ঢাকা, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০:১৯:১৮

কক্সবাজারে ৩৪ কোটি টাকার ইয়াবা জব্দ

কক্সবাজারে ৩৪ কোটি টাকার ইয়াবা জব্দ

কক্সবাজারের টেকনাফে খুরেরমুখ এলাকা থেকে ১১ লাখ ২০ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। বৃহস্পতিবার সকালে অভিযান চালিয়ে এসব ইয়াবা জব্দ করা হয় বলে জানিয়েছে বিজিবি। জব্দ করা এসব ইয়াবার বাজার মূল্য প্রায় ৩৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা। বিজিবি সূত্রে জানা গেছে, টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের নাজিরপাড়া বিওপির হাবিলদার মো. দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একটি দল কাটাবনিয়ায় টহল দেওয়ার সময় খুরেরমুখ শশান ঘাট এলাকা দিয়ে ৫-৬ জনকে বস্তা মাথায় আসতে দেখে চ্যালেঞ্জ করে। এ সময় বস্তা ফেলে পালিয়ে যায় তারা। পরে বিজিবি সদস্যরা বস্তাগুলো উদ্ধার করে। উদ্ধার হওয়া এসব ইয়াবা পরবর্তীতে প্রকাশ্যে ধ্বংস করার হবে বলে জানিয়েছেন বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল এসএম আরিফুল ইসলাম। একে// এআর
চাঁপাইয়ে ৩৮৮০ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানাধীন নতুন আলীডাঙ্গা গ্রামে অভিযান চালিয়ে ৩৮৮০ পিছ নিষিদ্ধ ইয়াবা ট্যাবলেট, ১টি মোবাইল ফোন ও নগদ ১০,০০০ টাকাসহ এক শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-৫। বুধবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। আটক ব্যক্তির নাম মোঃ আব্দুল জলিল (২৬)। তিনি শিবগঞ্জ থানার চরপাকা দশরশিয় গ্রামের মো. রজবুল হকের ছেলে। র‌্যাব-৫ জানিয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের একটি অপারেশন দল জানতে পারে জেলার শিবগঞ্জ থানাধীন নতুন আলীডাঙ্গা গ্রামের কারবালা টু তক্তিপুর শ্মশানঘাটগামী পাকা রাস্তার পশ্চিম পার্শ্বে একটি আম বাগানের ভিতরে একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী নিষিদ্ধ মাদক সর্বনাশা ইয়াবা ট্যাবলেট অবৈধভাবে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। ওই সংবাদের ভিত্তিতে উক্ত মাদক ব্যবসায়ী’কে হাতেনাতে আটক করার লক্ষ্যে র‌্যাবের অপারেশন দল কোম্পানী কমান্ডার এর নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সন্ধ্যার দিকে ৩৮৮০ পিছ নিষিদ্ধ ইয়াবা ট্যাবলেট (মূল্য প্রায় ১১ লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা), ১টি মোবাইল ফোন, ১টি সিম কার্ড ও মাদক বিক্রয়লব্ধ নগদ-১০,০০০টাকা সহ ওই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। র‌্যাব আরও জানায়, উক্ত মাদক ব্যবসায়ী একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী চক্রের সদস্য এবং দীর্ঘদিন যাবৎ ইয়াবা সহ বিভিন্ন ধরনের মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। উপরোক্ত ঘটনার ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। বিজ্ঞপ্তি। একে// এআর

গোপালগঞ্জের কয়েক হাজার একর জমি ৩০ বছর ধরে অনাবাদি

দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে অনাবাদী গোপালগঞ্জের কাজুলিয়া বিলের কয়েক হাজার একর জমি। জলাবদ্ধতার কারণে এসব জমিতে চাষাবাদ করতে পারছেন না কৃষকরা। তবে বিলের পানি নিষ্কাশন করে আবারো সোনালী ফসল ফলানো সম্ভব বলে মনে করছেন এলাকাবাসী। ১৯৮৮ সালের বন্যার পর বিপাকে পড়েন গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার কাজুলিয়া বিলের ভূমি মালিকরা। বিল থেকে বর্ষার পানি না সরে বরং স্থায়ী হওয়ায় এটি পরিণত হয়েছে অনাবাদি জমিতে।  কাজুলিয়া বিলের আশপাশে রয়েছে ৬টি বড় খাল। জমে থাকা পানি এসব খালে চলে যাওয়ার কথা থাকলেও তা হচ্ছে না। উপরন্তু বড় ঘাস জন্মানোয় তা পরিষ্কার করাও দু:সাধ্য হয়ে পড়েছে। এদিকে সুষ্ঠু খননের মাধমে কাজুলিয়া বিলের স্থায়ী জলাবদ্ধতা দূর করা সম্ভব বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।এছাড়া নতুন প্রকল্প হাতে নিয়ে আগামী বছর এ খাতে বরাদ্দের আশ্বাস দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। কাজুলিয়া বিলের জলাবদ্ধতা দূর করে এখানকার জমি চাষযোগ্য করতে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি এলাকাবাসীর।/ এআর /

হবিগঞ্জে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

হবিগঞ্জ শহরের কামড়াপুরে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে ছুরিকাঘাতে রাসেল মিয়া (২৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় সূত্র। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত রাসেল বানিয়াচং উপজেলার নয়াপাথারিয়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত লাল মিয়ার ছেলে বলে জানা গেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পাওনা টাকা নিয়ে রাসেল এবং সোহাগের মধ্যে কিছুদিন ধরে বিরোধ চলছিল। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় শহরের কামড়াপুরে খোয়াই নদীর এমএ রব ব্রিজ এলাকায় বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ার এক পর্যায়ে তারা উত্তেজিত হয়ে একে অপরকে ছুরিকাঘাত করেন। এতে উভয়েই গুরুতর আহত হলে তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে রাসেল মিয়া মারা যান। হবিগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়াছিনুল হক জানান, রাসেল এবং আহত সোহাগ দুজনই মাদকাসক্ত। তাদের মধ্যে লেনদেন বা অন্য কিছু নিয়ে হয়তো বিরোধ চলছিল। আর এর জের ধরেই এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে। তবে প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে চেষ্টা চলছে। এছাড়া আহত সোহাগের বিরুদ্ধে সদর থানায় ২/৩টা মামলা রয়েছে বলে জানান ইয়াছিনুল হক। একে/

ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাল সন্দ্বীপ ফ্রেন্ডস সার্কেল অ্যাসোসিয়েশ

উঠো, জাগো এবং শ্রেয়কে বরণ করো এই মন্ত্রে দীক্ষিত সন্দ্বীপ ফ্রেন্ডস সার্কেল অ্যাসোসিয়েশন একুশে ফ্রেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে। বুধবার  সকাল সাড়ে ৬টায় সংগঠনের সদস্যরা কালো ব্যাচ ধারণ করে একুশের প্রভাতফরিতে অংশ নেয়। এ সময় একুশের চেতনাদীপ্ত শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে  সন্দ্বীপ উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ। সকলের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে সকাল ৭ টায় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা বলেন, ``যথাযোগ্য মর্যাদায় সারাদেশে অমর একুশে ফ্রেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস পালিত হয়েছে। উপজেলায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে শিক্ষার্থীরা প্রভাতফেরিতে অংশ নিয়েছে। যদিও আজ আমাদের শোকের দিন।১৯৫২ সালের এই দিনে বাঙালি জাতি কিছু শ্রেষ্ঠ সন্তানদের হারিয়েছিল। কিন্তু এটাই আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের এবং আনন্দের যে এই ত্যাগের বিনিময়ে আমাদের মায়ের ভাষায় কথা বলার অধিকার অর্জন করেছি। বাংলাকে মাতৃভাষার অধিকার হিসেবে পেয়েছি।এই দিনের তাৎপর্য অনুধাবন করে ফ্রেন্ডস সার্কেলের তরুণরা যেকোন অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে সজাগ থাকবে এই প্রত্যাশা করছি।`` উপজেলা চেয়ারম্যান মাস্টার শাহজাহান বি.এ বলেন, `` ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আমাদের জাতীয় জীবনে একটি প্রেরণার দিন। নতুন করে শপথ নেওয়ার দিন। পাকিস্থানিদের বিরুদ্ধে এই বিশাল অর্জনের পিছনে ছিল বাঙালির প্রাণ বিসর্জন দেওয়ার ঘটনা পৃথিবীতে বিরল। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে সেই মহান ভাষা সৈনিকদের প্রতি  বিনম্র শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। এই দিনকে কেন্দ্র করে তরুণ প্রজন্মের  এমন আয়োজন অনন্য একটি  মাত্রা যোগ করেছে। সন্দ্বীপের তরুণ প্রজন্মকে বায়ান্ন ও একাত্তরের চেতনায় সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে  স সংগঠনটির দারুণ ভূমিকা রাখছে। সন্দ্বীপ শিল্পকলা একাডেমীর সভাপতি  মাষ্টার আবুল কাশেম শিল্পী বলেন,সন্দ্বীপের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সন্দ্বীপ ফ্রেন্ডস সার্কেল অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও প্রভাতফেরির মাধ্যমে ভাষা দিবস উৎযাপনে অনেকের মত আমিও সামিল হয়েছি। সংগঠনটি সন্দ্বীপের  কিশোর- তরুণ- নওজোয়ানদের সুস্থ প্রতিভা ও সাংস্কৃতিক চর্চার বিকাশে, দেশপ্রেমের চেতনায় উদজীবিত করার ক্ষেত্রে অত্যন্ত বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখছে। আমি তাদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। আমাদের ভাষা, কৃষ্টি,ও সংস্কৃতি লালন এবং বিকাশের ক্ষেত্রে আগামীতেও সংগঠনটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করি। একুশের পুষ্পস্তবক অর্পণের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল হুদা,পৌর মেয়র জাফর উল্ল্যাহ টিটু, শিক্ষা কর্মকর্তা মাঈন উদ্দিন, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মাষ্টার আবুল কাশেম শিল্পী,কবি নীলান্জন বিদ্যুৎ,কাজী মোশাররফ হোসেন জসিম,সাংবাদিক ইলিয়াস কামাল বাবু,আবু নাসের পেলিস্যা। সংগঠনের সহ-সভাপতি রিধোয়ানুল বারী,সমন্বয়ক- সন্জয় মজুমদার,প্রচার সম্পাদক মাহমুদুল হাসান,মিডিয়া বিষয়ক সম্পাদক মিলাদ হোসেন,এবি কলেজ সমন্বয়ক- জাবেদ হোসেন,সম্পদ চক্রবর্তী,শ্যামল মজুমদার। এবি কলেজ সভাপতি হায়দার গাজী,সহ-সভাপতি জিহাদ হোসেন,সাধারন সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন সাজু,সাংগঠনিক সম্পাদক-সাখাওয়াত হোসেন ফাহিম,সহ-সাংগঠনিক ফয়সাল হোসেন, মোহাম্মদ রকি, কামরুল হাসান বিপ্লব, কানাই দেব শুভ, জুয়েল মজুমদার, অরিন মজুমদার, আবদুর রহিম শাকিল, মোহাম্মদ আকরাম,ফজলে রাব্বী, মোহাম্মদ মাসুম, নাইমুল ইসলাম নীরব,সজীব মজুমদার,জহিরুল ইসলাম,মারুফ আবরার, মোহাম্মদ পারভেজ, নাঈম উদ্দিন। এম আর কলেজ সভাপতি সালাউদ্দিন জিসান, সাধারণ সম্পাদক সৌমিএ সৌরভ,সাংগঠনিক সম্পাদক আবেদ হোসেন রানা,শাকিল পাটোয়ারি, প্রমুখ। কেআই/টিকে

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে নজিরিয়া নঈমিয়া মাদ্রাসায় আলোচনা সভা

অমর একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রামের নজিরিয়া নঈমিয়া মাহমুদিয়া ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে। বুধবার প্রথম প্রহরে সম্মিলিত ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সংগীত এরমধ্যে দিয়ে আলোচনা সভা শুরু হয়। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ‘মাতৃভাষা আন্দোলন আমাদের স্বাধিকারের প্রথম আন্দোলন। এ আন্দোলনই স্বাধীনতার পথ দেখিয়েছে। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন বাঙালিদের শিখিয়েছে কিভাবে অন্যায়ের বিরুদ্ধে মাথা উচু করে দাঁড়াতে হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক মোহাম্মদ ফিরোজ  । বক্তৃতা কালে একুশের চেতনা নতুন প্রজন্মের কাছে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের বাংলা ভাষা নিয়ে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান করারও আহ্বান জানান। নজিরিয়া নঈমিয়া মাহমুদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আল্লামা হাফেজ মহিউল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন অত্র মাদ্রাসার উপ অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল মুমেন আনোয়ারী, প্রভাষক হাসনা আফরোজ, প্রভাষক বাংলা ইয়াছমিন আকতার, প্রভাষক তৈয়্যবা বেগম,   এমএইচ/টিকে

একুশের আলপনায় সড়ক রাঙালো র্অধশত অটিস্টিক শিশু

অনাথ ও অটিস্টিক শিশুরা সমাজের বোঝা নয়, বরং তারাও এদেশের নাগরিক, সমাজের অংশ এবং সম্পদ। আলপনায় সড়ক রঙিন করে সিলেটে প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছে এমন র্অধশত অটিস্টিক শিশু। মহান একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে সিলেটের বাগবাড়ি সমাজকল্যাণ কমপ্লেক্সের ভিতরে প্রায় এক কিলোমিটার পাকা রাস্তাজুড়ে আলপনায় রঙিন করে দিয়েছে এসব শিশুরা। অনাথ ও অটিস্টিক শিশুদের উদ্যমী এই কর্মকাণ্ডকে উৎসাহ দিতে এই কাজে অর্থায়ন করেন সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. রাহাত আনোয়ার। সিলেট জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে ইনক্লুসিভ স্কুলে অধ্যয়নরত ৪০ জন অনাথ ছাত্র এবং সিলেট আর্ট  এন্ড অটিস্টিক স্কুলের ১০ জনসহ মোট ৫০ জন ছাত্র এ আলপনা আঁকায় অংশ নেয়। আলপনা  আঁকার সার্বিক  দিক  নির্দেশনায় ছিলেন সিলেট আর্ট এন্ড অটিস্টিক স্কুলে সদস্য সচিব তুলি শিল্পী ইসমাইল গনি হিমন। মঙ্গলবার বিকেলে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার। এ সময় তিনি আলপনা আঁকা পুরো রাস্তাটি ঘুরে দেখেন এবং আলপনা আঁকার সাথে সম্পৃক্ত অনাথ ও অটিস্টিক শিশুদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগ সমাজসেবা কার্যালয়ের পরিচালক সৈয়দা ফেরদৌস আক্তার, সিলেটের  অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. শহিদুল ইসলাম, সিলেট  জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের  উপ-পরচিালক নিবাস  রঞ্জন দাস। কেআই/টিকে

বোয়ালখালীতে খেলাঘরের বর্ণমালার মিছিল

আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান শহিদ দিবস উপলক্ষে খেলাঘর বোয়ালখালী উপজেলা কমিটির উদ্যোগে বর্ণমালার মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে রং বেরঙের বর্ণমালায় সজ্জিত মিছিল উপজেলা সদরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে শেষ হয়। পরে শহিদ মিনারকে বর্ণমালায় সজ্জিত করে খেলাঘরের সদস্যরা। বর্ণমালায় মিছিলে বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল করিম বাবুল, খেলাঘর বোয়ালখালী উপজেলা কমিটির সভাপতি আবুল ফজল বাবুল, খেলাঘর সংগঠক ডা. মিহির বরণ বড়ুয়া, দিশারী খেলাঘর আসরের উপদেষ্ঠা শাহ আলম বাবলু, আসরের সাধারণ সম্পাদক শ্রীচরণ বিশ্বাস, সম্পাদক প্রবীর শীল, হায়দার ওসমান সায়মন, মোস্তফা ওসমান সিফাত, তিথি বিশ্বাস, সানজিদা আকতার লিজা, এ কে এম মিজবাহ উদ্দিন জয়, রাজিয়া সুলতানা,জয় চৌধুরী, অন্তু ধর, হামিম বিন তাহের অভি, ঐশী দে, পিউ চক্রবর্তী, ফারিহা নঈম ঐশী।বিজ্ঞপ্তি আরকে/টিকে

চট্টগ্রামে এম, ওয়াহিদ উল্লাহ’র মাতার ইন্তেকাল

দৈনিক আজাদী‘র ঢাকা ব্যুরো প্রধান, চিটাগাং জার্নালিষ্ট ফোরাম ঢাকার সাবেক সভাপতি, ঢাকা প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা চট্টগ্রাম অঞ্চলের সাধারণ সম্পাদক এবং চট্টগ্রাম সমিতি ঢাকার প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এম, ওয়াহিদ উল্লাহ এর মাতা মাকসুদা খাতুন ( ৮৯ ) ইন্তেকাল করেছেন ( ইন্নালিল্লাহি ..... রাজিউন )। আজ বুধবার সকালে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশস্থ ডেল্টা হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেছেন। তিনি ডেল্টা হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। পরিবার সূত্র জানায়, তিনি কিছুদিন বার্ধ্যক্যজনিত পীড়ায় অসুস্থতায় ভুগছিলেন। চট্টগ্রামের চন্দনপুরা নিবাসী মরহুম এ, এইচ, এম, আব্দুল বাকী’র (সাবেক ই,পি,সি,এস) স্ত্রী এবং ঢাকা কলেজ ও চট্টগ্রাম কলেজের আরবি ও ফার্সি বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান, চাঁদপুর জেলার মতলব থানার এখলাসপুর গ্রামের বনেদী পরিবারের সন্তান মরহুম অধ্যাপক এ,ইউ,এম,ওয়ালি উল্লাহর জ্যেষ্ঠ কন্যা এবং ইডেন স্কুলের প্রাক্তণ ছাত্রী। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা সি,ইন,সি’স স্পেশাল মরহুম মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ কামাল, এবিসি গ্রুপের পরিচালক মোহাম্মদ বরকত উল্লাহ ও আবু সাঈদ আব্দুল্লাহর জননী। বুধবার আছরের নামাজের পর চট্টগ্রাম কলেজ রোডস্থ নগরীর কাজেম আলী হাই স্কুল মাঠে নামাজে জানাজা শেষে মিসকিন শাহ মাজার প্রাঙ্গণের কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। মাকসুদা খাতুন এর মৃত্যুতে পরিবারের পক্ষ থেকে সকলের কাছে তাঁর জন্য দোয়া কামনা করা হয়েছে। আরকে/টিকে

নওগাঁয় ছাদ ধসে নিহত ২

নওগাঁর একটি পেট্রোল পাম্পের ছাদ ঢালাইয়ের সময় ধসে পড়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো চারজন। বুধবার দুপুরের দিকে জেলার  নিয়ামতপুর উপজেলার গাবতলীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- নিয়ামতপুরের মায়াকুড়ি গাবতলী গ্রামের আনিছুর রহমান (৪০) ও চাপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরের আলীনগর বাঙ্গাবাড়ি গ্রামের সুজন হোসেন (২৫)। নিয়ামতপুর থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, আজ দুপুরে গাবতলীতে আবুল সোনার পেট্রোল পাম্পের ছাদ ঢালাইয়ের কাজ করছিল কয়েকজন শ্রমিক। এক পর্যায়ে ছাদের একপাশ ধসে পড়ে ওই দুই শ্রমিক ঘটনাস্থলেই মারা যান। আহতদের উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।   আর

নওগাঁয় ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে ৪ জন নিহত

নওগাঁর রানীনগর স্টেশনে ওভারব্রিজের সাথে ধাক্কা লেগে ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো দুইজন। বুধবার ভোরে রানীনগরে রেল স্টেশনের সামনে এ ঘটনা ঘটে। হতাহতদের নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি। আহতদের নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। সান্তাহার জিআরপি থানার ওসি আকবর হোসেন জানান, আজ ভোর সাড়ে ৪টার দিক ঢাকা থেকে দিনাজপুরগামী ‘দ্রুতযান একপ্রেস’ ট্রেনের ছাদ থাকা ছয় যাত্রী রানীনগরে স্টেশনের সামনের ওভারব্রিজের সাথে ধাক্কা খায়। এসময় নিচে পড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই চারজনের মৃত্যু হয়। তিনি বলেন, সকাল ৭টার দিকে সান্তাহার জিআরপি থানা পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করেছে। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতলে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।   আর

চাঁদপুরে হত্যা মামলায় ৫ জনের দণ্ড

চাঁদপুরে হত্যা মামলায় পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। জেলার মতলব উত্তরে মাসুদ রানা নামে এক ব্যক্তিকে হত্যার দায়ে এ দণ্ড দেওয়া হয়। মঙ্গলবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মামুনুর রশিদ এ রায় দেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. ইয়াসিন বেপারী (২৪), মো. আব্দুল খালেক মোল্লা (৩২), মো. ফারুক ওরফে নবী (২৫), মো. সেলিম মাঝী (২২), মো. আলী মুন্সী (২৮)। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত ৫ আসামির মধ্যে মো. ফারুক ওরফে নবী (২৫) ও মো. আলী মুন্সী(২৮) আদালতে উপস্থিত ছিলেন। বাকি তিন আসামি পলাতক রয়েছেন। মামলা সুত্রে জানা গেছে, ২০০৮ সালের ৫ অক্টোবর সন্ধ্যায় মাসুদ রানাকে আসামি মো. আলী বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আসেন। ওই রাতে মাসুদ রানা নিজ বাড়িতে না আসায় তাকে তার স্বজনরা বহু খোঁজাখুঁজি করেও পায়নি। পরে রানার স্বজনরা আসামি মো. আলীর কাছে মাসুদ রানার কথা জানতে চাইলে সে জানায়, ইয়াসীন বেপারী, ফারুক ওরফে নবী, মাসুদ রানাসহ আলফু প্রধানের বাড়ির কাছে চা খেয়ে তাদের সেখানে রেখে চলে আসি। মাসুদ রানাকে না পেয়ে তার বাবা মো. রবিউল দর্জি (৫০) গত ২০০৮ সালের ১৪ আগস্ট মতলব উত্তর থানায় একটি জিডি করেন। একই সালের ১৫ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টায় মতলব উত্তরের গোয়াল ভাওরের একটি ডোবায় কচুরিপানার নিচে তার মরদেহ পাওয়া যায়। পরে পুলিশ এসে মাসুদ রানার লাশ উদ্ধার করে। দীর্ঘ তদন্তের পর তদন্তকারী কর্মকর্তা ২০০৯ সালের ৩০ মার্চ আদালতে আটজনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ৩৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বিজ্ঞ জজ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড ও তিনজনকে বেকসুর খালাস দেন। আর/এসি  

যশোরে বিজিবির গুলিতে নিহত ১

যশোরের বেনাপোলে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) গুলিতে ইব্রাহিম হোসেন (২৬) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার দৌলতপুর সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।  নিহত ইব্রাহিম বেনাপোলের খরিডাংগা গ্রামের বাসিন্দা বলে জানা গেছে। ঘটনাস্থল থেকে চোরাচালানের পোশাক জব্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিজিবি। ২১ বিজিবি সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোরে ভারত থেকে দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে বিপুল পরিমাণ পণ্য পাচার হয়ে বাংলাদেশে আসছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির সদস্যরা ঘটনাস্থলে গেলে চোরাচালানিরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় বিজিবিও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে ইব্রাহিম গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। তবে ইব্রাহিমের সঙ্গে থাকা অন্যরা পালিয়ে যায়।  বেনাপোল বন্দর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফিরোজ উদ্দিন জানান, দৌলতপুর সীমান্ত থেকে ইব্রাহিম হোসেনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। একে//এসি

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি