ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:০৪:১৯

নিখোঁজের ৪ দিন পর মিলল বৃদ্ধের লাশ

  নিখোঁজ হওয়ার চার দিন পর লক্ষ্মীপুর থেকে এক বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরের সদর উপজেলার শাকচরের হাজিরহাট এলাকা থেকে বৃদ্ধ নুর নবী ব্যাপারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানায়, উদ্ধার করা নুর নবীর পেট ও হাতের আঙ্গুল কাটা অবস্থায় পাওয়া যায়। সেই সাথে তার শরীরে বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহত নুরনবী শকচর গ্রামের মৃত আবদুস সামাদ বেপারীর ছেলে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, নিহত নুরনবী শনিবার সন্ধ্যায় হাজিরহাটের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকে তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পরদিন সকালে নিখোঁজের ঘটনায় সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয় পরিবারের পক্ষ থেকে। আজ মঙ্গলবার সকালে ওই এলাকার একটি পরিত্যক্ত পুকুরে নুর নবীর মরদেহ ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছেঁ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। নিহতের মেয়ে রৌশন আরা বলেন, তাদের বাবাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকারীদের বিচারের দাবি জানান তিনি। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লোকমান হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, বৃদ্ধকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তার পেট ও আঙ্গুল কাটাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহৃ রয়েছে। ময়নাতদন্তের পরই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।   আর/টিকে        

নোয়াখালীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

নোয়াখালীর হাতিয়ায় র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দু’জন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার ভোরে বয়ারচরের চতলার ঘাটে গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব ১১-এর লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পের জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক পুলিশ সুপার মো. জসিমউদ্দিন চৌধুরী। নিহতরা হলেন– কালিরচর উপজেলার আলী আহম্মদের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৫) ও একই গ্রামের দুলাল মাঝির ছেলে শফিক (২৪)। র‌্যাব জানিয়েছে, নিহতরা জলদস্যু ছিল। র‌্যাব কর্মকর্তা জসিমউদ্দিন চৌধুরী বলেন, সাইফুলের বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতি, অপহরণসহ বিভিন্ন অপরাধে নয়টি মামলা রয়েছে। গোলাগুলির সময় এএসআই মফিজুল ও কনস্টেবল মাহবুব আহত হয়েছেন। জসিমউদ্দিন চৌধুরী বলেন, জলদস্যুরা ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন খবর পেয়ে হানা দেয় র‌্যাব। এ সময় জলদস্যুরা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করে। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাব পাল্টা গুলি ছুড়লে দু’জনের মৃত্যু হয়। নিহত সাইফুল এই জলদস্যুবাহিনীর প্রধান। আর শফিক তার সেকেন্ড ইন কমান্ড। তিনি বলেন, সাইফুল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত জলদস্যু। তিনি আরও বলেন, সাইফুল তার বাহিনী নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে হাতিয়ার মেঘনা নদী ও বঙ্গোপসাগরে মাছধরা নৌকায় ডাকাতি, জেলেদের অপহরণের পর মুক্তিপণ আদায় করে আসছিলেন। র‌্যাব ঘটনাস্থল থেকে ছয়টি বন্দুক, ১০টি রকেট ফ্লেয়ার, ৩৭টি মোবাইল ফোনসেট ও মুক্তিপণের ৫৪ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে বলে জানান এই র‌্যাব কর্মকর্তা। / এআর /

বর্ণাঢ্য আয়োজনে সীতাকুণ্ড সমিতির দশকপূর্তি

সীতাকুণ্ড সমিতি পদক, কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা, মিলনমেলাসহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হলো সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রাম-এর এক দশকপূর্তি উৎসব। এ মিলনমেলায় হাজারো সীতাকুণ্ডবাসী সানন্দে অংশগ্রহণ করেন। ১২ নভেম্বর (রবিবার) চট্টগ্রামের লাভ লেইনস্থ স্মরণিকা কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, `আজকের বাংলাদেশের নতুন প্রজন্ম আধুনিক উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ করবে। তাই আজকে সংবর্ধিত মেধাবী শিক্ষার্থীদের লালন-পালন ও পরিচর্যা করা শিক্ষক, অভিভাবক এবং রাষ্ট্রের নৈতিক দায়িত্ব।` প্রথম পর্বে ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত এসএসসি/দাখিল ও এইচএসসি/আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া প্রায় ৩শ শিক্ষার্থীকে সংবর্ধিত করা হয়। ফেনী ইউনিভার্সিটির সাবেক উপাচার্য ড. ফসিউল আলম-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সহ-সভাপতি আহমদ ফখরুদ্দিন মুজতাহিদ, ইউআইটিএস-এর উপাচার্য ড. মোহাম্মদ সোলায়মান, চট্টগ্রাম বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মোহাম্মদ মাহাবুব হাসান ও কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এএইচএম হারুন, জিপিএ ৫ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের স্পন্সর আলম লায়লা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল চৌধুরী, সংবর্ধনা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আবুল মনসুর ভূঁইয়া, চট্টগ্রাম ওয়াসার সচিব শামীম সোহেল, সীতাকুণ্ড সমিতির সভাপতি লায়ন মো. গিয়াস উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর একেএম তফজল হক বক্তব্য রাখেন। পরে প্রধান অতিথি কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদপত্র তুলে দেন। প্রথম পর্ব পরিচালনা করেন সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক আবেদীন আল মামুন। সন্ধ্যায় দ্বিতীয় পর্বে কেক কাটার মধ্য দিয়ে এক দশকপূর্তি অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। সীতা কুণ্ডের জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদসহ বিশিষ্টজনেরা এতে অংশ নেন। এতে প্রধান আলোচক ছিলেন, সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদ-এর চেয়ারম্যান এসএম আল মামুন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ একেএম আবু তাহের বিএসসি, মো. দিদারুল কবির ও দিদারুল ইসলাম মাহমুদ চৌধুরী, জেলাপরিষদ সদস্য আ ম ম দিলশাদ, সীতাকুণ্ড পৌরসভার মেয়র মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম, এডিশনাল পিপি, এড. ভবতোষ নাথ, চেয়ারম্যান নাজিমউদ্দিন প্রমুখ । অনুষ্ঠানে সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ সীতাকুণ্ডের ১৪ গুণীজন ও দুই প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয় সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রাম পদক ২০১৭। পদকে ভূষিত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান হচ্ছে- শিক্ষানুরাগী মাওলানা ওবায়দুল হক ও নিরূপমা মুখার্জী (মরণোত্তর), শিক্ষা- প্রিন্সিপাল নাজির আহমদ ও প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হোসেন (মরণোত্তর), রাজনীতি ও সমাজসেবা- এম.আর সিদ্দিকী ও এবিএম আবুল কাশেম (মরণোত্তর), শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবা- মাস্টার মুছা আহমদ চৌধুরী (মরণোত্তর)। মুক্তিযোদ্ধা- ইঞ্জিনিয়ার ইউসুফ সালাহউদ্দিন, প্রশাসন- এ ওয়াই বি আই সিদ্দিকী ও আহমেদ শামীম আল রাজী, ব্যাংকিং- মো. তাজুল ইসলাম, সমাজসেবা- মোস্তফা কামাল চৌধুরী, সাংবাদিকতায়- সাইফ ইসলাম দিলাল, লেখক ও গবেষক- ড. মনওয়ার হোসেন সাগর (মনওয়ার সাগর) এবং শিক্ষা ও সমাজ সেবায় ফ্যাসিফিক জিন্স ফাউন্ডেশন ও আলহাজ্ব মোস্তফা হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন। পদকপ্রাপ্ত ও তাদের স্বজনরা অতিথিদের কাছ থেকে সম্মাননা গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে পদকপ্রপ্তদের পক্ষে প্রিন্সিপাল নাজির আহমদের সন্তান, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সহ-সভাপতি আহমদ ফখরুদ্দিন মুজতাহিদ, প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হোসেনের সন্তান ক্যাপ্টেন তানভীর, এমআর সিদ্দিকীর পক্ষে লায়ন নাজমুল হক, ড. মনওয়ার সাগর, এড. শওকত উল আলম তাদের অনুভূতি প্রকাশ করেন। এক দশকপূূর্তি অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ ছিল সদস্য ডিরেক্টরি ও টেলিফোন গাইড ‘সীতাকুণ্ড  সংযোগ’-এর প্রকাশনা। ২৮৮ পৃষ্ঠার আকর্ষণীয় এ প্রকাশনার মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিবৃন্দ। এ উপলক্ষে সমিতির সদস্যসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবানের আপ্যায়ণ করা হয় । পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সীতাকুণ্ড সমিতির সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও সংগীত শিল্পী আকলিমা মুক্তা সংগীত পরিবেশন করেন। এর মধ্য দিয়েই শেষ হয়ে বর্ণাঢ্য এই আয়োজন।   /ডিডি/ কেআই/  

মার্কিন কংগ্রেসে যাচ্ছে রোহিঙ্গা নির্যাতনের চিত্র

রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর চালানো নির্যাতনের সব চিত্র কংগ্রেসে উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রতিনিধিরা। শনিবার কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তারা। প্রতিনিধিরা জানান, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপ করে নির্যাতনের নানা তথ্য পাওয়া গেছে। বাংলাদেশ সফর শেষে তারা মিয়ানমারে যাবেন। ওখান থেকেও তথ্য সংগ্রহ করে দেশে ফিরে তা কংগ্রেসে জানানো হবে।শনিবার বেলা ১১টার কিছু পরে আমেরিকার ১০ সদস্যের প্রতিনিধি দল কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছে। এদের মধ্যে দুইজন সিনেটর ও তিনজন কংগ্রেসম্যান রয়েছেন। সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট। তারা রাতে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন। এরপর সকালে কক্সবাজার আসেন। এরপর যান কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে। সেখানে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপ করেন তারা। শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন প্রতিনিধিদলে থাকা দুই সিনেটর ও তিন কংগ্রেসম্যান। এদিকে, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এবং জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কোনোরও শনিবার ঢাকায় আসার কথা। এ ছাড়া রোববার বাংলাদেশ সফরে আসছেন জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গাব্রিয়েল, সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারগট ওয়ালস্ট্রম, ইইউ`র নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক উচ্চ প্রতিনিধি ফেডেরিকা মোঘারিনি। এসএইচ/

রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক প্রতিনিধি দল

জাপান, জার্মানি, সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি ও ভাইস প্রেসিডেন্টকে সঙ্গে নিয়ে আগামী রোববার কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যাচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী।  বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়নের উচ্চ পর্যায়ে প্রতিনিধি ফ্রেডারিকা মঘারিনি, জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কোনো, জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গ্যাব্রিয়েল ও সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারগট ওয়ালসট্রমকে সঙ্গে নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী কক্সবাজার যাবেন। তারা দিনব্যাপী কুতুপালং ও উখিয়া এলাকায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো পরিদর্শন করবেন। পরিদর্শনকালে তারা মিয়ানমারের রাখাইন থেকে প্রাণভয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলবেন, ত্রাণ কার্যক্রমের খোঁজ খবর নেবেন। তারা স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গেও মতবিনিময় করবেন। পরিদর্শন শেষে প্রতিনিধি দল ওই দিনই ঢাকায় ফিরে আসবেন এবং সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। বাংলাদেশ সফর শেষে তারা পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের আসেম সম্মেলনে যোগদানের উদ্দেশ্যে মিয়ানমার রওনা হবেন। আগামী সোম ও মঙ্গলবার নেপিদোতে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এসএইচ/

কুমিল্লায় বাস পুকুরে : বহু হতাহতের শঙ্কা

কুমিল্লায় ২৫-৩০ জন যাত্রীসহ বৈশাখী পরিবহন নামের একটি বাস পুকুরে পড়ে গেছে। এ দুর্ঘটনায় বহু হতাহতের আশঙ্কা করা হচ্ছে। আজ বুধবার বিকাল পৌনে ৪টার দিকে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের দেবিদ্বার পৌর এলাকার বারেরায় এ ঘটনা ঘটে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কাউকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। দেবিদ্বার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, চট্টগ্রামগামী বৈশাখী পরিবহনের ওই যাত্রীবাহী বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দেবিদ্বার পৌর এলাকার বারেরায় সড়কের পাশের পুকুরে পড়ে যায়। বাসটিতে প্রায় ২৫/৩০ জন যাত্রী ছিলেন বলে জানান তিনি। এ দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা স্থানীয়দের নিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে উদ্ধার করা যায়নি। এ ঘটনায় মহাসড়কের উভয়পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।   আর

শেষ হলো সীতাকুণ্ড সমিতির দশকপূর্তি

সীতাকুণ্ড সমিতি পদক, কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা, মিলনমেলাসহ নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে পালিত হলো সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রাম-এর একদশকপূর্তি অনুষ্ঠান। এই মিলন মেলার আয়োজনে অংশ নেন হাজারো সীতাকুণ্ডবাসী। রবিবার নগরীর লাভ লেইনস্থ স্মরণিকা কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, `মেধাবী আজকের বাংলাদেশের নতুন প্রজন্ম আধুনিক উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ করবে। তাই আজকে সংবর্ধিত মেধাবী শিক্ষার্থীদের লালন-পালন ও পরিচর্যা করা শিক্ষক, অভিভাবক এবং রাষ্ট্রের নৈতিক দায়িত্ব।` প্রথম পর্বে ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত এসএসসি/দাখিল ও এইচএসসি/আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া প্রায় ৩শ শিক্ষার্থীকে সংবর্ধিত করা হয়। ফেনী ইউনিভার্সিটির সাবেক উপাচার্য ড. ফসিউল আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সহ-সভাপতি আহমদ ফখরুদ্দিন মুজতাহিদ, ইউআইটিএস এর উপাচার্য ড. মোহাম্মদ সোলায়মান, চট্টগ্রাম বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মোহাম্মদ মাহাবুব হাসান ও কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এএইচএম হারুন, জিপিএ ৫ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের স্পন্সর আলম লায়লা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল চৌধুরী, সংবর্ধনা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আবুল মনসুর ভূইয়া, চট্টগ্রাম ওয়াসার সচিব শামীম সোহেল, সীতাকুণ্ড সমিতির সভাপতি লায়ন মো. গিয়াস উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর একেএম তফজল হকG পরে প্রধান অতিথি কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদপত্র তুলে দেন। প্রথম পর্ব পরিচালনা করেন সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক আবেদীন আল মামুন। সন্ধ্যায় দ্বিতীয় পর্বে  এক দশকপূর্তি অনুষ্ঠানের সূচনা হয় কেক কাটার মধ্যদিয়ে। সীতা কুণ্ডের জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদসহ বিশিষ্টজনেরা এতে অংশ নেন। এতে প্রধান আলোচক ছিলেন, সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আল মামুন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, বিশিস্ট রাজনীতিবিদ একেএম আবু তাহের বিএসসি, মো. দিদারুল কবির ও দিদারুল ইসলাম মাহমুদ চৌধুরী, জেলাপরিষদ সদস্য আ ম ম দিলশাদ, সীতাকু- পৌরসভার মেয়র মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম, এডিশনাল পিপি, এড. ভবতোষ নাথ, চেয়ারম্যান নাজিমউদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ সীতাকুণ্ডের  ১৪ গুণীজন ও দুই প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয় সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রাম পদক ২০১৭। পদকে ভূষিত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান হচ্ছে- শিক্ষানুরাগী মাওলানা ওবায়দুল হক ও নিরূপমা মুখার্জী (মরণোত্তর), শিক্ষা- প্রিন্সিপাল নাজির আহমদ ও প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হোসেন (মরণোত্তর), রাজনীতি ও সমাজসেবা- এম.আর সিদ্দিকী ও এবিএম আবুল কাশেম (মরণোত্তর), শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবা- মাস্টার মুছা আহমদ চৌধুরী (মরণোত্তর)। মুক্তিযোদ্ধা - ইঞ্জিনিয়ার ইউসুফ সালাহউদ্দিন, প্রশাসন- এ ওয়াই বি আই সিদ্দিকী ও আহমেদ শামীম আল রাজী, ব্যাংকিং- মো. তাজুল ইসলাম, সমাজসেবা- মোস্তফা কামাল চৌধুরী, সাংবাদিকতায়- সাইফ ইসলাম দিলাল, লেখক ও গবেষক- ড. মনওয়ার হোসেন সাগর (মনওয়ার সাগর) এবং শিক্ষা ও সমাজ সেবায় ফ্যাসিফিক জিন্স ফাউন্ডেশন ও আলহাজ্ব মোস্তফা হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন। পদকপ্রাপ্ত ও তাদের স্বজনরা অতিথিদের কাছ থেকে তা গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে পদকপ্রপ্তদের পক্ষে প্রিন্সিপাল নাজির আহমদের সন্তান, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সহ-সভাপতি আহমদ ফখরুদ্দিন মুজতাহিদ, প্রফেসর ড. মুহাম্মদ হোসেন এর সন্তান ক্যাপ্টেন তানভীর, এমআর সিদ্দিকীর পক্ষে লায়ন নাজমুল হক, ড. মনওয়ার সাগর, এড. শওকত উল আলম তাদের অনুভূতি প্রকাশ করেন। একদশকপূর্তি অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ ছিল সদস্য ডিরেক্টরি ও টেলিফোন গাইড ‘সীতাকুণ্ড  সংযোগ’ এর প্রকাশনা। ২৮৮ পৃষ্টার আকর্ষণীয় এই প্রকাশনার মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিরা। এ উপলক্ষে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবানের আপ্যায়ন করা হয় সমিতির সদস্যসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সীতাকুণ্ড সমিতির সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও সংগীত শিল্পী আকলিমা মুক্তা, সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়ে বর্ণাঢ্য এই আয়োজন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি। কেআই/  

তদন্ত ছাড়া ৫৭ ধারায় সাংবাদিক গ্রেফতার করা হবে না : আইজিপি

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেছেন, ৫৭ ধারায় মামলা হলে তদন্ত ছাড়া কোনো সাংবাদিককে হয়রানি বা গ্রেফতার করা হবে না। শনিবার রাতে চাঁদপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন তিনি। শহীদুল হক বলেন, দেশের বহু জেলা থেকে ৫৭ ধারায় অনেক মামলাসহ অভিযোগ আমার কাছে এসেছে। সেগুলো আমি দেখেই এই নির্দেশনা দিয়েছি। তবে দু-একটি অভিযোগ আমরা তদন্ত করে প্রমাণ পাওয়ায় সেগুলোর ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলি। আইজিপি আরো বলেন, আমি যে বইটি লিখেছি, সেখানে সাংবাদিক ও পুলিশের সম্পর্ক কেমন, তা তুলে ধরেছি। সেই ধারণাটা পড়লে সাংবাদিকেরা অনেক কিছু বুঝতে পারবেন। সমাজে কাজ করতে হলে সাংবাদিক ও পুলিশ সুসম্পর্ক থাকতে হয়। আমার কাছে প্রতিদিন বাংলাদেশের বহু পত্রিকা আসে। সেখানে আপনারা যেসব বিষয় তুলে ধরেন, সেগুলোর মাধ্যমেও আমি খুঁজে খুঁজে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করি এবং এতে ফলাফলও আসে। মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শরীফ চৌধুরী ও সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক জি এম শাহীন। এতে অন্যদের মধ্যে রাখেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মনির উজ-জামান, ডিআইজি (প্রশাসন ও শৃঙ্খলা) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, আইজিপির স্টাফ অফিসার আক্তার হোসেন প্রমুখ।   / এমআর / এআর

বান্দরবানে হাত-পা বাঁধা মরদেহ উদ্ধার

বান্দরবানের নিখোঁজ মোটরসাইকেল চালক সাজ্জাদ হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে টংকাবতী ইউনিয়নের লামা-বান্দরবান সড়কের বাচারা ব্রিজের নিচ থেকে তার হাত-পা বাঁধা অবস্থায় লাশ পাওয়া যায়। তিনি ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালাতেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বান্দরবানের লামা উপজেলার সরই ইউনিয়ন বাজার থেকে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় দু’জন যাত্রী নিয়ে মাঝেরপাড়া যাবার পথে নিখোঁজ হন সাজ্জাদ হোসেন (১৬)। এর একদিন পরই তার হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মরদেহ পাওয়া যায়। সাজ্জাদ সরই ইউনিয়নের বাসিন্দার আলী আহমেদের ছেলে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল সাজ্জাদের হাত-পা বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিক উল্লাহ জানান, ময়নাতদন্তের জন্য সাজ্জাদের মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। আর/ডব্লিউ্এন

ব্লাড ক্যান্সারের  কাছে কি হেরেই যাবে ফয়সাল?

ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত মোহাম্মদ ফয়সাল (২৫) চট্টগ্রাম মেডিকেলে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। কিন্তু  ব্লাড ক্যান্সারের কাছে হার মানতে চান না তিনি। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে বেঁচে থাকার প্রবল আকুতি তার।   উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে দ্রুত ভারতের মাদ্রাজ পাঠানোর পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসক। ফায়সালকে বাঁচাতে ১৫ লাখ টাকার প্রয়োজন। তার চিকিৎসার খরচ বহন করা পরিবারের পক্ষে সম্ভব নয়। ফায়সালকে বাঁচাতে তার পরিবারের পক্ষ থেকে মানবিক সাহায্যের আবেদন জানানো হয়েছে।  ফয়সালের মা শাহেলা বেগম বলেন- ``আমার ছেলের চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন। তাই সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আকুল আবেদন জানাচ্ছি। আমার ছেলে বাঁচতে চায়।`` চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ উপজেলার হরিশপুর ইউনিয়নের মৃত. বাশার সওদাগর ও সাবেক মহিলা মেম্বার শাহেলা বেগমের ছোট ছেলে ফয়সাল।   ফয়সালকে বাঁচাতে কাঙ্খিত অর্থ সংগ্রহের জন্য মাঠে নেমেছে সামাজিক সংগঠন সন্দ্বীপ ফ্রেন্ডস সার্কেল এসোসিয়েশনের তরুণরা। সহযোগিতার জন্য যোগাযোগঃ মুহাম্মদ মেহেদি - ০১৭৮৪৮৫০৮৫০ বিকাশ নং ০১৮৬১২৫৮৯৭৫ (পার্সোনাল)। ব্যাংক একাউন্ট নং- ৬১৭২৭। ইসলামী ব্যাংক লিঃ আগ্রাবাদ করপোরট শাখা কেআই/ডব্লিউএন

চট্টগ্রামে শুরু ফুড ফিয়েস্তা

চট্টগ্রামে ভোজন রসিকদের নানা খাবারের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে দ্বিতীয়বারের মতো শুরু হয়েছে ‘প্রাণ ম্যাংগো ফ্রট ড্রিংকস প্রেজেন্ট ফুড ফিয়েস্তা’। বৃহস্পতিবার সকালে নগরীর লাভ লেইনের স্মরণিকা কমিউনিটি সেন্টারে দুদিন ব্যাপী এ খাবারের উৎসব শুরু হয়। এটি চলবে আগামী ১০ অক্টোবর রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত। দু’দিনব্যাপী আয়োজিত এ উৎসবে নানা ধরনের খাবারের স্বাদ নিতে ভোজন রসিকদের জন্য রয়েছে ৫০টি খাবারের স্টল। এগুলোর মধ্যে রয়েছে নগরীর সেরা রেস্টুরেন্ট, ক্যাফে ও জুসবার। এছাড়াও প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের বিভিন্ন পণ্যের সঙ্গে ক্রেতাদের পরিচয় করিয়ে দিতে রয়েছে প্রাণ ম্যাংগো ফ্রুট ড্রিংকস, অলটাইম কেক, ঝটপট ম্যাজিক্যাল টেস্টের স্টল। ফুড ফিয়েস্তার দ্বিতীয় এ সংস্করণে ভোজন প্রিয়দের জন্য খাবারের পাশাপাশি থাকছে বিনোদনের ব্যবস্থাও। ৫০ টাকা মূল্যের প্রবেশ টিকেট কিনেই খাবার ও বিনোদনের এ পুরো উৎসবের স্বাদ নিতে পারবে যে কেউ। আর প্রবেশ টিকেটের সঙ্গে থাকছে প্রাণ ম্যাংগো ফ্রুট ড্রিংকস ও অলটাইম বান একদম ফ্রি। আর/ডব্লিউএন  

লক্ষ্মীপুরে বন্দুকযুদ্ধে ২৮ মামলার আসামী নিহত

লক্ষ্মীপুরে দু’গ্রুপের মধ্যে বন্ধুকযুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী লাদেন নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরে সদর উপজেলা বশিকপুর ইউনিয়নের বালাইশপুরের বটের পুকুরপাড় থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত লাদেন মাসুম সদর উপজেলার লাহারকান্দি গ্রামের মাওলানা হাফিজ উল্লাহর ছেলে। তার লাশ সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি মো. মোক্তার হোসেন বলেন, লাদেন মাসুম পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী। তাঁর বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজিসহ ২৮টি মামলা রয়েছে। পুলিশ আরও জানায়, বশিকপুর ইউনিয়নের বালাইশপুর গ্রামে স্থানীয় সন্ত্রাসী কালা মাসুদ, শাহাদাত  ও লাদেন মাসুমের দলের মধ্যে গোলাগুলির খবর পেয়ে ভোররাত ৩টার দিকে পুলিশ ওই এলাকায় যায়। পুলিশ কথা শুণে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়  সন্ত্রাসীরা। ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ একটি গুলিবৃদ্ধ লাশ দেখতে পায় । পরে স্থানীয়রা সেটি শীর্ষ সন্ত্রাসী লাদেন মাসুমের লাশ বলে শনাক্ত করে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে দুটি এলজি, একটি দোনলা বন্দুক, একটি একনলা বন্দুক, ১১টি কার্তুজ, ১১টি কার্তুজের কোসা ও ৩০টি হাইড্রোলিক বোমা উদ্ধার করা হয়। / এম / এআর    

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দেড়শ’ পরীক্ষার্থী নিয়ে নৌকাডুবি, দুজনের মৃত্যু

পরীক্ষা দিতে যাওয়ার সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দেড়শ’ জেএসসি পরীক্ষার্থী নিয়ে নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই পরীক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। আজ বুধবার সকাল ৯টার দিকে নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের তিতাস নদীতে এ ঘটনা ঘটে।এতে আরও ৫ শিক্ষার্থী নিখোঁজ রয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।নিহত দুই পরীক্ষার্থী হলো- নাদিরা আক্তার ও সোনিয়া আক্তার। নাদিরা আক্তার বীরগাঁও ইউনিয়নের বাইশমোজা গ্রামের সৈয়দ হোসেনের মেয়ে এবং সোনিয়া আক্তার একই ইউনিয়নের নজরদৌলত গ্রামের শিশু মিয়ার মেয়ে। লাশ দুটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে।প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সকালে নবীনগর উপজেলার বীরগাঁও ইউনিয়নের বীরগাঁও উচ্চবিদ্যালয়ের প্রায় দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী নৌকাযোগে থানাকান্দি থেকে কৃষ্ণনগরের দিকে রওনা হয়।

রোহিঙ্গাদের হামলায় নিহত ১, আহত ৪

কক্সবাজারের রামুর খুনিয়া পালং এলাকায় স্থানীয় এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে এক রোহিঙ্গা যুবক। অপরদিকে, কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী ১নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাশে স্থানীয়দের উপর হামলা চালিয়েছে কয়েকজন রোহিঙ্গা। তাদের হামলায় ৪ জন নলকুপ মিস্ত্রি গুরুতর আহত হয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাতে রোহিঙ্গা যুবক হাফেজ মোস্তফা ওরফে জিয়াবুল বাংলাদেশি যুবক আব্দুল জব্বারকে (২৫) কুপিয়ে হত্যা করে। জিয়াবুলকে আটক করেছে রামু থানা পুলিশ। নিহত আবদুল জব্বার রামুর খুনিয়াপালংয়ের কালুয়ারখালীর হেডম্যান বশির আহম্মদের ছেলে। অন্য এক ঘটনায় বালুখালী ১নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাশে রোহিঙ্গাদের হামলায় ৪ বাংলাদেশি যুবক আহত হয়েছেন। নিখোঁজ রয়েছেন ৫জন। গত শুক্রবার রাত ১২ টায় বালুখালী রোহিঙ্গা  শিবিরের খেলার মাঠে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার খবর পেয়ে উখিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে ৪জন স্থানীয় নলকুপ মিস্ত্রিদের গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উখিয়া ও কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। তবে এখান পর্যন্ত ৫জন স্থানীয় গ্রামবাসী নিখোঁজ রয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল মাবুদ বলেন, শুক্রবার গভীর রাতে খুনিয়া পালংয়ের ২নং ওয়ার্ডের হেডম্যান পাড়ায় সামাজিক বনায়নের গাছ পাহারা দেয়ার সময় আবদুল জব্বারকে রোহিঙ্গা হাফেজ মোস্তফা গলাকেটে ও কুপিয়ে আহত করে। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে নেয়ার পথে সে মারা যায়। রামু থানার ওসি একেএম লিয়াকত আলী তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, স্থানীয়দের সহযোগিতায় ঘাতক রোহিঙ্গা হাফেজ মোস্তফাকে আটক করেছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে।   এসআই/ডব্লিউএন

রোহিঙ্গাদের হামলায় চার বাংলাদেশি আহত

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের হামলায় চার বাংলাদেশি আহত হয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা শিবিরের ২ নম্বর ক্যাম্পের পাশে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ দুজন রোহিঙ্গাকে অস্ত্রসহ আটক করেছে। আটক করা দুজন রোহিঙ্গা হলেন ইলিয়াস (২৫) ও নূর বসর (২৬)। আটক দুজন রোহিঙ্গার কাছ থেকে একনলা বন্দুক, এলজি, চারটি কার্তুজ ও দুটি কার্তুজের খোলা খোসা পাওয়া গেছে। আহত চারজন হলেন মোশতাক হোসেন (৪২), শহীদ হোসেন (২৪), জসীম উদ্দিন (২৫) ও শাহেদ আলী । তাঁদের বাড়ি যশোরে। পুলিশ জানিয়েছে উখিয়ায় তাঁরা মিস্ত্রির কাজ করেন। আহত ব্যক্তিরা আশ্রয়শিবিরের বাইরে অস্থায়ী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। প্রতক্ষ্যদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানান, বালুখালী ২ নম্বর রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবিরের পাশে গতকাল রাত ১২টা থেকে সাড়ে ১২টার মধ্যে টিউবওয়েল সারানোর কাজ করছিলেন মিস্ত্রিরা। এ সময় ডাকাত সন্দেহে পাশের ক্যাম্প থেকে কয়েকজন রোহিঙ্গা মিস্ত্রিদের উপর হামলা চালায়। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদের আঘাত করা হয়। এ প্রসঙ্গে উখিয়া থানার ওসি মো. আবুল খায়ের জানান,  আহতদের উদ্ধার করে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পসংলগ্ন আন্তর্জাতিক বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এমএসএফ পরিচালিত হাসপাতাল ও একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের শরীরে ধারাল অস্ত্রের জখম রয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। / এম / এআর  

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ১৪ কিমি যানজট

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দিতে প্রায় ১৪ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। টোল প্লাজা থেকে জিংলাতুলি পর্যন্ত ঢাকাগামী লেনে এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। হাইওয়ে পুলিশ সূত্র জানায়, আজ বৃহস্পতিবার ভোর থেকে টোলপ্লাজার ওভারলোড স্কেলের জন্য এ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে ক্রমেই যানজট দীর্ঘ হচ্ছে। যানজট নিরসনের চেষ্টা করছে পুলিশ, আশা করি কম সময়ের মধ্যেই সব স্বাভাবিক হবে। ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের যাত্রী শফিকুল ইসলাম বলেন, মহাসড়কের জিংলাতলী এলাকা এক ঘন্টা ধরে গাড়ি আটকে আছে। মাইক্রোবাস চালক শাকিল মিয়া বলেন, ভোর ৬টার দিকে চান্দিনার মাধাইয়ায় নাস্তা শেষে রওনা দিয়েছি, সকাল ৮টা বাজলেও এখনও গৌরিপুর পৌঁছাতে পারেনি। হাইওয়ে দাউদকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ গণমাধ্যমকে জানান, যানজটের কারণ ওভার লোড কন্ট্রোল মেশিন। তবে সেখানকার যানজট স্থায়ী না হলেও আজ মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেশি থাকায় যানজট দেখা দিয়েছে। আমরা যানজট নিরসনে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।   আর/  এআর

অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পায়তারা করছে একটি মহল : শম্ভু

ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র নাথ শম্ভু এমপি বলেছেন, এখানে আশ্রিত রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের ফিরে যাবেন। মিয়ানমারে সফররত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ও মিয়ানমারের নেত্রী অন সান সুচি’র সাথে বৈঠক করেছেন। বৈঠকে সুচি বলেছেন, কফি আনান কমিশনের প্রস্তাব মেনে নিয়ে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়া হবে। বুধবার (২৫ অক্টোবর) দুপুরে উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, মিয়ানমার মুসলিম রোহিঙ্গা নিপীড়ন, নির্যাতন ও গণহত্যা অব্যাহত রেখেছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের মানবিক সেবা দিয়ে বিশ্বে যে উদাহরণ দেখিয়েছেন তা নজিরবিহীন। সরকারি-বেসরকারিভাবে পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করায় রোহিঙ্গারা ক্যাম্পে ভাল আছেন। তবে একটি মহল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পায়তারা করছে। তাদের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন। এসময় সংসদীয় কমিটি প্রতিনিধিদলের সদস্য বিএম মোজাম্মেল হক এমপি, শফিকুল ইসলাম এমপি, আব্দুর রহমান বদি এমপি, মমতাজ বেগম এমপি, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক রিয়াদ আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। এসআই/ডব্লিউএন

যমজ বাচ্চার একটিকে পেটে রেখেই সেলাই

যমজ সন্তানের একটিকে ভূমিষ্ঠ করিয়ে আরেকটিকে পেটে রেখেই অস্ত্রোপচার শেষ করেছেন এক চিকিৎসক। কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার সরকারি মালিগাঁও হাসপাতালের সহকারী সার্জন হোসনে আরা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। হোসনে আরা তার ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠান ‘লাইফ হসপিটাল অ্যান্ড ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারে’ খাদিজা আক্তার (১৮) নামে এক প্রসূতির অস্ত্রোপচারকালে এমন ঘটনা ঘটান। অস্ত্রোপচারের পাঁচ সপ্তাহ পর রোববার রাতে খাদিজাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঢাকা মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. বাচ্চু মিয়া জানান, খাদিজাকে অধ্যাপক নিলুফা সুলতানা রোজির তত্ত্বাবধানে গাইনি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার অস্ত্রোপচার হওয়ার কথা রয়েছে। খাদিজা কুমিল্লার হোমনা উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের আউয়াল হোসেনের স্ত্রী। খাদিজার মা আমেনা বেগমের অভিযোগ, গত ১৮ সেপ্টেম্বর হোসনে আরা তার ব্যক্তিগত ‘লাইফ হসপিটাল অ্যান্ড ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারে’ নিয়ে খাদিজার অস্ত্রোপচার করেন। তার গর্ভে দুটি সন্তান থাকলেও অস্ত্রোপচার করে তিনি একটি সন্তান ভূমিষ্ঠ করান; আরেকটি সন্তানকে টিউমার বলে অপারেশনের কাজ শেষ করেন। এরপর আমেনা এক মাস ধরে খাদিজাকে নিয়ে বিভিন্ন চিকিৎসকের কাছে ছুটোছুটি করেন বলে জানান। তিনি বলেন, পাঁচ-ছয় দিন আগে হোমনার একটি ক্লিনিকে আলট্রাসনোগ্রাম করলে চিকিৎসক জানান, তার পেটে টিউমার না, আরেকটি সন্তান রয়েছে। বিষয়টি হোসনে আরাকে জানালে তিনি সমঝোতার চেষ্টা করেন। পরে তারা তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। হোসনে আরার বিরুদ্ধে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছে, তিনি সরকারি হাসপাতালে আসা রোগীদের তার ক্লিনিকে পাঠিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে বাধ্য করেন। সরকারি অফিস চলাকালেও তিনি তার ক্লিনিকে অস্ত্রোপচারের কাজ করে থাকেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে হোসনে আরা বলেন, যা বলার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তাকে বলেছি। দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা মো. জালাল হোসেন বলেন, ঘটনা জানার পর প্রাথমিকভাবে হোসনে আরাকে শোকজ করা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি। প্রতিবেদন পাওয়ার পর তার বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রাথমিক তদন্তের পর বুধবার বেলা ১২টার দিকে ‘লাইফ হসপিটাল অ্যান্ড ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারটি’ সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন মুজিবুর রহমান। আরকে/ডব্লিউএ্ন

ভাই হত্যার বিচার চেয়ে মেয়রকে দিয়াজের বোনের খোলাচিঠি

ভাই হত্যার বিচার চেয়ে চট্টগ্রামের সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে ‘খোলাচিঠি’ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের প্রয়াত নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর বোন জুবাঈদা ছরওয়ার চৌধুরী নিপা। নিজের ফেইসবুক পাতায় মঙ্গলবার রাত ১১টায় ৪৫৮ শব্দের এক পোস্টে এই খোলাচিঠি লিখেছেন দিয়াজের বোন জুবাঈদা। চিঠিতে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনকে ‘নেতা’ সম্বোধন করে দিয়াজ খুনের আগের ও পরের বিভিন্ন ঘটনা তুলে ধরেছেন জুবাঈদা ছরওয়ার। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক দিয়াজ ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি। তার মৃত্যুর পর তার মা জাহেদা আমিন চৌধুরী বাদী হয়ে যে হত্যা মামলা করেন তার অন্যতম প্রধান আসামি আলমগীর টিপু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সভাপতি। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের রাজনীতিতে টিপু এবং দিয়াজ দুজনই মেয়র আ জ ম নাছিরের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। গত বছরের ২০ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নম্বর গেইট এলাকার নিজ বাসা থেকে দিয়াজের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে গত বছরের ২৯ অক্টোবর দিয়াজসহ চার ছাত্রলীগ নেতার বাসায় ভাংচুর চালায় প্রতিপক্ষ। এ ঘটনার জন্যও আলমগীর টিপু ও তার অনুসারীদের দায়ী করে দিয়াজের পরিবার। বিশ্ববিদ্যালয়ে ৯৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন কলা ভবন ও শেখ হাসিনা হলের দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজের দরপত্রকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের বিরোধে দিয়াজকে খুন করা হয় বলে দাবি তার অনুসারীদের। ফেসবুকে দেওয়া খোলাচিঠির সঙ্গে গত বছরের ১ অক্টোবর দিয়াজের একটি ফেসবুক পোস্টও শেয়ার করেন জুবাঈদা ছরওয়ার চৌধুরী নিপা। ওই পোস্টে মেয়র নাছিরের সঙ্গে তোলা একটি ছবি দিয়ে দিয়াজ লিখেছিলেন, ‘কত অভিমান থাকে মনে, কিন্তু আপনার সঙ্গে কথা বললে, আপনার দিকনির্দেশনা শুনলে মুহূর্তেই মনটা ভাল হয়ে যায়। প্রিয় নেতা, আপনার তুলনা আপনাতেই….।’ এ প্রসঙ্গে দিয়াজের বোন জুবাঈদা ছরওয়ারের খোলাচিঠিটি তুলে ধরা হলো : ‘নেতা, জানিনা দিয়াজের আপনার উপর কিসের অভিমান ছিল! দিয়াজ বলে যাওয়ার সুযোগ পায়নি। দিয়াজ আর আমাদের আপনি ডেকেছিলেন কথা বলার জন্য, যেদিন দিয়াজকে বলেছিলেন তুমি ওপেন ঘুড়তে পারবে, ক্যাম্পাসে যেতে পারবে, দিয়াজের মা আমার মা, দিয়াজ সোনার টুকরো ছেলে, যেদিন আপনি আলমগীর টিপুকে আমাদের ঘর ভাংচুরের মামলা থেকে বাদ দিতে বলেছেন, যেদিন আপনি কথা দিয়েছিলেন আমার দিয়াজের সার্টিফিকেট, ল্যাপটপ থেকে শুরু করে লুটপাট করে নিয়ে যাওয়া আমার মায়ের সব সম্পদ উদ্ধার করে দিবেন, সেদিন দিয়াজ আপনার ড্রয়িংরুমে বসে ভিতরের রুমে আমাকে বারবার এসএমএস করছিল- ‘নাসির ভাইয়ের সাথে তর্ক করবেন না, সব জিরো হয়ে যাবে। নাসির ভাই যা বলে মেনে নেন’। আমরা মেনে নিয়েছিলাম। তবে দিয়াজকে প্রশ্ন করার সুযোগ হয়নি কেন আপনার সব কথা আমাদের মানতে হবে। তার আগেই দিয়াজকে খুনিরা পরপারে পাঠিয়ে দিল। দিয়াজ যেহেতু আপনাকে মায়ের চেয়ে বেশি বিশ্বাস করতো, তাই ওর হত্যার পর আমরা আপনার কাছে ছুটে গিয়েছিলাম। আপনি আমাদের বলেছিলেন দিয়াজ আত্মহত্যা করেছে, আপনার কিছু করার নেই। আমার ঠিক তখনি দিয়াজের পাঠানো এসএমএসের কথা মনে পড়ে গেল। আমি আপনাকে (নাছির) অনেক বলেছি- আপনি বুকে হাত দিয়ে বলেন দিয়াজ আত্মহত্যা করেছে; যে দিয়াজ আপনার কথা যতবার উচ্চারণ করেছে, ততবার যদি আল্লাহকে ডাকতো তাহলে সে আওলিয়া হয়ে যেত; সে দিয়াজ আত্মহত্যা করতে পারে না। আপনি আমার কথা মানেন নি। যে পুলিশ আপনার অধীনে, যে ডাক্তাররা আপনার রাজনীতি করে, যে ছেলেরা আপনার নাম বিক্রি করে টেন্ডারবাজি করে, তারা সবাই মিলে আপনার কাছে উপস্থাপন করলো দিয়াজ আত্মহত্যা করেছে। দিয়াজের খুনিদের সঙ্গে আপনার হাসিমুখের সেলফি আমাদের হৃদয়কে রক্তাক্ত করতো। আপনার সাহায্য না পেয়ে আমরা হতাশ হইনি। কারণ আমরা দিয়াজের রক্ত। আমরা জেনেছিলাম দিয়াজকে হত্যা করা হয়েছে। আমাদের সাথে ছিল কিছু ভালো মানুষ... যারা দিয়াজের আত্মহত্যার নাটক মেনে নেয়নি। আজ সত্য প্রতিষ্ঠিত। আজ আপনাকে মানতেই হবে দিয়াজকে হত্যা করা হয়েছে। আজ আইন আপনাকে সে সুযোগ করে দিয়েছে। আপনি দিয়াজের জন্য কী করেছেন তা আমি দেখিনি, তবে আমি দেখেছি দিয়াজ আপনার জন্য কি করেছে। দিয়াজ আপনার হকদার। আপনি পারেন এখন দিয়াজের হত্যার বিচার করতে। দিয়াজ হত্যার আসামিরা, দিয়াজের মায়ের ঘর ভাংচুর মামলার আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরছে। শুনেছি তারা আপনার সঙ্গে দেখা করার জন্য মরিয়া... রাজনৈতিক আশ্রয় নেওয়ার জন্য। পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আপনার নেতৃত্বে। আপনি পারেন আসামিদের আইনের আওতায় এনে দিয়াজের প্রতি কিছুটা হলেও কৃতজ্ঞতা স্বীকার করতে। হয়তো আপনার সামনে গিয়ে এসব বলতে পারব না বলেই এখানে বলা। দিয়াজের কর্মীরা আপনার কাছে গিয়ে দিয়াজ হত্যার বিচার চাইতে ভয় পায়, কারণ আপনি যদি রাগ করেন! ওরা নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে ভীত। তাই আমি আপনাকে এ খোলা চিঠি লিখলাম। সুদীপ্ত হত্যা মামলার আসামিরা ধরা পড়ছে। দিয়াজ কি দোষ করলো? দিয়াজ আপনার একনিষ্ঠ কর্মী ছিল, তাই আপনার কাঁধে দিয়াজ হত্যার বিচারের দায়ভার তুলে দিলাম। বাকিটা আপনার বিবেচনার উপর ছেড়ে দিলাম।’   / এমআর / এআর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে অজ্ঞাত ডাকাত দলের এক সদস্য নিহত হয়েছেন। এ সময় ৪ পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। পুলিশের ভাষ্যমতে, শুক্রবার দিবাগত রাতে উপজেলার বিনাউটি ইউনিয়নের টিঘরিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির পরিচয় এখনো জানা যায়নি। এ ব্যাপারে কসবা থানার ওসি মো. মহিউদ্দিন জানান, এলাকাবাসীর মাধ্যমে তাদের কাছে খবর আসে বীনাউটি ইউনিয়নের টিঘরিয়া গ্রামের একটি নির্জন রাস্তার মোড়ে মুখোশ পরা অবস্থায় একদল ডাকাত বাড়িঘরে ডাকাতির উদ্দেশে অবস্থান নিয়েছে। এমন খবর পাওয়ার পর পুলিশের দুটি টহল দল দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে বীনাউটি ইউনিয়নের টিঘরিয়া গ্রামে যায়। এ সময় ডাকাতরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। জবাবে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। কয়েক মিনিটের এই বন্দুকযুদ্ধ চলাকালে ডাকাতদের হামলায় পুলিশের চার সদস্য আহত হন। পরে ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, দুই রাউন্ড কার্তুজ, দুটি রামদা, দুটি মুখোশ, একটি ছুরি এবং মুখোশ পরা অবস্থায় অজ্ঞাত পরিচয়ধারী এক ডাকাত সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। গোলাগুলিতে আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সালাউদ্দিন ও ফারুক এবং কনস্টেবল নুরুল ইসলাম ও হোসেন খান।   এসএ/

ভাসান চরকে সন্দ্বীপের সীমানায় অর্ন্তভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ উপজেলার সাবেক নেমস্তি ইউনিয়ন বর্তমান ভাসান চরকে সন্দ্বীপের সীমানায় অর্ন্তভুক্তির দাবিতে ২০ অক্টোবর সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে সন্দ্বীপ সীমানা রক্ষা কমিটি, ঢাকা। প্রবল বৃষ্টি উপেক্ষা করে হাজারো সন্দ্বীপবাসী বাপ দাদার ভিটে মাটি রক্ষার দাবিতে  মানববন্ধনে অংশ নেন। মানববন্ধনে সাবেক দায়রা জজ আবু সুফিয়ান বলেন,  `শত শত বছর ধরে সন্দ্বীপে নদী ভাঙ্গনের শিকার হয়ে লাখ মানুষ এখনো গৃহহারা হয়ে বেড়ী বাঁধে মানবেতর জীবন যাপন করেছে। এই অবস্থায় সন্দ্বীপের প্রাক্তন নেমস্তি ও সুলতানপুরের সীমানায় চর জেগে উঠেছে যা কিছু দিন আগে ঠেঙ্গার চর নামে পরিচিতি ছিল। সরকার এটিকে ভাসান চর নামকরণ করেছে। সম্প্রতি গণমাধ্যমে এটিকে কখনো হাতিয়া, আবার কখনো নোয়াখালী জেলার দাবি করছে। এ চরকে নোয়াখালী জেলার অর্ন্তভুক্ত করার ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ জনমনে সৃষ্টি হয়েছে। দিয়ারা জরিপের মাধ্যমে আমরা এর সুষ্ঠু সমাধান চাই।` সীমানা রক্ষা কমিটির সমন্বয়ক নুরুল আকতার বলেন, ‘সরকার যখন যেভাবে প্রয়োজন এ চরের উন্নয়ন কিংবা ব্যাবহার করতে পারেন—  তাতে সন্দ্বীপবাসীর সমর্থন থাকবে। কিন্তু আমাদের বাপ দাদার ভিটে মাটি নিয়ে কোনো প্রকার ষড়যন্ত্র সন্দ্বীপবাসী কখনো মেনে নিবে না। এই চর নিয়ে নোয়াখালী ও হাতিয়ার মালিকানা দাবির প্রশ্নে তিনি বলেন, এটি সন্দ্বীপের নেমস্তি ও সুলতানপুর ইউনিয়ন। হাতিয়া অথবা নোয়াখালীর কোনো জনপদ সেখানে ছিল না। এছাড়া সরকারের কাছে আমাদের দাবি ভুমি জরিপের মাধ্যমে আমাদের হারানো ভূমি ফিরিয়ে দেয়া হোক।` মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, `এই চর সন্দ্বীপ থেকে মাত্র ৪ কি.মি আর হাতিয়া থেকে ২৫ কি.মি। তাছাড়া জেগে উঠার পর থেকে গত দশ বছর ধরে বনায়ন করেছে চট্টগ্রাম বন বিভাগ। তাহলে কীভাবে হাতিয়া এবং নোয়াখালী এটার দাবি করে? এটি আমাদের বাপ দাদার হারানো ভিটে মাটি। এই মাটির স্বার্থে আমরা জীবন দিতেও কুণ্ঠিত হবো না। তাই সন্দ্বীপের ৬০ মৌজার সীমানা দিয়ারা জরিপের মাধ্যমে বুঝিয়ে দেয়া হোক।` সন্দ্বীপ সীমানা রক্ষা কমিটি ঢাকার আহ্বায়ক সাবেক অতিরিক্ত সচিব মোশাররফ হোসেন খাদেমের সভাপতিত্ব বক্তব্য রাখেন প্রফেসর দিদারুল আলম, সালেহা বেগম প্রকৌশলী আবদুল হান্নান, নুসরুল্লাহ চৌধুরি, মাইনুর রহমান, আজমত আলী বাহাদুর, সাগর শাহনেওয়াজ, মনিরুল হুদা বাবন, শাহনেয়াজ মাহমুদ লাভলু, আরিফ আলী, নিজাম উদ্দিন তালুকদার, কাজী মনজু, কাজী ইফতেখারুল আলম তারেক, আনোয়ারুল আজিম মনজুসহ প্রমুখ। কেআই/ডব্লিউএন

চট্টগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১, দুই লাখ ইয়াবা উদ্ধার

চট্টগ্রামের আইস ফ্যাক্টরি রোডে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সন্দেহভাজন এক মাদক বিক্রেতা মারা গেছে বলে জানিয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব)। বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে আইস ফ্যাক্টরি রোডের বরিশাল কলোনিতে একটি মাদ্রাসার সামনের রাস্তায় গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি ব্যাগে দুই লাখ ইয়াবা, দুটি বিদেশি পিস্তল ও একটি ওয়ান শুটার গান উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন র‌্যাব-৭ এ দায়িত্বরত এএসপি মিমতানুর রহমান। মিমতানুর রহমান বলেন, “মাদক বিক্রেতাদের অবস্থানের খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি দল রাতে সেখানে অভিযানে যায়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা গুলি করে। তখন আত্মরক্ষার জন্য র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। কিছু সময় পর গোলাগুলি থামলে একজনের গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া যায়।” নিহতের মানিব্যাগে থাকা পরিচয়পত্র থেকে র‌্যাব জানতে পারে, তার নাম মোহাম্মদ হোসেন (৪২)। বাড়ি চট্টগ্রামের পটিয়ায়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালাতে গিয়ে তিনটি আগ্নেয়াস্ত্র এবং পড়ে থাকা একটি ব্যাগে ইয়াবাগুলো পাওয়া যায় বলে এএসপি মিমতানুর রহমান জানান। এ ঘটনায় শুক্রবার সকাল পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি। এমআর/ডব্লিউএন

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি