Ekushey Television

রাশিয়া বিশ্বকাপ: নেইমারের খেলায় খুশি নন রোনাল্ডো

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৫৫ এএম, ১২ জুলাই ২০১৮ বৃহস্পতিবার

রাশিয়া বিশ্বকাপ: নেইমারের খেলায় খুশি নন রোনাল্ডো

রাশিয়া বিশ্বকাপ: নেইমারের খেলায় খুশি নন রোনাল্ডো

চার বার বিশ্বকাপ খেলেছেন। তার দু’বার কাপ জিতেছে ব্রাজিল। রাশিয়া বিশ্বকাপে তিতের দলের ব্যর্থতার কারণ বিশ্লেষণ করার উপযুক্ত লোক কিংবদন্তি রোনাল্ডো নাজারিয়ো। করলেনও। এমনকি নেইমার দা সিলভা স্যান্টোসের (জুনিয়র) মৃদু সমালোচনাও পাওয়া গেল তার প্রতিক্রিয়ায়।

এক টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বড় রোনাল্ডো নেইমার প্রসঙ্গে বললেন, ‘ওর (নেইমারের) কাছ থেকে আমাদের প্রত্যাশা আরও অনেক বেশি ছিল। কারণ ও-ই এই দলটার সত্যিকারের বড় তারকা।’ এখানেই থামেননি বিশ্বজয়ী ব্রাজিলের প্রাক্তন মহাতারকা। তার কথা, ‘জানি না পায়ে অস্ত্রোপচার না অন্য কোনও কারণে ও তেমন কিছু করতে পারল না। কিন্তু পারেনি যে সেটাই সত্যি। যে কারণেই হোক রাশিয়ায় নিজেকে একটা গণ্ডির মধ্যে আবদ্ধ রেখেছিল।’

মৃদু সমালোচনা করলেও রোনাল্ডো অবশ্য নেইমারকে নিয়ে আশার কথাও শুনিয়েছেন। ‘ওর বয়স অনেক কম। প্রতিভাবানও। সামনে আরও সময় পড়ে রয়েছে। অনেক দায়িত্ব ওর কাঁধে। সেই দায়িত্ব পালনও করতে হবে। আর তার জন্য ওকে এখনও অনেক কিছু শিখতে হবে।’

রোনাল্ডো নিজেও এক জন দুর্দান্ত স্ট্রাইকার ছিলেন। বার বার তাকেও বিপক্ষ ডিফেন্ডারদের কড়া ট্যাকলের সামনে পড়তে হয়েছে। নেইমারকেও সেই একই পরিস্থিতিতে হামেশাই পড়তে হয়। তবে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, হালফিলে কোনও সংঘর্য ছাড়াই নেইমার ডাইভ দিয়ে নাটক করছেন ফাউল আদায় করতে। এই প্রসঙ্গে রোনাল্ডোর কথা, ‘বছর পাঁচেক আগে ওর সঙ্গে আমার এটা নিয়ে কথা হয়েছিল। তখন ও বলেছিল, ডিফেন্ডারদের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হলে এভাবেই ও ডাইভ দেয়। এটাই ওর স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া। হতে পারে সব ক্ষেত্রে এটা নিষ্ঠুর ট্যাকলের ঘটনা থাকে না। তবে ট্যাকল তো হয়ই। চোটও লাগে। আমার নিজের ক্ষেত্রেও এ রকম প্রচুর হয়েছে। আমিও দেখেছি অনেক বার ফাউল হওয়া সত্ত্বেও রেফারি বাঁশি বাজাননি। কী আর করা যাবে!’

রোনাল্ডোর সময় সোশ্যাল ওয়েবসাইটে কোনও ঘটনা নিয়ে এভাবে বিদ্রুপ করা হত না। এই মাধ্যমটি এতটা শক্তিশালীও ছিল না। কিন্তু নেইমারের অভিজ্ঞতা খুব খারাপ। তার ডাইভ নিয়ে প্রতিদিনই নতুন নতুন রসিকতা হচ্ছে। কখনও অ্যানিমেশনে। কখনও বা ফোটোশপে। রোনাল্ডোরও ব্যাপারটা ভাল লাগেনি। তার কথা, ‘সোশ্যাল মিডিয়া সত্যি সত্যিই কখনও কখনও অতিরিক্ত সৃষ্টিশীল হয়ে উঠছে। কিন্তু এখন এ রকম ঘটতেই থাকবে। নেইমারকেও  মেনে নিতে হবে। এ সব নিয়ে মাথা ঘামানোর কোনও দরকার নেই।’ এই প্রসঙ্গে রোনাল্ডোর আরও মন্তব্য, ‘ম্যাচের সময় নেইমারকে নিজের আবেগ আরও ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। হলুদ কার্ড আদায় করতে মাঝে মাঝে ও অতিরিক্ত ঝুঁকিও নিয়ে ফেলছে। এভাবে নিজের শক্তিক্ষয় করার কোনও মানে হয় না। এগুলোই ওকে এখন আরও বেশি করে শিখতে হবে,’ বলেছেন রোনাল্ডো নাজারিয়ো।

সূত্র: আনন্দবাজার

একে//