেইন্সকে সাক্ষাৎ দেবেন না মাহমুদ আব্বাস

যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেইন্সের সঙ্গে ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস কোন সাক্ষাৎ করবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এর আগে পূর্বনির্ধারিত সাক্ষাতের বিষয়টি ফিলিস্তিন বাতিল করতে পারে, এমন আশঙ্কা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বৈঠক স্থগিত না করতে ফিলিস্তিনিকে হুশিয়ারি দিয়েছিলেন। ট্রাম্পের হুশিয়ারির এক দিনের মাথায় রোববার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, চলতি মাসে মাইক পেইন্সের সঙ্গে মাহমুদ আব্বাস কোন সাক্ষাৎ করবেন না। এমনকি পেইন্সকে দেশটিতে স্বাগত জানানো হবে না বলেও হুশিয়ারি দেয় তারা। ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ মালিকি এক বিবৃতিতে বলেন, পেইন্সের সঙ্গে মাহমুদ আব্বাসের বৈঠকটি বাতিল করা হয়েছে। এদিকে মিশরের কপটিক চার্চের প্রধান পুরোহিতও মাইক পেইন্সের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করেছে বলে জানা গেছে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কর্তৃক পবিত্রভূমি জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা করার প্রতিবাদে বৈঠক বাতিল করেছেন তাঁরা। সম্প্রতি মার্কিন দূতাবাস তেল-আবিব থেকে ইসরায়েলের রাজধানী জেরুজালেমে স্থানান্তরের ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এতে ফিলিস্তিনিরা ব্যাপক প্রতিবাদ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছে। সূত্র: আল-জাজিরা এমজে/এএ

লেবাননে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ঘেরাও, ব্যাপক সংঘর্ষ

লেবাননে ওয়াশিংটনের দূতাবাসের সামনে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে বিক্ষোভকারীরা। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা মার্কিন দূতাবাস লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়েছে। জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী স্বীকৃতি দেওয়ার প্রতিবাদে আজ সোমবার বৈরুতে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ঘেরাওয়ে যায় বিক্ষোভকারীরা। তাঁদের আটকাতে লেবাননের নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মীরা টিয়ার শেল ও গরম পানি ছোঁড়ে। বিক্ষোভকারীদের আটকাতে রাস্তায় বেরিকেড দেয় নিরাপত্তা বাহিনী।  এসময় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা কর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে বেশ কয়েকজনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল-জাজিরা জানায়, বিক্ষোভকারীরা টায়ারে আগুন ধরিয়ে রাস্তায় বেরিকেড দেওয়ার চেষ্টা করলে সেখানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় পুলিশ এদেরকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে সংঘর্ষে জড়ায় দুই পক্ষ। এসময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোঁড়ে বিক্ষোভকারীরা। সূত্র: আল-জাজিরা এমজে/ এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি