ঢাকা, রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮ ১১:২৪:২৭

দূষণে হালদায় মরছে মাছ

দূষণে হালদায় মরছে মাছ

দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র মিঠা পানির মৎস্যপ্রজনন ক্ষেত্র হালদায় ভেসে উঠছে মরা রুই, কাতলা, মৃগেলসহ বিভিন্ন ধরনের মাছ। চারপাশে ছড়াচ্ছে কটূ গন্ধ। গত প্রায় ১০ দিন ধরে চলছে এ অবস্থা। যারা নদীর পানি ব্যবহার করছে তাদের শরীরের বিভিন্নস্থানে চুলকানির সঙ্গে ফোসকা উঠছে। হালদা পাড়ের মানুষের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। দূষণের কারণে নদীতে ময়লা পানির আধিক্যে অক্সিজেন কমে যাওয়াতে এভাবে মাছ মারা যাচ্ছে বলে দাবি করছেন কেউ কেউ। স্থানীয়রা জানান, গত ১২ থেকে ১৬ জুন পর্যন্ত টানা বর্ষণে উত্তর চট্টগ্রামের হাটহাজারী, রাউজান ও ফটিকছড়ি উপজেলার অধিকাংশ এলাকা পানিতে ডুবে যায়। হালদা নদীও এই তিন উপজেলায়। ফলে বন্যার সময় খাল, বিল, ডোবা ও পুকুরের পানি একাকার হয়ে যায়। পরে দূষিত হয়ে এসব পানি আবার গিয়ে পড়ে হালদা নদীতে। এরপর থেকে মরা মাছ ভেসে উঠতে দেখছেন স্থানীয়রা। হালদা নদীর দূষণ প্রতিরোধে আগামীকাল শনিবার দুপুরে মদুনাঘাটে মানববন্ধনের ডাক দিয়েছেন স্থানীয়রা। অন্যদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার পরিবেশ অধিদফতর পানি দূষণের কারণ নির্ণয়ে নমুনা সংগ্রহ করেছে। পরিবেশ অধিদফতর চট্টগ্রাম মহানগরের পরিচালক আজাদুর রহমান মল্লিক বলেন, খবর পেয়ে আমরা হালদা নদীতে গিয়েছিলাম। সেখানে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, বৃষ্টিতে বন্যার পানি একাকার হওয়ায় পানি দূষিত হয়ে যায়। তবে প্রকৃত কারণ উদঘাটনে বৃহস্পতিবার আমাদের টিম হালদা নদী থেকে পানি সংগ্রহ করেছে। সেটা পরীক্ষার পর মাছ মরে যাওয়ার কারণ জানা যাবে। একে//
মেসি খাম্বার মতো স্থির ছিল

পুরো খেলাজুড়েই মেসি ছিলেন নিস্প্রভ। পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার ছিলেন মূর্তি হয়ে। যেখানে সবাই মেসির দিকে তাকিয়ে ছিলেন, সেখানেই মেসি নিস্প্রভ। আর্জেন্টাইন গণমাধ্যম মেসির এ নিস্প্রভতাকে খাম্বার সঙ্গে তুলনা করেছেন। আর্জেন্টিনার ফুটবল দলকে রীতিমতো ধুয়ে দিচ্ছে দেশটির গণমাধ্যম। আর্জেন্টাইন গণমাধ্যমগুলো এ ফলাফলকে আখ্যা দিয়েছেন প্রিয় মানুষের লাশের সঙ্গে। আর্জেন্টাইন গণমাধ্যম বলছে, এই ভার সহ্য করা যায় না। মেসির সমালোচনা করে দেশটির স্থানীয় টেলিভিশন ধারাভাষ্যকার ডিয়েগো লাতোররি বলেছেন, মেসি বৈদ্যুতিক খাম্বার মতো স্থির হয়ে ছিলেন। তাঁর পায়ে গতি ছিল না। পুরো ম্যাচে মেসি মনমরা হয়ে ছিলেন। ক্লারিন নামের একটি পত্রিকা লিখেছে, ‘ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে আর্জেন্টিনা বিপর্যয়ের শিকার হয়েছে।’ তারা লিখেছে, ‘আর্জেন্টিনা হতাশ করেছে এবং বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়ার পথে।’ এমজে/

 হজ এজেন্সির গাফিলতি পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা  : ধর্ম মন্ত্রণালয়

হজ এজেন্সিগুলোর গাফিলতির কারণে কোনও হজযাত্রী এবার হজে যেতে ব্যর্থ হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়েছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়। আজ বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিবৃতির মাধ্যমে এক কথা বলা হয়। বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, দোষত্রুটি থাকলে সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও উল্লেখ রয়েছে এতে।  আরও বলা হয়েছে , ‘সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার স্বার্থে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও সৌদি এয়ারলাইন্স যৌথভাবে হজ ফ্লাইটের সিডিউল ঘোষণা করে। সেই সিডিউল অনুযায়ী যেসব হজ এজেন্সি এখনও বিমান টিকিট ক্রয় করে ভিসা সংগ্রহের জন্য ঢাকার হজ অফিসে হজ যাত্রীদের পাসপোর্ট জমা করেনি, তাদের দ্রুত এ কাজ শেষ করে ঢাকার হজ অফিসকে নিশ্চিত করতে হবে। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব (হজ) এস. এম. মনিরুজ্জামান স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ‘এ বছর নির্ধারিত সিডিউলভুক্ত ফ্লাইটে হজযাত্রী পরিবহনে ব্যর্থ হলে সৌদি আরবে কোনও অবস্থাতেই অতিরিক্ত কোনও স্লট বরাদ্দ পাওয়া যাবে না।  টিআর/ এসএইচ/

‘বিশ্বকাপ চলাকালীন সারাদেশে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ থাকবে’

বিশ্বকাপ ফুটবল চলাকালে সারা দেশে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। একইসঙ্গে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে শতভাগ গ্রামে বিদ্যুৎসুবিধা পাবে বলেও জানান তিনি।  আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে মামুনুর রশীদ কিরণের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। প্রতিমন্ত্রী জানান, দেশে চাহিদার তুলনায় বিদ্যুতের উৎপাদনক্ষমতা বেশি থাকায় সাধারণত বিদ্যুৎ ঘাটতি থাকে না। তবে গ্রীষ্মকালে তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ায় এয়ারকন্ডিশনার ও ফ্যান লোড বেড়ে যাওয়ায়, সঞ্চালন ও বিতরণ নেটওয়ার্কের সীমাবদ্ধতা, গ্যাস সরবরাহের অপ্রতুলতা এবং রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য মাঝেমধ্যে বিদ্যুৎবিভ্রাট ঘটে। এই অবস্থায় বিশ্বকাপ ফুটবল চলাকালে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে সামগ্রিক বিদ্যুৎব্যবস্থা মনিটারিং করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। মুহিবুর রহমান মানিকের প্রশ্নের জবাবে নসরুল হামিদ জানান, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের আওতাধীন এলাকায় ইতিমধ্যে ৯০ শতাংশ গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছানো হয়েছে। অবশিষ্ট ১০ শতাংশ গ্রামে বিদ্যুতায়ন কাজ চলমান আছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে শতভাগ গ্রামে বিদ্যুৎতায়ন সম্ভব হবে বলে আশা করা যায়। হাজেরা খাতুনের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, সরকার সবার জন্য বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে ২০২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট ও ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনা নিয়েছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রাথমিক জ্বালানির সীমাবদ্ধতা রয়েছে। ফলে সরকারের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে জ্বালানি বহুমুখীকরণ (দেশিয় ও আমদানিকৃত কয়লা, গ্যাস ও এলএনজি, তরল জ্বালানি) ও বিদ্যুৎ আমদানির মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।  টিআর/এসএইচ/        

গাজীপুরের প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত (ভিডিও)

গাজীপুরে ভোটের দিন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে প্রচার-প্রচারণায় ভীষন ব্যস্ত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। সুষ্ঠু নির্বাচনে কমিশনকে সহযোগিতারও আশ্বাস দিয়েছেন প্রার্থীরা। এই আশ্বাসে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনে আরো বেশি আশাবাদী হয়েছেন নগরবাসী। ভোটাররা চান উন্নত-আধুনিক, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত নগরী। সেই প্রতিশ্র“তিও মিলছে দুই মেয়র প্রার্থীর কাছ থেকে। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। প্রচারণার ৪র্থ দিনেও নির্বাচন ঘিরে গাজীপুর এখন উৎসবের নগরী। তবে ভোটাররা তাদের ভবিষৎ মেয়রের কাছে রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, যানজট ও মাদক মুক্ত একটি সুন্দর নগরীর প্রত্যাশা করেন। মেয়র প্রার্থীরা ভোটারদের সমর্থন আদায়ে প্রতিশ্র“তির কার্পন্য করছেন না। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর দোষ ত্র“টি তুলে ধরতেও ভুল করছেন না। নির্বাচনে জয় পরাজয় থাকবে বিরোধীতাও থাকবে কিন্তু নগরীর উন্নয়নে সবাই এক হয়ে কাজ করবেন-এই প্রত্যাশা নগরবাসীর।

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি