ঢাকা, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৩:৫৮:৪২

অবিশ্বাস্য ক্যাচ ধরলেন আফ্রিদি

অবিশ্বাস্য ক্যাচ ধরলেন আফ্রিদি

শহীদ আফ্রিদি শুক্রবার পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) অবিশ্বাস্যভাবে একটি ক্যাচ ধরলেন। তা দেখে চোখ কপালে উঠেছে সবার। দুবাইয়ে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্স আর করাচি কিংসের ম্যাচের ঘটনা। ব্যাটিং করছিল কোয়েটা। ইনিংসের ১৩তম ওভারে উমর আমিনকে অবিশ্বাস্য এক ক্যাচে ফিরিয়ে দিয়েছেন আফ্রিদি, যেটি উপস্থিত দর্শকদেরও বিশ্বাস হচ্ছিল না। মোহাম্মদ ইরফানের লেন্থ ডেলিভারিটি লং অনের ওপর দিয়ে উঠিয়ে মেরেছিলেন উমর আমিন। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানও নিশ্চয়ই ভেবেছিলেন বলটি ছক্কা হয়ে যাবে। এমন সময় সবাইকে চমকে দিয়ে বলটি ধরে ফেলেন আফ্রিদি। তবে বল হাতে থাকলে বাউন্ডারিতে পা লেগে যাবে বলে ক্যাচ নিয়েই চোখের পলকে সেটি বাতাসে ভাসিয়ে দেন আফ্রিদি। এরপর বাউন্ডারির বাইরে থেকে এসে দারুণ বুদ্ধিমত্তায় ক্যাচটি তালুবন্দী করেন দ্বিতীয়বার। ম্যাচে তার দল করাচি জিতেছে, তবে জয়-পরাজয় ছাপিয়ে দিন শেষে আলোচনায় বর্ষীয়ান এই অলরাউন্ডারের ক্যাচটিই। এসএইচ/
স্ত্রীকে মারধরের ভুয়া খবরে চটেছেন তাসকিন

ক্রিকেট তারকা তাসকিন আহমেদ নাকি তার স্ত্রীকে মারধর করেছেন! একটি অনলাইন পোর্টালে এমন খবর বের হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে খবরটি। এ খবরে ভীষণ বিরক্ত ও ক্ষুব্ধ এ টাইগার। ক্ষোভের সঙ্গেই তাসকিন জানালেন, প্রয়োজনে আইনি ব্যবস্থা নেবেন ওই পোর্টালের বিরুদ্ধে। পোর্টালটি লিখেছে, ‘...তাসকিনের বিরুদ্ধে তাঁর স্ত্রী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।’ এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর বেশ অস্বস্তিতে পড়েছে তাসকিন ও তাঁর পরিবার। শুক্রবার দুপুরে অনুশীলন শেষে বাসায় ফিরতেই ফোনের পর ফোন। তাসকিন আহমেদের কাছে সবাই জানতে চাচ্ছে, স্ত্রী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমার সঙ্গে তাঁর কী হয়েছে? আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব, সতীর্থ ও সাংবাদিকেরা বিষয়টি বিস্তারিত জানতে চাইছেন। এ বিষয়ে ক্ষুব্ধ তাসকিন বললেন, ‘এসবের কোনো অর্থ আছে? বিয়ের সময় একবার কিছু পোর্টালে আমাকে নিয়ে আজেবাজে খবর প্রকাশ করার পর এখন আবার পেছনে লেগেছে। কারা এসব খবর প্রকাশ করে বলতে পারেন? আমি এদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেব। বাংলাদেশ দলের একজন খেলোয়াড় হিসেবে এতটুকু সম্মান কি পেতে পারি না?’ এ খবরে তাসকিনের স্ত্রী রাবেয়াও ভীষণ ক্ষুব্ধ। তিনি বলেন, ‘আমাকে মারধর করল অথচ আমিই জানি না!’ একে// এআর

পিএসএল অভিষেকে উজ্জ্বল মুস্তাফিজ

পাকিস্তান সুপার লিগে অভিষেকে উজ্জ্বল মুস্তাফিজুর রহমান। লাহোর কালান্দার্সের হয়ে মুলতান সুলতানসের বিপক্ষে দারুণ বোলিং করেছেন বাঁহাতি এই পেসার। দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুক্রবারের দ্বিতীয় ম্যাচে ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন মুস্তাফিজ। তার দারুণ বোলিংয়ের পরও ৫ উইকেটে ১৭৯ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে মুলতান। পঞ্চম ওভারে প্রথমবারের মতো মুস্তাফিজকে আক্রমণে আনেন অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। সেই ওভার থেকে মাত্র ৬ রান নিতে পারেন কুমার সাঙ্গাকারা ও আহমেদ শেহজাদ। উইকেটরক্ষক উমর আকমলের নিদারুণ ব্যর্থতায় প্রতিপক্ষে পেয়ে যায় একটি বাই চার। ১৩ ওভারে উদ্বোধনী জুটি তুলে ফেলে ৮৮ রান। বিপজ্জনক হয়ে উঠা জুটি ভাঙতে একাদশ ওভারে মুস্তাফিজকে আক্রমণে ফেরান ম্যাককালাম। প্রথম বলেই আঘাত হানেন বাঁহাতি পেসার। কট বিহাইন্ড করে ফিরিয়ে দেন শেহজাদকে। সেই ওভারে পাঁচটি বল ছিল ডট। অন্য বলে ব্যাটের কানায় লেগে ফাইন লেগ দিয়ে চার পেয়ে যান শোয়েব মাকসুদ। সাঙ্গাকারা ও শোয়েব মালিকের ব্যাটে স্রোতের মতো আসছিল রান। তাদের থামাতে ১৭তম ওভারে আবার মুস্তাফিজকে আক্রমণে ফেরান অধিনায়ক। এবারও হতাশ হতে হয়নি তাকে। নিজের তৃতীয় ওভারে ১০ রান দিয়ে সাঙ্গাকারার দামি উইকেট তুলে নেন মুস্তাফিজ। বাঁহাতি এই পেসার দুর্দান্ত ছিলেন পরের ওভারেও। সেই ওভারে কোনো উইকেট না পেলেও দেন মাত্র তিন রান। মালিক প্রথম বলে সিঙ্গেল নেওয়ার পর আর স্ট্রাইক পাননি। পরের পাঁচ বলের চারটিই ড্যারেন ব্রাভোর কাছ থেকে ডট নেন মুস্তাফিজ। অন্য বল থেকে আসে দুই রান। মুস্তাফিজ ছাড়া ছয়ের নিচে রান দেননি লাহোরের আর কোনো বোলার। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় রান তাড়ায় ১৭.২ ওভারে ১৩৬ রানে গুটিয়ে যায় লাহোর। মুলতানের ৪৩ রানের জয়ে বড় অবদান জুনায়েদ খান ও ইমরান তাহিরের। তাদের দারুণ বোলিংয়ে মাত্র ৪ রানের মধ্যে শেষ ৭ উইকেট হারায় লাহোর। হ্যাটট্রিক করা বাঁহাতি পেসার জুনায়েদ ২৪ রানে নেন ৩ উইকেট। লেগ স্পিনার তাহির ৩ উইকেট নেন ২৭ রানে। দুটি করে উইকেট নেন মোহাম্মদ ইরফান ও কাইরন পোলার্ড। এসএইচ/

১৫ বছর বয়সেই অলিম্পিকে স্বর্ণ জিতল এলিনা

মাত্র ১৫ বছর বয়সেই এবারের অলিম্পিকের শীতকালীন আসরে স্বর্ণ জিতল রাশিয়ার এলিনা জাগিতোভা। ‘অলিম্পিক অ্যাথলেটস ফ্রম রাশিয়া’ বা ওএআর হিসেবে স্কেটিং এ মেয়েদের এককে এ স্বর্ণ জেতেন এই কিশোরী। ওএআর হলেন সেসব অ্যাথলেটস যারা রাশিয়ার নাগরিক তবে অলিম্পিকে রাশিয়াকে প্রতিনিধিত্ব করেন না। অলিম্পিকে তারা দেশটির পতাকাও বহন করেন না। এমনকি তারা যখন আসরে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দেন তখনও বাজানো হয় না রাশিয়ার জাতীয় সংগীত। পাশাপাশি এসব অ্যাথলেটরা কোন পদক জিতলে রাশিয়ার জাতীয় সংগীতের বদলে বাজানো হয় অলিম্পিকের নিজস্ব সংগীত। আর সেসব পদক রাশিয়ার পদকতালিকায় যুক্তও হয় না। এমনই এক অ্যাথলেট হয়ে এবারের শীতকালীন আসরে স্বর্ণ জিতল এলিনা। ফ্রী স্টাইল স্কেটিং নাচে আগের আসরগুলোতে দুই দুই বার বিজয়ী হওয়া প্রতিদন্দ্বী ইভজিনিয়া মেডভেডিভাকে ১.৩১ পয়েন্টের ব্যবধানে হারিয়ে নিজের ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত এই পদক জিতল এলিনা। বিশ্ব রেকর্ড ৮২ দশমিক নয় দুই পয়েন্টের পাশাপাশি পেয়েছেন মোট ১৫৬ দশমিক ছয় পাঁচ পয়েন্ট। পদক জয়ের পর বার্তা সংস্থা বিবিসিকে এলিনা বলেন, “আমি যে অলিম্পিক পদক জিতেছি এটা বুঝতে আমার কিছু সময় লেগেছিল। আমি জানতাম ভুলের কোন মাশুল নেই এখানে। আমার হাত কাপছিল। কিন্তু আমার শরীর মনে রেখেছিল যে, অনুশীলনের সময় বহুবার আমি এই কাজটির করেছি”। এলিনার এ পদক জয়ে ওএআর দলে মোট পদকের সংখ্যা বেড়ে দাড়ালো ১৪টি। স্কেটিং এর নারী এককে ১৯৯৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের টারা লিপিন্সকি এর পর এলিনাই সর্বকনিষ্ঠ স্বর্ণ পদক বিজয়ী। সূত্রঃ বিবিসি //এস এইচ এস// এসি 

জয় দিয়ে সফর শেষ করতে চায় ভারত

জয় দিয়ে সফর শেষ করার লক্ষ্য নিয়ে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগামীকাল নিউল্যান্ডসে টি-২০ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে সফরকারী ভারতীয় ক্রিকেট দল।  অপরদিকে জয় দিয়ে সিরিজ শেষ করতে চায় প্রোটিয়ারাও। এই সফরে টেস্ট সিরিজে পরাজয়ের স্বাদ নিলেও দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথমবার ৫-১ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করেছে টিম ইন্ডিয়া। এরপর জোহানেসবার্গে প্রথম ম্যাচ জিতে টি-২০ সিরিজ শুরু করে ভারত। তবে দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে সিরিজে ১-১ সমতা আনে স্বাগতিকরা। যে কারণে আগামীকাল কেপ টাউনের ম্যাচটি পরিণত হয়েছে অঘোষিত ফাইনালে। নিউল্যান্ডসে এর আগে ভারত কখনো টি-২০ ম্যাচ খেলেনি। এখানে প্রোটিয়াদের রেকর্ডও খুব আশা ব্যাঞ্জকও নয়। সংক্ষিপ্ত ভার্সনে এ মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকা এর আগে মোট আটটি ম্যাচ খেলেছে এরমধ্যে পাঁচটিতে পরাজিত হয়েছিল। আগের ম্যাচে জয় পাওয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা স্বভাবতই অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী। সিরিজ শুরু থেকেই ভারতীয় ব্যাটসম্যান বোলারদের বিপক্ষে শক্ত পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নামার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছিলেন। ফর্মে থাকা জসপ্রিত বুমরাহর ইনজুরি নিয়ে ভারতীয় শিবিরে রয়েছে কিছুটা দুঃশ্চিন্তা। তার ফিটনেস নিয়ে রয়েছে প্রশ্ন। ভারতীয় দলের বোলিং কম্বিনেশন আরেক দুঃশ্চিন্তা। বাঁ-হাতি একজন পেসার খেলিয়ে কিছুটা পরীক্ষা করে নিয়েছে। তবে জয়দেব উনাদখত এ পর্যন্ত রান খরচ করেছেন অনেক বেশি। এ পর্যন্ত ৯ দশমিক ৭৮ ইকোনোমি রেটে ৭৫ রানে ২ উইকেট শিকার করেছেন তিনি। যুজবেন্দ্রা চাহাল খরচ করেছেন আরো বেশি রান। সে ক্ষেত্রে বোলিং কম্বিনেশন পরিবর্তন করতে পারেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বুমরাহ খেললে সেরা একাদশ থেকে বাদ পড়তে পারেন উনাদখত। সেঞ্চুরিয়নে বেশ চাতুর্যের পরিচয় দিয়েছেন শারদুল ঠাকুর। চার ওভার বোলিং করে ৩১ রানে ১ উইকেট নিয়েছেন তিনি।  এছাড়া ওয়ানডে সিরিজ থেকেই এখানকার পিচ মন্থর। সুতরাং এবারও একই ধরনের পিচে খেলতে হতে পারে ভারতকে। সেদিক বিবেচনায় চাহালের আত্মবিশ্বাসে কিছুটা চির ধরায় গুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচে নিজকে মেলে ধরতে পারেন কুলদীপ যাদব। আবার স্বাগতিক দলের পেস মোকাবেলার বিষয়টি বিবেচনা করে অক্ষর প্যাটেলকে বিবেচনা আনতে পারে ভারত। তৃতীয় পেসার হিসেবে থাকতে পারেন হার্ডিক পান্ডিয়া। ওয়ান্ডারার্স টেস্ট জয় দিয়ে মোমেন্টাম শুরু করে ভারত। এরপর তা অব্যাহত রেখে ৫-১ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ জয় করেছে দলটি।  কেআই/এসি  

সুন্দর জীবন গড়ার লক্ষ্য নিয়ে শুরু হয়েছে স্কাউট সমাবেশ

‘স্কাউটিং করি, সুন্দর জীবন গড়ি’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে গাজীপুরের বাহাদুরপুর রোভার স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ১৪তম আঞ্চলিক স্কাউট সমাবেশ- ২০১৮ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে গাজীপুরের বাহাদুরপুরের রোভার স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে এ সমাবেশের উদ্বোধন করা হয়। স্কাউট সমাবেশ চলবে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। স্কাউট সমাবেশে বক্তারা বলেন, ১১০ বছর আগে লর্ড ব্যাডেন পাওয়েল মানবতার সেবায় স্কাউটিংয়ের সূচনা করেছিলেন। এখন স্কাউটিংয়ের কার্যক্রম সারা পৃথিবীতে বিস্তার লাভ করেছে। মানবতা ও সেবার ব্রত নিয়ে স্কাউটরা প্রাকৃতিক দুর্যোগ কিংবা অসহায় মানুষের আর্তনাদ লাঘব করতে হাত বাড়িয়ে ছুটে চলছে। এই স্কাউট সমাবেশে অংশ নেওয়া ছয় হাজারেরও বেশি স্কাউট, স্বেচ্ছাসেবক রোভার স্কাউট ও লিডার এখান থেকে শিক্ষা নিয়ে দেশ গড়ার কাজে নিজেদের আত্ম নিয়োগ করবেন। এবারের স্কাউট সমাবেশে অংশ নেওয়া স্কাউটরা ১২টি চ্যালেঞ্জ ও ৬টি সেন্ট্রাল ইভেন্টে (স্কাউট কার্যক্রম) অংশ নেবে। নতুন বিষয় রপ্ত করবে এবং হাতে কলমে তা প্রয়োগের সুযোগ পাবে। এই স্কাউট সমাবেশে ঢাকা বিভাগের সব জেলা থেকে ৫১২টি ইউনিট অংশ নিয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। কেআই/

আইসিসির অনুমোদন পেল কানাডার টি-২০ লীগ

কানাডায় প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিতব্য টি-২০ লীগ আয়োজনের জন্য সবুজ সংকেত দিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। টরেন্টোর তিন ভেন্যুতে আগামী জুলাই মাসে এ টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউজিল্যান্ডের টি-২০ ফ্রিল্যান্সার ক্রিকেটারদের এ টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে। তবে প্রত্যেক দলে স্থানীয় চার ক্রিকেটারকে রাখতে হবে। এই টুর্নামেন্ট পরিচালনার জন্য বিখ্যাত সাবেক খেলোয়াড়দের নিয়ে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি ক্রিকেট এডভাইজরি বোর্ড গঠন করা হবে। ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, কাইরন পোলার্ড ও ডোয়াইন ব্রাভোর মত সকলেই টুর্নামেন্টে খেলবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। মূলত কানাডাতে ক্রিকেটকে জনপ্রিয় করার লক্ষ্যেই এমন আয়োজন করা হচ্ছে। কানাডা ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি রনজিত সাইনি বলেন, ‘কানাডিয়ান ক্রিকেটকে বদলে দিতে এ টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হচ্ছে। এটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ এবং সুন্দর ও সফলভাবে এ টুর্নামেন্ট আয়োজনে ক্রিকেট কানাডা প্রস্তুত।’ কেআই/টিকে

ধারাবাহিকতার ওপর জোর দিতে চান ওয়ালশ

আসন্ন শ্রীলঙ্কা ত্রিদেশীয় সিরিজের আগে বোলারদের নিয়ে বিশেষ অনুশীলনে নেমেছেন কোর্টনি ওয়ালশ। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পর দেশের মাটিতেও ব্যর্থ বাংলাদেশের পেসাররা। তাই বাংলাদেশের পেস বোলিং কোচ শিষ্যদের স্কিল নিয়ে নিবিড় কাজ শুরু করেছেন। মার্চের শুরুতে শ্রীলঙ্কায় আছে ভারত ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। সেই টুর্নামেন্টের আগে রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনদের সেরা ছন্দে ফেরাতে উন্মুখ ওয়ালশ। শুক্রবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ক্যাম্পের প্রথম দিনের অনুশীলন শেষে ওয়ালশ জানান, ক্যাম্পে পেস বোলিংয়ের মৌলিক ব্যাপারগুলো নিয়ে শিষ্যদের সঙ্গে কাজ করবেন তিনি। আমরা ধারাবাহিকতার ওপর মনোযোগ দেব। যতটা চেয়েছিলাম শেষের দিকে ততটা ধারাবাহিক বোলিং আমরা করতে পারিনি। ওরা যদি ধারাবাহিক হতে পারে তাহলে ১০ বারের মধ্যে আটবারই তা ওদের পক্ষে কাজ করবে। স্কিলের পাশপাশি মাঠে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন, বোলারদের মানসিক দিক নিয়েও কাজ করবেন পেস বোলিং কোচ। আসন্ন সিরিজে নিজেদের ভূমিকাটা ওদের বুঝতে হবে। এই ক্যাম্প থেকে ওরা শিখবে পেস বোলিংয়ের জন্য কতটা কঠোর পরিশ্রম দরকার হয়। আমরা এটাকে যতটা সম্ভব সরল রাখার চেষ্টা করছি। আমরা ক্যাম্পে বোলারদের মানসিক দিক নিয়ে কাজ করব। ওরা খেলে এমন সব কন্ডিশনে কি করতে হবে তা যতটা সম্ভব এই ক্যাম্পে শেখার সুযোগ ওদের সামনে। পেসারদের সামনে। মাঠে ওদের যে কোনো কিছুর জন্য তৈরি থাকতে হবে। দক্ষিণ আফ্রিকা আর দেশের মাটিতে ব্যর্থতার কারণ খুঁজে পেয়েছেন ওয়ালশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক এই পেসার মনে করেন, বোলাররা নিজেদের ওপর আস্থা রাখতে আর ব্যাপারগুলো সরল রাখতে পারেননি। ওরা অনেক কিছুর চেষ্টা করেছে। ওদের জানতে হবে একটা পরিস্থিতিতে সেরা কাজটা কি আর তা কি করে বাস্তবায়ন করা যায়। মাহমুদুল হাসান, কাজী অনিক, রবিউল হক, আলী হোসেনের মতো তরুণরা আছেন নয় দিনের বিশেষ অনুশীলন ক্যাম্পে। শুরুতে তাদের শক্তি-দুর্বলতা বুঝে নিচ্ছেন ওয়ালশ। ওদের কাউকে কাউকে প্রথমবারের মতো ভালো করে দেখছি। পরের কয়েক দিনে সবাইকে নিয়ে সুনির্দিষ্ট কাজ করা হবে। ওদের প্রতিটি বিভাগে উন্নতি করতে হবে। কোনো বিভাগে দুর্বলতা থাকলে সেই বিভাগ নিয়ে আমরা কাজ করব। আর যে বিভাগ ওদের শক্তি সেটাকে আরও শক্তিশালী করে তুলব। এসি/

বড় বাঁচা বেঁচে গেলো আর্সেনাল!

ওস্টারসান্ডের কাছে হেরেও বড় বাঁচা, বেঁচে গেলো আর্সেনাল। বৃহস্পতিবার ওস্টারসান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ২-১ গোলে হারলো তারা। তবে সুইডেনে প্রথম লেগটা ৩-০ গোলে জেতায় ৪-২ গোলের অগ্রগামিতায় ইউরোপা লিগের শেষ ষোলোতে পা রেখেছে আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল। ওস্টারসান্ডসের কাছে হারটা আর্সেনালের ক্লাব ইতিহাসেরই অন্যতম বাজে পরাজয়। এবারই প্রথমবারের মতো ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় খেলতে এসেছে সুইডিশ ক্লাবটি। আগামী রোববার ইংলিশ লিগ কাপের ফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটির মুখোমুখি হওয়ার আগে এই হার অস্বস্তিতে ফেলে দিলো আর্সেনালকে। এমন একটি ক্লাবের বিপক্ষে ঘরের মাঠ এমিরেটস স্টেডিয়ামে ম্যাচের ২৩ মিনিট যেতেই দুই গোল খেয়ে বসে আর্সেনাল। ২২তম মিনিটে হোসেম এইশ ও ২৩তম মিনিটে কেন সেমার গোলে ২-০ তে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ওস্টারসান্ডস। দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে সিড কোলাসিনাকের গোলে ব্যবধান কমায় গানাররা। তবে হার এড়াতে পারেনি তারা। পরের সময়টায় আর গোল না হলে হেরেই মাঠ ছাড়তে হয়েছে আরসেনালকে। ম্যাচশেষে আর্সেনালের কোচ ওয়েঙ্গার স্বীকার করেছেন, তার দল আত্মতুষ্টিতে ভুগেই এমনভাবে হেরেছে। এদিকে আর্সেনালের মতো আতঙ্কের মুখোমুখি হয়ে শেষ ৩২ এর বাধা উতরে শেষ ষোলোর টিকিট পেলো বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ দুই লেগের অগ্রগামিতায় ৫-১ গোলে শেষ ষোলোতে। এসি মিলান দুই লেগের অগ্রগামিতায় ৪-০ গোলে পার করলো শেষ ৩২ এর বাধা। এছাড়া শেষ ষোলোর টিকিট পেয়েছে লোকোমোটিভ মস্কো, ডায়নামো কিয়েভ, লাজিও, স্পোর্তিং সিপি, ভিক্টোরিয়া প্লজেন, লিওঁ, জেনিত সেন্ট পিটার্সবুর্গ, অ্যাথলেটিক বিলবাও, মার্শেই ও এফসি সলজবার্গ।  সূত্র: গোল ডট কম একে//

কোপেনহেগেনকে হারিয়ে শেষ ষোলোতে অ্যাতলেটিকো

উয়েফা ইউরোপ লীগে এফসি কোপেনহেগেনকে ১-০ গোলে হারিয়েছে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। এতে শেষ ষোলোতে জায়গা করে নিয়েছে স্পেনের এ দলটি। খেলার প্রথমার্ধেই কেভিন গেমিরোর গোলে ১-০তে এগিয়ে যায় অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। খেলার ৭ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে গেমিরো লক্ষভেদ করে জোরালো শট নেন। এতে কোপেনহেগেনের গোলকিপার অ্যান্ডারসনের দেয়ালভেদ করে জালে গড়ায় বল। এতেই ১-০তে এগিয়ে যায় অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। এই জয়ের মাধ্যমে শেষ ষোলোতে জায়গা করে নিয়েছেন সিমিওনের শিষ্যরা। তবে খেলার দ্বিতীয়ার্ধে খেলার ধার বাড়ায় কোপেন হেগেন। দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কয়েকটি আক্রমণ করেও গোলের দেখা পায়নি দলটি। এদিকে দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য দ্বিতীয় গোলের সুযোগ মিস করে অ্যাতলেটিকোর এ ফরোয়ার্ড। উল্লেখ্য, প্রথম লেগে কোপেনহেগেনকে ৪-০ গোলে হারিয়েছিলো সিমিওনের শিষ্যরা। আর দ্বিতীয় লেগে ১-০তে জিতে শেষ ষোলোয় পা দিলো দলটি। সূত্র: রয়টার্সএমজে

সেরে ওঠছেন জয়সুরিয়া

ধীরে ধীরে সেরে ওঠছেন বিশ্বকাপজয়ী ক্রিকেটার সনাৎ জয়সুরিয়া। দীর্ঘদিন ধরে হাঁটুর ইনজুরিতে ভোগছিলেন তিনি। নিজ দেশে চিকিৎসা করেও কোন ফল পাচ্ছিলেন না। এরপর চিকিৎসা নেন ভারতে। সেখানেও কোন ফল পাননি। এরপর পাড়ি দেন অস্ট্রেলিয়ায়। ক্রাচেভর দিয়ে হাঁটার একটি ছবি ভাইরাল হওয়ার পরই আলোচনায় আসেন জয়সুরিয়া। দীর্ঘদিন পর পায়ের সফল অস্ত্রোপাচারের পর ইতোমধ্যে অস্ট্রেলিয় চিকিৎসকরে তত্ত্বাবধানে ধীরে ধীরে সেরে ওঠছেন জয়সুরিয়া। অস্ট্রেলিয় চিকিৎসকের পাশাপাশি দুজন ভারতীয় চিকিৎসকও তার দেখাশুনা করেছেন। ইতোমধ্যে বাড়ি ফিরেছেন তিনি। সম্প্রতি তাঁর মেয়েকে নিয়ে একটি ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছেন। জয়সুরিয়া বর্তমানে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সূত্র: ক্রিক ট্যাকারএমজে/

মাশরাফির তোপে হারলো শেখ জামাল

ঢাকা লিগের প্রথম ম্যাচ থেকেই বল হাতে বিধংসী মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। বৃহস্পতিবার মাশরাুফির তোপে পড়লো শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। টেবিলের তৃতীয় স্থানে থাকা দলটিকে ৪৭ রানে হারিয়ে লিগে টানা ষষ্ঠ জয় তুলে নিল আবাহনী। ম্যাচ সেরা হয়েছেন মাশরাফি। এদিন সাভারের বিকেএসপি মাঠে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় আবাহনী। ব্যাট করতে নেমে ১১.৪ ওভারে ৭৮ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে আবাহনী। এরপর মোসাদ্দেক হোসেনকে নিয়ে জুটি বাঁধেন ওপেনার বিজয়। দুইজনের ১২১ রানের জুটিতে বড় স্কোরের দিকে এগিয়ে যায় আবাহনী। এরপর দলীয় ১৯৯ রানে বিজয় আউট হয়ে যান। শতরানের ইনিংসের পথে ৪টি ছয় ও ৬টি চার মারেন তিনি। এটা তার লিস্ট-এ ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি। এরপর হাফ সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতেই আউট হয়ে যান মোসাদ্দেক। দলীয় সংগ্রহ তখন ২১১। সবশেষ মেহেদী হাসান মিরাজ ও সানজামুল ইসলামের অপরাজিত ৫৮ রানের জুটিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৭০ রান করে আবাহনী। মিরাজ ৩৪ ও সানজামুল ২৪ রানে অপরাজিত থাকেন। শেখ জামালের হয়ে ৪৭ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়েছেন রবিউল হক। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাশরাফির তোপের মুখে ৩৫ রানেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে বসে শেখ জামাল। দুই ওপেনার সৈকত আলি (৩১) ও জিয়াউর রহমান (১) মাশরাফির শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন। এরপর ইলিয়াস সানিকে নিয়ে ৫১ রানের জুটি গড়ে কিছুটা প্রতিরোধ সৃষ্টি করেন জালাজ সাক্সেনা। ব্যক্তিগত ১৬ রানে সাকলাইন সজিবের বলে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন ইলিয়াস। এরপর কোন রান করার আগেই সোহাগ গাজীকে ফেরান মিরাজ। এসময় অধিনায়ক নুরুল হাসান এসে জালাজের সঙ্গে জুটি গড়েন। তার কিছু পরেই দলীয় ১১৯ রানের মাথায় রান আউট হয়ে মাঠ ছাড়তে হয় জালাজকে। তার ৪৩ রানের ইনিংসটিতে ছিল ৪টি চার। এরপর আল ইমরানের সঙ্গে ৭৬ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখাতে থাকেন নুরুল। কিন্তু ব্যক্তিগত ৮৩ রানে নুরুল আউট হয়ে গেলে লেজের ব্যাটসম্যানদের দ্রুত আউট করে ৪৫.৩ ওভারে শেখ জামালকে ২২৩ রানে গুটিয়ে দেন মাশরাফি। ৩.৪১ ইকোনোমিতে ২৯ রান দিয়ে তিনি নিয়েছে ৫ উইকেট। এছাড়া মিরাজ নিয়েছে ২ উইকেট। এসএইচ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি