Ekushey Television

বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে: তোফায়েল

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৬:৪৩ পিএম, ১৩ জুন ২০১৮ বুধবার

বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে: তোফায়েল

বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে: তোফায়েল

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপি অস্তিত্ব সংকটে পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ভোলার বোরহানউদ্দিন পৌরসভায় ভোলা-২ আসনের সাংসদ আলী আযম মুকুল এমপির পক্ষে ঈদ উপহার কাপড় ও লুঙ্গি বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ মন্তব্য করেন।

তোফায়েল বলেন, পাঁচটি সিটি করপোরেশেন বিজয়ী হয়েও নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা ছিল বিএনপির ভুল, এটা তারা স্বীকারও করে। এমনকি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়াকে আহ্বান করেছিল আপনি আসেন বসেন, আমরা নির্বাচন করি। কিন্তু তিনি আসেননি। সুতরাং আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করে তাহলে তাদের অস্তিত্ব সংকটে পড়বে। আমার কাছে মনে হবে এটা বিএনপির জন্য রাজনৈতিক আত্মহত্যা হবে।

তিনি আরও বলেন, যদি বিএনপি নির্বাচন করে তাহলে তাদের আরও তৎপর হতে হবে। জ্বালাও পোড়াও আন্দোলনের জন্য মওদুদ আহমদ যে হুমকি দেয় তারা কঠিন সংগ্রাম করবে, এটা মওদুদ আহমেদের মধ্যে কঠিন আন্দোলন সংগ্রাম করা সম্ভব না। কারণ তারা উপলব্ধি করেছে ১৩ সালে, ১৪ তে। ৯৩ দিন  হরতাল অবরোধের নামে দেশকে ধ্বংষ করেছে, তারা ব্যর্থ হয়েছে। আগামীতেও ব্যর্থ হবে। আর যারা বার বার ব্যর্থ হয় তারা আগাম নির্বাচনে ব্যর্থ  হবে।

বর্তমান সরকারের মেয়াদ ২৯ জানুয়ারি পর্যন্ত উল্লেখ করে বানিজ্যমন্ত্রী বলেন, ২৯ জানুয়ারি পর্যন্ত এ সরকার থাকবে, আমরা সংসদ সদস্যরাও থাকব। কিন্তু এই ২৯ জানুয়াররি ৯০ দিন আগে যেকোনো দিন নির্বাচন হবে। ওই নির্বাচনের সময় বর্তমান যে ক্ষমতাসিন সরকার দৈনন্দিন কাজ করবে।  তখন তারা নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করবে না। নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন যথা সময়ে সংবিধান অনুসারে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন দক্ষতার সঙ্গে, সততার সঙ্গে, নিষ্ঠার সঙ্গে সেই নির্বাচন পরিচালনা করবে।

এ ছাড়াও একইদিনে অপর এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, যত কথা মওদুদ আহমদরা বলুক না কেনো, আগামী নির্বাচনে তারা অংশ গ্রহণ করবে। কিন্তু নির্বাচনের আগে তারা একটা গোলোযোগ সৃষ্টি করার চেষ্টা করবে, কিন্তু তারা জানে তারা সফল হবে না। ১৪ সালের নির্বাচন বানচাল করার আপ্রাণ চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। সুতরাং সেই ব্যর্থতার দিকে তারা যাবে না। তাদের উচিৎ হবে নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা।

বোরহানউদ্দিন উপজেলার কুতবা, কাচিয়া, টবগি,পক্ষীয়া ইউনিয়নে ও পৌরসভায় ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বোরহানউদ্দিন পৌর চ্যেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল কুদ্দুস,উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাব্বত-জান চৌধুরীসহ অনান্যরা।

টিআর/ এসএইচ/