ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ৪:১২:৪২

প্রশ্নপত্র ফাঁসে সংসদে ক্ষোভ, শিক্ষামন্ত্রীর বিবৃতি দাবি

প্রশ্নপত্র ফাঁসে সংসদে ক্ষোভ, শিক্ষামন্ত্রীর বিবৃতি দাবি

বিভিন্ন পরীক্ষায় ধারাবাহিকভাবে প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার ঘটনায় সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিরোধীদল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। বৃহস্পতিবার রাতে সংসদ অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, প্রাথমিকেও প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। এর সঙ্গে শিক্ষকরা জড়িত। এসব কাজে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে শিক্ষামন্ত্রী কী ব্যবস্থা নেবেন, তা জানতে চেয়ে সংসদে ৩০০ বিধিতে বিবৃতি দাবি করছি। জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি আরো বলেন, শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড, আলোকবর্তিকা। কিন্তু দেশের শিক্ষাব্যবস্থার কী করুণ অবস্থা, সেটা কি আমাদের জানা আছে? প্রাথমিক পরীক্ষা থেকে শুরু করে প্রতিটি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যাচ্ছে। এর চেয়ে দুঃখজনক আর কী হতে পারে। এটা হওয়ার কারণ কী? এর কারণ হচ্ছে শিক্ষা নিয়ে বাণিজ্য চলছে। কোচিং সেন্টার, নোট বই জমজমাটভাবে চলছে। তিনি হতাশা ব্যক্ত করে আরো বলেন, প্রাথমিক স্তরের একজন ছাত্র যদি নকল শেখে, তবে তারা জাতির জন্য কী করবে? এর থেকে আমরা মুক্তি পেতে চাই। একটি শিক্ষিত জাতি গঠন করতে না পারলে, এই জাতির স্তম্ভ ভেঙে পড়বে। পরীক্ষার এক ঘণ্টা আগে প্রশ্ন দেওয়া হয়, তারপরও প্রশ্ন ফাঁস হয়। এর কারণ, শিক্ষকরা ওই প্রশ্নের ছবি তুলে বাইরে পাঠায়, সঙ্গে সঙ্গে বাইরে থেকে প্রশ্নের উত্তর চলে আসে। কাজেই প্রযুক্তি একদিকে আমাদের কল্যাণ করছে, অন্যদিকে আমাদের জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। ডিডি/টিকে
শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় হবে নেত্রকোণায়

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে নেত্রকোণায় একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় আইনের খসড়া সংসদে উত্থাপন করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। মঙ্গলবার ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় বিল-২০১৭’ জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেন তিনি। বিলটি আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নামে নেত্রকোনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় বিল উত্থাপনের এক দিন আগেই (সোমবার) তাঁর মায়ের নামে জামালপুরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিল সংসদে পাস হয়েছে। বর্তমানে দেশে ৪০টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। নতুন দুটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হলে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা দাঁড়াবে ৪২টিতে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কারণ সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে অগ্রসরমান বিশ্বের সাথে সঙ্গতি ও সমতা অর্জন এবং জাতীয় পর্যায়ে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা, বিশেষ করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আধুনিক জ্ঞানচর্চা ও পঠন-পাঠনের সুযোগ সৃষ্টি করেছেন প্রধানমন্ত্রী।’ ‘তাছাড়া শিক্ষার সম্প্রসারণের নিমিত্তে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার আলোকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় হতে নেত্রকোণা জেলায় একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।’ শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘দেশে ও বিদেশে তথ্য প্রযুক্তি খাতে নতুন নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টি, কর্মসংস্থান সম্প্রসারণ করে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই দেশকে উন্নত দেশে রূপান্তর করার লক্ষ্যে ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ’ স্থাপন করা অতীব প্রয়োজন ও যুক্তিযুক্ত।’ এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে পটুয়াখালীর পায়রা নদীর তীরে এক হাজার ৫৩২ একর জমিতে একটি সেনানিবাস তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।   আর/টিকে

দুর্নীতি দমন কমিশনের ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয় প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও শান্তির পায়রা উড়িয়ে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এরপর দিবসটি উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় নাট্যশালায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ও ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টির সভাপতি ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন। দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন কমিশনার ড. নাসির উদ্দীন আহমেদ, কমিশনার এএফএম আমিনুল ইসলাম, সচিব ড. মো. শামসুল আরেফিন, মহাপরিচালক মো. জাফর ইকবাল। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন বলেন, `দেশে বাজার অর্থনীতি চালু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দুর্নীতিবাজ, লুটেরার সংখ্যা বেড়েছে। অর্থপাচার করে দুর্নীতিবাজরা দেশের অর্থনীতিকে দুর্বল করছে। রাষ্ট্রের সব অঙ্গ দুর্নীতিগ্রস্ত হলে শুধু দুদক এককভাবে দুর্নীতি দূর করতে পারবে না। দুর্নীতি অঙ্কুরে বিনাশ করতে হবে।` দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, `দুদকের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ দেশকে দুর্নীতি মুক্ত করা। তাই সম্মিলিতভাবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলতে হবে।` উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান আরও বলেন, `দেশের সাধারণ মানুষ, সুশীল সমাজ, সরকারি কর্মকর্তা, গণমাধ্যমসহ সকলকে সঙ্গে নিয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে গণজাগরণ সৃষ্টি করতে চাই। এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এটাই বড় প্রত্যাশা।` এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল—`সবাই মিলে গড়ব, দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ`। আলোচনা সভা শুরুর আগে চেয়ারম্যান সভায় উপস্থিত দুদকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্নীতিবিরোধী শপথবাক্য পাঠ করান। ঢাকাসহ সারাদেশে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার দিনভর দুদকের ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়। দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে ওইসব কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়। উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের ২১ নভেম্বর একজন চেয়ারম্যান ও দুইজন কমিশনারের যোগদানের মাধ্যমে দুর্নীতি দমন কমিশন প্রতিষ্ঠিত হয়। দুর্নীতি দমন কমিশন আইন-২০০৪ রাষ্ট্রপতির সম্মতি পায় ২০০৪ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি। দেশের দুর্নীতি দমন, নিয়ন্ত্রণ, প্রতিরোধ এবং সমাজে সততা ও নিষ্ঠাবোধ সৃষ্টির দায়িত্ব এ আইনের মাধ্যমে দুর্নীতি দমন কমিশনের ওপর অর্পণ করা হয়।   ডিডি/টিকে

পদ্মা সেতুর অগ্রগতি ৪৯ শতাংশ: ওবায়দুল

সড়ক পরিহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘প্রথম স্প্যান বসানোর সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, আমার জন্য পদ্মা সেতুর কাজ যেন এক দিনও বিলম্বিত না হয়। তারপরই পদ্মা সেতুর প্রথম স্প্যান বসানো হয়। আগামী ৫-১০ দিনে মধ্যে আরও দুটি স্প্যান বসানো হবে। পর্যায়ক্রমে ৪৮টি স্প্যান বসানো হবে। এরমধ্যে পদ্মা সেতুর সামগ্রিক অগ্রগতি ৪৯ শতাংশ। আমি মঙ্লবার সেনাবাহিনী ও ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে কাজের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা করেছি। তারা জানিয়েছেন ৪৯ পার্সেন্ট অগ্রগতি হয়েছে। আমাদের এপ্রোচ রোড শেষ হয়ে গেছে।’ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে নাভানা আক্তারের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব তথ্য জানান। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গত মাসে আমরা সাকসেসফুলি পদ্মাসেতুর পিলারের ওপর স্প্যান স্থাপনের ঐতিহাসিক মুহূর্তটি উপভোগ করেছি। নির্ধারিত সময়ে আমরা স্প্যানটি পিলারের ওপর ইনস্টল করতে পেরেছিলাম। প্রধানমন্ত্রী অসুস্থার কারণে সেদিন উপস্থিত থাকতে পারেননি। কিন্তু তার যে প্রজ্ঞা-ইচ্ছা তা সেদিন আরও একবার প্রমাণ হলো। সেদিন মূলত পদ্মাসেতুর কাজ ভিজিবল হয়েছে। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে বারবার অনুরোধ করেছিলাম, বলেছিলাম আপনি উপস্থিত থাকুন।’ কিন্তু তিনি বলেছিলেন, আমার জন্য পদ্মা সেতুর কাজ যেন এক দিনও বিলম্বিত না হয়। সেদিন প্রথম স্প্যান উঠানো হয়েছে। পর্যায়ক্রমে ৪৮টি স্প্যান যা বসানো হবে। এসএইচ/

মুক্তিযোদ্ধার ন্যূনতম বয়সের গেজেট কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

মুক্তিযোদ্ধাদের নতুন করে অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ তারিখে ন্যূনতম ১৩ বছর হতে হবে শর্ত দিয়ে সরকারের জারি করা গেজেটের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে রুল জারি করেছে উচ্চ আদালত। গত বছরের ১০ নভেম্বর মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের জারি করা এ সংক্রান্ত গেজেট কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে। এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার বিচারপতি কাজী রেজাউল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল দেয়।আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ কে এম ফজলুল করিম ও ব্যারিস্টার এ বি এম আলতাফ হোসেন। রিট আবেদনটি দায়ের করেন উপ-হিসাব মহানিয়ন্ত্রক (পদ্ধতি) খন্দকার সহিদুল ইসলাম। বর্তমানে তিনি রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের প্রধান হিসাব কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত।গত বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি অতিরিক্ত উপ-মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক (প্রশাসন) থেকে সহিদুল ইসলামকে দেওয়া এক চিঠিতে বলা হয়, মুক্তিযোদ্ধা দাবির স্বপক্ষে কাগজপত্রের সত্যতা না পাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আপনাকে প্রত্যয়ন করা যায়নি। এ চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেই পরে হাইকোর্টে রিট করেন সহিদুল ইসলাম।আবেদনে বলা হয়, ভারতীয় তালিকায় এবং লাল মুক্তি বার্তায় মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তার নাম রয়েছে। ১৯৮১ সালের ২৩ মার্চ মুক্তিযোদ্ধা কোটায় অডিটর পদে চাকরিতে নিয়োগও দেওয়া হয় তাকে।গত বছরের ১০ নভেম্বর ‘মুক্তিযোদ্ধার সংজ্ঞা ও বয়স নির্ধারণ’ করে গেজেট জারি করে সরকার। ওই গেজেটে বলা হয়, ‘মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে নতুনভাবে অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ তারিখে রয়স ন্যূনতম ১৩ বছর হতে হবে।’পরে সহিদুল ইসলাম ওই রিটে এ গেজেটের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আরেকটি সম্পূরক আবেদন করেন। আবেদনে বলা হয়, মুক্তিযুদ্ধের সময় তার ১৩ বছর না হওয়ার কারণে তাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গণ্য করছে না অডিটর অফিস।আলতাফ হোসেন বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের বয়স নির্ধারণ করে গত বছর সরকার যে গেজেট জারি করেছিল, হাইকোর্ট সেই গেজেটের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে রুল জারি করেছে।একইসঙ্গে গত বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি সহিদুল ইসলামকে অতিরিক্ত উপ মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের (প্রশাসন) দেওয়া চিঠির কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছে।মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের সচিব, জনপ্রশাসন সচিব, কম্পট্রোলার ও অডিটর জেনারেল এবং জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের মহাপরিচালকসহ আটজনকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।এসএইচ/

ভাতা পেতে যাচ্ছেন মুক্তিযুদ্ধের পর বাহিনীতে ফেরা সদস্যরাও

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের পর স্বাধীন বাংলাদেশের বিভিন্ন বাহিনীতে যোগ দেওয়া সামরিক সদস্যরাও ভাতা পাবেন। সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষ্যে আজ মঙ্গলবার ঢাকা সেনানিবাসে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেনানিবাসের আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের উত্তরাধীকারীদের জন্য আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী জানান, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকেই এ ভাতা প্রযোজ্য হবে। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে ততকালীন পাকিস্তান সশস্ত্র বাহিনী, ইস্ট পাকিস্তান রাইফেলসসহ (ইপিআর) পাকিস্তানের বিভিন্ন বাহিনীতে কর্মরত বাঙ্গালী সদস্যরাও বাংলাদেশের হয়ে যুদ্ধে অংশ নেন। ১৬ ডিসেম্বর দেশ স্বাধীনের পর বাংলাদেশ সরকারের অধীন বিভিন্ন বাহিনীতে তারা যোগদান করেন। কিন্তু বাকি মুক্তিযোদ্ধারা নির্দিষ্ট হারে ভাতা পেলেও, ভাতা পাচ্ছিলেন না নিয়মিত বাহিনীতে থাকা এসব মুক্তিযোদ্ধারা।

ঘোড়ামারা আজিজের মামলার রায় কাল

মুক্তিযুদ্ধের সময় গণহত্যা, হত্যা, আটক, অপহরণ, লুণ্ঠন ও নির্যাতনের তিনটি ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গাইবান্ধার সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল আজিজ বা ঘোড়ামারা আজিজের বিরুদ্ধে মামলার রায় আগামীকাল বুধবার। আজ মঙ্গলবার বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল মামলার রায়ের জন্য এ দিন নির্ধারণ করে।   এর আগে প্রসিকিউশন ও আসামিপক্ষের দ্বিতীয় দফা ‍যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে ২৩ অক্টোবর মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমান (সিএভি) রাখা হয়েছিল। ২০১০ সালে ট্রাইব্যুনাল গঠনের মধ্য দিয়ে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরুর পর এটি হবে ২৯তম রায়। এ মামলায় অন্য আসামীরা হলেন- মো. রুহুল আমিন ওরফে মঞ্জু (৬১), মো.আব্দুল লতিফ (৬১), আবু মুসলিম মোহাম্মদ আলী (৫৯), মো. নাজমুল হুদা (৬০) ও মো. আব্দুর রহিম মিঞা (৬২)। অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে গতবছর ২৮ জুন এই ছয় আসামির বিচার শুরু করে আদালত। এদের মধ্যে আব্দুল লতিফ ছাড়া সবাই পলাতক। এর আগে ৯ মে রায়টি হওয়ার কথা থাকলেও জন্য বিচারপতি আনোয়ারুল হকের মৃত্যুতে মামলাটির কার্যক্রম থমকে যায়। তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনালে বিচারপতি হক ছিলেন প্রধান। পরবর্তীতে বিচারপতি শাহিনুরকে চেয়ারম্যান করে ট্রাইব্যুনাল পুনর্গঠন করা হয়। বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দী ট্রাইব্যুনাল থেকে হাই কোর্টে ফিরে যান। তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনালে নতুন যুক্ত হন বিচারপতি আমির হোসেন ও আবু আহমেদ জমাদার। ট্রাইব্যুনাল পুনর্গঠন হওয়ায় বিচারকরা রায় দেওয়ার আগে আবারও এ মামলার যুক্তিতর্ক শোনার সিদ্ধান্ত দেন গত ১২ অক্টোবর। সে অনুযায়ী ২২ অক্টোবর নতুন করে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু হয়। দুই দিন শুনানির পর মামলাটি আবারও রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখা হয়।   প্রসিকিউশনের পক্ষে যুক্তিতর্কের শুনানি করেন সায়েদুল হক সুমন ও সৈয়দ হায়দার আলী। তাদের সঙ্গে ছিলেন প্রসিকিউটর শেখমুশফিক কবির। অন্যদিকে আসামিদের মধ্যে লতিফের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন খন্দকার রেজাউল এবং পলাতক আসামিদের পক্ষে রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী গাজী এমএইচ তামিম যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। আজিজসহ গাইবান্ধার এই ছয় জনের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগের তদন্ত শুরু হয় ২০১৪ সালের ২৬ অক্টোবর। এক বছরের বেশি সময় তদন্তের পর ছয় খণ্ডে ৮৭৮ পৃষ্ঠার চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেন তদন্ত কর্মকর্তা, যাতে ২৫ জনকে সাক্ষী করা হয়। তদন্ত সংস্থা ২০১৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর ওই প্রতিবেদন চূড়ান্ত করলে প্রসিকিউশন শাখা আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল করে। এর ওপর শুনানি নিয়ে ট্রাইব্যুনাল গতবছর জুনে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। এর আগে ছয় আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য ২০১৫ সালের ২৬ নভেম্বর পরোয়ানা জারি করে ট্রাইব্যুনাল। কিন্তু পাঁচজনকে গ্রেফতার করা সম্ভব না হওয়ায় তাদের পলাতক দেখিয়েই এ মামলার কার্যক্রম চলে।  তদন্ত সংস্থা বলছে, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ৯ থেকে ১৩ অক্টোবর বর্তমান গাইবান্ধা সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘটান আসামিরা। / এআর /

সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া আজ সকালে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। শুভেচ্ছা বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে সর্বাত্মক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে সরকার। বাণীতে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন,  সশস্ত্র বাহিনীর প্রতিটি সদস্য দেশপ্রেম, পেশাদারিত্ব এবং উন্নত নৈতিকতার আদর্শে স্ব স্ব দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করে যাবেন । প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতার সার্বিক নির্দেশনায় ১৯৭৪ সালে প্রণীত হয় জাতীয় প্রতিরক্ষা নীতি। এই নীতির আলোকে বর্তমান সরকার ‘ফোর্সেস গোল-২০৩০’ প্রণয়ন করেছে। তিনি আরও বলেন, এছাড়া পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সশস্ত্র বাহিনী দুর্যোগ মোকাবিলা, অবকাঠামো নির্মাণ, আর্তমানবতার সেবা, বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা এবং দেশ গঠনমূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করছে। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালে ২১ নভেম্বর দেশপ্রেমিক জনতা, মুক্তিবাহিনী, সশস্ত্র বাহিনী ও বিভিন্ন আধাসামরিক বাহিনীর সদস্যরা দখলদার পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে আক্রমণ করেন। সম্মিলিত আক্রমণের ফলে ১৬ ডিসেম্বর দখলদার পাকিস্তানি বাহিনীর আত্মসমর্পণের মাধ্যমে চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি জাতির অগ্রযাত্রা ও বিজয়ের স্মারক হিসেবে প্রতিবছর ২১ নভেম্বর ‘সশস্ত্র বাহিনী দিবস’ পালন করা হয়।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সারা বাঙালি জাতি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। তাঁর দূরদর্শিতা, সাহস, ন্যায়ের প্রতি অবিচল আস্থা এবং ঐন্দ্রজালিক নেতৃত্বে বাঙালি জাতি পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতার রক্তিম সূর্য। বাংলাদেশের মুক্তিযদ্ধে জীবন দেওয়া সব শহীদ ও সশস্ত্র বাহিনীতে কাজ করতে ‍গিয়ে নিহত সকল শহীদদেরও স্মরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাধীনতার পর যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পুনর্গঠনের পাশাপাশি জাতির পিতা একটি আধুনিক ও চৌকস সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলার কাজ শুরু করেন। সেনাবাহিনীর জন্য তিনি মিলিটারি একাডেমি, কম্বাইন্ড আর্মড স্কুল ও প্রতিটি কোরের জন্য ট্রেনিং স্কুলসহ আরো অনেক সামরিক প্রতিষ্ঠান এবং ইউনিট গঠন করেন। তিনি চট্টগ্রামে বাংলাদেশ নৌবাহিনী ঘাঁটি ঈশা খাঁ উদ্বোধন করেন। বঙ্গবন্ধুর ব্যক্তিগত উদ্যোগে তৎকালীন যুগোশ্লাভিয়া থেকে নৌবাহিনীর জন্য দুটি জাহাজ সংগ্রহ করেন। যেগুলো প্রায় ৪০ বছর পর আজও চালু আছে। একইভাবে বিমানবাহিনীর জন্য বঙ্গবন্ধু তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে সুপারসনিক মিগ-২১ জঙ্গি বিমানসহ হেলিকপ্টার, পরিবহন বিমান ও রাডার সংগ্রহ করেন। / এআর /

শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন

সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মত্যাগকারী সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আজ মঙ্গলবার সকাল ৮টায় রাষ্ট্রপতি ও সোয়া ৮টায় প্রধানমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক, নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ এবং বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল আবু এসরার নিজ নিজ বাহিনীর পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। প্রধানমন্ত্রী আজ ঢাকা সেনানিবাসে আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে বীরশ্রেষ্ঠদের উত্তরাধিকারী এবং নির্বাচিত সংখ্যক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা জানাবেন।

গাজীপুর ও রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ আইন চূড়ান্ত অনুমোদন

গাজীপুর ও রংপুর সিটি করপোরেশনের জন্য মহানগর (মেট্রোপলিটন) পুলিশ গঠনের জন্য চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। আজ সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘গাজীপুর মহানগরী পুলিশ আইন, ২০১৭’ ও ‘রংপুর মহানগরী পুলিশ আইন, ২০১৭’ এর খসড়া অনুমোদন দেয়া হয়। সভায় সভাপত্বি করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এ তথ্য জানান। এর আগে ২০১৫ সালের ৭ ডিসেম্বর আইনের খসড়া দুটি নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছিল। তিনি বলেন, বরিশাল ও সিলেটসহ অন্যান্য মেট্রোপলিটন আইনগুলোর মতোই আইন দুটি। এ আইনে নতুন কিছু নেই। হাতিরঝিল নতুন থানা: রাজধানী হাতিরঝিল এলাকায় নতুন থানা স্থাপনের প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার)। নিকার‘র আহ্বায়ক ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে কমিটি এ অনুমোদন দেয়। শফিউল আলম বলেন, প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার) হাতিরঝিল এলাকায় নতুন থানা স্থাপনের প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে। একই সঙ্গে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ থানাকে উপজেলায় উন্নীত করা হয়েছে।   আর/টিকে

সাড়ে তিন লাখ শূন্য পদ পূরণে সরকারের উদ্যোগ

সরকারি অফিস, মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরসমূহে শূন্য পদ পূরণের লক্ষ্যে সরকার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক। সোমবার সংসদে সরকারি দলের সংসদ সদস্য মোরশেদ আলমের এক তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের পক্ষে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন। ইসমাত আরা সাদেক বলেন, বর্তমানে দেশের সরকারি অফিস, মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরসমূহে শূন্য পদ সংখ্যা তিন লাখ ৫৯ হাজার ২৬১টি।  গোলাম দস্তগীর গাজীর অপর এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে ইসমাত আরা সাদেক বলেন, ১ম শ্রেণিতে (৯ম থেকে তদূর্ধ্ব) শূন্য পদের সংখ্যা ৪৮ হাজার ২৪৬টি, ২য় শ্রেণিতে (১০ থেকে ১২তম গ্রেড) শূন্য পদের সংখ্যা ৫৪ হাজার ২৯৪টি, ৩য় শ্রেণিতে (১৩ থেকে ১৭তম গ্রেড) শূন্য পদের সংখ্যা এক লাখ ৮২ হাজার ৭৩৭টি এবং ৪র্থ শ্রেণিতে (১৮ থেকে ২০তম গ্রেড) শূন্য পদের সংখ্যা ৭৩ হাজার ৯৮৪টি। মোট তিন লাখ ৫৮ হাজার ৫২৪টি পদ শূন্য রয়েছে। সংসদে তিনি বলেন, শূন্য পদে লোক নিয়োগ একটি চলমান প্রক্রিয়া। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ এবং এর অধীন সংস্থাসমূহের চাহিদার প্রেক্ষিতে সরকারি কর্ম কমিশনের মাধ্যমে ৮ম, ৯ম ও ১০ থেকে ১২ম গ্রেডের শূন্য পদে জনবল নিয়োগ করা হয়ে থাকে। ১৩ থেকে ২০ গ্রেডের (৩য় ও ৪র্থ শ্রেণী) পদে নিজ নিজ মন্ত্রণালয়, বিভাগ দপ্তর ও সংস্থা তাদের নিয়োগ বিধি অনুযায়ী নিয়োগ দিয়ে থাকে। সূত্র: বাসস।   আর/এসএইচ

প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন চাই : ওবায়দুল

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করুক সরকার এটা আন্তরিকভাবে চায়। কারণ আমরা ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চাই না। একটি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন চাই। সোমবার বিকেলে ফেনীর মহিপাল ফ্লাইওভার পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। সেতুমন্ত্রী বলেন, বেগম জিয়ার দুর্নীতির মামলা বিচারাধীন। এখনও রায় হয়নি, তাহলে বিএনপি নেতারা কী করে বলেন তাকে কারাগারে পাঠানো হবে। অতীতের ভুলের পুনরাবৃত্তি না ঘটিয়ে বিএনপি আগামী নির্বাচনে আসবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।তিনি আরও বলেন, দেশের সর্ববৃহৎ ফেনীর মহিপাল ফ্লাইওভার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন। ফেনীতে এসে উদ্বোধন করার ব্যাপারেও প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহ রয়েছে।এ সময় ফ্লাইওভার প্রকল্প পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল একেএম রেজাউল ছাড়াও প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এসএইচ/

সিটি হচ্ছে ময়মনসিংহ

দেশের দ্বাদশ সিটি কর্পোরেশন হচ্ছে ময়মনসিংহ। আজ সোমবার প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার) এ সিদ্ধান্ত নেয়। ময়মনসিংহ পৌরসভাকে সিটি করপোরেশনে রূপান্তরের জন্য প্রস্তাব তৈরির অনুশাসন দেয় নিকার। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে নিকার আহ্বায়ক ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে ওই নির্দেশনা দেওয়া হয়। মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বৈঠক শৈষে সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে শফিউল আলম বলেন, দেশের অষ্টম বিভাগ হিসাবে যাত্রা শুরু করা ময়মনসিংহ পৌরসভার সীমানা সম্প্রসারণের প্রস্তাব নিকারের বৈঠকে তোলা হলে তা অনুমোদন দেওয়া হয়। তিনি বলেন, ময়মনসিংহ ইতিমধ্যে বিভাগীয় সদরদফতর হয়ে গেছে, তাই এটাকে সিটি করপোরেশন করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সচিব বলেন, ময়মনসিংহ পৌরসভা সিটি করপোরেশনে রূপান্তরিত হবে। তিনি বলেন, বিভাগীয় সদরের পৌরসভা সিটি করপোরেশন হওয়া একটা নিয়ম। তাই ময়মনসিংহ পৌরসভা-ই সিটি করপোরেশনে রূপান্তরিত হবে। এর আগে গত ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোণা জেলা নিয়ে দেশের অষ্টম বিভাগ গঠনের প্রস্তাব অনুমোদন দেয় নিকার। একই বছরের ১৪ অক্টোবর সরকার ময়মনসিংহ বিভাগ গঠন করে গেজেট প্রকাশ করে। সরকারের নির্দেশনার বাস্তবায়ন হলে ঢাকার দুটি, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, কুমিল্লা, নারায়ণগঞ্জ, রংপুর, গাজীপুরের পর ময়মনসিংহ হবে দেশের দ্বাদশ সিটি করপোরেশন।   / আর / এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি