ঢাকা, সোমবার, ১৮ জুন, ২০১৮ ১০:১২:৪৪

অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ  

অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ  

সন্ত্রাসী হামলার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে এক বাংলাদেশি-বংশোদ্ভূত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দায়ের করেছে অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ।   নওরোজ আমিন নামে ২৬ বছরের এই বাংলাদেশি ২০১৬ সালে বাংলাদেশে যাওয়ার চেষ্টার সময় অস্ট্রেলিয়ার কর্তৃপক্ষ তাকে আটকে দেয়। তার লাগেজে তল্লাশি চালিয়ে সন্দেহজনক জিনিসপত্র পাওয়া যায় বলে তখন পুলিশ অভিযোগ করেছিল। বার্তা সংস্থা এএফপি অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল পুলিশকে উদ্ধৃত করে বলছে, যেসব জিনিসপত্র তার লাগেজে পাওয়া গিয়েছিল তাতে ইঙ্গিত পাওয়া যায় যে সন্ত্রাসবাদের প্রতি তার সমর্থন ছিল। পুলিশ অভিযোগ করছে, "নওরোজ আমিন বাংলাদেশে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন এমন সব লোকজনের সঙ্গে দেখা করতে, যারা তার মত একই ধরণের আদর্শে বিশ্বাসী। এরপর তারা অস্ট্রেলিয়ার বাইরে সম্ভবত একটি সন্ত্রাসী হামলা চালানোর কথা ভাবছিলেন।" অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ তার বিরুদ্ধে তিনটি অভিযোগ এনেছে। এর মধ্যে একটি বিদেশি রাষ্ট্রের সীমানায় গিয়ে বৈরি কাজে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগও আছে। এসব অভিযোগে তার যাবজ্জীবন সাজা পর্যন্ত হতে পারে। নওরোজ আমিন ঠিক কোন দেশে এই সন্ত্রাসী হামলার ষড়যন্ত্র করছিলেন, তা জানা যায়নি। অস্ট্রেলিয়ায় বেড়ে ওঠা লোকজনের মধ্যে সন্ত্রাসবাদী আদর্শের বিস্তার নিয়ে সম্প্রতি বেশি উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। এরকম অনেকে ইসলামিক স্টেটে যোগ দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে গিয়ে তাদের পক্ষে লড়াইও করেছে। ২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়ায় সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী আইনে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয় যাতে করে সন্দেহভাজন জিহাদির বিদেশ ভ্রমণ আটকে দেয়া যায়। কে এই নওরোজ আমিননওরোজ আমিন সম্পর্কে খুব বেশি তথ্য এখনো জানা যায় নি। অস্ট্রেলিয়ার সিডনি মর্নিং হেরাল্ড পত্রিকা জানাচ্ছে, তিনি অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক। সেখানকার ইঙ্গেলবার্নে তিনি বসবাস করেন। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারীতে তিনি বাংলাদেশে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। ২০১৭ সালের অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে বাংলাদেশের র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) সাদিয়া আমিন নামে তিরিশ বছরের এক তরুণীকে গ্রেফতার করে। র‍্যাবের ভাষ্য অনুযায়ী, এই সাদিয়া আমিন একটি নিষিদ্ধ জঙ্গী গোষ্ঠী জামাতুল মুজাহেদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য এবং অস্ট্রেলিয়া নিবাসী নওরোজ আমিনের স্ত্রী। র‍্যাব আরও মনে করে, নওরোজ আমিনই আসলে সাদিয়াকে জঙ্গীবাদে দীক্ষা দেন। সূত্র: বিবিসি বাংলা এসি    
রেহাম খানকে ব্যবহার করছেন নওয়াজ : মোশাররফ

পাকিস্তানের সাবেক তারকা ক্রিকেটার ও পিটিআই প্রধান ইমরান খানের সঙ্গে রেহাম খানের বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। রেহাম খান আত্মজীবনী লিখেছেন। তার পাণ্ডুলিপির একাংশ ফাঁস হয়ে গেছে অনলাইনে। তাতেই সাড়া ফেলে দিয়েছে পাকিস্তানে। সেই আত্মজীবনী নিয়ে এবার রেহাম খানের সঙ্গে বাগযুদ্ধে জড়িয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট ও সেনাপ্রধান পারভেজ মোশাররফ। রেহাম খানের বিরুদ্ধে ট্যুইট করে সাবেক এ সেনাপ্রধান বলেছেন, `নারীদের এত কথা বলা উচিত নয়।` এতে ব্যাপক ক্ষিপ্ত হয়েছেন রেহাম খান। তিনি পাল্টা জবাবে জানান, নারীদের কি করা উচিত তা কি উনি (পারভেজ মোশাররফ) বলবেন?নিজের লেখা আত্মজীবনীতে রেহাম খান বেশ কিছু বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ করেছেন বলে জানা গেছে। যা বুঝতে পেরেই পারভেজ মোশাররফ না কি রেহাম খানকে টার্গেট করেন। কী সেই বিস্ফোরক তথ্য তা এখনও না জানা গেলেও বইটি প্রকাশের আগেই বিতর্কের ঝড় উঠেছে পাকিস্তানে। ফলে কয়েকবার খুনের হুমকিও পাচ্ছেন ইমরান খানের প্রাক্তন স্ত্রী রেহাম খান। পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফ অভিযোগ করে বলেন, দুর্নীতির দায়ে পদচ্যুত পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পাকিস্তান মুসলিম লীগের সমর্থক রেহাম। তাই নওয়াজের অ্যাজেন্ডাকে সামনে রেখে আত্মজীবনী লিখেছেন তিনি। সাবেক স্বামী ইমরান খানকে অপমান করতেই রেহামের এই পদক্ষেপ। ট্যুইটে মোশাররফ স্পষ্ট জানান, নওয়াজ শরিফ রেহাম খানকে ব্যবহার করছেন। আর নওয়াজের কথা মতই নিজের আত্মজীবনীতে ভুল তথ্য দিচ্ছেন রেহাম। যা নারীদের মানায় না।এই অভিযোগগুলো অস্বীকার করেই রেহাম খান জানান, কীভাবে পারভেজ মোশাররফ নারীদের নিয়ে এই কথা বলতে পারেন? নারীরা কেন স্পষ্ট কথা বলতে পারবে না? নারীদের উপরই কেন রক্ষণশীলতা? সূত্র : ডন।/ এআর /

বৃদ্ধাকে আস্ত গিলে খেয়েছে অজগর!

বিরল ঘটনা! ৫৪ বছর বয়সী এক বৃদ্ধাকে আস্ত গিলে ফেলল অজগর। এমনই খবর মিলল ইন্দোনেশিয়ার মুনাদ্বীপে। গত বৃহস্পতিবারের ঘটনা এটি। নিহতের পরিজনেরা জানাচ্ছেন, বাগানে কাজ করতে গিয়েছিলেন ওয়া। তারপর থেকেই কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি তার। হামকা নামে এক পুলিশ অফিসার জানাচ্ছেন, বাগানের মধ্যে ২৩ ফুট লম্বা এক অজগরকে দেখতে পান স্থানীয়রা। মরার মতো সাপটি শুয়ে থাকায় সন্দেহ হয় তাদের। অনুমানের বশেই সাপটির পেট কাটার সিদ্ধান্ত নেয় ওই মহিলার পরিজনেরা। তাদের অনুমান যে অহেতু নয়, পেট কাটার পরই বোঝা যায়। একেবারে অবিকৃত অবস্থায় ওই বৃদ্ধার দেহ উদ্ধার হয় বলে দাবি পুলিশের। স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার বৃদ্ধার খোঁজে চিরুনি তল্লাসি চালায় কমপক্ষে একশো গ্রামবাসী। মহিলার চপ্পল উদ্ধার হওয়ার ৩০ফুটের মধ্যে ওই সাপটিকে দেখা যায়। ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপিন্সে প্রায়শই  গবাদি পশু খেতে দেখা যায় অজগরকে। কিন্তু কোনও মানুষকে এভাবে আস্ত গিলে ফেলার ঘটনা বিরল বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। গত বছর মার্চে সুলাওয়েসি দ্বীপে এমন এক অজগরের খপ্পরে পড়ে প্রাণ হারান একজন। সূত্র: জিনিউজ একে//

বাণিজ্য যুদ্ধে পাল্টা হানা বেইজিংয়ের

যুক্তরাষ্ট্র শুল্ক বসানোর কথা ঘোষণা করার সঙ্গে সঙ্গেই শুক্রবার প্রত্যাঘাতের হুমকি দিয়েছিল বেইজিং। চব্বিশ ঘণ্টাও পার হল না। করের পাল্টা ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার জন্য মার্কিন পণ্যের নিশানা ঠিক করে ফেলল তারা। জানিয়ে দিল, ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশ শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্তে অটল থাকলে, ৬৫০টিরও বেশি মার্কিন পণ্যে ২৫% হারে শুল্ক চাপাবে তারা। চিনা পণ্যের উপর চড়া আমদানি শুল্ক চাপানোর জন্য ট্রাম্প প্রশাসনকে কটাক্ষে ভরিয়ে দিতে ছাড়েনি চিনের সরকার নিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম। তাদের বক্তব্য, বুদ্ধিমানরা সেতু তৈরি করেন। আর দেওয়াল তোলেন বোকারা। ইঙ্গিত কার দিকে, তা দিনের আলোর মতো স্পষ্ট। ট্রাম্প প্রশাসন অবশ্য বক্তব্যে অনড়। তাদের দাবি, অবাধ বাণিজ্যের নিয়মকানুনের তোয়াক্কা করে না চীন। চাপ খাটিয়ে ও নিয়ম ভেঙে হাতিয়ে নেয় সে দেশে ব্যবসা করা মার্কিন সংস্থার মেধাস্বত্ব (পেটেন্ট)। স্থানীয় সংস্থাকে বাধা দেয় না মেধাস্বত্ব ভেঙে পণ্য তৈরিতে।  সঙ্গে রয়েছে উঁচু শুল্ক-প্রাচীরও। এই সমস্ত কারণেই চিনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য ঘাটতি অন্তত ৩৭ হাজার কোটি ডলার। যার মাসুল গুনে ফি বছর ২০ লক্ষ কাজের সুযোগ তৈরিই হয় না মার্কিন মুলুকে। উল্টো দিকে বেইজিংয়ের দাবি, যুক্তরাষ্ট্র এই সিদ্ধান্তের জবাব দিতে তৈরি তারা। অবাধ বাণিজ্যে দেওয়াল তুলছে আসলে ট্রাম্পের যুক্তরাষ্ট্রই। তাই নিজেদের স্বার্থ ক্ষুণ্ণ হলে, চুপ করে বসে থাকবে না তারা।  ২০২৫ সালের মধ্যে সমস্ত রকম বৈদ্যুতিন পণ্য তৈরিতেও আরও বড় শক্তি হয়ে ওঠার পরিকল্পনা রয়েছে চীনের। যার মধ্যে রয়েছে সেমিকন্ডাক্টরও। ট্রাম্প প্রশাসনের তালিকা থেকে স্পষ্ট, আগে ওই সমস্ত পণ্যকে শুল্ক বসানোর জন্য নিশানা করেছে তারা। যা নিয়ে বেজায় ক্ষুব্ধ বেইজিং। তারা মনে করে, ওই শিল্পে তাদের অগ্রগতি ঠেকাতেই ট্রাম্পের ওই কারসাজি। উল্টো দিকে, চীন যে ৬৫০টি মার্কিন পণ্যে শুল্ক বসানোর হুমকি দিয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে সয়াবিন থেকে শুরু করে গাড়ি— প্রায় সমস্ত কিছুই। এমনকি তার মধ্যে রয়েছে গলদা চিংড়ি সমেত বিভিন্ন সামুদ্রিক খাবারও। যে কারণে অনেকে রসিকতা করে বলছেন, আমেরিকা-চিনের বাণিজ্য যুদ্ধে কপাল পুড়বে চিনা খাদ্য রসিকদেরও। তবে এর মধ্যে সামান্য হলেও আশার দরজা খুলে রেখেছে দুই দেশ। যেমন, গোড়ায় ৫ হাজার কোটি ডলারের চীনা পণ্যে ট্রাম্প শুল্ক বসানোর কথা বললেও, আদপে সেই অঙ্ক কমে দাঁড়াচ্ছে ৩ হাজার ৪০০ কোটি ডলার। তালিকা থেকে বাদ পড়েছে ফ্ল্যাট স্ক্রিন টিভির মতো কিছু পণ্য। তেমনই ওয়াশিংটন কিছুটা নরম হলে, ফের আলোচনার টেবিলে বসার আলগা ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছে বেইজিংও। বাণিজ্য যুদ্ধের এই দামামার মধ্যে শেয়ার বাজার ও সারা বিশ্বের কাছে আশার খবর সেটুকুই। সূত্র: আনন্দবাজার একে//

ভেনিজুয়েলায় নাইটক্লাবে পদপিষ্ট হয়ে নিহত ১৭

ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারকাসে একটি নাইটক্লাবে পদপিষ্ট হয়ে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ মৃতদের মধ্যে আটজন নাবালক৷ জানা গেছে, নাইটক্লাবে পার্টি চলাকালীন আগুন লেগে যায়৷ হুড়োহুড়ি করে বের হতে  গিয়ে পদপিষ্ট হয়ে মারা যান তারা৷ মৃতদের সবার বয়স ২৩ বছরের নিচে৷ শনিবার ঘটে ঘটনাটি৷ ভেনিজুয়েলার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নেস্টর রেভেরল সাংবাদিকদের জানান, কারাকাসের একটি নাইট ক্লাবে গ্র্যাজুয়েশন পার্টি চলছিল৷ তখনই আগুন ধরে যায়৷ প্রাণভয়ে বাঁচতে গিয়ে পদপিষ্ট হয়ে অনেকের মৃত্যু হয়েছে৷ আহত শতাধিক৷ তাদের বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ নাইটক্লাবে সেই সময় ৫০০ জন পার্টি করছিলেন৷ মৃতদের মধ্যে আটজন নাবালক৷ এই ঘটনায় সাত জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ নাইটক্লাবটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ ক্লাব মালিককে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ মর্মান্তিক ঘটনার পর একাধিক গাফিলতি সামনে এসেছে৷ প্রাথমিক তদন্তের পর জানা গেছে, ওই ক্লাবে কোনও আপদকালীন বের হওয়ার পথ নেই৷ তবে লাতিন আমেরিকার এই দেশটিতে কোনও কর্মাশিয়াল বাড়িতে সাধারণত আপদকালীন দরজা দেখা যায় না৷ কারণ অনেক ক্রেতাই বিল না মিটিয়ে আপদকালীন দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়৷ সেটা বন্ধ করতে কেউ এমার্জেন্সি দরজা ব্যবহার করে না৷ উল্লেখ্য, কারাকাসে আগেও নাইটক্লাবে পার্টি করতে এসে পদপিষ্ট হয়ে মারা যাওয়ার নজির রয়েছে৷ ২০০২ সালে লা গুয়াজিরা নামে একটি ক্লাবে আগুনের জেরেই পদপিষ্ট হয়ে ৫০ জনের মৃত্যু হয়৷ সূত্র: কলকাতা ২৪x৭ একে//  

আফগানিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ২৫

আফগানিস্তানে এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ২৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে ৫০ জন। হতাহতদের মধ্যে বেসামরিক লোক, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও তালেবানদের সদস্যরা রয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রাদেশিক সরকারের মুখপাত্র আত্তাউল্লাহ খোগিয়ানি।   শনিবার দেশটির পূর্বাঞ্চলের নানগারহার প্রদেশে বোমা হামলার এ ঘটনা ঘটে। এদিন নানগারহারে জড়ো হওয়া সৈন্যদের লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়। ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড দ্যা লেভেন্ট (আইএসআইএল, যা আইএসআইএস নামেও পরিচিত) এই হামলার দায় শিকার করেছে। আত্তাউল্লাহ খোগিয়ানি বলেন, জালালাবাদ থেকে ২৫ মিলোমিটার দূরে রোদাত জেলায় এই হামলা চালানো হয়। রমজাস মাস শেষে দেশটিতে পবিত্র ঈদুল ফিতরের দ্বিতীয় দিনে এক অনুষ্ঠান উদযাপনে তারা সেখানে জড়ো হয়েছিলেন। প্রসঙ্গত, আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির ঘোষণা অনুযায়ী দেশটিতে তালেবানের সঙ্গে সাময়িক অস্ত্রবিরতি চলছে। ঈদ উপলক্ষে তিনি গত বৃহস্পতিবার এই ঘোষণা দিয়েছিলেন। সেদিন আশরাফ ঘানি জানান, ২৭ রমজান (১৩ জুন) থেকে ঈদের পঞ্চম দিন (২০ জুন) পর্যন্ত এ অস্ত্রবিরতি কার্যকর থাকবে। সূত্র: আল জাজিরা একে//

সৌদি নারীরা এখনো যে ৫ টি কাজ করতে পারে না  

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সংস্কারের আওতায় সৌদি আরবের নারীরা বর্তমানে হলে গিয়ে সিনেমা দেখা, স্টেডিয়ামে গিয়ে খেলা দেখা এবং গাড়ি চালাতে পারেন। কিন্তু এখনো তারা ৫ টি কাজ করতে পারেন না। নিম্নে আলোচনা করা হলো। ১) ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলতে না পারা    একজন নারী হয়তো গাড়ি চালাতে পারবেন কিন্তু সেটি কিনতে পারবেন না। পরিবারের পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া একজন নারী এখনো তার নিজের কোনো ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন না। সৌদি আরবে অভিভাবকত্ব সংক্রান্ত যে ব্যবস্থা আছে তার কারণেই সেটা করা সম্ভব নয়। এর অর্থ হলো প্রত্যেক নারীর একজন করে পুরুষ অভিভাবক আছেন যিনি তার পক্ষ হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকেন।  ২) পাসপোর্ট নিতে পারেন না/বিদেশে যেতে পারেন না গাড়ি চালিয়ে হয়তো বিমান বন্দর পর্যন্ত যেতে পারবেন কিন্তু কোনো পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া ওই নারী বিমানে উঠতে পারবেন না। ৩) বিয়ে করতে কিংবা তালাক দিতে পারেন না  কাউকে বিয়ে করতে চাইলে পুরুষ অভিভাবকের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। ওই নারীর পাঁচ বছর বয়সী একজন ছোট ভাইও কিন্তু তার অভিভাবক হতে পারেন। ওই বিয়ে যদি ঠিকমতো চলতে না থাকে তখন কি হবে? বিবাহবিচ্ছেদ বা তালাকের জন্যেও ওই নারীকে তার স্বামীর অনুমতি নিতে হবে। ৪) কোনো পুরুষ বন্ধুর সাথে বসে কফি খেতে পারেন না ম্যাকডোনাল্ডস বা স্টারবাক্স যেকোনো রেস্টুরেন্টেই পরিবার এবং পুরুষদেরকে আলাদা আলাদা জায়গায় বসতে হবে। এ জন্য সকল নারীকে বসতে হবে পরিবারের জন্যে নির্ধারিত এলাকায়। যদি সেরকম না হয় তাহলে ওই নারীকে গ্রেফতারও করা হতে পারে। ৫) যা চাইবেন সেটাই পরতে পারেন না কোন নারী যখন জনসমক্ষে আসবেন তখন তার মুখ ঢাকতে হবে না। কিন্তু তার শরীর আপাদমস্তক ঢেকে রাখতে হবে। কোনো নারী যদি সমুদ্রে সৈকতে বেড়াতে যান সেখানে বিকিনি পরার কোন সুযোগ নেই। তবে একটা জিনিস বলে রাখা ভালো, সৌদি আরবে কোনো কোনো নারী হয়তো এখনো এ কাজগুলো করছেন। আর কোনো নারী যদি বিদেশি হন কিংবা খুব বেশি ধনী হন তাহলে তার পক্ষে এসব আইন ভঙ্গ করা সহজ। সূত্র: বিবিসি বাংলা  এমএইচ/এসি    

সেনাদের যুদ্ধে নামিয়ে খেলা দেখতে গেলেন সালমান  

শুরু হয়েছে বিশ্বকাপের ধামাকা। প্রথম দিনই মুখোমুখি হয় সৌদি আরব-রাশিয়া। এদিকে খেলা দেখার জন্য রাশিয়া গেলেন সৌদি প্রিন্স সালমান। ইয়েমেনের বন্দর শহর হোদেইদার দখল নিতে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের সৈন্যদের সর্বাত্মক অভিযানের মধ্যেই রাশিয়ায় গিয়ে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী খেলা দেখলেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।   বৃহস্পতিবার তিনি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে একই সারিতে বসে খেলা দেখেন বলে জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। খেলায় তার দলের ভরাডুবি হয়েছে, বিধ্বস্ত হয়েছে ৫-০ গোলে। হুতি বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা হোদেইদার দখল নিতে বুধবার থেকে তীব্র হামলা শুরু করে সৌদি নেতৃত্বাধীন ‘সুন্নি নেটো’। সামরিক এ জোটে এশিয়া ও আফ্রিকার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ অনেক দেশের সমর্থন থাকলেও ইয়েমেনের যুদ্ধে কেবল সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাহিনীই লড়ছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম। হোদেইদার বিমান ও সমুদ্র বন্দরের পাশাপাশি রাজধানী সানার সঙ্গে সংযোগ সড়কগুলোর নিয়ন্ত্রণ নেওয়াই এবারের হামলার মূল লক্ষ্য, জানিয়েছেন সামরিক জোটটির শীর্ষ কর্মকর্তারা। সংযুক্ত আরব আমিরাতের কর্মকর্তারা বলছেন, হোদেইদার বন্দরগুলো দিয়েই হুতিরা প্রতিমাসে ৩০ থেকে ৪০ মিলিয়ন ডলার আয় করে। শহরটি থেকে ইরান সমর্থিত বিদ্রোহী গোষ্ঠীটিকে হটিয়ে দিয়ে রাজনৈতিক সমাধানে বসতে বাধ্য করাই এ অভিযানের লক্ষ্য। এ দফার যুদ্ধে গোয়েন্দা তথ্য, বিমান ও মাইন পরিষ্কারে মার্কিন নৌ বাহিনীর সহযোগিতা চেয়েছিল আরব আমিরাত। মার্কিন কংগ্রেসের ভেতর বাড়তে থাকা বিরোধিতায় ইচ্ছা থাকলেও ট্রাম্প প্রশাসন সেই পথে হাঁটতে পারেনি বলে জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। যুক্তরাষ্ট্র ফিরিয়ে দেওয়ার পর ফ্রান্স হোদেইদার সমুদ্রবন্দরের আশপাশে হুতিদের পুঁতে রাখা মাইন পরিষ্কারে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটকে সাহায্য করতে রাজি হয় বলে দাবি আমিরাত কর্মকর্তাদের‌। এ বিষয়ে পেন্টাগন ও ফরাসী কর্মকর্তাদের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। পর্যবেক্ষকরা বলছেন,বন্দরগুলো ঝুঁকিমুক্ত হলেই কেবল স্থলসৈন্য নামানোর সাহস দেখাতে পারবে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। সম্মুখসমর ছাড়া হোদেইদা থেকে হুতিদের হটানো সহজ হবে না বলেও মত তাদের। এদিকে অভিযান শুরুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সংযুক্ত আরব আমিরাতের চার সৈন্য নিহত হন বলে দেশটির কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন। হোদেইদার বন্দর থেকে ২০ মাইল দূরে থাকা আমিরাতের নৌযানে হুতিদের ছোড়া জাহাজবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানলে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার সৌদি জোট হোদেইদার বিমানবন্দর দখলে তুমুল আক্রমণ চালায়, জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। দীর্ঘদিন ধরে অবরুদ্ধ ইয়েমেনে আন্তর্জাতিক সাহায্যের প্রায় ৮০ শতাংশই এ বিমান বন্দর দিয়ে প্রবেশ করে। এদিন পশ্চিমা সমর্থিত প্রেসিডেন্ট আবেদ রাব্বু মানসুর হাদি এডেন শহরের দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি শহরে প্রত্যাবর্তন করেছেন বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটনের ইয়েমেন দূতাবাস। হুতিদের আক্রমণের মুখে ২০১৫ সালে সৌদি আরব পালিয়ে যান তিনি। সৌদি আরবের সঙ্গে যোগসাজশ ও ইয়েমেনের ওপর অবরোধ আরোপের জন্য দায়ী করে গত বছর হুতি নিয়ন্ত্রিত একটি আদালত হাদিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিল। সর্বাত্মক এ যুদ্ধের মধ্যেই বৃহস্পতিবার মস্কোর স্টেডিয়ামে বসে সৌদি আরবের খেলা দেখেন ইয়েমেনে ‘সুন্নি নেটো’র অভিযানের ‘মাস্টারমাইন্ড’ খ্যাত ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। রুশ প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বিলাসবহুল বক্সে বসে সৌদি ফুটবল দলের জন্য উল্লাস প্রকাশ করতেও দেখা গেছে তাকে। রাশিয়ার তৃতীয় গোলের পর পুতিনের দিকে তাকিয়ে সৌদি ক্রাউন প্রিন্সের হতাশার অঙ্গভঙ্গিও ধরা পড়ে টিভি ক্যামেরায়। মোহাম্মদের দিকে সেসময় পুতিনের ছিল সহানুভূতিশীল দৃষ্টি। ইয়েমেনের গৃহযুদ্ধ এবং দেশটিতে সৌদি নেতৃত্বাধীন বাহিনীর অবরোধ-হামলায় এ পর্যন্ত ১০ হাজার লোকের প্রাণ গেছে বলে জানিয়েছে যুদ্ধ পর্যবেক্ষক বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা। খাদ্যঘাটতি এবং অসুস্থতা আরও লাখ লাখ ইয়েমেনিকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছে বলেও আশঙ্কা তাদের। যুদ্ধের কারণে দেশটির দুই কোটি ৮০ লাখ বাসিন্দার মধ্যে ৮০ লাখই দুর্ভিক্ষের হুমকির মধ্যে আছে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘও। এসি     

সৌদিসহ মধ্যপ্রাচ্যে ঈদ আজ

শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে আজ শুক্রবার ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে।আরব নিউজ, আল-আরাবিয়া ও গালফ নিউজের খবরে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত, বাহরাইন ও ওমানে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে।অর্থাৎ, শুক্রবার শাওয়াল মাসের প্রথম দিনে এসব দেশে উদযাপিত হবে ঈদুল ফিতর। সাধারণত সৌদি আরবের একদিন পর বাংলাদেশে ঈদ উদযাপিত হয়।আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় চাঁদ দেখা গেলে বাংলাদেশে শনিবার ঈদ হবে। সন্ধ্যায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা হবে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে।বাংলাদেশের আকাশে কোথাও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে ৯৫৫৯৪৯৩, ৯৫৫৯৬৪৩, ৯৫৫৫৯৪৭, ৯৫৫৬৪০৭ ও ৯৫৫৮৩৩৭ টেলিফোন এবং ৯৫৬৩৩৯৭ ও ৯৫৫৫৯৫১ নম্বরে ফ্যাক্স করে জানানোর অনুরোধ করা হয়েছে।আগামী ১৬ জুন, শনিবার ঈদ হতে পারে এমনটা ধরে ১৫, ১৬, ১৭ জুন ঈদের সরকারি ছুটি নির্ধারণ করা আছে। তবে রোজা ৩০টি হলে ঈদ হবে রোববার, সেক্ষেত্রে ১৮ জুনও ঈদের ছুটি থাকবে।এদিকে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে চাঁদপুর, মাদারীপুর ও শরীয়তপুরের চার উপজেলার কয়েকশ গ্রামের মুসলিমরা আজ শুক্রবার ঈদ উদযাপন করবেন।এসব গ্রামের মুসলিমরা দীর্ঘদিন ধরেই এভাবে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোজা, ঈদ, শবে-বরাত, শবে-মেরাজসহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে থাকেন।এসএ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি