ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১১:২৯:৫২

ছাত্রলীগ নেতা হত্যায় সাবেক ওসির ১০ বছর জেল

পনেরো বছর আগের সুনামগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতা ওয়াহিদ্দুজামান শিপলু হত্যার দায়ে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর থানার সাবেক ওসি শরিফ উদ্দিনকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে অতিরিক্ত জেলা জজ আদালত। এছাড়া তাকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে, অনাদায়ে তাকে আরও তিন মাস কারাভোগ করতে হবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রণয় কুমার দাশ এ রায় দেন। দণ্ডিত শরিফ উদ্দিন ওই সময় তাহিরপুর থানার ওসি ছিলেন। এ মামলায় ছয় জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে। যাদের মধ্যে পাঁচ বিএনপি ও ছাত্রদল নেতাকর্মী এবং একজন পুলিশ সদস্য রয়েছেন। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডিত শরিফ উদ্দিনসহ সব আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০০২ সালের ২০ মার্চ তাহিরপুর উপজেলার ভাটি তাহিরপুর গ্রামের বাসিন্দা ও বাদাঘাট কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি ওয়াহিদ্দুজামান শিপলু নিজ বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন। এর তিন দিন পর ২৩ মার্চ শিপলুর মা আমিরুন নেছা বাদী হয়ে সুনামগঞ্জের একটি ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সাতজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি কবির রুমেন বলেন, ওসি ছাড়া অন্য আসামিদের খালাস দেওয়ায় আমরা সংক্ষুব্ধ। এ রায়ের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে যাব। মামলা থেকে খালাস পেয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জামান কামরুল, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান উজ্জ্বল, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জুনাব আলী, বিএনপিকর্মী শাহীন মিয়া, কর্মী শাহজান মিয়া এবং তাহিরপুর থানার সাবেক উপ-পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম।   আর/ডব্লিউএন

দুর্নীতির মামলায় যুবলীগ নেতা আটক

সুনামগঞ্জে হাওরে ফসলহানি ও ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে দুর্নীতির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক খায়রুল হুদা ওরফে চপলকে আটক করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাত পৌনে ১২টায় ঢাকার হজরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য বুধবার দুপুরে গ্রেপ্তারের খবর নিশ্চিত করেছেন। জানা গেছে, খায়রুল হুদা জেলা শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি এবং বাঁধ নির্মাণের অন্যতম ঠিকাদার। চপল বর্তমানে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) পরিচালক। তিনি সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুটের ছোট ভাই। গত ২ জুলাই সুনামগঞ্জের হাওরে হাজার কোটি টাকার ফসলহানির ঘটনা ও ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে দুর্নীতির অভিযোগে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. ফারুক আহমদ। মামলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) ১৫ কর্মকর্তাসহ বাঁধের কাজের ৪৬ জন ঠিকাদারকে আসামি করা হয়। চপল এই মামলার অন্যতম আসামি। ওই দিনই দুদক ঢাকা থেকে পাউবোর সুনামগঞ্জ কার্যালয়ের বরখাস্ত হওয়া সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী আফছার উদ্দিন ও বাঁধের কাজের এক ঠিকাদার বাচ্চু মিয়াকে আটক করে। এই দুজন বর্তমানে জেলহাজতে আছেন। দুদকের মামলা ছাড়াও একইভাবে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে দুর্নীতির অভিযোগে জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে ৩ আগস্ট সুনামগঞ্জের বিশেষ আদালতে আরেকটি মামলা করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল হক। এই মামলায় দুদকের মামলার ৬১ আসামিসহ বাঁধের কাজের ৭৮ জন প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির (পিআইসি) সদস্যকে আসামি করা হয়েছে। এই মামলাও তদন্ত করছে দুদক। আরকে/ডব্লিউএন

জালালাবাদ গ্যাসলাইনের পাইপ থেকে আগুন

জালালাবাদ গ্যাসলাইনের পাইপ থেকে গ্যাস বেরিয়ে ভয়াবহ আগুনের ঘটনা ঘটেছে। এ আগুনে পুড়ে গেছে তিনটি গাড়ি। আহত হয়েছেন অন্তত ছয়জন। শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার কদমতলীর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের পাশে হঠাৎ গ্যাস বের হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়। এ সময় গ্যাসের চাপ কমায় বেলা সোয়া দুইটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, পাইপ থেকে গ্যাস বেরিয়ে দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে আগুন জ্বলেছে। পুলিশ নিরাপত্তার জন্য ঘটনাস্থলের আশপাশে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে। লোকজনকে নিরাপদ দূরত্বে থাকতে বলা হচ্ছে। পাইপ লাইন থেকে আগুন লাগার ঘটনার বিষয়ে জালালাবাদ গ্যাস ভবনে খবর পাঠানো হয়েছে। আর/ডব্লিউএন

বাহুবলে ৪ শিশু হত্যায় তিন আসামির ফাঁসি

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় ৪ শিশুকে হত্যার পর মাটিচাপা দেয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তিন আসামির ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। অপর দুই আসামিকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও তিনজনকে খালাস দেয়া হয়েছে। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মকবুল আহসান এ রায় দেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কিশোর কুমার কর গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ মামলার আসামিরা হলো- পঞ্চায়েত প্রধান আব্দুল আলী বাগাল, তার দুই ছেলে রুবেল মিয়া ও জুয়েল মিয়া, আব্দুল আলীর সেকেন্ড ইন কমান্ড আরজু মিয়া ও শাহেদ মিয়া। আসামিদের মধ্যে রুবেল মিয়া, আরজু মিয়া ও পলাতক উস্তার মিয়াকে ফাঁসির পাশাপাশি দশ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।  আর রুবেলের ভাই জুয়েল মিয়া ও শাহেদকে সাত বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন বিচারক।  হত্যাকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার  জুয়েল-রুবেলের বাবা আব্দুল আলী বাগাল এবং পলাতক আসামি বাবুল মিয়া ও বিল্লালকে আদালত খালাস দিয়েছেন। গত বছর ১২ ফেব্রুয়ারি গ্রামের মাঠে খেলা দেখতে গিয়ে নিখোঁজ হয় বাহুবলের সুন্দ্রাটিকি গ্রামের আবদাল মিয়া তালুকদারের ছেলে মনির মিয়া (৭), ওয়াহিদ মিয়ার ছেলে জাকারিয়া আহমেদ শুভ (৮), আবদুল আজিজের ছেলে তাজেল মিয়া (১০) ও আবদুল কাদিরের ছেলে ইসমাইল হোসেন (১০)। মনির সুন্দ্রাটিকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে, তার দুই চাচাত ভাই শুভ ও তাজেল একই স্কুলে দ্বিতীয় ও চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ত আর তাদের প্রতিবেশী ইসমাইল ছিল সুন্দ্রাটিকি মাদ্রাসায় পড়ত। এদিকে ঘটনার পরদিন বাহুবল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন জাকারিয়া শুভ`র বাবা ওয়াহিদ মিয়া। পরে ১৬ ফেব্রুয়ারি বাহুবল থানায় অপর আরেকটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন মনিরের বাবা আব্দাল মিয়া। ১৭ ফেব্রুয়ারি গ্রামের পাশের মাঠ থেকে মাটিচাপা দেয়া অবস্থায় চার শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। এরপরই অপহরণ মামলাটি হত্যা মামলা হিসেবে গৃহীত হয়। ঘটনার দিনই গ্রেফতার করা হয় গ্রামের একটি পঞ্চায়েতের সর্দার আব্দুল আলী বাগালকে। এরপর একে একে আরও ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে পুলিশি তদন্তে বেরিয়ে আসে গ্রাম্য পঞ্চায়েত নিয়ে বিরোধের জের ধরে খুন হয় ওই ৪ শিশু। তদন্ত শেষে ওই বছরের ২৯ এপ্রিল নয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির তৎকালীন ওসি মোক্তাদির হোসেন। এর মধ্যে বাচ্চু মিয়া নামে এক আসামি সিএনজি অটোরিকশা চালক র‌্যাবের সঙ্গে `বন্দুকযুদ্ধে` নিহত হয়। বর্তমানে কারাগারে আছেন মামলার প্রধান আসামি আবদুল আলী বাগাল, তার ছেলে জুয়েল মিয়া ও রুবেল মিয়া, ভাতিজা সাহেদ ওরফে সায়েদ ও অন্যতম সহযোগী হাবিবুর রহমান আরজু। হবিগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এ বছরের ৭ সেপ্টেম্বর মামলার বিচারকাজ শুরু হয়। ওইদিন মামলার চার্জ গঠন হয়। পরে চলতি বছরের গত ১৫ মার্চ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের আদেশে মামলাটি সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। //এআর  

ওসমানীতে বিমানে ৩০ স্বর্ণের বার জব্দ

সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একটি বিমান থেকে ৩০টি স্বর্ণের বার জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর। জব্দ করা সোনার ওজন সাড়ে ৩ কেজি। এ তথ্য নিশ্চিত করে সিলেট শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতরের সহকারী কমিশনার (এসি) প্রভাত কুমার সিংহ গণমাধ্যমকে জানান, সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবি থেকে আসা বাংলাদেশ বিমানের বিজি-০১২৮ ফ্লাইটটি রোববার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দার দল বিমানটিতে তল্লাশি চালায়। এ সময় ৩০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। তবে কাউকে আটক করা যায়নি। উদ্ধার সোনার বারগুলোর মোট ওজন সাড়ে তিন কেজি; দাম প্রায় পৌনে দুই কোটি টাকা বলে প্রভাত কুমার সিংহ জানান। //এআর  

৪ আসামি গ্রেফতার

সিলেট বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের সময় গুলিতে এক ছাত্রলীগ কর্মী নিহতের ঘটনায় মামলা হয়েছে। নিহত লিটুর বাবা খলিল উদ্দিন সোমবার রাতে বিয়ানীবাজার থানায় মামলাটি করেছেন। পুলিশ সুত্রে জানা যায়, এ মামলায় সাতজনের নাম উল্লেখসহ আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর পর্যন্ত পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজহারভুক্ত চার আসামিকে গ্রেফতার করেছে। সোমবার দুপুরে কলেজে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের আপ্যায়নবিষয়ক সম্পাদক পাভেল মাহমুদের অনুসারীদের সঙ্গে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবুল কাশেম পল্লবের সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের পর খালেদ আহমদ লিটুসহ পাভেলের পক্ষের কয়েকজন কলেজের একটি কক্ষে বসে ছিলেন। এ সময় কয়েকজন এসে তাদের দিকে গুলি করলে ঘটনা স্থালেই লিটু মারা যায়। ঘটনার পর ২২ জুলাই পর্যন্ত কলেজের শিক্ষা কার‌্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়। //আর//এআর

সিলেটে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের গোলাগুলি, নিহত ১

সিলেট বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে গোলাগুলিতে সংগঠনের এক কর্মী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। জানা গেছে, নিহত ছাত্রলীগকর্মী খালেদ আহমেদ লিটু (২৫) পাভেল গ্রুপের সদস্য। গোলাগুলির পর ক্যাম্পাসে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ফের সংঘর্ষের আশঙ্কায় ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কয়েক দিন ধরেই কলেজে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ছাত্রলীগের পাভেল ও পল্লব গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ক্যাম্পাসে গোলাগুলির এক পর্যায়ে লিটুর মাথায় গুলি লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ দ্বারকেশ চন্দ্র নাথও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করছেন। তিনি জানান, নিহত লিটু কলেজের ছাত্র নয়। সে স্থানীয় একটি মোবাইলের দোকানের কর্মচারী। তবে সে ছাত্রলীগ করতো। সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা জানান, ওই ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। //আর//এআর  

সম্পত্তির জন্য ১৬ বছর  ধরে গৃহবন্দি লিয়াকত

সম্পত্তির লোভে লিয়াকত আলী নামে শিক্ষিত এক যুবককে ১৬ বছর ধরে শিকল বাঁধা অবস্থায় গৃহবন্দি করে রেখেছে তার ভাইয়েরা। বাড়ির পৈতৃক সম্পত্তির তার ভাগের অংশে ছোট পাকা টিনশেটের একটি ঘরে অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে রাখা হয়েছে তাকে। এই ঘরের মধ্যেই তার নিত্য দিনের আহার ও প্রাকৃতিক কার্যাদি সম্পাদন করতে হয়। ঘরের গ্রিলের সামনে দিনে ও রাতের বেলা অপলক চোখে তাকিয়ে থাকেন লিয়াকত (৩৬)। এই আশায় যে, কেউ তার ঘরের দুয়ার খোলে দিবে আর তিনি বের হয়ে একটু মুক্ত পৃথিবীর আলো বাতাসের স্বাদ নিবেন। কিন্তু ১৬ বছর ধরে তার এই আশা পূরণ হচ্ছে না। কমলগঞ্জ উপজেলার বিক্রমকলস গ্রামের ঘটনা এটি। জানা গেছে, বিক্রমকলস গ্রামের বারহাম আলী ও মা মৃত আমিরা বেগমের ৬ ছেলে ও ১ মেয়ের মধ্যে ৫ম সন্তান লিয়াকত আলী। ৬ ভাইয়ের মধ্যে ৩ ভাই ব্যবসা করছেন। আর ২ ভাই মধ্যপ্রাচ্যে চাকরি করেন। বাড়িতে থাকা লিয়াকত সুস্থ ও স্বাভাবিক মানুষ হিসেবে বেড়ে ওঠেন। ১৯৯৭ সালে তিনি এইচএসসি পাস করেন। পরিবারের সদস্যরা জানান, ২০ বছর বয়সে লিয়াকতকে বিয়ে করানো হয়েছিল একই উপজেলার কালাছড়া গ্রামে। বিয়ের কিছুদিনের মধ্যে স্ত্রী তাকে রেখে বাবার বাড়িতে ফিরে যায়। আর ফিরে আসেননি। এরপর ওই বছরের শেষের দিকে লিয়াকত মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন। গৃহবন্দি লিয়াকত আলীর বড় ভাই স্থানীয় মুন্সীবাজারের ব্যবসায়ী আয়ুব আলীর দাবি, ১৫-১৬ বছর থেকে সে অসুস্থ। তাকে সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে একাধিকবার তাকে চিকিৎসা করানো হয়েছে। কিন্তু কোনো সুফল পাওয়া যায়নি। তাই তাকে নজরবন্দি করে রাখা হয়েছে। এ ব্যাপারে কমলগঞ্জের ইউএনও মাহমুদুল হক বলেন- বিষয়টি আমার জানা নেই। এটা অমানবিক। এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। //আর  

মিস কল থেকে প্রেম পরিণতি ১৪ দিন বাসায় রেখে ধর্ষণ

মুঠোফোনে মিস কল থেকে পরিচয়। এরপর আলাপন। এক পর্যায়ে প্রণয়। এরই ধারবাহিকতায় সম্পর্ক আরও গভীর হয়। টানা এক বছর গোপন অভিসারে একে অপরের সঙ্গে দেখা করা। মধুর এ সম্পর্কের পরিণতি রূপ নেয় বিষাদে, কথিত প্রেমিকের পাশবিকতায়। ওই প্রেমিকরূপী নরপশু প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভনে নিজ বাড়িতে ১৪ দিন রেখে ধর্ষণ করেছে। এখানেই শেষ নয়। গ্রাম্য শালিসে ওই তরুণীর সম্ভ্রমের মূল্য ৭০ হাজার টাকা ধার্য করে রফাদফার প্রস্তাব করা হয়েছে। সুনামঞ্জের ছাতক উপজেলার সৈদরগাঁও ইউনিয়নের দারণ গ্রামের ঘটনা এটি। ওই গ্রামের আবদুল কাহারের ছেলে আবদুল আলীম প্রেমিকাকে ধর্ষণ শেষে  বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়। এ ঘটনায় তরুণী মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ভুক্তভোগী তরুণী (২২) এ প্রতিবেদককে জানান, ৭ মে আলীম তাকে ফোন করে শেওলা জিরো পয়েন্টে যেতে বলে। সেখানে তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবে তরুণী প্রথমে রাজি হননি। পরে তার জোরাজুরিতে রাজি হন। রাত সাড়ে ১২টায় আলীম তরুণীকে নিয়ে যায় তার ছাতক উপজেলার দারণ গ্রামের বাড়িতে। সেখানে রাত ২টার দিকে ভয় দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করে আলীম। তরুণীর কান্না দেখে আলীম বাড়ি থেকে চলে যায়। দু’দিন পর ফিরে এসে বিয়ের আয়োজনের কথা বলে ফুসলিয়ে ধর্ষণ করতে থাকে। ২১ মে তরুণীর স্বজনরা ওই বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করে। ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের, বিলাল চেয়ারম্যানসহ স্থানীয়রা সালিশে সমাধান করার কথা বলেন। সেখানে তরুণীর ওপর অপবাদ দেয়া হয়। তরুণীর সম্ভ্রমের মূল্য ৭০ হাজার টাকা ধার্য করে রফাদফা করার প্রস্তাব করা হয়। এতে অপমানে ক্ষোভে তরুণী আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। বিয়ানীবাজার কুড়ারবাজার ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের বলেন, আলীমের মামা বিলাল চেয়ারম্যান তরুণীর পারিবারকে ৭০ হাজার টাকা দিয়েছেন। এ টাকার ২০ হাজার তরুণীর চাচার কাছে রয়েছে। ৫০ হাজার টাকা আমার কাছে আছে। মেয়ের পক্ষ টাকা নেয়নি। //এআর  

ঘরের মেঝে খুঁড়ে শিশুর লাশ উদ্ধার

মৌলভীবাজারে চাচাতো ভাইয়ের বসত ঘরের মেঝে খুঁড়ে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সদর উপজেলার মনুমুখ ইউনিয়নের সাধুহাটি গ্রামের আল আমিনের বসত ঘর থেকে রোববার রাবত এই লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত শিশুর নাম কামরান আহমদ তামিম (৬)। সে ওমান প্রবাসী কয়েছ মিয়ার ছেলে। মৌলভীবাজার থানার ওসি মো. সোহেল আহাম্মদ জানান,রোববার রাতে শিশু কামরানের চাচাতো ভাই আল আমিনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার বসতঘরের মেঝে খুঁড়ে মুখেচোখে টেপ দিয়ে মোড়ানো কামরানের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ১৫জনকে আটক করা হয়েছে। আটকদের মধ্যে কামরানের চাচাতো ভাই আল আমিন (২৬), আল আমিনের বন্ধু রবিউল মিয়া (২৫) ও জনি মিয়ার (২২) নাম প্রকাশ করেছে পুলিশ। নিহত শিশুর দাদা এবাদত মিয়া জানান, কামরান বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে বাড়ির উঠোনে সাইকেল চালাচ্ছিল। সেখান থেকে নিখোঁজ হয়। বিকালে তার চাচা রাসেলের ফোনে কল করে এক ব্যক্তি ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে ৭২ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেয়। বিষয়টি পুলিশকে জানানোর পর তারা অভিযান চালায়। পুলিশ আল আমিনকে আটক করে। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী, ঘরের মেঝে খুঁড়ে কামরানের লাশ উদ্ধার করে। পারিবারিক দন্দ্ব ও মুক্তিপণ আদায়ের জন্যই এই হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে বলে পুলিশ ধারণা করছে। //এআর  

ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া বনের ভেতরের রেললাইন

ঝুঁকিপুর্ন হয়ে পড়েছে মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া বনের ভেতরের রেললাইন। কখনও লাইনের উপরে গাছ পড়ে, কখনও মাটি ধসে বন্ধ হয়ে যায় রেল যোগাযোগ। এতে চরম দূর্ভোগে পড়েন যাত্রীরা। তবে লাউয়াছড়া বনের ভেতরে রেলবিভাগের নিয়ন্ত্রাণাধিন এলাকায় পাহাড় কেটে লেবুগাছ লাগানোই ধসের অন্যতম কারণ বলে জানিয়েছে বন বিভাগ। এভাবে বনের ভেতরে রেললাইন ও পাকা সড়ক লাউয়াছড়া বনকে করেছে খন্ড বি-খন্ড। আর রেললাইনের দুপাশে ভুমি খেকোরা পাহাড়ের গাছ কেটে সেখানে লাগিয়েছে লেবু বাগান। ফলে চলমান ভারী বর্ষণে পাহাড় ধসে রেললাইনের ওপর পড়ে বন্ধ হয়ে যায় রেলযোগাযোগ। কয়েকদিন আগেও রেললাইনের উপর গাছ পড়ে দুর্ঘটনার মুখে পড়ে একটি ডেমু ট্রেন। এতে ১০ ঘণ্টা বন্ধ থাকে সিলেট আখাউড়া রেল চলাচল। প্রায়ই ঘটে এধরনের ঘটনা।এছাড়া অবৈধ ও অপরিকল্পিত লেবুবাগানের কারণে এখনও বনের ভেতরে ঝুঁকিতে রয়েছে বেশ কিছু জায়গা। ভক্সপপ- বনবিভাগের কর্মী ও আরও একজনএসব কারণে একদিকে যেমন ঝুঁকিতে রয়েছে লাউয়াছড়া বনের ভিতরে ১২৫০ হেক্টর এলাকার রেল লাইন তেমনি ঝুঁকিতে জীববৈচিত্রও। তাই লাউয়াছড়া রেললাইন ও পাকা সড়কটি বনের ভিতর থেকে সরিয়ে নেয়ার দাবী বন বিভাগের।লাউয়াছড়া বনের রেললাইনের পাশ থেকে লেবু বাগান অপসারণ ও রেল লাইনটি বনের বাইরে স্থানান্তরের দাবী মৌলভীবাজারবাসীর।

ঐতিহ্যবাহী নানা খাবারের সমাহার নিয়ে সিলেটে জমজমাট ইফতার বাজার

ঐতিহ্যবাহী নানা খাবারের সমাহার নিয়ে সিলেটে জমজমাট ইফতার বাজার। খিচুরি, তেহারী, বিরিয়ানী ছাড়াও বাহারি ইফতারের পসরা সাজিয়ে রোজাদারদের আকৃষ্ট করছেন বিক্রেতারা। কিন্তু এসব খাবার কতটুকু স্বাস্থ্যসম্মত এ’নিয়ে সংশয়ে আছেন ক্রেতারা। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান বন্ধ থাকায় খাবারে ভেজাল নির্ণয়ের সুযোগ থাকছে না। যদিও খাবার প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের বাবুর্চিসহ সংশ্লিষ্টদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার উদ্যোগ নিয়েছে সিটি করপোরেশন। গরুর কালিয়া, খাসীর লেগরোস্ট, জালি কাবাব, হালিম, বটি কাবাব, চিকেন বল, আছে বাহারি রং ও আকৃতির জিলাপি। মুখরোচক এসব খাবারের পসরা সাজিয়ে বসে সিলেটের ইফতার বাজার।রোজাদারদের আকৃষ্ট করতে দুপুর থেকেই এসব খাবার সাজাতে শুরু করেন বিক্রেতারা। নগরীর পাঁচভাই, পালকি, পানসি ও ভোজনবাড়িতে ভোজনরসিকদের আনাগোনা বেড়ে যায় এসময়। এছাড়াও নগরীজুরেই খোলাবাজারে বিক্রি হচ্ছে ইফতার সামগ্রী। তবে ভেজাল মিশ্রিত খাবার বিক্রি রোধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান না থাকায় ইফতার সামগ্রীর মান নিয়ে শংকায় ক্রেতারা। তবে এসব ইফতার সামগ্রী মানসম্মত বলে দাবি করেছেন বিক্রেতারা।এদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান বন্ধ থাকলেও রেস্তোরার বাবুর্চি-সহ সংশ্লিষ্টদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার উদ্যোগ নিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। শুধু রেস্তোরাই নয়, খোলাবাজারেও এরকম উদ্যোগ নেয়ার দাবি সাধারন মানুষের।  

ওএমএস এবং ভিজিএফ- ভিজিডি কার্যক্রমের অব্যবস্থাপনা,যোগান অপর্যাপ্ত

সব কিছু হারিয়ে বর্তমানে আয় উপার্জনের কোন পথ অবশিষ্ট নেই, আগাম বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সুনামগঞ্জের হাওরে মানুষদের। তাই, অত্যন্ত মানবেতর জীবন পাড় করতে হচ্ছে, তাদের। এর পাশাপাশি, ওএমএস এবং ভিজিএফ- ভিজিডি কার্যক্রমের অব্যবস্থাপনা আর অপর্যাপ্ত যোগানও ভোগাচ্ছে, এই মানুষদের। দ্রুতই কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা যায়, এমন উদ্যেগ গ্রহনে দাবী ভাগ্যহত এসব মানুষের। অন্যান্য বছরগুলোতে সাধারনত ৬ মাস, জলমগ্ন থাকে, হাওর অঞ্চল। সেসময়, থাকতো না, বিকল্প আয়ের কোন পথ। আর, এবারে, অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে আগাম বন্যা, ঘূর্ণিঝড় সাথে ফসল হানি ও মাছ ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় একে বারেই বে-কায়দায় এ অঞ্চলের মানুষ। আয় রোজগার একেবারেই নেই। তাই চারদিক হাহাকার। কাজের সন্ধানে, বেকার মানুষ ছুটছে রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন শহরতলীতে। ইউনিয়ন পর্যায়ে ওএমএস এবং ভিজিএফ চালু থাকলেও এরিমধ্যে, নানান অব্যবস্থাপনা’র অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। চালের পরিমানও যথেষ্ঠ মনে করছেন না, ক্ষতিগ্রস্থরা। সরকারের সদিচ্ছা আছে, কিনতু মাঠ পর্যায়ে তৎপরতা এবং বাস্তবায়ন নিয়ে কিছুটা ক্ষোভ জন প্রতিনিধিদের। ঘটনার তাৎক্ষণিকতায় প্রথম দফায়, ত্রাণ কার্যক্রমে কিছু অব্যবস্থাপনা মানছেন কতৃপক্ষও। তবে, জুন ও জুলাই মাসে যে, সহায়তা আসবে, সেখানে সব কিছু শুধরে নেওয়ার আশ্বাস সংশ্লিষ্টদের।কর্মসংস্থান সৃষ্টির প্রয়াসে, ইজিপি প্রকল্পে এরিমধ্যে ১৫ কোটি টাকা, বরাদ্দ করেছে সরকার।    

মৌলভীবাজারে মনু ও ধলই নদীর পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

মৌলভীবাজারে মনু ও ধলই নদীর পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়া গ্রামগুলোর পানি নামতে শুরু করলেও এখনো পানিবন্দি রয়েছে অন্তত আট হাজার মানুষ। এদিকে কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়ায় সবচেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছে মৌলভীবাজার শহর। শ্রীমঙ্গলে মাছের ঘের তলিয়ে ভেসে গেছে কোটি টাকার মাছ। আকস্মিক বন্যায় হাজার হাজার মানুষ এখনো পানিবন্দি। শেরপুরে কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় শহরের পাকা রাস্তা ডুবে গেছে।জেলা প্রশাসনের হিসেব অনুযায়ী, মৌলভীবাজারের ৭ উপজেলায় প্রায় ৮ হাজার মানুষ পনিবন্দি এবং ৩ হাজার একর জমি এখনো পনির নিচে। তলিয়ে যাওয়া এলাকার মানুষেররা অনেকেই আশ্রয় নিয়েছেন বাঁধে। এরইমধ্যে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ৪০টন জিআর চাল ও নগদ দেড় লক্ষ টাকা বিতরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক। আর পানি নামলেই মনু, ধলই ও কুশিয়ারা নদীর ঝুঁকিপূর্ণ ৩৯টি পয়েন্টে বাঁধ মেরামতের কাজ করা হবে বলে জানান পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা।এদিকে শ্রীমঙ্গলের হাইল হাওরে কয়েকশ মাছের ঘের ডুবে গিয়ে পানিতে ভেসে গেছে কোটি টাকার মাছ।

মৌলভীবাজারে মনু ও ধলই নদীর বাঁধে ভাঙ্গন; পানিবন্দী মানুষ

মৌলভীবাজারে রাজনগর, কমলগঞ্জ ও কুলাউড়া উপজেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত মনু ও ধলই নদীর ৬টি স্থানে নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে প্লাবিত হওয়ায় অর্ধশত গ্রামের মানুষ এখনো পানিবন্দী রয়েছে। মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শংকর চক্রবর্তী জানান, সোমবার বিকেল থেকে পানি কমতে শুরু করেছে। রাতেই মনু ও ধলই নদীর পানি বিপদসীমার প্রায় ১ মিটার নিচে নেমে গেছে। তিনি জানান, উজানের ঢল ও ভারিবর্ষন না হলে নতুন করে প্লাবিত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তবে মনু নদীর চাঁদনী ঘাট এলাকা এবং কুশিয়ারা নদীর শেরপুর অংশে এখনো পানি বিপদসীমার কাছাকাছি অতিবাহিত হচ্ছে। এদিকে গত কয়েক দিনের টানা বর্ষনে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসী সহায়তা কামনা করেছেন।  

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি