ঢাকা, শনিবার, ২৬ মে, ২০১৮ ৬:০৮:১২

আমদানি রফতানী কার্যক্রম বাড়ছে (ভিডিও)

আমদানি রফতানী কার্যক্রম বাড়ছে (ভিডিও)

চট্টগ্রাম বন্দরে বাড়ছে আমদানি রফতানী কার্যক্রম। গেল ৫ বছরে কন্টেইনার হ্যান্ডেলিং বেড়েছে দশ লাখ টিইইউস। বেড়েছে কার্গো হ্যান্ডেলিংও। ক্রমবর্ধমান এই চাহিদার বিপরীতে বন্দরের কাক্সিক্ষত উন্নয়ন হচ্ছে না বলে মনে করেন বন্দর সংশ্লিষ্টরা। অবস্থার উন্নয়নে দ্রুত নতুন নতুন জেটি, কন্টেইনার ইয়ার্ড নির্মাণ এবং প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সংযোজনের কথা বলছেন বন্দর ব্যবহারকারীরা দেশের ৮০ শতাংশ আমদানি-রফতানির হয় চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে। গেল কয়েক বছরে বেড়েছে এর কার্যক্রমও। পরিসখ্যান অনুযায়ী, ২০১২-১৩ অর্থ বছরে চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজ হ্যান্ডেলিং হয় ২ হাজার ১৩৬টি। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে বেড়ে দাঁড়ায় ৩ হাজার ৯২টিতে। এছাড়া গেল ৫ বছরে ইনল্যান্ড এবং আইসিডিতে কার্গো হ্যান্ডেলিং বেড়েছে ৩০ কোটি মেট্রিক টন। একই ভাবে বেড়েছে কন্টেইনার হ্যান্ডেলিংও। পাঁচ বছর আগে ২০১২-১৩ অর্থ বছরে কন্টেইনার হ্যান্ডেলিং হয় ১৪ লাখ ৬৮ হাজার ৭১৩ টিইইউস। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে তা বেড়ে দাঁড়ায় ২৪ লাখ ১৯ হাজার ৪৮১ টিইইউসে। তবে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম বাড়লেও বাড়েনি পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা। এ জন্য বন্দর পরিচালনায় সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার দাবি চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বারের। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের সাথে সমন্বয় করে বন্দরের গতিশীলতা বাড়াতে আধুনিক যন্ত্রপাতির পাশাপাশি নতুন ইয়ার্ড স্থাপনের পরমর্শ বেসরকারি অপারেটরদের। বিভিন্ন সংস্থার সাথে সমন্বয় এবং বন্দর উন্নয়নে নেয়া প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের মাধ্যমে গতিশীলতা বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে জানান বন্দরের কর্মকর্তারা। তবে বন্দরের আধুকিায়ন যেন আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় থমকে না যায় সেদিক দৃষ্টি দেয়ার পরামর্শ সংশ্লিষ্টদের।
ফের দরপতনের ধারায় দেশের পুঁজিবাজার

সূচক কমেছে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে। একইসঙ্গে দর হারিয়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান। বুধবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩২৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ৬০টির, কমেছে ২৩০টির, আর ৩৯টি প্রতিষ্ঠানের দর অপরিবর্তিত ছিল। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩০ পয়েন্ট কমে নেমে আসে ৫ হাজার ৩৬১ পয়েন্টে। দিন শেষে লেনদেন হওয়া শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বাজারমূল্য ছিল ৪৮৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা। সূচক কমেছে সিএসইতেও। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২১৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ৫৭টির, কমেছে ১৩৫টির, আর ২১টি প্রতিষ্ঠানের দর ছিল অপরিবর্তিত। আর মোট লেনদেন হয়েছে ১৮ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। বার্ষিক সাধারণ সভা বা এজিএমপুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ, উত্তরা ফাইন্যান্স, উত্তরা ব্যাংক ও প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডের বার্ষিক সাধারণ সভা বা এজিএম অনুষ্ঠিত হবে ২৪ মে। পূবালী ব্যাংকপূবালী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ মে। সভায় প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে। স্পট মার্কেটের খবর ইউনিয়ন ক্যাপিটাল ও এবি ব্যাংক লিমিটেডের শেয়ার শুধু স্পট ও ব্লক মার্কেটে লেনদেন হচ্ছে। শেয়ারের রেকর্ড ডেট রেকর্ড ডেটের কারণে ২৪ মে সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স, ন্যাশনাল ব্যাংক, রেকিট বেনকিজার, রূপালী ব্যাংক, ঢাকা ইন্স্যুরেন্স, রূপালী ইন্স্যুরেন্স ও ফিনিক্স ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন স্থগিত থাকবে। পরের কার্যদিবসে আবারো লেনদেনে ফিরবে কোম্পানিগুলো। স্বাভাবিক লেনদেন শুরু রেকর্ড ডেটের পর নর্দার্ন ইন্স্যুরেন্স, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, সিটি ব্যাংক, বাটা সু, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স, অগ্রণী ইন্স্যুরেন্স, সাউথইস্ট ব্যাংক ও ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন শুরু হবে ২৪ মে। আগের কার্যদিবসে কোম্পানিগুলোর শেয়ার লেনদেন স্থগিত ছিল। ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিংনিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন পেলে তিনটি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে দুটি রাইট শেয়ার ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। রাইট শেয়ারে কোনো প্রিমিয়াম নেবে না কোম্পানিটি। টিকে

রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার পেলেন মহিউদ্দিন মোনেম

বাংলাদেশের বেসরকারি খাতে শিল্প স্থাপন, পণ্য উৎপাদন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং জাতীয় আয় বৃদ্ধিসহ দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় তথ্য প্রযুক্তিবিষয়ক হাইটেক শিল্প ক্যাটাগরিতে আব্দুল মোনেম লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সার্ভিস ইঞ্জিনের চেয়ারম্যান এ এস এম মহিউদ্দিন মোনেমকে ২০১৬ সালের জন্য রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার প্রদান করেছেন। উল্লেখ্য সার্ভিস ইঞ্জিন বিপিও, আব্দুল মোনেম লিমিটেড এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। কোকা-কোলার বোতলজাতকরণ, চিনিকল, ওষুধ, ইগলু আইসক্রিম, দুধ ও দুগ্ধজাত খাবারসহ বিভিন্ন ধরণের খাবার ও স্ন্যাক্স তৈরি করছে আব্দুল মোনেম লিমিটেড। এছাড়া নির্মাণ শিল্পের জন্য ইট, বিটুমিন ইমালশনসহ ভবন নির্মাণ সম্পর্কিত নানা পণ্য তৈরি করে দেশের বাজারে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে। পাশাপাশি অর্থনৈতিক সেবা, প্রযুক্তি খাতে আউটসোর্সিং, কর্মশক্তি সরকরাহকারী হিসেবে দেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে।পারিবারিক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান হিসেবে যাত্রা শুরু করলে ও সময়ের  বিবর্তনে আব্দুল মোনেম লিমিটেড নিজেকে আধুনিক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। ব্যবসায়িক অংশীদার এবং সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর সহায়তায় দেশে শক্ত সমর্থ এবং গতিশীল প্রবৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাচ্ছে আব্দুল মোনে মলিমিটেড।পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ছাড়া ও উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।বর্তমানে এএমএল– এ ১৪ হাজার দক্ষ কর্মকর্তা-কর্মচারী নিরলসভাবে কাজ করছে। প্রতিটি কর্মকর্তা-কর্মচারীর সুযোগ-সুবিধা ও নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করা হয় যাতে করে গ্রাহক দের জন্য উন্নত পণ্য তৈরিতে কর্মরত সবাই বিশেষ নজর দেয়। প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিগতভাবে দেশ ও সমাজের জন্য সামাজিক দায়বদ্ধতার মধ্যে থেকে বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করছে আব্দুল মোনেম লিমিটেড।এসএইচ/

ভারতে ৪ রুপির পেঁয়াজ বাংলাদেশে ৩০ টাকা

দেশি পেঁয়াজের দাম বেশি থাকায় বাংলাদেশে ভারতীয় পেঁয়াজের ভালোই চাহিদা রয়েছে। তবে বিভিন্ন হাতঘুরে আসায় বেশি দাম গুণতে হচ্ছে বাংলাদেশি ভোক্তাদের। ভারতের চেয়ে আমাদের দেশে পেঁয়াজের দাম প্রায় ৬ গুন। গতকালও দেশটির স্থানীয় বাজারগুলোতে ভারতীয পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছেন মাত্র ৪ রুপিতে। অথচ আমাদের দেশের পাইকারি বাজারগুলোতে এই পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়।ভারতের শীর্ষ গণমাধ্যমগুলো বলছে, গ্রীষ্মকালীন মৌসুমে পেঁয়াজের ব্যাপক উৎপাদন, সরবরাহের পাশাপাশি রমজানে চাহিদা কমে যাওয়ায় দামে এই ধস নেমেছে।জানতে চাইলে হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক শহীদুল ইসলাম বলেন, রমজান শুরুর কয়েক দিন আগে পেঁয়াজের দাম কিছুটা চড়া ছিল। তখন হিলি স্থলবন্দরে ট্রাক সেলে কেজি ২২ টাকায় বিক্রি হয়েছিল, দাম কমতে কমতে গতকাল সেই পেঁয়াজ কেজি ১২ থেকে ১৬ টাকায় বিক্রি হয়েছে।ব্যবসায়ীরা জানায়, হিলি, ভোমরা, সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ট্রাকে করে পেঁয়াজ চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ পৌঁছে। ফলে স্থলবন্দরে দামের ওপর নির্ভর করেই চট্টগ্রাম কিংবা ঢাকার বাজারে পেঁয়াজের দাম। স্থলবন্দরে বিক্রি হওয়া পেঁয়াজ গতকাল মঙ্গলবার খাতুনগঞ্জে বিক্রি হচ্ছে সর্বনিম্ন ১৪ থেকে সর্বোচ্চ ১৮ টাকায়।খাতুনগঞ্জের কাঁচা পণ্য আড়তদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইদ্রিস বলেন, পেঁয়াজের বাজারে এখন চরম মন্দাবস্থা, রমজানের শুরুতে দাম কিছুটা ছিল। তখন পাইকারিতেই ৩২ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছিল, আর খুচরাতে সেটি ৪০ টাকা ছাড়িয়েছিল। তিনি বলছেন, তখনো ভারতের বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়েনি, কিন্তু চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কে ব্যাপক যানজটের কারণে পেঁয়াজের দাম বেড়েছিল। এখন বাজারে নাসিক জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৭ থেকে ১৮ টাকা। আর বেলডাঙ্গা, সুখসাগর, শেখপুর ও ভেলোর জাতের ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১৩ থেক ১৪ টাকায়।দেশের পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমলেও খুচরা বাজারে এর একেবারেই কোনো প্রভাব নেই। গতকালও হাতিরপুর কাচাবাজারে  ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩২ টাকায়। ভারতের টাইমস অব ইন্ডিয়ার গতকালের খবর বলছে, পেঁয়াজের ব্যাপক সরবরাহের কারণে ভারতে পেঁয়াজের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার লাসাগাঁওয়ে  পেঁয়াজের দাম গত তিন মাসে ৬৫ শতাংশ কমেছে। ২১ ফেব্রুয়ারি যে পেঁয়াজের গড়দাম ছিল কুইন্টালপ্রতি এক হাজার ৭০০ রুপি, গত ২১ মে সেটির গড়দাম কমে ৬০০ রুপিতে নেমেছে। সেই বাজারে পেঁয়াজ কুইন্টালপ্রতি সর্বনিম্ন ৪০০ রুপি থেকে ৮৬১ রুপিতে বিক্রি হয়েছে। অর্থাৎ কুইন্টাল মানে ১০০ কেজির দাম সর্বনিম্ন ৪০০ রুপি, কেজি চার রুপি।/ এআর /

ইসলামী ব্যাংকের কেন্দ্রীয় ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত 

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-এর উদ্যোগে ‘সিয়াম, তাকওয়া ও সাদাকাহ’ শীর্ষক আলোচনা ও ইফতার মাহফিল ২২ মে ২০১৮, মঙ্গলবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়। ব্যাংকের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. নাজমুল হাসান, পিএইচডি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ব্যাংকের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ও প্রধান নির্বাহী মো. মাহবুব উল আলম-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্যাংকের শরী‘আহ্ সুপারভাইজরি কমিটির সদস্য ড. মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন তালুকদার। স্বাগত বক্তব্য দেন ব্যাংকের এডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা। অনুষ্ঠানে ব্যাংকের রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল মতিনসহ ব্যাংকের অন্যান্য পরিচালকবৃন্দ, বিচারপতি, কূটনীতিক, আইনজীবী, শিল্পপতি, ব্যবসায়ী, ব্যাংকার, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, শিক্ষাবিদ, উলামা ও সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর মো. নাজমুল হাসান পিএইচডি বলেন, ইসলামী ব্যাংক শরীআহ নীতিতে ব্যাংকিং পরিচালনা করে দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। তিনি বলেন এ ব্যাংক শিল্পায়ন, পরিবহন, ক্ষুদ্র শিল্প, কৃষিসহ প্রায় সকল খাতেই বিনিয়োগের মাধ্যমে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীতকরণের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ইসলামী ব্যাংকের ধারাবাহিক সাফল্যের মূল চালিকা শক্তি কোটি গ্রাহকের গভীর আস্থা, গণমানুষের অকুন্ঠ সমর্থন ও ভালোবাসা।  সভাপতির ভাষণে মো. মাহবুব উল আলম বলেন, জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল মানুষের জন্যই ইসলামী ব্যাংকের সেবা উন্মুক্ত। ইসলামী ব্যাংক সকল নিয়ন্ত্রক সংস্থার নিয়মকানুন যথাযথ পরিপালন ও সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে ব্যাংকিং সেবা প্রদান করে দেশের চলমান উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। তিনি ইসলামী ব্যাংকের কল্যাণমূখী সেবা গ্রহণের জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। এসি  

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক ও হোটেল পূবার্নী ইন্টারন্যাশনালের চুক্তি

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড (এসআইবিএল) ও হোটেল পূর্বানী ইন্টারন্যাশনালের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। মঙ্গলবার সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ওসমান আলীর উপস্থিতিতে প্রধান কার্যালয়ে ব্যাংকের কার্ড ডিভিশন প্রধান জাবেদ আমিন ও হোটেল পূর্বানী ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুবুর রহমান জয়নাল এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। এ চুক্তির আওতায় এসআইবিএলের ইসলামিক ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডধারীরা হোটেল রুম বুকিং এর ক্ষেত্রে  ৩০ শতাংশ এবং খাবারে ১০ শতাংশ ছাড় পাবেন। এ সময় এসআইবিএল উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাফর আলম এবং হোটেল পূর্বাণী ইন্টারন্যাশনালের সিএফও হালিমুল হকসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন নির্বাহীরা উপস্থিত ছিলেন।  কেআই/ এসএইচ/ 

ঈদকে সামনে রেখে সক্রিয় জাল নোট ব্যবসায়ীরা

পবিত্র ঈদুল ফিতর সামনে রেখে বাজারে নতুন নোট ছাড়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর পরিপ্রেক্ষিতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে জাল নোট প্রস্তুতকারীরা। সঙ্গে সঙ্গে  সক্রিয় হয়ে উঠছে জাল নোট সরবরাহকারী চক্রগুলো। ইতোমধ্যে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে সমস্ত ব্যাংকগুলোর ওপর জারী করা কেন্দ্র এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ঈদের আগে নোট জালকারী চক্রের `অপতৎপরতা` বাড়ে এবং তার জন্য কিছু ব্যবস্থা নিতে হবে। একই সাথে কীভাবে জাল নোট সহজে চেনা যায় - সে সম্পর্কেও নির্দেশনাগুলো নতুন করে মনে করিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এবিষয় বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলেন, সাধারণ মানুষ সহজে জাল নোটা চিনতে পারে এবিষয় জনসধারণের মধ্যে নানা ধরনের প্রচারণার চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সারা রমজান ‍জুরে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ভিতরে বাহিরে প্রচারণা চালানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এমনকি এই প্রচারণা দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে চাড়ানো হবে। যারা মাধ্যমে জন সাধারণ জাল নোট চিনা যাবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক মানুষজনকে সাধারণ কিছু ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করছে। যেমন-  ২০ টাকা এবং তদূর্ধ্ব মূল্যমানের আসল নোটের ওপরের প্রতিচ্ছবি, লেখা মূল্যমান এবং নকশার ওপর হাত বুলালে তা অমসৃণ, খসখসে লাগবে। জাল নোটে তেমন বোধ হবেনা । - ১০ টাকা এবং তদূর্ধ্ব মূল্যমানের নোটের ওপর নিরাপত্তা সুতো সেলাইয়ের মতো ফোঁড়া থাকে। এছাড়া, আলোর বিপরীতে ধরলের বাঘের মাথার জলছাপ স্পষ্ট দেখা যায়। জা লনোটের সুতা বা জলছাপ এত সূক্ষ্ম থাকেনা। - আসল নোটে রং পরিবর্তনশীল কালি ব্যবহার করা হয়। ২০০০ সাল থেকে মুদ্রিত ৫০০ টাকার নোটের সামনের পিঠের ওপরের বাঁ দিকের কোণার ওপরের অংশ নাড়াচাড়া করলে রং পরিবর্তন হতে থাকে। সবুজ থেকে সোনালী আবার সবুজ হতে থকে। জাল নোটে এই রং পরিবর্তন হয়না। ব্যাংগুলোকেও বলা হয়েছে- গ্রাহকদের কাছে থেকে টাকা নেওয়া এবং দেওয়ার আগে ভালো করে নোটগুলো পরীক্ষা করতে হবে। নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যেন এটিএম মেশিনে টাকা ঢোকানোর আগে জাল নোট সনাক্তকারী মেশিন দিয়ে নোটগুলো অবশ্যই পরীক্ষা করা হয়। ব্যাংকের শাখাগুলোতে টিভি মনিটরে জাল নোট সনাক্তকরণ সম্পর্কে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তৈরি ভিডিও প্রদর্শন করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, এই নির্দেশনা "অতীব জরুরী। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কারেন্সি ব্যবস্থাপনা বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার সুলতান মাসুদ আহমেদ বিবিসিকে বলেছেন, জাল নোটের সমস্যা বাংলাদেশে এখনও প্রকট সমস্যা হয়ে ওঠেনি, তবে দুই ঈদের আগে জাল নোট চক্রের তৎপরতা বাড়ে। বিশেষ করে বড় নোটগুলো যেমন ৫০০ এবং ১০০০ টাকা মূল্যমানের জাল নোট চালানোর চেষ্টা করা হয়। "সে জন্যই এই সতর্কতা...গত ক`বছর ধরেই আমরা এই সতর্কতা জারী করছি।" তিনি জানান, জাল নোটের তৎপরতা ঠেকানোর লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংক সম্প্রতি সরকারের কাছে নতুন একটি কঠোরতর আইনের প্রস্তাব সরকারের কাছে পাঠিয়েছে। প্রস্তাবিত আইনে জাল নোট অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে। তারপরও প্রায় মানুষের হাতে জাল নোট চলে আসার ঘটনা ঘটছে এবং প্রতিমাসেই বেশ কিছু মামলাও হচ্ছে। খুলনার বৈদেশিক মুদ্রার ব্যবসায়ী সাইফুল আলম বলছেন, সম্প্রতি জাল নোটের প্রকোপ কিছুটা কমেছে, তারপরও প্রতিমাসে একটি-দুটি জাল নোট তার হাতে আসে। প্রধানত এক হাজার টাকার জাল নোট। "প্রতিটা বড় নোট খুঁটিয়ে দেখতে হয়, সন্দেহ হলে ম্যাগনিফাইং কাঁচ দিয়ে দেখি। সতর্ক হলেও যদি কারো হাতে জাল নোট চলে আসে, কী করা উচিৎ তার? কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সুলতান আহমেদ মাসুদ বলছেন, মানুষের উচিৎ সাথে সাথে সেটা ছিঁড়ে ফেলে দেওয়া।  সূত্র: বিবিসি আরকে/টিকে

একদিন যেতে না যেতেই ফের দরপতন

ফের দরপতন হয়েছে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে। এর আগে টানা ১৩ কার্যদিবস পতনের পর সোমবার দেশের পুঁজিবাজারে সূচক কিছুটা বেড়েছিল। মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৩২টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ১০০টির, কমেছে ১৭৯টির, আর ৫৩টি প্রতিষ্ঠানের দর অপরিবর্তিত ছিল। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২১ পয়েন্ট কমে নেমে আসে ৫ হাজার ৩৯১ পয়েন্টে। দিন শেষে লেনদেন হওয়া শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বাজারমূল্য ছিল ৪৩৮ কোটি ৪১ লাখ টাকা। সূচক কমেছে সিএসইতেও। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২২৪টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৩টির, কমেছে ১০১টির, আর ৪০টি প্রতিষ্ঠানের দর ছিল অপরিবর্তিত। আর মোট লেনদেন হয়েছে ২৫ কোটি ৪০ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। আইডিএলসি গ্রোথ ফান্ডের ইউনিট বিওতে আইডিএলসি গ্রোথ ফান্ডের ইউনিট সংশ্লিষ্ট বিনিয়োগকারীদের বিও অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে। তবে লেনদেন শুরু তারিখ এখনো জানানো হয়নি। সাউথইস্ট ব্যাংকের এজিএমের তারিখ পরিবর্তনবার্ষিক সাধারণ সভা বা এজিএমের তারিখ পরিবর্তন করেছে সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড। ২৫ জুনের পরিবর্তে ৩০ জুন এজিএম করবে কোম্পানিটি। স্পট মার্কেটের খবর সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স, ন্যাশনাল ব্যাংক, রেকিট বেনকিজার, রূপালী ব্যাংক, ঢাকা ইন্স্যুরেন্স, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, ফিনিক্স ফাইন্যান্স ও এবি ব্যাংক লিমিটেডের শেয়ার শুধু স্পট ও ব্লক মার্কেটে লেনদেন হচ্ছে। শেয়ারের রেকর্ড ডেট রেকর্ড ডেটের কারণে ২৩ মে নর্দার্ন ইন্স্যুরেন্স, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, সিটি ব্যাংক, বাটা সু, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স, অগ্রণী ইন্স্যুরেন্স, সাউথইস্ট ব্যাংক ও ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন স্থগিত থাকবে। পরের কার্যদিবসে আবারো লেনদেনে ফিরবে কোম্পানিগুলো। স্বাভাবিক লেনদেন শুরু রেকর্ড ডেটের পর ২৩ মে ইসলামী ইন্স্যুরেন্স, ট্রাস্ট ব্যাংক, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স, পাইওনিয়র ইন্স্যুরেন্স, যমুনা ব্যাংক ও এক্সিম ব্যাংক লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন শুরু হবে। আগের কার্যদিবসে কোম্পানিগুলোর শেয়ার লেনদেন স্থগিত ছিল। টিকে

নিরক্ষররাও টাকা তুলতে পারবেন চেকে

ব্যাংক থেকে নিরক্ষর গ্রাহকরাও চেকের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দিয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবৃদ্ধি ও নীতি বিভাগ থেকে জারি করা এ নীতিমালার সার্কুলার সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের পাঠানো হয়েছে। সার্কুলার অনুযায়ী, নিরক্ষর গ্রাহককে টাকা তোলার ক্ষেত্রে সশরীরে ব্যাংকের শাখায় উপস্থিত হতে হবে। প্রয়োজনে চেক লেখার জন্য নিকট আত্মীয় বা কোনো পরিচিতজনকে সঙ্গে আনা যাবে। গ্রাহক যদি কাউকে সঙ্গে না আনেন তাহলে দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রাহকের চেক লিখে দিতে সহায়তা করবেন। এ ক্ষেত্রে ব্যাংক কর্মকর্তা নিরক্ষর গ্রাহককে চেকে লিখিত টাকার অঙ্ক পড়ে শোনাবেন এবং গ্রাহক সম্মতি দিলে ব্যাংক কর্মকর্তা নির্ধারিত পদ্ধতি পরিপালন করে নগদ পরিশোধের জন্য ক্যাশ কাউন্টারে পাঠাবেন। ব্যাংক কর্মকর্তা চেক লিখে দেওয়ার সময় গ্রাহকের কাছ থেকে একটি ঘোষণাপত্র নিতে পারবেন, যা ছক আকারে ব্যাংক শাখায় সংরক্ষিত থাকবে। ওই ঘোষণাপত্রে গ্রাহকের আঙুলের ছাপের পাশাপাশি চেক লেখক ব্যাংক কর্মকর্তার স্বাক্ষরসহ নাম, পদবি, আইডি এবং ব্যাংকের কাছে গ্রহণযোগ্য একজন সাক্ষীর স্বাক্ষরসহ নাম, পদবি, আইডি প্রভৃতি থাকবে। এ ক্ষেত্রে চেক লেখার প্রক্রিয়াটি শাখার এমন দৃষ্টিগোচর স্থানে সম্পাদন করতে হবে যেখানে সিসিটিভির কভারেজ রয়েছে। নীতিমালা অনুযায়ী, নিরক্ষর গ্রাহকের পরিচিতির সঠিক ও পূর্ণাঙ্গ তথ্য সংগ্রহ ও যাচাই প্রক্রিয়া সম্পাদনের পাশাপাশি নিরক্ষর গ্রাহককে সহজেই শনাক্ত করার জন্য আঙুলের ছাপ, আইরিশ শনাক্তকরণ এবং মুখমণ্ডল শনাক্তকরণ পদ্ধতি চালু করতে পারবে ব্যাংকগুলো। টাকা তোলার ক্ষেত্রে নিরক্ষর গ্রাহক সশরীরে ব্যাংক শাখায় উপস্থিত হতে না পারলে গ্রাহকের অনুরোধে শাখা ব্যবস্থাপকের মনোনীত ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রাহকের বাড়ি গিয়ে চেক লিখন, পঠন, গ্রাহকের সম্মতি প্রদান নিশ্চিত করতে পারবেন। গ্রাহকের সম্মতি নিয়ে ওই চেকে পরিবারের কোনো সদস্যকে ক্যাশ কাউন্টার থেকে টাকা তোলার সুবিধা দিতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে টাকা উত্তোলনকারীর সঠিক ও পূর্ণাঙ্গ তথ্য সংগ্রহ করবে ব্যাংক। তবে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে গ্রাহকের শাখায় উপস্থিত না হওয়ার কারণ ব্যাংকের কাছে গ্রহণযোগ্য হতে হবে। নিরক্ষর গ্রাহকের চেক ব্যাংক কর্মকর্তা লিখে দিলে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সামনে চেকের নির্ধারিত স্থানে গ্রাহকের বাঁ হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলির ছাপ দিতে হবে। সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্মকর্তা বৃদ্ধাঙ্গুলির ছাপ প্রত্যয়ন করবেন এবং ব্যাংকে রক্ষিত ছবির সঙ্গে উপস্থিত গ্রাহকের চেহারা মিলিয়ে নেবেন। নীতিমালায় আরো বলা হয়েছে, গ্রাহক যুক্তিসংগত কারণে শাখায় উপস্থিত না হতে পারলেই শুধু নিকট আত্মীয় বা প্রতিনিধির মাধ্যমে চেকটি কাউন্টারে উপস্থাপন করা যাবে। অন্য সব ক্ষেত্রেই গ্রাহককে কাউন্টার থেকে নিজ হাতে টাকা গ্রহণ করতে হবে। নিরক্ষর গ্রাহকদের সেবা প্রদানের কার্যক্রম হেল্পডেস্কের আওতাভুক্ত করতে পারবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। আপাতত নিরক্ষর গ্রাহকদের রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট (আটিজিএস) বা ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার এবং ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড সুবিধা প্রদান না করাই সমীচীন হবে বলে মনে করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ ছাড়া নিরক্ষর গ্রাহককে চেকের আর্থিক নিরাপত্তার বিষয়টি বুঝিয়ে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে একটি সুনির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে স্বাক্ষর প্রদানে সক্ষম করে গড়ে তুলতে এনজিওর সহযোগিতা নিতে ব্যাংকগুলোকে পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আরকে// এআর

জালনোট চক্রের তৎপরতা বন্ধে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিশেষ সতর্কতা

আসন্ন ঈদকে কেন্দ্র করে জাল নোট চক্রের অপতৎপরতা বন্ধে প্রতিবারের মতো এবার বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। দেশের সব তফসিলি ব্যাংকে রমজানজুড়ে জনসমাগম স্থলে আসল নোটের নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য সম্বলিত ভিডিও চিত্র প্রচারসহ কয়েক দফা নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কারেন্সি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করা হয়েছে, যা দেশের সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে। জানা গেছে, রমজান ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাজারে নগদ টাকার লেনদেন বাড়ে। এ সুযোগে নোট জালকারী চক্রের সদস্যদের অপতৎপরতা বাড়ে। এ সময় বড় বড় বিপণিবিতান ও পশুরহাট টার্গেট করে জাল টাকা ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে জাল কারবারিরা। এটা থেকে জনসাধারণকে রক্ষা ও সচেতন করতে গত কয়েক বছর ধরে নানা ধরনের উদ্যোগ নিয়ে আসছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এবারও জালনোট প্রতিরোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতে বলা হয়েছে, বিভিন্ন উৎসবের প্রাক্কালে নোট জালকারী চক্রের অপতৎপরতা বৃদ্ধি পায়। রমজান মাস উপলক্ষে নোট জালকারী চক্রের অপতৎপরতা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। ব্যাংকের এটিএম মেশিনে টাকা ঢোকানোর আগে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জাল নোট শনাক্তকারী মেশিন দিয়ে পরীক্ষা করতে হবে। গ্রাহকের কাছ থেকে নোট নেওয়া এবং গ্রাহককে নোট দেওয়ার সময়ও জাল নোট শনাক্তকারী মেশিন দিয়ে পরীক্ষা করতে হবে। ব্যাংকের শাখাসমূহে গ্রাহকদের জন্য স্থাপিত টিভি মনিটরগুলোতে পুরো ব্যাংকিং সময়ে আসল নোটের নিরপত্তা বৈশিষ্ট্য সম্বলিত ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করতে হবে। এছাড়া রমজানজুড়ে বগুড়া জেলাসহ অন্যান্য বিভাগীয় শহরের গুরুত্বপূর্ণ জনসমাগমস্থলে কিংবা রাস্তার মোড়ে সন্ধ্যার পর কমপক্ষে ১ ঘণ্টা করে ভিডিও চিত্র প্রচার করতে হবে। আরকে// এআর

রমজানেও জিপি এমপ্লয়ীরা সাত দফা দাবিতে কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে  

চাকুরির নিশ্চয়তা, যৌক্তিক ও নায্যতা ভিত্তিক বেতন বৃদ্ধির দাবীসহ ৭ দফা দাবীতে আজ ৩৫তম দিনের মত রমজান মাসেও জিপি এমপ্লয়ীরা তাদের হেড অফিস জিপিহাউসে শান্তিপূর্ন মানব বন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। প্রথম থেকেই জিপিপিসি ও গ্রামীনফোন এ্যমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন সাধারন কর্মীদের এই শান্তিপূর্ন কর্মসূচীর সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে আসছে।    গ্রামীনফোনের ব্যাবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের প্রস্তাবিত ইনক্রিমেণ্ট ও জিপিপিসি সেক্রেটারীকে ষড়যন্ত্রমূলক ডিসমিসাল এর সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখান করে গ্রামীনফোনের সাধারণ এমপ্লয়ীরা ১৬ এপ্রিল থেকে শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসুচী গ্রহন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ জিপি এমপ্লয়ীরা তাদের হেড অফিস জিপি হাউজ লেভেল ২ ব্রিজ এরিয়া সহ সারাদেশের গ্রামীনফোনের সকল কার্যালয়ে দুপুর ১টা ৪৫ মিঃ থেকে ২ টা পর্যন্ত শ্লোগানসহ প্রতিবাদ ও শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করে। গ্রামীনফোনের সাধারণ কর্মীরা তাদের ন্যায্য দাবী না মানা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী চালিয়ে যাবার প্রত্যয় ব্যাক্ত করে।    উল্লেখ্য, কর্মীদের পরিশ্রমের কারনেই আজ বাংলাদেশের অন্যতম কর্পোরেট হাউজ গ্রামীনফোন ২০১৭ সালে রেকর্ড পরিমান রাজস্ব এবং মুনাফা করেছে। কিন্তু বেতন বৃদ্ধির ঘোষনার সাথে তাদের আইনগত অধিকার কোম্পানীর মুনাফায় কর্মচারীদের পাওনার অংশ এবং পারফরমেন্স বোনাসের অংশও এই হিসাবের সাথে সংযুক্ত করায় সাধারন এ্যামপ্লয়ীদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়। এবং তারই ফলশ্রুতিতে সাধারণ এমপ্লয়ীরা লাগাতার কর্মসূচীর ডাক দিয়েছে এবং দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের শান্তিপূর্ন কর্মসূচী চালিয়ে যাওয়ার ঘোষনা দিয়েছে। গ্রামীনফোন এমপ্লয়ীজ ইউনিয়ন (জিপিইইউ) তাদের ৭ দফা দাবির অংশ হিসাবে এই ধারাবাহিক শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীতে একাত্বতা ঘোষনা করে। এসি  

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি