ঢাকা, শনিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৮ ১৪:০৯:২৪

অ্যাপলের দৃষ্টি পেতে অ্যাপলেরই সিস্টেমে হ্যাকিং

অ্যাপলের দৃষ্টি পেতে অ্যাপলেরই সিস্টেমে হ্যাকিং

বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল ইনকর্পোরেশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে তাদেরই সিস্টেম হ্যাক করে এক অস্ট্রেলিয়ান কিশোর। প্রতিষ্ঠানটির প্রতি ‘ভালোলাগা’ আর প্রতিষ্ঠানটির সাথে কাজ করার তীব্র আকাঙ্ক্ষা থেকে কর্তৃপক্ষের নজর কাড়তেই এমন কান্ড করে ঐ কিশোর। সম্প্রতি ঐ কিশোরের বিরুদ্ধে আদালতে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রমাণাদি জমা দেয় অ্যাপল
টয়লেট খুঁজে দেবে ‘পাবলিক টয়লেট বাংলাদেশ’ অ্যাপ   

ঈদে ঘরমুখী যাত্রীদের সহজে গণ শৌচাগার বা পাবলিক টয়লেট খুঁজে দেবে ‘পাবলিক টয়লেট বাংলাদেশ’ অ্যাপ। যাত্রীদের সুবিধার বিষয়টি মাথায় রেখে দেশের প্রধান সড়কসমূহে অবস্থিত পাবলিক টয়লেটসমূহকে অন্তর্ভূক্ত করে এই অ্যাপটি এনেছে ওয়াটারএইড। পাবলিক টয়লেট নিয়ে এমন উদ্ভাবনী অ্যাপের সেবা বাংলাদেশ এই প্রথম।    ওয়াটারএইড এর পক্ষ থেকে জানানো হয়, যাত্রাপথে ভোগান্তি কমিয়ে আনতে এবং দেশব্যাপী পাবলিক টয়লেটের তথ্যসমূহ সকলের কাছে পৌঁছে দিতে এই অ্যাপ চালু করেছে। আগ্রহীরা অ্যাপটি প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন। এই অ্যাপ থেকে ব্যবহারকারীর জিপিএসের অবস্থান অথবা সরাসরি সার্চ অপশনের মাধ্যমে রাজধানীর বেশ কিছু নির্দিষ্ট এলাকাসমূহে এবং দেশের প্রধান চারটি মহাসড়কের আশেপাশে নির্মিত প্রায় সকল পাবলিক টয়লেটসমূহের অবস্থান জানতে পারবেন। এছাড়াও এসব টয়লেটে বিদ্যমান সুযোগ-সুবিধা সংক্রান্ত তথ্যাদিও পাওয়া যাবে অ্যাপটিতে।  পাশাপাশি পাবলিক টয়লেটসমূহে পুরুষ ও নারীদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা আছে কিনা, প্রতিবন্ধী-বান্ধব কিনা, ব্যবহার ফি রয়েছে কিনা- এগুলোও অ্যাপটির মাধ্যমে জানা যাবে। টয়লেটের ছবি ও রিভিউ, ব্যবহারকারীদের টয়লেটটির অবস্থা বুঝতে সাহায্য করবে। ব্যবহারকারীদের দেয়া রিভিউ রেটিং অন্যান্যদের উন্নত টয়লেট খুঁজতে সাহায্য করবে এবং একইসাথে টয়লেটের পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট সকলকে সচেতন থাকতে সহায়তা করবে। এছাড়াও ব্যবহারকারীগণ দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে তালিকা বহির্ভূত সকল টয়লেট অ্যাপটির মাধ্যমে যোগ করতে পারবে। এর ফলে অন্যদের ব্যবহার উপযোগী টয়লেট খুঁজে বের করতে এবং পরবর্তীতে দেশব্যাপী জনসাধারণের ব্যবহার উপযোগী টয়লেটসমূহের ম্যাপ তৈরিতে ভূমিকা রাখবে। প্রসঙ্গত, দেশব্যাপী মানসম্মত পাবলিক টয়লেটের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার মাধ্যমে দৈনন্দিন পথ চলাকে আরও সুগম করতে ওয়াটারএইড দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে সিটি কর্পোরেশন এবং স্থানীয় প্রশাসনের সাথে পাবলিক টয়লেট নির্মাণ ও সংস্কারের কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে রাজধানী ঢাকাসহ অন্যান্য তিনটি বিভাগীয় শহরে (চট্টগ্রাম, সিলেট ও খুলনা) ওয়াটারএইডের সহযোগিতায় নির্মিত আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন সর্বমোট ২৮টি পাবলিক টয়লেট রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় সকলের জন্য পাবলিক স্যানিটেশনকে সহজলভ্য ও সুগম করার লক্ষ্যেই এই অ্যাপটি নির্মিত হয়েছে ।   নিচের লিংক বা কিউআর কোড থেকে অ্যাপটি সহজেই ডাউনলোড করা যাবে-       https://play.google.com/store/apps/details?id=softworks.com.toilettracker //এস এইচ এস//এসি   

পাকিস্তানে নিষিদ্ধ ঘোষণা হতে পারে টুইটার

আপত্তিকর বিষয়বস্তু দেওয়া না আটকালে তাদের নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হবে, টুইটারকে সতর্ক করে দিল পাকিস্তান। সোশ্যাল মিডিয়াকে নিষিদ্ধ করা পাকিস্তানে নতুন নয়। ২০০৮ সালে দু’বার ফেসবুককে নিষিদ্ধ করা হয়। পরে আবার ২০১০-এ। ২০১২ সালে ইউটিউব ব্লক করে দিয়েছিল ‘পাকিস্তান টেলিকমিউনিকেশন অথরিটি’ (পিটিএ)। দু’বছর ইউটিউব খোলা যায়নি পাকিস্তানে। ইসলামাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশ মতো এ দিন ক্যাবিনেট সেক্রেটেরিয়েট-এ সেনেট স্ট্যান্ডিং কমিটিকে পিটিএ জানায়, ফেসবুক, ইউটিউব, অন্য সোশ্যাল মিডিয়াগুলো যখন সরকারের সমস্ত অনুরোধ মেনে চলছে, তখন টুইটার কেন অবজ্ঞা করবে! পিটিএ-এর ইন্টারনেট পলিসি অ্যান্ড ওয়েব অ্যানালিসিস বিভাগের ডিরেক্টর জেনারেল নিসার আহমেদ বলেন, ‘শতাধিক অনুরোধের মধ্যে মেরেকেট ৫ শতাংশ রেখেছে ওরা। বাকি সমস্ত অনুরোধ উপেক্ষা করেছে।’ পিটিএ আরও জানিয়েছে, কোর্টের নির্দেশ টুইটারকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনও জবাব মেলেনি সংস্থাটির পক্ষ থেকে। আহমেদ বলেন, ‘চূড়ান্ত নোটিসের জবাব না দিলে নিয়ন্ত্রক সংস্থা আদালতের নির্দেশ পালন করবে। টুইটারকে শিক্ষা দিতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ কোর্ট। কথা না মানলে ব্যবসা হারাতেই হবে।’ সূত্র: আনন্দবাজার একে//

রোহিঙ্গা বিরোধী পোস্ট থেকে ফেসবুকের আয় ১৬০০ কোটি ডলার (ভিডিও)

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জাতিগত নির্মূলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিদ্বেষপূর্ণ ও উস্কানিমূলক প্রচারণা চলছে। সংবাদ মাধ্যম রয়টার্স ও যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার মানবাধিকার সেন্টারের অনুসন্ধানে বের হয়ে আসে এমন এক হাজারেরও বেশি পোস্ট এবং ছবির তথ্য। এতে বলা হয়, বিশাল অংকের অর্থ আয়ের লোভেই রোহিঙ্গা বিরোধী পোস্ট, মন্তব্য ও ছবি সরিয়ে নিতে ধীরগতিনীতি গ্রহণ করে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ। রাখাইনে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর নির্যাতন, নিপীড়ন, হত্যা আর ধর্ষণের পেছনে শুরু থেকেই বড় প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করছে ফেসবুক। ২০১২ সালে উগ্র বৌদ্ধদের একটি পেইজ খোলার মধ্য দিয়েই ফেসবুকে রোহিঙ্গাবিরোধী প্রচারণার উত্থান। ওই বছর দাঙ্গায় নিহত হয় ৮০ জন, গৃহহারা হয় কয়েক লাখ রোহিঙ্গা। এরপর গেল বছরের আগস্টে আবারও রোহিঙ্গা নির্মূলে ফেসবুক ব্যবহার করে উগ্রপন্থিরা। যার পরিণতিতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় ৮ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা।   জাতিসংঘ ফেসবুকে এ প্রচারণা নিয়ে প্রশ্ন তুললে এ বছরের এপ্রিলে পোস্টগুলো সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগের কথা জানান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির প্রধান মার্ক জাকারবাগ। তবে রয়টার্স ও ক্যালিফোর্নিয়ার মানবাধিকার সেন্টার বলছে, চার মাসও সেই উদ্যোগ কার্যকরের কোন প্রমান পাওয়া যায়নি। অনুসন্ধান প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ফেসবুকে এখনও এক হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা ও মুসলিমবিরোধী পোস্ট, মন্তব্য ও ছবি রয়েছে। বার্মিজ ভাষা লেখা অনেক পোস্ট ৬ বছর ধরে ফেসবুকে রয়েছে, যা নেটওয়ার্ক হিসেবে কাজে লাগাচ্ছে উগ্রপন্থিরা। রয়টার্স ও ক্যালিফোর্নিয়ার মানবাধিকার সেন্টার বলছে, বিদ্বেষপূর্ণ পোস্টের মাধ্যমে গেল বছর ফেসবুকের আয় ছিল এক হাজার ৬শ’ কোটি ডলার। মিয়ানমারে সরকারসহ দেশটির ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ নিয়মিত সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে। এদের অধিকাংশের কাছেই ইন্টারনেট মানেই ফেসবুক।   এসএইচ/

দেশের আইটিখাতে বিনিয়োগে জাপানের আগ্রহ প্রকাশ   

বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তিখাতে (আইটি) ব্যাপকভাবে বিনিয়োগ এবং বাংলাদেশের কম্পিউটার প্রকৌশলীদের কর্মসংস্থানে আগ্রহ প্রকাশ করেছে জাপান। আজ বৃহস্পতিবার জাপান এক্সটারনাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের (জেইটিআরও) দেশীয় প্রতিনিধি ডি. আরাই’য়ের নেতৃত্বে জাপানের ১০টি খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানের ১৫ সদস্য বিশিষ্ট এক ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দল ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সাথে সাক্ষাৎকালে এই আগ্রহের কথা জানান। জেইটিআরও জাপানের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি প্রতিষ্ঠান। প্রতিনিধি দল মন্ত্রীকে জানান, জাপানে বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানে প্রচুর আইটি প্রকৌশলীর চাহিদা রয়েছে। তারা বাংলাদেশি কম্পিউটার প্রকৗশলীদের ভূয়সী প্রসংশা করে বলেন, এদেশের আইটি প্রকৌশলীরা অত্যন্ত দক্ষ ও পরিশ্রমী। তাই তাদের বিভিন্ন আইটি প্রতিষ্ঠানের জন্য বাংলাদেশ থেকে প্রাথমিকভাবে তারা ৪’শ আইটি প্রকৌশলী নিয়োগ করতে চায়। প্রতিনিধি দল গমনইচ্ছুক প্রকৌশলীদের জাপানী ভাষা শিক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করেন। উল্লেখ্য, গত কয়েক মাসে জাপানে বাংলাদেশের প্রায় তিন শতাধিক আইটি প্রকৌশলীর কর্মসংস্থান হয়েছে। গত মে মাসে তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার ‘জাপান আইটি উইয়ি’তে অংশগ্রহণ করেন। এসময় তিনি জাইকা, রিক্রুট সহ নয়টি খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের সাথে বাংলাদেশের আইটি খাতের উজ্জ্বল সম্ভাবনা নিয়ে মতবিনিময় করেছেন। ওই মতবিনিময়ের ফলোআপ হিসেবে জাপানের কোম্পানির প্রতিনিধি দলের সদস্যগণ বাংলাদেশে সফর করছেন। তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী বলেন, জাপান বাংলাদেশের দীর্ঘ প্রতিক্ষীত বন্ধু ও উন্নয়ন সহযোগী। জাপান বাংলাদেশের ভালো ব্যবসা ক্ষেত্র। অনুরূপভাবে বাংলাদেশও জাপানের উত্তম ব্যবসার স্থান। তিনি প্রতিনিধি দলকে জানান, বাংলাদেশে আইসিটি বিভাগের অধীনে বিভিন্ন ভাষা শেখানোর জন্য ‘সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ভাষা প্রশিক্ষণ ল্যাব স্থাপন’ প্রকল্প চালু রয়েছে। এই প্রকল্পের অধীনে ৬৫টি ল্যাবে জাপানী ভাষাসহ বিভিন্ন ভাষা শেখানো হচ্ছে। সূত্র: বাসস    এমএইচ/এসি     

স্মার্ট ফোনের কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে

স্মার্ট ফোন যতো শক্তিশালী হয়ে উঠছে বিকিরণে ক্ষতিকর ঝুঁকির মাত্রাও তত বাড়ছে। ভবিষ্যতে ফাইভ জি নেটওয়ার্কের মাত্রা সেই ঝুঁকি অারও বাড়িয়ে দিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে বিজ্ঞানীরা এর পক্ষে কোন অকাট্য প্রমাণ এখনো পাননি। মোবাইল প্রযুক্তির পঞ্চম প্রজন্মের দিক ফাইভ জি ইন্টারনেট। বর্তমান টাওয়ারে তা বসানো সম্ভব। তবে তাতে মানুষ অারও বেশি বিকিরণের শিকার হতে পারে। মোবাইল টাওয়ারের এই বিকিরণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ অারও বাড়ছে। চিকিৎসকরা দাবি করছেন এর ফলে ক্যান্সারসহ নানা ধরণের রোগের ঝুঁকি বাড়ছে। উন্নত এই মোবাইল নেটওয়ার্ক গ্রাহকদের অারও বেশি কার্যকর সেবা দেবে যা বর্তমানের তুলনায় ১০০ গুণ দ্রুত। দ্রুত সংযোগের কারণে এই প্রযুক্তিতে চালকহীন গাড়ি নিয়ন্ত্রন করা যাবে। শিল্প ক্ষেত্রে কাজকে সহজ করতে বিশাল পরিমাণ তথ্যের অাদান প্রদান সহজ হবে। সেই লক্ষে কোম্পানিগুলো টাওয়ারে যাবতীয় প্রস্তুতি নিচ্ছে। কিন্তু সেই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ বাড়ছে। সুইজারল্যান্ডের চিকিৎসক সংগঠনগুলো এর প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তারা এত দ্রুত এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিপক্ষে মত দিয়েছেন। বর্তমানে 2G, 3G ও 4G নেটওয়ার্কে ৭৯০ থেকে ২.৬ ফ্রিকোয়েন্সে সিগন্যাল প্রদান করা হয়। ভবিষ্যতে 5G নেটওয়ার্কে অারও উচ্চ মাত্রার ফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করতে হবে। চলতি বছরের শেষে ৩.৬ এবং এর পরে ৬ থেকে ১০০ ম্যাগহাজ ফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু ৬ ম্যাগহাজ ফ্রিকোয়েন্সির মাত্রা পেরিয়ে গেলে তরঙ্গ এত সংকুচিত হয়ে যায় যে তার প্রসারের মানের অবনতি ঘটে। বাড়িঘর, গাছপালা অারও বড় বাধা হয়ে উঠে। তখন বাধ্য হয়ে এন্টেনার বিকিরণ বাড়াতে হবে। মোবাইল বিকিরণ বিশেষজ্ঞ মার্টিন রোসলি বলেন, তিনি বলেন, বর্তমানে যে মাত্রা কাজ করছে তাতে স্বাস্থ্যের তেমন কোন ঝুঁকি নেই। কিন্তু তা সত্ত্বেও নিরাপত্তা নিয়ে সংশয়ের কারণে একটি বলয় মেনে চলা হয়। মোবাইল এ্যান্টেনা কতোটা বিপজ্জনক এবং সেগুলো কী অামাদের রোগের জন্য দায়ী? এখনো পর্যন্ত বিজ্ঞানীরা শুধু কিছু ইঙ্গিত করেছেন। তবে মোবাইল নেটওয়ার্ক মস্তিস্কে টিউমারের কারণ হতে পারে এমন কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। 5G নতুন করে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি করছে। উচ্চ মাত্রার ফ্রিকোয়েন্সির কারণে তরঙ্গ অারও ছোট হয়ে যায়। ফলে ত্বক তা শুষে নেয়। অন্যদিকে বর্তমান তরঙ্গ শরীরের মধ্যে প্রবেশ করে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখনো কোন ভালো গবেষণা হয়নি। ফলে দুঃশ্চিন্তার পক্ষে বা বিপক্ষে নানা কারণ রয়েছে। মার্টিন রোসলি বলেন, এ্যান্টেনা নয় বরং অামাদের হাতের স্মার্ট ফোনটিই অাসল ঝুঁকি বহন করে। তিনি মনে করেন, যে ফোনের সিগন্যাল খারাপ তা অারো বেশি বিকিরণ করে। অামাদের অাশে পাশের ডিভাইসগুলো ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ বিকিরণের জন্য দায়ী মনে করেন তিনি। অর্থাৎ কেউ যদি বিকিরণ প্রতিরোধ করতে চায় তার হাতে সেই উপায় রয়েছে। সূত্র: ডয়েচে ভেলে। আআ/এসএইচ/

রহস্যময় হ্যাকের শিকার ইনস্টাগ্রাম

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমের ছবি শেয়ারের সাইট ইনস্টাগ্রামের ব্যবহারকারিরা হঠাৎ করেই রহস্যময় এক হ্যাকের শিকার হয়েছেন। বিশ্বব্যাপী বেশ কিছু ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারিরা অভিযোগ করেছেন, হঠাৎ তাদের অ্যাকাউন্ট লগ আউট হয়ে যাচ্ছে। আর লগ ইন করলে দেখেন তাদের প্রোফাইল পিকচারের জায়গায় বিভিন্ন সিনেমা থেকে নেওয়া ছবি বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। আবার কেউ কেউ বলেছেন, তাদের অ্যাকাউন্টের নামও বদলে দেওয়া হয়েছে ফলে তারা লগইন করতে পারছেন না। সম্প্রতি এক খবরে বলা হয়, ৮ আগস্ট থেকে ১১ আগস্টের মধ্যে এই হ্যাকিংয়ের ঘটনাগুলো ঘটেছে এবং ৮৯৯টি টুইটার অ্যাকাউন্ট একই ধরনের হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে। বিবিসির খবরে বলা হয়, অ্যাকাউন্টগুলোতে তাদের মেইল আইডি বদলে দিয়ে রুশ মেইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান মেইল ডট আরইউ এর বিভিন্ন মেইল অ্যাকাউন্টের আইডি বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে রাশিয়ান কোনো হ্যাকারদের কাজ হয়ে থাকতে পারে এটি। তবে হ্যাকাররা কোনো স্পর্শকাতর তথ্য চুরি করেছে বা এর বিনিময়ে কিছু দাবি করেছে এমন খবর এখন পর্যন্ত পাওয়া যায় নি। ইনস্টাগ্রাম জানিয়েছে, তারা এ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে দেখছে। ইনস্টাগ্রামের এক মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা কোনো অ্যাকাউন্ট ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার কথা জানতে পারলে ওই অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেই আর আক্রমণের শিকার যারা তারা তাদের পাসওয়ার্ড বদলাতে পারে ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারে।’ কেএনইউ/  

জেনে নিন মোবাইলের ৬টি গোপন কোডের কাজ

মোবাইল ফোন প্রায় প্রত্যেকের রয়েছে। কিন্তু খুব কম লোকই মোবাইলের এই সমস্ত খুটিনাটি বিষয় জানেন। জানতেন মেবাইলের এত গোপন কোড রয়েছে? এবং সেগুলো এত কাজের... ১. #31# আইফোনের গ্রাহকেরা এই কোড দিলে সমস্ত আউটগোয়িং কল গোপন থাকবে। আপনি যাকে ফোন করবেন সেই ব্যক্তি আপনার নম্বর দেখতে পাবেন না। অ্যান্ড্রয়েড গ্রাহকের কোড হল #31# ‘ফোন নম্বর’। ২. *33*# এই কোড দিলে আপনার ফোন থেকে সমস্ত আউটগোয়িং কল ব্লক হয়ে যাবে। অর্থাৎ শুধু ফোন আসবে। কোনও ফোন আপনি করতে পারবেন না। পুনরায় তা চালু করতে পারেন #33*pin# দিয়ে। এটি আইফোনের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। ৩. *3370# আপনার ফোনের কমিউনিকেশন খুব খারাপ? তাহলে এই কোডটি আপনাকে সাহায্য করবে। এই কোড ফোনের ইএফআর কোডিং ব্যবস্থা সক্রিয় করে দেয়। ফোনের কমিউনিকেশন ক্ষমতা বাড়ে। আইফোনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। ৪. *#06# : অ্যান্ড্রয়েড গ্রাহকদের জন্য কোড। এই কোডের প্রয়োগে মোবাইলের আইএমইআই তথ্য জানা যাবে। ৫. *#*#4636#*#*  এই কোডের প্রয়োগ করলে মোবাইলের ওয়াই-ফাই সিগন্যাল, ব্যাটারি তথ্য জানতে পারবেন অ্যান্ড্রয়েড গ্রাহকরা। ৬. *#*#7780#*#* অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এই কোড ফোনকে ফ্যাক্টরি সেটিংয়ে ফিরিয়ে নিয়ে যাবে। অর্থাৎ কেনার সময় যে সেটিং ছিল, সেটা হয়ে যাবে। সূত্র: আনন্দবাজার একে//

রোবটে ব্যবহৃত হবে কৃত্রিম ত্বক

মানুষের ত্বকের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি স্পর্শকাতর। কৃত্রিমভাবে এমন ত্বক উদ্ভাবনের নিরন্তর গবেষণা চলছে। টাচ সেন্সেটিভ কৃত্রিম ত্বক উদ্ভাবন করা গেলে মানুষের প্রয়োজনে এবং রোবটিক গবেষণায় নতুন অধ্যায় সূচিত হবে বলে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন। কৃত্রিম ত্বক ব্যবহার করে রোবট অনুভূতিপ্রবণ হয়ে উঠবে। রোবটের ত্বকে স্পর্শ করলে সে মানুষের মতো সাড়া দেবে! আবার মানুষের শরীরেও প্রয়োজন মতো কৃত্রিম ত্বক ব্যবহার করা যাবে। সুখবর হচ্ছে, এ ধরনের কৃত্রিম ত্বক উদ্ভাবনের ঘোষণা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস ইউনিভার্সিটির এক দল গবেষক। যেটি ঠিকমতো ব্যবহার করা গেলে রোবটকে আরও কার‌্যকরভাবে ব্যবহার করা যাবে। সূত্র : টেক শহর। / এআর /

মৃত্যুর গতি নিয়ে বিজ্ঞানীদের চাঞ্চল্যকর তথ্য 

মৃত্যু ধীরে ধীরে আসে। কবিরা তাদের কবিতায় এমনটাই লিখে থাকেন। কিন্তু সত্যিই কি তাই? মৃত্যু কি শ্লথ গতিতে প্রবেশ করে মানব শরীরে? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অফ মেডিসিন-এর বিজ্ঞানীরা।   আন্তর্জাতিক সংবাদমাদ্যম ‘মিরর’-এর এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, গবেষকরা জানিয়েছেন, শরীরে মৃত্যু প্রবেশ করার পরে ফুটবল স্টেডিয়ামে ‘মাস ওয়েভ’ যেমন ভাবে দেখা দেয়, তেমন গতিতেই নাকি জীবকোষগুলি একে একে মারা যেতে শুরু করে। আর এই তরঙ্গের গতি অতি দ্রুত। প্রতি মিনিটে ৩০ মাইক্রোমিটার। যতক্ষণ না পর্যন্ত দেহের সব কোষ মারা যাচ্ছে, ততক্ষণ এই ওয়েভ চলতে থাকে। গবেষক দলের অন্যতম সদস্য জেমস ফেরেল এবং জিয়নরুই চেং এক প্রকার ব্যাঙের ডিমের উপরে পরীক্ষা চালিয়ে দেখান, আণবিক স্তরে ‘ডেথ সিগন্যাল’ কতটা দ্রুত গতিতে কাজ করছে। কোষগুলির মৃ্ত্যু-তরঙ্গকে তাঁরা স্পষ্ট দেখিয়েছেন এবং এই তরঙ্গকে তাঁরা ‘ট্রিগার ওয়েভ’ বলছেন। ব্যাঙের ডিম যেহেতু এক বৃহদাকৃতির কোষ, সেহেতু এই তরঙ্গ এখানে খালি চোখেই দৃশ্যমান। এই গবেষণা নিয়ে ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বিশ্বে। এ থেকে ক্যানসারের মতো রোগের প্রকৃতি নির্ণয় সংক্রান্ত পদ্ধতি উপকৃত হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই। সূত্র: এবলো  এসি   

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি